বুধবার, আগস্ট ৪, ২০২১
নোয়াখালীর অপরাধীদের শিগগিরই আইনের মুখোমুখি করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
০৬,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ নির্যাতনের ঘটনায় যারা অপরাধী তাদের খুব শিগগিরই আইনের মুখোমুখি করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, এ ধরনের জঘন্য অপরাধ যারা করেন তাদের আইনানুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাস্প্রতিক ইস্যুতে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নোয়াখালী ঘটনা চরম বর্বরতা। এই ঘটনায় ২ জনবাদে সবাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এখানে কোনো ধরনের গাফলতি নিরাপত্তাবাহিনী দেখায়নি। খুব শিগগিরই আমরা তাদের আইনের মুখোমুখি করবো।
সাংবাদিক গোলাম ফারুকের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ
০৬,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাংবাদিক গোলাম ফারুকের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৪ সালের ৬ অক্টোবর পবিত্র ঈদুল আজহার দিনে মাত্র ৪৮ বছর বয়সে প্রয়াত হন তিনি। তিনি মৃত্যুকালে দৈনিক বণিক বার্তার ব্যবস্থাপনা সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। পরিবারের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে ময়মনসিংহ শহরের পৈত্রিক বাড়িতে গিয়েছিলেন তিনি। রাত ৯টার দিকে ঢাকা ফেরার পথে হঠাৎ বুকে ব্যথা অনুভব করলে দ্রুত তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত পৌনে ১০টার দিকে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। গোলাম ফারুক ১৯৬৬ সালের ৬ অক্টোবর ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। আশির দশকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স করার সময়ই জড়িয়ে পড়েন মঞ্চ নাটকে। এরপর ঢাকায় এসে গড়ে তোলেন দেশ নাটক। থিয়েটারের পাশাপাশি শুরু করেন সাংবাদিকতা। ১৯৯৩ সালে সহকারী সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন তারকালোকে। ১৯৯৫ সালে শেষ দিকে একঝাঁক তরুণকে সঙ্গে নিয়ে গড়ে তোলেন আনন্দভুবন টিম। অভিনব উপস্থাপনায় কয়েক মাসের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায় আনন্দভুবন। গোলাম ফারুক কখনোই নিরপত্তা ও নিশ্চয়তার দেয়ালে ঘর বাঁধার প্রয়াসী ছিলেন না। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন অঙ্গনে বিচরণ ছিল ছিল তার। সাপ্তাহিক ছেড়ে তিনি ১৯৯৮ সালের দিকে যোগ দেন ওই সময়ে নতুন ধারার সংবাদপত্র ভোরের কাগজ এর ফিচার বিভাগে। সৃজনশীল নির্মাণের পাশে দাঁড়ানোর প্রত্যয়ে ২০০০ সালের দিকে গড়ে তোলেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সাবটেক্স। এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব নেন নিজেই। এখান থেকে বেরিয়ে আসে চতুর্থমাত্রা, ফুলকুমার এর মতো কালজয়ী নির্মাণ। ২০০৫ সালে সমকাল- প্রকাশের আয়োজন শুরু হলে যোগ দেন ফিচার সম্পাদক হিসেবে। ২০০৯ সালের তিনি গড়ে তোলেন এবিসি রেডিও। এরপর ২০১১ সালে যোগ দেন বণিক বার্তা পরিবারে।
ধর্ষণের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে: ওবায়দুল কাদের
০৫,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ধর্ষণের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় সরকার অপরাধীদের শাস্তি দিচ্ছে। তবে এ ধরনের অপরাধের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়তে হবে। এ ধরনের ইস্যু নিয়ে সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। আমি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। ওবায়দুল কাদের আজ সোমবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের কর্মকর্তা এবং দফতর প্রধানের সঙ্গে উন্নয়ন কার্যক্রম পর্যালোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। ধর্ষণের প্রতিটি ঘটনাতেই সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকার ক্ষমতায়, কি করে দায় এড়াবে? এসব ব্যাপারকে সরকার প্রশ্রয়ও দিচ্ছে না। প্রত্যেকটি ব্যাপারে সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে। দলীয় পরিচয়ের কেউ থাকলেও তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ ও নারীর প্রতি সহিংসতার খবর পাওয়া যাচ্ছে। ধর্ষণ নি:সন্দেহে নিন্দনীয় অপরাধ ও সামাজিক ব্যাধি। এসব চরম ঘৃণিত কাজের সঙ্গে যারা জড়িত, তারা বিকৃত রুচির অপরাধী। সরকার এ ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিচ্ছে। তবু এ ধরনের ঘটনা দেশের কোথাও না কোথাও ঘটছে। সম্প্রতি পাশের দেশেও এমন ঘটনা তীব্র আকার ধারণ করেছে। অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে সবার প্রতি সহযোগিতার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সব ইস্যু নিয়ে রাজনীতি করার কোনো প্রয়োজন নেই। এ ধরনের একটা ইস্যু নিয়ে রাজনৈতিক দলসহ সাংস্কৃতিক ও সেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একটা সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। ধর্ষণের সঙ্গে সরকারি দল সমর্থিত ছাত্র সংগঠনের নাম আসছে এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, যেই হোক। এটার দায় কেউ এড়াতে পারবে না। সরকার ক্ষমতায়, সরকার কীভাবে দায় এড়াবে? সরকার এটাকে মোটেও প্রশ্রয়ও দিচ্ছে না। প্রত্যেকটি ব্যাপারে সরকার দায়িত্ব নিচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী, এসব ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের মধ্যে আমাদের দলীয় পরিচয়েও কেউ যদি থাকে, অবশ্যই তাকে আইনের আওতায় এবং শাস্তির আওতায় আনতে হবে। সেটা শুধু মুখে বলা হচ্ছে না, বাস্তবেও কার্যকর করা হচ্ছে। তিনি বলেন, রিফাত হত্যা মামলার রায় হয়ে গেলো, ফেনীর নুসরাতের ঘটনায় রায় হলো। এগুলোর বিচার তো হচ্ছেই। সব ব্যাপারেই শাস্তি হবে। ওয়াহিদার ওপর হামলা হয়েছে, সে ব্যাপারেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। দলীয় পরিচয়ের নামও শোনা গেছে, কিন্তু কাউকে ছাড় দেওয়া হয়নি। আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডে প্রায় প্রত্যেকেই ছাত্রলীগের পরিচয়ে ছিলো। কিন্তু তাদের কি শাস্তি থেকে ছাড় দেওয়া হয়েছে? নাকি তাদের চার্জশিট থেকে বাইরে রাখা হয়েছে? বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের ৯ দফা দাবিতে ডাকা পণ্য পরিবহন ধর্মঘট দেশ ও অর্থনীতির স্বার্থে প্রত্যাহার করে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়ে সড়ক পরিবহন এবং সেতুমন্ত্রী বলেন, করোনাকালে জনভোগান্তি ও দেশের পণ্য পরিবহন জিম্মি করা প্রত্যাশিত নয়। তিনি বলেন, সম্প্রতি পরিবহন মালিকদের একটি অংশ বিশেষ করে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতি দু দিনের ধর্মঘট ডাক দিয়েছে বলে শুনেছি। মালিক সমিতির কোনো দাবি থাকলে তা আমরা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে পারি। অতীতেও অনেক বিষয় আলোচনার মাধ্যমে সমাধান হয়েছে। আমি ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি, তিনিও বসতে রাজি। কোনো দাবি থাকলে আলোচনা হবে। সেতুমন্ত্রী বলেন, করোনাকালে জনভোগান্তি ও দেশের পণ্য পরিবহন জিম্মি করা প্রত্যাশিত নয়। তাই আমি ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতিকে দেশ ও অর্থনীতির স্বার্থে ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত বিশেষ করে চট্টগ্রাম অঞ্চলে ধর্মঘটের যে আহ্বান জানানো হয়েছে তা প্রত্যাহারের আহ্বান জানাচ্ছি। আপনারা আলোচনায় বসুন, যৌক্তিক কিছু থাকলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বসে বিষয়টির সমাধানের পথ খুঁজে বের করুন।
নারী নির্যাতনকারী যেই হোক, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হবে: তথ্যমন্ত্রী
০৫,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, নারী নির্যাতন-ধর্ষণের সাথে যারাই যুক্ত থাকুক, যে পরিচয়ই ব্যবহার করুক না কেন, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর। সোমবার (৫ অক্টোবর) সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে তানিয়া সুলতানা হ্যাপি রচিত আমি হবো আগামীদিনের শেখ হাসিনা শিশুতোষ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। এসময় বিএনপির মন্তব্য সরকারের জবাবদিহিতার অভাবে দেশে খুন-ধর্ষণ বাড়ছে এর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী একথা বলেন। তথ্যসচিব কামরুন নাহার অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং গ্রন্থ রচয়িতা তানিয়া সুলতানা বই পরিচিতি বক্তব্য রাখেন। ড. হাছান বলেন, এ ধরণের অপকর্মের সাথে যারা যুক্ত, তারা দুষ্কৃতিকারী, তাদের কোনো অন্য পরিচয় থাকতে পারেনা। এ ধরণের দুষ্কৃতিকারীদের কঠোর হস্তে দমন করার জন্য সরকার বদ্ধপরিকর। ইতিপূর্বে এ ধরণের ঘটনায় অনেক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়েছে। এ ধরণের আগেও ঘটতো, কিন্তু আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এমন ব্যাপকতা না থাকায় অনেক ঘটনাই আড়ালে থেকেছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এখন বেশিরভাগ ঘটনা আড়ালে থাকে না, প্রায় সব ঘটনাই প্রকাশ্যে আসে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা নারী নির্যাতন-ধর্ষণের বিরুদ্ধে সোচ্চার, এই বিষয়গুলো যারা তুলে ধরছেন, তাদেরকে ধন্যবাদ। এতে করে সরকারের পক্ষ থেকে এ ধরণের অপকর্ম যারা ঘটাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া সহজতর হচ্ছে। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, এ ধরণের ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করার কোনো অবকাশ নেই, কিন্তু এগুলোকে রাজনৈতিক রূপ দেয়ার জন্য মাঝেমধ্যেই বিএনপির পক্ষ থেকে অপচেষ্টা চালানো হয় । তিনি বলেন, এই বিএনপিই দলীয়ভাবে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশে নারী ধর্ষণ করেছে। ২০০১ সালের পর ৮ বছরের শিশুকে, অন্ত:সত্ত্বা মহিলাকে এমনকি নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে পুরো গ্রাম অবরুদ্ধ করে সেখানকার মহিলাদের ধর্ষণ করা হয়েছে। সেই দু:সহ স্মৃতি এখনো অনেকে বয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছে। সুতরাং যারা দলীয়ভাবে এ ধরণের অপকর্ম করেছে এবং এর বিরুদ্ধে দলীয়ভাবে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করে নাই, তাদের এ নিয়ে কথা বলার কতটুকু নৈতিক অধিকার আছে, সেটিই বড় প্রশ্ন। মন্ত্রী আরো বলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ বলেছেন, মানুষের কথা বলার অধিকার নেই। অথচ তারা সকালে একবার, দুপুরে একবার, আবার বিকেলে আরো একবার সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে। মির্জা ফখরুল সাহেব বললে তার সাথে প্রতিযোগিতা দিয়ে রিজভী সাহেব বা আরো দু-একজন নেতা সকাল-বিকাল-দুপর বিষোদগার করে আর বলে, আমাদের কথা বলার অধিকার নেই, যা হাস্যকর। এসময় আমি হবো আগামীদিনের শেখ হাসিনা শিশুতোষ গ্রন্থ রচয়িতাকে ধন্যবাদ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, শিশুরাই আমাদের জাতির ভবিষ্যত এবং আজকের এই দিনে যেদিন প্রধানমন্ত্রী শিশু দিবসের উদ্বোধন করেছেন, সেদিন এ গ্রন্থের যাত্রা শুরুটি তাৎপর্যপূর্ণ। তিনি বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য বস্তুগত উন্নয়নের পাশাপাশি, মানুষের আত্মিক উন্নয়নসমৃদ্ধ একটি উন্নত জাতি গঠন। সেজন্য মানুষের মধ্যে মমত্ববোধ, দেশাত্মবোধ, মূল্যবোধ এগুলোর সমন্বয় ঘটাতে হয় এবং সেটি শিশু বয়সেই করতে হয়। আর সেজন্য এসকল গুণে গুণান্বিতদের জীবন কাহিনী যদি শিশুরা পড়তে পারে, জানতে পারে তাহলে উন্নত জীবন গঠনে সেটি অত্যন্ত সহায়ক হয়। আর তেমনি একজন মানুষ আমাদের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা, যিনি শৈশব থেকে সমস্ত প্রতিকূলতার মধ্যে তার জীবনকে আজকে বিশ্বনেতৃত্বের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন। তথ্যসচিব কামরুন নাহার বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়ন, অগ্রগতি ও নারী ক্ষমতায়নে পৃথিবীর সামনে উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। তাঁর জীবন ও কর্ম আমাদের শিশু-কিশোরসহ সকলের জন্য অনুসরণীয়। সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী সোহানা জেসমিন, লেখক জাহাঙ্গীর আলম শোভন, সংস্কৃতিকর্মী দিপু সিদ্দিকী, নাদিবা পারভীন লাকী, নাজনীন সুলতানা নাজু, আজিমুন রুমা, নাহিদ নাজ, জামান নূর ও শিশুশিল্পী হামীম, ওমর, অনিরুদ্ধ, সাদিয়া, সারামনি, রাইফ, জুঁই, চামেলি, রামিয়া, রামিম, আবরার, সাবীত, হাসিব প্রমুখ বইমোড়ক উন্মোচনে অংশ নেন।
ধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল রাজপথ
০৫,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে এক নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘটিত ধর্ষণের প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগ মোড় সহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। আজ সোমবার (৫ অক্টোবর) বেলা ১১টায় বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ ও প্রগতিশীল ছাত্রজোটের আহ্বানে গণঅবস্থান কর্মসূচির ডাক দেয়া হয়। তারা শাহবাগ ও জাতীয় জাদুঘরের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দেন। এদিকে, ধর্ষণের বিরুদ্ধে শাহবাগে ছাত্র অধিকার পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ছাত্রদল এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত নোয়াখালীর সুবর্ণচরের শিক্ষার্থীরা আলাদা ব্যানারে মানববন্ধন করেছেন। অপরদিকে, রাজধানীর উত্তরায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা। তারা আজ সকাল ১১টা থেকে উত্তরার হাউস বিল্ডিং এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সিলেট এবং নোয়াখালীতে সম্প্রতি যে ধর্ষণ এবং ধর্ষণচেষ্টা ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে তার প্রতিবাদে সকাল ১১টার দিকে উত্তরার হাউস বিল্ডিং এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।
সৌদি প্রবাসী যাত্রীদের জন্য আসন বৃদ্ধি
০৫,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সৌদি আরব প্রবাসীদের জন্য সে দেশে যাওয়ার সুবিধার্থে ফ্লাইটের আসন সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ এ কথা জানানো হয়। এতে জানানো হয়, করোনা ভাইরাসের জন্য ঢাকা থেকে সৌদি আরবে যাওয়া বিমানের ক্ষেত্রে প্রশস্ত উড়োজাহাজে ২৬০ জন এবং অপ্রশস্ত উড়োজাহাজে ১৪০ যাত্রী পরিবহণ করার বাধ্যবাধকতা ছিল। সৌদি আরব যাওয়া যাত্রীদের ঢাকা থেকে দ্রুত ফেরত যাওয়ার স্বার্থে বাংলাদেশ বেসরকারী বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ গতকাল রোববার জারি করা আদেশে আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত এই নিয়ম শিথিল করেছে। এখন সৌদি আরবগামী ফ্লাইটে ইকোনমি ক্লাসের শেষ সারি এবং বিজনেস ক্লাসের একটি আসন ব্যতিত সকল আসনে যাত্রী পরিবহণ করা যাবে। এতে সৌদি আরবগামী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সাউদিয়া এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে আসন সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে সে দেশে ফেরত যাওয়ার অনুমতিপ্রাপ্ত যাত্রীদের পরিবহণে অনিশ্চয়তা অনেকাংশে দূর হবে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পুরান টিকিটধারী যাত্রীদের ধারাবাহিকভাবে কোন রকম চার্জ ব্যতিত আসন বরাদ্দ করেছে। যাত্রী ব্যতিত অন্য সকলকে এয়ারলাইন্স অফিসে না যাওয়ার বা ভিড় না করার জন্য বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে।- বাসস
শিশু অধিকার সপ্তাহ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
০৫,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মিলনায়তনে আয়োজিত বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ ২০২০ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শিশু একাডেমি মিলনায়তনে আজ সোমবার সকালে এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। আয়োজিত এ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ ২০২০ উদ্বোধনের পরই শিশুদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। এর আগে গতকাল রোববার বাংলাদেশ সচিবালয়ের তথ্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে অনুষ্ঠানের বিস্তারিত তুলে ধরেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।
কোন কাজকেই ছোট করে দেখা উচিৎ না: শিক্ষা উপমন্ত্রী
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা আত্মসম্মানবোধ রোগে ভোগেন বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি বলেন, তারা অনেক পেশাকেই সম্মানের চোখে দেখেন না। দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সময় আমি নিজে ওয়েটারের কাজ করেছি। এটি আমাদের দেশের অনেক মানুষের কাছে নিচু কাজ মনে হবে। কোন কাজকেই ছোট করে দেখা উচিৎ না। তিনি আরও বলেন, সকল শিক্ষার্থীকে ড্রেন পরিস্কার করার মানসিকতা থাকতে হবে। একইসঙ্গে আবার দেশ পরিচালনার বা নীতিনির্ধারণী পর্যায়েও কাজ করার দক্ষতা থাকতে হবে। আজ রোববার (৪ অক্টোবর) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির অনলাইন ক্লাস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। উপমন্ত্রী বলেন, শিক্ষাটা যেন মানুষের আভিজাত্য তৈরি করতে না পারে, আমাদের সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমাদের শিক্ষাকে সাধারণ মানুষের চাহিদা অনুযায়ী প্রতিষ্ঠা করতে হবে। কোনো কাজই ছোট না। একজন কৃষক শিক্ষার অভাবে কৃষিকাজ ঠিকভাবে করতে পারে না। কিন্তু একজন শিক্ষিত ব্যক্তি কৃষিকাজ করলে কৃষির ব্যাপক বিল্পব ঘটবে। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, আপনি দেশের সর্বোচ্চ ডিগ্রী নিয়ে যা আয় করছেন আবার দেখবেন অনেকে কোনো কিছু পাশ না করেই তার চেয়ে বেশি উপার্জন করছেন। শুধু শিক্ষিত হলেই হবে না, দক্ষতা অর্জন করতে হবে। কোনো পেশাকে খাট করা যাবে না। এখন সুযোগ অনেক বেশি। শুধু কাজে লাগাতে হবে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এ বাংলাদেশ আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক। তিনি বলেন, যেদিন ক্লাসে পাঠদান শুরু হবে তখনও অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম সহায়ক শিক্ষা হিসেবে চালু থাকবে। মু. জিয়াউল হক বলেন, এ বছর নতুন শিক্ষার্থীরা ক্লাস শুরু করছেন তাদের মনে রাখতে হবে তারা অসাধারণ ভাবে ক্লাসটি শুরু করছেন। কারণ এ বছর হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালির জন্ম শত বছর। উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, সারাদেশে করোনার প্রভাবে যখন সাধারণ ছুটি শুরু হয়। তখন শিক্ষকদের কাছে থেকে উত্তরপত্র সংগ্রহ অনেক কঠিন ছিল। ওই পরিস্থিতিতে মন্ত্রী মহোদয় আমাদেরকে ডাক বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগের পরামর্শ দেন। এর ফলেই এইচএসসির ফল প্রকাশ সম্ভব হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ফল প্রকাশের ৩০ মিনিটের মধ্যে শিক্ষার্থীদের মুঠোফোনে তাদের ফলাফল পৌঁছে গিয়েছে। এর জন্য ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।
ট্রাম্পকে সমবেদনা জানিয়ে শেখ হাসিনার চিঠি
০৪,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় সমবেদনা জানিয়ে চিঠি পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ রোববার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমি এটা জেনে অত্যান্ত ব্যথিত হয়েছি যে, অপ্রত্যাশিতভাবে আপনি নভেল করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এবং আপনাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। তিনি করোনামহামারী চলাকালে ট্রাম্পের নেতৃত্বের প্রশংসা করে বলেন, মহামারী করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ এবং এ থেকে মানুষের জীবন বাঁচাতে আমরা সবাই যখন আমাদের যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছি, এ সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের জীবন বাঁচাতে আপনার গতিশীল নেতৃত্ব ও চরম আত্মবিশ্বাসে সঙ্গে নেয়া সবধরনের উদ্যোগের আমি গভীরভাবে প্রশংসা করি। মহামারীকালে যুক্তরাষ্ট্রের মতো বাংলাদেশও একই রকম হুমকি মোকাবেলা করছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একই রকম এই হুমকি রোধে বাংলাদেশের মানুষ আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের পাশে রয়েছে। তিনি বলেন, আমি করোনাভাইরাস থেকে ম্যালানিয়া ট্রাম্পেরও দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। আপনি এবং আপনার পরিবারের এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে আমার দোয়া রইলো। আমি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের শান্তি, অগ্রগতি এবং সমৃদ্ধি কামনা করি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সবধরনের সহযোগিতার ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে নিশ্চয়তা দেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর