আগামী ৬-৭ সপ্তাহের মধ্যে ২৫ কোটি টিকা পাচ্ছে কোভ্যাক্স
২৯জুলাই ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর : কোভ্যাক্স আগামী ছয় থেকে সাত সপ্তাহের মধ্যে অনুদানের ২৫ কোটি ডোজ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পাওয়ার আশা করছে। বুধবার (২৮ জুলাই) বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একথা জানিয়েছে। খবর এএফপির। খবরে বলা হয়, এসব টিকার অন্তঃপ্রবাহ কোভ্যাক্সকে সহযোগিতার সবচেয়ে বড় একটি চালান। আর এ কর্ম-পরিকল্পনার প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে বিশ্বের অতি দরিদ্র দেশগুলোর টিকা পাওয়ার সুযোগ নিশ্চিত করা। কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় এ পর্যন্ত ১৫ কোটি ২০ লাখ টিকা সরবরাহ করা হয়েছে। বিশ্বের ১৩৭ দেশ ও ভূখণ্ডের মধ্যে এসব টিকা বিতরণ করা হয়। বুধবার সাপ্তাহিক কার্যক্রম হালনাগাদ করে ডব্লিউএইচও জানায়, ইউএন ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট টিমের সাম্প্রতিক এক বৈঠকে তারা জানিয়েছে যে কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে ভ্যাকসিন অনুদান বৃদ্ধি করা হবে। এক্ষেত্রে আগামী ছয় থেকে সাত সপ্তাহের মধ্যে আরও ২৫ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন পাওয়ার আশা করা হচ্ছে। কোভ্যাক্স হচ্ছে ডব্লিউএইচও, গ্যাভি ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স ও কোয়ালিশন ফর এপিডেমিক প্রিপারেডনেস ইনোভেশনের সহযোগী প্রতিষ্ঠান। এক্ষেত্রে ইউনিসেফ ডেলিভারি ফ্লাইট নিয়ন্ত্রণে তাদের ভ্যাকসিন সরবরাহ অভিজ্ঞতা কাজে লাগাচ্ছে। কোভ্যাক্সের আওতায় বিশ্বের অতি দরিদ্র ৯২ টি দেশকে বিনা মূল্যে টিকা দেয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। এসব দেশে বিতরণ করা টিকার ব্যয় দাতা দেশগুলো পরিশোধ করে। ২০২১-২০২২ সালে কোভ্যাক্স কমপক্ষে ৬১ কোটি ডোজ টিকা অনুদান পাওয়ার আশা করছে। এসবের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ২৬ কোটি, ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো থেকে ২০ কোটি, ব্রিটেন থেকে ৮ কোটি এবং কানাডা ও জাপান থেকে প্রায় ৩ কোটি ডোজ করে অনুদান আসছে। এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ও সংক্রমণ বেড়েছে। এ সময় মারা গেছেন আরও ১০ হাজার ১৩৫ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৫৯ হাজার ১০৯ জন। বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় মৃত্যু ৪২ লাখ ০২ হাজার ৮১০ এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৬৬ লাখ ৪৮ হাজার ৮১৬ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৭ কোটি ৮০ লাখ ৮০ হাজার ১৭৪ জন। নিউজ একাত্তর /আলী হোসেন
তুরস্কে বঙ্গবন্ধু ডাকটিকেট অবমুক্তকরণ
২৮ জুলাই ২০২১,আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মরণে তুরস্কের ডাকবিভাগ থেকে প্রকাশিত একটি ডাকটিকেট অবমুক্ত করা হয়েছে। আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি জানানো হয়, আঙ্কারায় গতকাল দুপুরে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মসয়ূদ মান্নান এবং তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাংস্কৃতিক উইংয়ের মহাপরিচালক ডেনিজ চাকারের মধ্যে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ বৈঠকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মরণে তুরস্কের এ ডাকটিকেট অবমুক্ত করা হয়। বৈঠককালে রাষ্ট্রদূত হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বলেন, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে গণতন্ত্র, শান্তি এবং ধর্মনিরপেক্ষতার এক মূর্ত প্রতীক ছিলেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন মানবতা, জনগণের ক্ষমতা এবং আর্থ-সামাজিক মুক্তির অগ্রদূত। বঙ্গবন্ধুর স্মরণে ছবিসহ ডাকটিকেট অবমুক্তির মধ্যে দিয়ে দু দেশের সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে উভয়েই সহমত প্রকাশ করেন। পরিশেষে জাতির জনক বঙ্গন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী মুজিব বর্ষ উদযাপনের সময়ে ডাকটিকেটটি অবমুক্ত করায় রাষ্ট্রদূত তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ডাক বিভাগকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান। নিউজ একাত্তর /আলী হোসেন
জটিল রোগীদের বুস্টার ডোজ নিতেই হবে: ফাউসি
২৭ জুলাই ২০২১,আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর : যুক্তরাষ্ট্রে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। ভাইরাসটির লাগাম টানতে প্রয়োজনে টিকার তৃতীয় ডোজ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউসি। একইসঙ্গে দেশটিতে আবারও মাস্ক বিধিবাধ্যতামূলক করা হতে পারে। গণমাধ্যমে দেওয়া এক বক্তব্যে মার্কিন শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ও প্রেসিডেন্ট বাইডেনের চিকিৎসা উপদেষ্টা ডা. অ্যান্থনি ফাউসি বলেন, করোনা থেকে রক্ষা পেতে ঝুঁকিপূর্ণ বা কঠিন রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের টিকার বুস্টার অর্থাৎ তৃতীয় ডোজ নিতেই হবে। সাধারণ ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেও চলছে গবেষণা। মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র ভুল পথে হাঁটছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। একই সঙ্গে নতুন করে মাস্কপরা চালু করাসহ গণটিকাদান কর্মসূচিকে আরও গতিশীল করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন এ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ। যদিও বাইডেন প্রশাসন জানিয়েছিল, দুটি টিকা নেওয়া হলে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই। টানা ছয় দিন ১ হাজারের বেশি নতুন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হওয়ার পর প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে লস অ্যাঞ্জেলেসে আবারও মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৫৯ মিনিট থেকে এ নির্দেশনা কার্যকর হয়েছে। এদিকে ভারতে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চও তাদের গবেষণায় জানিয়েছে টিকার বুস্টার বা তৃতীয় ডোজ নেওয়া দরকার। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ১৬ কোটি ২৭ লাখ মানুষ যা মোট জনগোষ্ঠীর ৪৯ শতাংশ করোনার টিকা গ্রহণ করেছেন। গত এপ্রিল পর্যন্ত টিকা প্রদানে বিশ্বের শীর্ষ স্থানে ছিল যুক্তরাষ্ট্র। তারপর থেকেই দেশটিতে টিকা গ্রহণে আগ্রহ কমতে থাকে। টিকা নিলে নগদ অর্থ, গাঁজা, বিয়ার এমনকি বন্দুকসহ নানা পুরস্কারের ব্যবস্থা থাকলেও শেষ পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ঘোষণা অনুযায়ী, এ বছরের ৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবসের আগে ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় নেওয়ার সেই লক্ষ্য পূরণ হয়নি। টিকার বাইরে থাকাদের মধ্যে ভারতে শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক ‘ডেল্টা ধরনের’ কারণে সংক্রমণ বাড়ায় উদ্বেগ ও সতর্কতা বার্তা জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ও সংক্রমণ বেড়েছে। এ সময় মারা গেছেন আরও ৭ হাজার ৩৮৭ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৪৩ হাজার ৬৮ জন। এর আগে সোমবার (২৬ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় মারা গিয়েছিল ৬ হাজার ৮৫৯ জন এবং আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪ লাখ ২৭ হাজার ৮০ জন। বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় মৃত্যু হলো ৪১ লাখ ৮২ হাজার ৮২৮ এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৫৩ লাখ ৪৫ হাজার ৫১৬ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৭ কোটি ৭১ লাখ ৮২ হাজার ৬২৫ জন। করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৫২ লাখ ৮৭ হাজার ২৬৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ২৭ হাজার ৩৯ জনের। নিউজ একাত্তর /আলী হোসেন
ভারতে বৃষ্টিপাত ও বন্যায় ১৩৫ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু
২৫ জুলাই ২০২১, আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর ঃভারতে তীব্র বৃষ্টিপাত ও বন্যায় ১৩৫ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন আরও কয়েক ডজন। তাদের উদ্ধারে অভিযান চলছে। গত বৃহ¯পতিবার থেকেই তীব্র বৃষ্টি চলছে ভারতের পশ্চিম উপকূলবর্তী এলাকায়। দেশটির আবহাওয়া বিভাগ পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে। এ খবর দিয়েছে আল-জাজিরা।খবরে জানানো হয়, মহারাষ্ট্রে ১১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বন্যা ও ভূমিধসে। এরমধ্যে মুম্বাইয়ের দক্ষিণে থাকা পাহাড়ি এক গ্রামে ভূমিধসে এক স্থানেই ৪০ জনের প্রানহানি হয়েছে। এখনও সেখানে অনেক মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন।এতে ভেসে গেছে কয়েক ডজন বাড়ি। পুরো গ্রামে শুধু কংক্রিটের কিছু স্থাপনা রয়ে গেছে। উদ্ধারকারীরা আরও ৯৯ জনকে উদ্ধারের জন্য মাটি সরিয়ে অভিযান চালাচ্ছে।
ব্রিটেনে ফের লকডাউন জারি হতে পারে
২৪ জুলাই ২০২১,আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর ঃব্রিটেনে তিন সপ্তাহের ফের লকডাউন জারি করা হতে পারে। দেশটিতে হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীর সংখ্যা ধারণা থেকেও বেশি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বৈজ্ঞানিক পরামর্শদাতারা সরকারকে এ বিষয়ে সতর্ক করেছেন।বর্তমানে সরকারী স্থানে ফেস মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা ও কর্মীদের আবার বাড়ি থেকে কাজ করার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। বরিস জনসন তথাকথিত ‘স্বাধীনতা দিবস’ সম্পর্কিত কোভিড বিধিনিষেধের বেশিরভাগ নিয়ম বাতিল করার এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে এই সতর্কতা এলো। পূর্ববর্তী মডেলিং ইঙ্গিত দিয়েছিল যে, যুক্তরাজ্যে হাসপাতালে দৈনিক ভর্তি করোনা রোগির সংখ্যা আগস্টের শেষের দিকে এক হাজার থেকে দুই হাজারের মধ্যে থাকবে। একই সময়কালে মারাত্মক এই ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা ১০০ থেকে ২০০ এর মধ্যে থাকারও পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল।যাইহোক, দেশটিতে এথন হাসপাতালে করোনা রোগি ভর্তি এবং মৃত্যুর পরিমাণ বাড়ছে। সরকারের নিজস্ব করোনভাইরাস ওয়েবসাইট থেকে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা গেছে যে, গত সাত দিনের মধ্যে হাসপাতালের করোনা রোগি ভর্তি হওয়ার সংখ্যা ৩৮ দশমিক ৬ শতাংশ বেড়েছে। একই সময়ে করোনায় মৃত্যুর পরিমাণ প্রায় ৬০ শতাংশ বেড়েছে। আইনিউজ জানিয়েছে যে, নতুন মডেলিংয়ে জানা গেছে আগস্টের প্রথম সপ্তাহের শেষে প্রায় ১ হাজার রোগি ভর্তি হতে পারে, যা মাসের শেষের দিকে সর্বাধিক ৩ হাজারে পৌঁছে যাবে। এটি ২০২০ সালের এপ্রিলে প্রথম তরঙ্গের সময়ের অবস্থার মতো হবে যা, কঠোর বিধিনিষেধের প্রয়োজনীয়তা নির্দেশ করে।জরুরি অবস্থার জন্য সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইসরি গ্রুপের সদস্যরা (এসএজিই) প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে পরামর্শ দিয়েছেন যে, খারাপ অবস্থার পরিস্থিতি যদি বাস্তবে পরিণত হয় তবে এনএইচএসকে অভিভূত করা থেকে বাঁচতে আগস্টের প্রথম সপ্তাহে ব্যবস্থা নিতে প্রস্তুত থাকতে হবে। সূত্র : ইউকে এক্সপ্রেস।
শীতে করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট আঘাত হানতে পারে
২৩ জুলাই ২০২১, আন্তজার্তিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর ঃফ্রান্স সরকারের শীর্ষ উপদেষ্টা জ্যঁ ফ্রাঙ্কোয়েস ডেলফ্রেসি বলেছেন, আসছে শীতে করোনাভাইরাসের নতুন ভেরিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়তে পারে। আজ শুক্রবার (২৩ জুলাই) তিনি এই সতর্কবার্তা দিয়েছেন।বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের মহামারির পর বেশ কয়েকটি ভেরিয়েন্ট ইতিমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। এসব ভেরিয়েন্টের কারণে করোনার নতুন নতুন ঢেউ আঘাত হেনেছে। সর্বশেষ ভারতে শনাক্ত ডেলটা ভেরিয়েন্টে দেশটি নিজে যেমন ভুগেছে, তেমনি এশিয়ার অনেক দেশে সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণ এই ভেরিয়েন্ট। এই পরিস্থিতিতে নতুন সতর্কবার্তা দিলেন ফ্রান্স সরকারের এই উপদেষ্টা। জ্যঁ ফ্রাঙ্কোয়েস ডেলফ্রেসি ফ্রান্স সরকারের সায়েন্টিফিক কাউন্সিলের প্রধান। তিনি বলেন, আসছে শীতে আমরা হয়তো আরেকটি ভেরিয়েন্টের উত্থান দেখতে পাব। বিএফএম নিউজ চ্যানেলকে এ কথা বলেন তিনি। জ্যঁ ফ্রাঙ্কোয়েস ডেলফ্রেসি বলেন, এই ভেরিয়েন্ট আগের যেকোনো ভেরিয়েন্টের চেয়ে বিপজ্জনক হবে কি না, তিনি এখনই তা অনুমান করতে পারছেন না। তবে করোনাভাইরাসের পরিবর্তিত হওয়ার ক্ষমতা তুলনামূলক কমে গেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে এখনো শঙ্কিত এই বিশেষজ্ঞ। তাই ফ্রান্সের নাগরিকদের আবারও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা এবং মাস্ক ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ফ্রাঙ্কোয়েস বলেন, ২০২২ অথবা ২০২৩ সালে হয়তো স্বাভাবিক জীবনে ফেরা যাবে। জ্যঁ ফ্রাঙ্কোয়েস ডেলফ্রেসি বলেন, আগামী কয়েক বছরে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হবে সহাবস্থান। এই সহাবস্থান হলো, করোনাভাইরাসের টিকা পাওয়া ব্যক্তি ও টিকা না পাওয়া ব্যক্তিদের সহাবস্থান। করোনার চতুর্থ ঢেউ মোকাবিলা করতে ফ্রান্স সরকার ইতিমধ্যে সতর্ক অবস্থান গ্রহণ করেছে। সিনেমা হল, জাদুঘর, সুইমিংপুল ও স্টেডিয়ামে যেতে তাঁর দেশের নাগরিকদের হেলথ পাস দেখাতে হচ্ছে। গত বুধবার থেকে এই ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। বাসিন্দারা টিকা নিয়েছেন কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে এই হেলথ পাসের মাধ্যমে। যদিও এ নিয়ে সমালোচনাও শুরু হয়েছে। সূত্র : এএফপি
মালয়েশিয়ায় ২৫ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার
২৩ জুলাই ২০২১,অনলাইন ডেস্ক, নিউজ একাত্তর ঃকরোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ অমান্য করে মালয়েশিয়ায় স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২০ জুলাই) দেশটির পেনাং রাজ্যের একটি বাড়িতে ঈদুল আজহার রাতে ভোজের আয়োজন করেছিলেন ২৫ পবাসী বাংলাদেশি। পরে ঘটনাস্থল থেকে তাদের সবাইকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তাদের বিরুদ্ধে সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ আইনের অভিযোগ করা হয়েছিল। স্থানীয়দের অভিযোগের পরিপেক্ষিতে পুলিশ ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। আটকরা সবাই একই কোম্পানির নির্মাণ শ্রমিক। তাদের সবার বয়স ২৩ থেকে ৪১ বছরের মধ্যে। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২৩ জুলাই আদালতের বিচারক এ মামলায় দোষ স্বীকার করার পর তাদের প্রত্যেককে ৫ হাজার রিঙ্গিত জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে ২ মাসের জন্য কারাদণ্ডের আদেশ দেন।
করোনাভাইরাসে মৃত্যু ৪১ লাখ ৩৩ হাজার ছাড়াল
২১.জুলাই.২০২১,আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নিউজ একাত্তর. ঃমহামারি করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪১ লাখ ৩৩ হাজার ৩২৪ জনের। করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ২২ লাখ ২৮ হাজার ৩০৭ জন। আন্তর্জাতিক সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের ওয়েবসাইটে পাওয়া গেছে এসব তথ্য। এতে আরও জানানো হয়, এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭ কোটি ৪৯ লাখ ২৩ হাজার ৪২০ জন। করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখনো বিশ্বে শীর্ষে অবস্থান করছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৫০ লাখ ৮১ হাজার ১৯ জন। করোনায় মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ২৫ হাজার ৩৬৩ জনের। অন্যদিকে, করোনা শনাক্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশ ভারত। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ১২ লাখ ১৫ হাজার ১৪২ জনের। আর করোনায় মারা গেছে ৪ লাখ ১৮ হাজার ৫১১ জন। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহানে প্রথম শনাক্ত হয় করোনাভাইরাস। এরপর প্রাণঘাতী এ ভাইরাসটি ধীরে ধীরে সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। গত ১১ মার্চ, ২০২০ সালে করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া
নয় মাস পরে আইফেল টাওয়ার পুনরায় চালু
১৬জুলাই, শুক্রবার , আন্তর্জাতিক ডেস্ক ,নিউজ একাত্তর ডট কম: দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ নয় মাস বন্ধ থাকার পর শুক্রবার পর্যটকদের জন্য আইফেল টাওয়ার পুনরায় খুলে দেয়া হয়েছে। আয়রন লেডি লিফটগুলো নতুন করে চালুর জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। এই লিফটগুলো পর্যটকদের ৩শ মিটার (১,০০০ ফুট) উচ্চতায় পৌঁছে দেবে। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে এতোদিন আইফেল টাওয়ার পরিদর্শন পর্যটকদের জন্য বন্ধ ছিল। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে লিফটের দৈনন্দিন ক্ষমতা ১৩ হাজার লোকের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা হচ্ছে, যা স্বাভাবিক ক্ষমতার অর্ধেক। আগামী বুধবার থেকে পর্যটকদের টিকা গ্রহন অথবা করোনার নেগেটিভ টেস্ট রিপোর্ট দেখিয়ে আইফেল টাওয়ার পরিদর্শন করতে পারবে।