প্রকাশ : 2020-10-25

অপরাধী ছেলেকে পুলিশের হাতে দিলেন মা

২৫,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাধারণত ছেলে যতই অপরাধী হোক মা ছেলেকে ঢাল হিসেবে আগলে রাখেন। তবে অনেক ক্ষেত্রে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল মায়ের আচরণ আবেগকে পরাজিত করে। তেমনই এক মা নিজ ছেলেকে মোটরসাইকেল চুরির দায়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন। ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সিএমপির কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান, গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে রিয়াজউদ্দিন বাজার তামাকুমন্ডি লেইনের বিপরীত পাশে পার্ক করে তালা মেরে মোবাইল মেরামত করতে যান জনৈক মোহাম্মদ আশফাক হোসেন। কিছুক্ষণ পর এসে দেখেন তার মোটরসাইকেলটি নেই। অনেক খোঁজাখুঁজির পর জানতে পারেন, কোন এক ছেলে এসে তার নিজের মোটরসাইকেল বলে তা রিক্সায় উঠে নিয়ে গেছে। হতভম্ব হয়ে আশফাক হোসেন তাৎক্ষণিকভাবে ছুটে যান টিম কোতোয়ালির একটি টহল দলের কাছে। সেখানে টহল টিমের দায়িত্বে থাকা সাব-ইন্সপেক্টর মনজুরুল আলম ভূঞাঁ ঘটনা শুনে কালবিলম্ব না করে ছুটে যান টিম কোতোয়ালির মশাল হাতে আশাহতের আশার আলো হয়ে। এরপর সম্ভাব্য সব জাগায় খোঁজাখুঁজির পর পুলিশকে দেখে এক যুবক জানান, একটি মোটরসাইকেলকে রিক্সায় করে আসকার দিঘীর পাড় এলাকায় নিয়ে যেতে দেখেছেন এক কিশোরকে। এ সংবাদে অভিযানে আসে এক নতুন মাত্রা ও গতি। সংবাদের ভিত্তিতে আসকার দিঘীর দক্ষিণ পাড়ের শতদল ক্লাবের পাশে একটি গলিতে তুহিন ভূঁইয়া (২২) নামের যুবকের হেফাজত হতে উদ্ধার করা হয় আশফাক হোসেনের স্বপ্নের মোটরসাইকেলটি- যোগ করেন ওসি কোতোয়ালী। তবে এর পেছনের ঘটনা বলতে গিয়ে ওসি মহসীন বলেন, আমাদের টিম যখন ওই এলাকায় অভিযান করছিল তখনই স্কুলের পিয়নের কাজ করা ওই মা নিজের বিবেকের কাছে আবেগকে পরাজয় করান। তিনি নিজে এসে পুলিশকে বাসায় নিয়ে ছেলেকে আইনের হাতে যেমন তুলে দেন তেমনি মোটরসাইকেলও ফেরত দেন। এমন মাকে আমাদের টিম কোতোয়ালীর পক্ষ থেকে সম্মান-শ্রদ্ধা। আটক তুহিন ভূঁইয়া ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করে এখন সিএনজি অটোরিকশা চালায় বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে। তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে একটি মামলা দায়ের করার কথাও জানিয়েছে পুলিশ।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর