প্রকাশ : 2021-05-06

ঈদের ছুটিতেও খোলা থাকছে বন্দর

০৬,মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের প্রধান সমুদ্র বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম সচল রেখে সাপ্লাই চেইন ঠিক রাখতে ঈদের ছুটিতেও বন্দরের কার্যক্রম চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে গতকাল বুধবার বন্দর ভবনে স্টেকহোল্ডাদের সাথে বৈঠক করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুধুমাত্র ঈদের দিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ৮ঘণ্টা ব্যতিত অন্য সময় বন্দরের স্বাভাবিক কার্যক্রম সচল রাখা হবে। এমনকি ঈদের ছুটির মধ্যে সপ্তাহিক ছুটিতেও পণ্য আমদানি-রপ্তানির জন্য পর্যাপ্ত জনবল নিয়োগসহ সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বেসরকারি অফডকগুলোতেও নির্ধারিত ৮ঘণ্টা ব্যতিত অন্যান্য সময়ে পর্যাপ্ত লোকবল ও ইকুইপমেন্ট প্রস্তুত রাখার জন্যও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া শুল্কায়নের জন্য কাস্টমস কর্মকর্তাদের প্রস্তুত রাখতে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। একই সাথে সিএন্ডএফ এজেন্টস প্রতিনিধি, শিপিং এজেন্টস অফিসসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রস্তুতি নিতেও নির্দেশন দেওয়া হয়েছে। পণ্য ডেলিভারির ডিও লেটার প্রাপ্তির বিষয় নিশ্চিত করতেও বলা হয়েছে। ঈদের ছুটিতে বন্দরের নিরাপত্তা বাড়ানো হবে বলেও বৈঠকে উল্লেখ করা হয়। প্রতিটি কনটেইনারে পর্যাপ্ত লক সিস্টেম নিশ্চিত করতে বন্দরের নিরাপত্তা শাখাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এছাড়া, ব্যাংকিং কার্যক্রমের জন্য বন্দরের অভ্যন্তরে থাকা ওয়ান স্টপ সার্ভিসে অবস্থিত ব্যাংকের বুথসমুহ খোলা রাখার জন্যও বাংলাদেশ ব্যাংককে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বৈঠকে অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে ১৮৫ মিটারের বড় জাহাজ বন্দর জেটিতে ভিড়ানোর জটিলতা নিরসনের ব্যাপারেও আলোচনা হয়েছে। এ ব্যাপারে শিপিং এজেন্টসদের সাথে বৈঠক করে জটিলতা নিরসনে করণীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলেও আশ্বস্ত করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। শিপিং এজেন্টস এসোসিয়েশনের পরিচালক খায়রুল আলম সুজন বলেন, বন্দর চেয়ারম্যানকে বিশেষ ধন্যবাদ জানাই বড় জাহাজ বন্দর জেটিতে ভিড়ানোর ব্যাপারে আলোচনা করার জন্য। তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন বড় জাহাজ ভিড়ানোর শর্তগুলো শিথিল করতে আলোচনা করা হবে। এর মাধ্যমে বড় জাহাজ বন্দর জেটিতে ভিড়লে উপকৃত হবে বন্দর নিজেই। অধিক পণ্যবাহী জাহাজ আসলে ব্যবসায়ীদেরও খরচ কমবে। উভয়েই উপকৃত হবে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর