সোমবার, আগস্ট ২, ২০২১
রিফাত হত্যা: ৬ আসামিকে ১০ বছরের দণ্ড, ৩ জনকে খালাস
২৭,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির মধ্যে ছয়জনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া চারজনকে পাঁচ বছর এবং একজনকে তিন বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বাকি তিনজনকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে বরগুনা জেলা নারী ও শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। এর আগে সকাল ৯টার দিকে বরগুনা জেলা কারাগার থেকে আদালতে আনা হয় মামলাটির ছয় আসামিকে। আর জামিনে থাকা আট আসামি আদালতে এসেছে তাদের আগেই। করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন আদালত বন্ধ থাকার পরও মাত্র একবছর চার মাসের মাথায় নিষ্পত্তি হচ্ছে বর্বরোচিত এ হত্যা মামলা। আলোচিত এ হত্যাকাণ্ডের রায় ঘিরে দেশের সব মহলের নজর ছিল আজ বরগুনার আদালতে। আদালত প্রাঙ্গণ ও আশপাশের এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কঠোর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহরম আলী বলেন, আলোচিত এ হত্যা মামলার রায় কেন্দ্র করে বরগুনায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক রয়েছে। গত ১৪ অক্টোবর এ মামলার দুই পক্ষের যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে বরগুনার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান রায়ের জন্য মঙ্গলবার দিন ধার্য করেন। গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত হত্যাকাণ্ড ঘটে। ওই বছরের ১ সেপ্টেম্বর ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্ত ও অপ্রাপ্তবয়স্ক দুভাগে বিভক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেয় পুলিশ। এরমধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জনকে আসামি করা হয়েছে। গত ৮ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার শিশু আদালত। এরপর ১৩ জানুয়ারি থেকে অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু করেন। মোট ৭৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে এ মামলায়। এর আগে গত ৩০ সেপ্টেম্বর এ মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির রায় ঘোষণা করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান। রায়ে নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দেন। আর বাকি চারজনকে বেকসুর খালাস দেন।
দেশে ফিরেছেন রাষ্ট্রপতি
২৭,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের একটি হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে দেশে ফিরেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। রাষ্ট্রপতির উপ-প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, রাষ্ট্রপতি ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইট (বিজি-১৪৮) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এর আগে গত ১৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চোখের চিকিৎসার জন্য দুবাইয়ের উদ্দেশে রওনা হন। রাষ্ট্রপতি বিদেশে চিকিৎসাকালে তার সহধর্মিনী রাশিদা খানম ও বঙ্গভবনের সংশ্লিষ্ট সচিবরা তার সঙ্গে ছিলেন।
গণমাধ্যম নিজস্ব পলিসি অনুযায়ী সংবাদ প্রকাশ করছে: কাদের
২৭,অক্টোবর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সরকার গণমাধ্যমের স্বাধীনতা খর্ব করেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি, যা প্রত্যাখ্যান করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশের গণমাধ্যম নিজস্ব পলিসি অনুযায়ী প্রতিবেদন প্রকাশ করছে। ভীতিকর কোনো পরিবেশ নেই। সরকারের সমালোচনা হচ্ছে। আপনারাও অশ্রাব্য ভাষায় প্রধানমন্ত্রীকে পর্যন্ত গালিগালাজ করছেন। কারো ওপর কোনো চাপ নেই। সমালোচনা থেকে শিক্ষাগ্রহণ করার সেই সৎ সাহস শেখ হাসিনার আছে। কোনো গণমাধ্যমের ওপর সরকার সমালোচনার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছে সেটা আপনারা পরিষ্কার করে বলেন। গতকাল সংসদ ভবন এলাকায় অবস্থিত নিজের সরকারির বাসভবন থেকে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি দেশের গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই বলে বারবার পুরনো অভিযোগ করে চলছে। সরকার নাকি ভিন্নমত সইতে পারে না। এদেশের আওয়ামী লীগ পরমতসহিঞ্চুতা নিয়ে কাজ করছে। এজন্যই বিএনপি অনবরত মিথ্যাচার করতে পারছে। আমরা জানতে চাই, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনবরত রাষ্ট্রবিরোধী প্রচার কি ভিন্নমত? নাকি রাষ্ট্রকে দুর্বল করা? রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি নষ্ট করা, দিনরাত দেশে-বিদেশে বসে অবিরাম দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমুলক বৈঠক, মিথ্যাচার আর গুজব ছড়ানো কি মত প্রকাশের স্বাধীনতা? বিএনপি সরকারের শাসনামলে মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্বের বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, ওই সময়ে সাংবাদিক হত্যার বিচার তো হয়নি। বিচারের নামে হত্যাকারীকে রক্ষা করা হয়েছে। তাদের মুখে মত প্রকাশের স্বাধীনার কথা আসলে ভূতের মুখে রাম নাম। ২০০১ সালে ক্ষমতা গ্রহণের পর তিন মাসে ৫০ জন সাংবাদিক তাদের আক্রমণের শিকার হয়েছেন। বিএনপির নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের আজ যে উন্নয়ন-অর্জন তা শুধু দেশে নয়, আন্তর্জাতিকভাবেও প্রশংসিত হচ্ছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে এখন বিশ্ব সমাজে সমীহ আদায় করা সম্ভাবনাময় দেশ। জনগণ এখন উন্নয়নমুখী। সবার চোখে-মুখে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়। কাদের আরো বলেন, যেকোনো অপশক্তির ষড়যন্ত্র জনগণ নস্যাৎ করে দেবে। বিএনপি কোনো ইস্যূ খুঁজে না পেয়ে নন ইস্যুকে ইস্যু বানানোর অপচেষ্টা করছে। কখনো কোটা আন্দোলন, কখনো কোটাবিরোধী আন্দোলনে ভর করে। সর্বশেষ ধর্ষণবিরোধী সামাজিক আন্দোলনে ভর করে সরকারের পদত্যাগ চেয়েছিল, যা হালে পানি পায়নি। এবারো তারা ব্যর্থ হয়েছে। ব্যর্থতা থেকে তাদের কোনো শিক্ষা হয়নি। রাজপথে আন্দোলন ঢেউ গড়ে তোলা হবে বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা জানতে চাই, ফখরুল সাহেব যা বলেন তা নিজে বিশ্বাস করতে পারেন কিনা। আন্দোলনের ঢেউ তারা টেমস নদীর পাড় থেকে গুলশান অফিসে তুলতে পারেন। কিন্তু পদ্মা, মেঘনা, যমুনা বিধৌত মুজিবের বাংলায় নয়। তাদের আন্দোলনের হাঁকডাক আষাঢ়ের আকাশের মতো সোস্যাল মিডিয়া ও গণমাধ্যমে যতটা গর্জে, বাস্তবে রাজপথে ততটা বর্ষে না। ওবায়দুল কাদের বলেন, গণতন্ত্র এক টাকার বাইসাইকেল নয়, এটি একটি ভারসাম্যপূর্ণ কাঠামো, সরকারের পাশাপাশি বিরোধী দলের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।
সৈয়দ আব্দুল মোক্তাদিরের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক
২৬,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন, ঢাকার সাবেক সভাপতি সৈয়দ আব্দুল মোক্তাদিরের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। সোমবার (২৬ অক্টোবর) এক শোক বার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সৈয়দ আব্দুল মোক্তাদির ছিলেন অত্যন্ত সদালাপী, পরপোকারী ও সজ্জন ব্যক্তি। সবার সুখে-দুঃখে তিনি সব সময়ই এগিয়ে আসতেন। ড. মোমেন মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। সৈয়দ আব্দুল মোক্তাদির সোমবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।
৩০ মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল করে গেজেট
২৬,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আরও ৩০ জন মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল করেছে সরকার। মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়ার স্বপক্ষে প্রমাণ না পাওয়ায় জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) সুপারিশের ভিত্তিতে তাদের সনদ বাতিল করে গত ১৮ অক্টোবর গেজেট জারি করা হয়েছে। এর আগে জামুকার ৬৮তম সভায় এ সুপারিশ করা হয়েছিল। সনদ বাতিল হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন-কুমিল্লার মরহুম সাদেক আলী, আব্দুল গফুর আজাদ এবং চাঁদপুরের মো. শফিকুর রহমান হাওলাদার, মো. ফয়েজ উল্লা খান, মো. নজরুল ইসলাম, মো. খলিলুর রহমান, মৃণাল কান্তি সাহা, নারায়ণগঞ্জের মো. তারা মিয়া, মো. নুরুল ইসলাম, মৃত মো. আব্দুল জলিল, মো. আব্দুল হাকিম। যশোরের মৃত অমূল্য রতন বিশ্বাস, মৌলভীবাজারের উত্তম দাস, মাগুরার মো. ফুল মিয়া, নীলফামারীর মো. জিএম জুলফিকার, জামালপুরের একেএম ফজলুল হক, নরসিংদীর আব্দুল হাই, চাঁপাইনবাবগঞ্জের মৃত মো. ইসাহাক মিয়া, নওগাঁর মো. আনিছুর রহমান, মো. আনিছুর রহমান খান ও মো. খোরশেদ আলী এবং কুড়িগ্রামের মো. রমজান আলী, মৃত অহিদ আলি মণ্ডল, পাবনার মো. হোসেন আলী, মো. আজিজুল হক, মো. মুক্তার হোসেন, মুহাম্মদ ইসমাইল হোসেন এবং নাটোরের মো. সমসের আলী, মো. মমতাজ আলীর সনদ বাতিল হয়েছে।
নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ১
২৬,অক্টোবর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংসদ সদস্য হাজি সেলিমের গাড়ি থেকে বের হয়ে নৌবাহিনীর এক কর্মকতাকে মারধরের ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় মামলা হয়েছে। এরইমধ্যে এজাহারভুক্ত এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৬ অক্টোবর) সকালে ভুক্তভোগী নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিম নিজেই বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। রমনা ডিভিশনের ডিসি সাজ্জাদুর রহমান জানান, নৌবাহিনীর ঘটনায় ভিকটিম নিজেই বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলায় চারজনের নাম আছে। বাকি কয়েকজন অজ্ঞাতপরিচয়ের। এজাহারভুক্ত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারেও অভিযান চলছে। রোববার (২৫ অক্টোবর) রাতে সংসদ সদস্য হাজি সেলিমের গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর ওই কর্মকর্তা ও তার স্ত্রীকে মারধর করা হয়। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ধানমন্ডি থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছিলেন আহত কর্মকর্তা।
সাংবাদিকরা অনিয়ম তুলে ধরেন, সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নেয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী
২৫,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, দেশের উন্নয়নে সাংবাদিকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সাংবাদিকদের ভূমিকা অপরিসীম। সাংবাদিকরা অনিয়ম তুলে ধরেন, সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নেয়। রোববার (২৫ অক্টোবর) মেহেরপুরে বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিকদের জন্য প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) আয়োজিত আটদিনের প্রশিক্ষণ কোর্সের সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, যে কোনো ধরনের অনিয়ম উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করে। সাংবাদিকরা দেশ ও সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের অনিয়মগুলো সবার সামনে তুলে ধরেন। ফলে সরকার সেগুলোর বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নিয়ে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে পারে। তাই সমাজ ও রাষ্ট্রের উন্নয়নে যেসব প্রতিবন্ধকতা রয়েছে, তা লেখনীর মাধ্যমে সাংবাদিকদের তুলে ধরতে হবে। প্রতিমন্ত্রী এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, সাংবাদিকদের অনুসন্ধিৎসু ও মননশীলভাবে প্রকৃত সংবাদ জনগণের কাছে প্রকাশ করতে হবে। মানুষ সব সময় প্রকৃত খবরটি জানতে চায়। অনেক সময়ে অপসাংবাদিকতার মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করে মানুষের সামনে অসত্য তথ্য তুলে ধরা হয়, যা সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। তাই সবাইকে অপসাংবাদিকতা থেকে দূরে থাকতে হবে। সাংবাদিকতার মাধ্যমে নিজেদের শুভবুদ্ধি ও শুভচিন্তার প্রতিফলন ঘটাতে হবে। নিয়মিত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিজেদের আরও সমৃদ্ধ করে দক্ষতা ও সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে, যোগ করেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন, আমাদের লক্ষ্য একটি তথ্যভিত্তিক ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠন। এ ধরনের সমাজ গঠনে পিআইবি গবেষণা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। আশা করি, তারা ভবিষ্যতেও এ ধরনের কার্যক্রম চালিয়ে যাবে। মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পিআইবির প্রশিক্ষক পারভীন সুলতানা, মেহেরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ফজলুল হক মন্টু, সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন হোসেন বক্তব্য দেন।
কলকাতা-দিল্লির সঙ্গে চেন্নাই ফ্লাইটের ঘোষণা করলো বিমান
২৫,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: এয়ার বাবল চুক্তির অধীনে ভারতের দিল্লি ও কলকাতায় ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। পাশাপাশি নতুন রুট হিসেবে চেন্নাইয়ে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করবে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এ এয়ারলাইন্স। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বিজ্ঞপ্তিতে তিনি জানান, আগামী ২৯ অক্টোবর থেকে ঢাকা-দিল্লি-ঢাকা রুটে, ১ নভেম্বর ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা এবং ১৫ নভেম্বর ঢাকা-চেন্নাই-ঢাকা রুটে নিয়মিত যাত্রীবাহী ফ্লাইট পরিচালনা শুরু হবে। যাত্রীরা বিমান সেলস সেন্টার, মোবাইল অ্যাপ, ওয়েব সাইট এবং ট্রাভেল এজেন্টের মাধ্যমে টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। করোনা সংক্রান্ত শর্ত/নির্দেশনা এবং ফ্লাইট শিডিউল বিমানের ওয়েবসাইটে এ পাওয়া যাবে। ভ্রমণের সময় যাত্রীদের ভারতে গমনের পর নিজ খরচে সাত দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তবে কারো যদি করোনার লক্ষণ-উপসর্গ থাকে তাকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এছাড়া সবাইকে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে যেতে হবে।
করোনামুক্ত হলেন তথ্যমন্ত্রী
২৫,অক্টোবর,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে মুক্ত হয়েছেন। আজ রোববার (২৫ অক্টোবর) তার করোনা টেস্টের ফল নেগেটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) মকবুল হোসেন। এপিএস মকবুল জানান, মন্ত্রী মহোদয় হয়তো আজকের মধ্যেই বাসায় ফিরবেন। করোনাকালীন প্রায় প্রতিদিনই সচিবালয়ে দাপ্তরিক কাজ করছিলেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায়ও মন্ত্রণালয়ের নথিপত্র স্বাক্ষর অব্যাহত রেখেছেন। তথ্যমন্ত্রীর স্ত্রীরও করোনা টেস্টের ফল নেগেটিভ এসেছে বলে জানান মকবুল। তবে তিনি আক্রান্ত ছিলেন না। তথ্যমন্ত্রীর অসুস্থতার সময়ে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র প্রতিদিনই হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়া হতো। এই সময়ে সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রের নির্মাণকালের মেয়াদ বৃদ্ধি, চলচ্চিত্রের কাহিনীকার ও চিত্রনাট্যকারদের সম্মানী, রাশপ্রিন্ট অবলোকন, বিদেশি শিল্পী-কলাকুশলীদের আগমন, তাদের ওয়ার্ক পারমিটের মেয়াদ বাড়ানো, তথ্য অধিদফতর ও গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের পদ সৃজন ও মঞ্জুরি, অধিদফতরগুলোর টিও অ্যান্ড ই-তে যানবাহন অন্তর্ভুক্তিসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন তথ্যমন্ত্রী। উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবরের পরীক্ষায় পজিটিভ আসে তথ্যমন্ত্রীর। এরপর তিনি রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে স্থানান্তর হন। তবে তার শারীরিক কোনো জটিলতা ছিল না।

জাতীয় পাতার আরো খবর