বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৮, ২০২১
৩ সপ্তাহ পর সড়কে গণপরিবহন
১১আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : টানা ১৯ দিনের (৩ সপ্তাহ) কঠোর বিধিনিষেধ শিথিলের পর স্বাস্থাবিধি মেনে আবারও চলতে শুরু করেছে গণপরিবহন। যত সিট তত যাত্রী নিয়ে বুধবার (১১ আগস্ট) ভোর থেকে রাজধানীসহ সারা দেশে গণপরিবহন চলতে শুরু করে। এতে সাধারণ যাত্রীদের মনে অনেকটা স্বস্তি ফিরেছে। এর আগে রোববার (৮ আগস্ট) সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করে জানানো হয়, যত সিট তত যাত্রী নিয়ে ১১ আগস্ট থেকে চলতে পারবে গণপরিবহন। তবে মোট পরিবহন সংখ্যার অর্ধেক গাড়ি নামতে পারবে সড়কে। তবে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ মন্তব্য করে বলেন, সড়কে অর্ধেক গাড়ি চলাচলের বিষয়টি নির্ণয় করা কঠিন হবে। তিনি বলেন, এক মালিকের কয়টি গাড়ি আছে বা কতটা গাড়ি সে দেশব্যাপী চালাচ্ছে এ বিষয়টি নির্ণয় করা একদিকে যেমন কঠিন হবে, অন্যদিকে শ্রমিকেরা বেকার থাকবে, তাদের কষ্ট লাঘব হবে না। মালিকরাও ব্যবসায়িকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাছাড়া অর্ধেক গাড়ি চলাচলের ফলে পরিবহন সংকট দেখা দেবে এবং যাত্রীর চাপ বাড়বে। এতে করে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। এ সময় তিনি জানান, সরকারের এ সিদ্ধান্ত পরিতবর্তন করে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সব গণপরিবহন চালাতে চায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। এদিকে মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) গণপরিবহন চলাচলের বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছে যে, গণপরিবহনে কোনো যাত্রী দাঁড়িয়ে নেওয়া যাবে না। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়: ১. আসন সংখ্যার অতিরিক্ত কোনো যাত্রী পরিবহন করা যাবে না এবং দাঁড়িয়ে কোনো যাত্রী বহন করা যাবে না। সড়ক পথে গণপরিবহন চলাচলের ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসন (সিটি করপোরেশন এলাকায় বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসক) নিজ নিজ অধিক্ষেত্রের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, সংশ্লিষ্ট দপ্তর/ সংস্থা, মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা করে প্রতিদিন মোট পরিবহন সংখ্যার অর্ধেক চালু করতে পারবে। ২. পূর্বের ভাড়ায় (৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া প্রযোজ্য হবে না) গণপরিবহন চলবে। পূর্বের ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া কোনোভাবেই আদায় করা যাবে না। ৩. গণপরিবহনের যাত্রী, চালক, সুপারভাইজার/কন্ডাক্টর, হেলপার-কাম ক্লিনার এবং টিকিট বিক্রয় কেন্দ্রের দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তিদের মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে এবং তাদের জন্য প্রয়োজনীয় হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। ৪. যাত্রার শুরু ও শেষে যানবাহন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নসহ জীবাণুনাশক দিয়ে জীবাণুমুক্ত করতে হবে। এছাড়া যাত্রীদের হাতব্যাগ, মালপত্র জীবাণুনাশক ছিটিয়ে জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা যানবাহনের মালিকদের করতে হবে। ৫. গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিষয়াদি মেনে চলতে হবে। অন্যথায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া
বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি করলে শূলে চড়ানো হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
১০আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : বঙ্গবন্ধুর নামে কেউ চাঁদাবাজি করলে তাকে শূলে চড়ানোর কথা বলেছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি করা হলে শূলে চড়ানো হবে। বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি কাম্য নয়। আগামী ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি নিউইয়র্কের ঐতিহাসিক টাইমস স্কয়ারে বিলবোর্ডে প্রদর্শিত হবে। এই উপলক্ষে আয়োজকদের ৫০ লাখ টাকা সহায়তা দিয়েছে আনোয়ার গ্রুপ ও বাংলাদেশ ফিন্যান্স। মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই সহায়তা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে টাইমস স্কয়ারে বঙ্গবন্ধুর ছবি প্রদর্শিত হবে। এটা খুব ভালো উদ্যোগ। এখানে কোনো চাঁদাবাজি হচ্ছে না। বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি হলে শূলে চড়ানো হবে। বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি কাম্য নয়। অনুষ্ঠানে আনোয়ার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মানোয়ার হোসেন ২৫ লাখ ও বাংলাদেশ ফিন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ২৫ লাখ টাকার প্রতীকী চেক হস্তান্তর করেন। অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভার্চ্যুয়ালি বক্তব্য দেন ড্রিম প্রোডাকশনের প্রধান নির্বাহী ফাহিম ফিরোজ। নিউজ একাত্তর / কামরুজ্জামান
একনেকে ১০ প্রকল্প অনুমোদন, ব্যয় ৮ হাজার কোটি টাকা
১০আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে দশটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) একনেক সভায় প্রকল্পগুলো অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করলে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন প্রকল্পগুলো অনুমোদন দেন। এ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৭ হাজার ৯৮৫ কোটি ৫১ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৬ হাজার ৬৬০ কোটি টাকা, প্রকল্প ঋণ থেকে ১ হাজার ১৮৮ কোটি টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে ১৩৭ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। এর আগে, সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষের বৈঠকে যুক্ত হয়ে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। অন্যদিকে এনইসি সম্মেলন কক্ষে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও সচিবরা উপস্থিত ছিলেন। একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ভিডিও কনফারেন্স ও সরাসরি সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান প্রকল্পগুলো হচ্ছে- সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের ৮৬১ কোটি ৩৮ লাখ টাকা ব্যয়ে জরাজীর্ণ, অপ্রশস্ত ও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বিদ্যমান বেইলি ও অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ সেতু প্রতিস্থাপন (রংপুর জোন) প্রকল্প। একই মন্ত্রণালয়ের বাগেরহাট-রামপাল-মোংলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্প। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৬৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের গ্রাম পর্যায়ে টেলিটকের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ এবং ৫-জি সেবা প্রদানে নেটওয়ার্ক আধুনিকায়ন প্রকল্প। এর জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ১৪৪ কোটি টাকা। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের দেশি ও বিদেশি উৎস থেকে মুক্তিযুদ্ধের অডিও ভিজুয়াল দলিল সংগ্রহ ও সংরক্ষণ এবং বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের সক্ষমতা বৃদ্ধি প্রকল্প। এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৬২ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের চর ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড সেটেলমেন্ট প্রজেক্ট-ব্রিজিং (অতিরিক্ত অর্থায়ন, এলজিইডি অংশ) প্রকল্প। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ১০৬ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। একই মন্ত্রণালয়ের ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ৯০ কোটি টাকা। পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের পল্লী জীবিকায়ন প্রকল্প-৩য় পর্যায় প্রকল্প। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৯২৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কুড়িগ্রাম জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত দুধকুমার নদী ব্যবস্থাপনা ও উন্নয়ন প্রকল্প। এর জন্য ব্যয় হয়েছে ৬৯২ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপকূলীয় চরাঞ্চলে সমন্বিত প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন (১ম সংশোধিত) প্রকল্প। সংশোধনের মাধ্যমে ব্যয় বেড়ে হচ্ছে ১৫৪ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিদসম্পদ মন্ত্রণালয়ের শেখ হাসিনা সোলার পার্ক, জামালপুরে মাদারগঞ্জ ১০০ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প, যা বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩১৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা। নিউজ একাত্তর / কামরুজ্জামান
পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা নিয়ে যা বললেন প্রকল্প পরিচালক
১০আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কায় কোনো ক্ষতি হয়নি জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেছেন, বারবার সেতুর পিলারে ধাক্কা লাগা অনভিপ্রেত। মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) দুপুরে তিনি এ কথা বলেন। গতকাল রাতে পদ্মা সেতুর ১০ নম্বর পিলারের সঙ্গে রো রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরের ধাক্কা লাগে। এতে কোনো হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও ফেরিতে থাকা বেশ কিছু গাড়ি ক্ষয়-ক্ষতির শিকার হয়। পিলারে ফেরির ধাক্কা লাগার ঘটনায় লৌহজং থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষ। এর আগে গত ২৩ জুলাই পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের সঙ্গে রো রো ফেরি শাহজালালের ধাক্কা লাগে। এতে ফেরিটির কমপক্ষে ২০ জন যাত্রী আহত হন। এছাড়া ২০ জুলাই পদ্মা সেতুর ১৬ নম্বর পিলারের সঙ্গে রো রো ফেরি শাহ মখদুমের ধাক্কা লাগে। এ নিয়ে সেতুর পিলারে তিনবার ধাক্কা লাগার ঘটনা ঘটল। নিউজ একাত্তর / কামরুজ্জামান
বাংলাদেশ দলকে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন
০৯আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও জয়লাভ করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়, কোচ ও ম্যানেজারসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (৯ আগস্ট) এক অভিনন্দন বার্তায় টাইগারদের জয়ের ধারা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে রাষ্ট্রপতি আশা প্রকাশ করেন। এছাড়া টাইগারদের এই জয়ে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল অভিনন্দন জানিয়েছেন। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া
সড়কে নামতে প্রস্তুত হচ্ছে গণপরিবহন
০৯আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : সারা দেশে লকডাউনের বিধিনিষেধ শিথিল হওয়ায় চলবে বুধবার (১১ আগস্ট) থেকে বাস, ট্রেনসহ সব ধরনের গণপরিবহন। খুলবে দোকানপাট ও রেস্টুরেন্ট। রোববার এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। প্রজ্ঞাপন জারির পর থেকে সড়কে নামতে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে পরিবহন কোম্পানিগুলো। বিক্রি হচ্ছে অগ্রিম টিকিটও। এ ছাড়া পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজে ব্যস্ত দোকান ও রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ। ঈদুল আজহার পর টানা ১৯ দিন কঠোর লকডাউনের বিধিনিষেধ উঠছে বুধবার থেকে। রোববার (৮ আগস্ট) দেশব্যাপী লকডাউনের শিথিলতার বিষয়ে এক প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এরপর থেকেই পরিবহন খাতের দীর্ঘ স্থবিরতায় ফিরে প্রাণ-চাঞ্চল্যতা। প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সোমবার (৯ আগস্ট) থেকেই চলছে নানা প্রস্তুতি। সকালে রাজধানীর বাস টার্মিনালগুলো ঘুরে দেখা গেছে, শ্রমিকরা বাস ধোয়ামোছার কাছে ব্যস্ত সময় পার করছেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে যন্ত্রপাতি। রং করে বাস চলাচলের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। চালক ও হেলপাররা জানান, অনেক দিন ধরে গাড়িগুলো বসে আছে। তাই ইঞ্জিন চালু করে দেখা হচ্ছে ঠিক আছে কি না। এ ছাড়া ময়লা পড়ে যাওয়ায় তা পরিষ্কার করা হচ্ছে। তবে বাস কাউন্টারগুলো এখনও বন্ধ থাকলেও মঙ্গলবার থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। এদিকে আগাম টিকিট বিক্রিও অংশ হিসেবে সকাল ৮ থেকে শুরু হয়েছে কমলাপুর রেলস্টেশনে টিকিট বিক্রি। সোমবার দেওয়া হচ্ছে ১১, ১২ ও ১৩ তারিখের টিকিট। একই সঙ্গে টিকিট বিক্রি হচ্ছে অনলাইনেও। দীর্ঘদিন পর কাউন্টারে টিকিট কাটতে পেরে খুশি যাত্রীরা। কোনো ঝামেলা ছাড়া টিকিট নিতে পেরে স্বস্তি প্রকাশ করেন রেল যাত্রীরা। কমলাপুর রেলস্টেশন মাস্টার রফিকুল ইসলাম জানান, শতভাগ টিকিট বিক্রি হবে কাউন্টার ও অনলাইনে। সেক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতার অংশ হিসেবে স্টেশন ও ট্রেনে জীবাণুনাশক ছিটানো, যাত্রীদের হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেওয়া ও মাস্ক বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এ ছাড়া কমলাপুর যেসব ট্রেন অবস্থান করছে, সেগুলো যথারীতি চলাচল করবে। আর ঢাকার বাইরে যেসব ট্রেন অবস্থান করছে সেগুলো ঢাকায় আসার পর একইভাবে স্বাভাবিক নিয়মেই সব ট্রেন চলবে। অন্যান্য খাতের মতো বুধবার থেকে খুলবে দোকানপাট ও শপিংমল ও রেস্টুরেন্ট। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় ব্যস্ত রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশ রেস্টুরেন্ট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন মহাসচিব ইমরান হাসান বলেন, সরকারের প্রজ্ঞাপন বা নির্দেশনা অনুযায়ি সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েই রেস্টুরেন্ট খোলা হবে। যে কেউ বিধিবিধান পাল করবে না, তার দায়িত্ব অ্যাসোসিয়েশন নেবে না। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সড়ক, রেল ও নৌপথে আসন সংখ্যার সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে। আর স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল, মার্কেট, দোকানপাট ও রেস্টুরেন্ট চলবে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া
যুক্তরাষ্ট্র কোভিড সহায়তা হিসেবে বাংলাদেশকে ১১.৪ মিলিয়ন ডলার দিবে
০৯আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে কার্যকর কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন অভিযান চালাতে জরুরি ভিত্তিতে অতিরিক্ত ১১.৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে। আজ মার্কিন দূতাবাস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, ইউনাইটেড স্টেটস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ইউএসএইড)-এর মাধ্যমে এই অর্থ, বাংলাদেশকে চলমান কভিড-১৯ এর ঢেউ থেকে রক্ষায় জীবন-রক্ষাকারী অক্সিজেন সরবরাহে সহায়তা করবে। বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার বলেন, ঐতিহাসিক আমেরিকান রেসকিউ প্ল্যান এর মাধ্যমে এই অতিরিক্ত অনুদান- বাংলাদেশকে চলমান কভিড-১৯ মোকাবেলায় আমাদের সহায়তার একটি অংশ। বাংলাদেশের কভিড মোকাবেলা কার্যক্রমে যুক্তরাষ্ট্রকে দেশটির সবচেয়ে বড় দাতা হিসেবে উল্লেখ করে মার্কিন রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, বিগত পাঁচ দশকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য-খাতের উন্নয়নে আমেরিকা বাংলাদেশের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ অংশীদার। মিলার আরো বলেন, মহামারির বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ের এই বিশেষ সংকটময় মুহূর্তে আমাদের অংশীদারিত্ব পূর্বের যে কোন সময়ের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এই অতিরিক্ত অর্থ বাংলাদেশকে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস সংক্রমণ রোধে প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম জোরদারের পাশাপাশি মানসম্মত চিকিৎসা-সেবা প্রদান ও দেশব্যাপী ক্রমবর্ধমান রোগীর চিকিৎসায় সহায়তা করবে। এই নতুন তহবিলের ফলে, বৈশ্বিক মহামারি শুরুর পর থেকে বাংলাদেশে দেয়া যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সহায়তার পরিমাণ দাঁড়ালো মোট ৯৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি। যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় দেশটির সরকার ও অন্যান্য অংশীদারদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাবে। যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে মর্ডানার ৫৫ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন প্রদান ও জাতীয় টিকা অভিযান শুরু করতে স্বক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে। ইউএসএইড, মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর ও মার্কিন রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রগুলোর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র সরকার চিকিৎসা সামগ্রী, ভেন্টিলেটর, অক্সিজেন সরঞ্জামাদি এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে কর্মরত সম্মুখসারীর কর্মীদের জন্য কয়েক লাখ ব্যাক্তিগত নিরাপত্তা সামগ্রী প্রদান করেছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় পরীক্ষা ও পর্যবেক্ষণ সক্ষমতা বৃদ্ধি, মানুষের প্রাণ রক্ষা পেয়েছে এবং কভিড-১৯ আক্রান্ত রোগিদের চিকিৎসা করা হয়েছে। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ, পরীক্ষাগারের উন্নয়ন ও পরীক্ষা সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সরবরাহ চেইন ও লজিস্টিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের উন্নয়ন হয়েছে। এতে আরো বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র সম্মুখসারির যোদ্ধা বা কর্মীদের সুরক্ষায়ও সহায়তা করেছে। এর পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে নিজেদের সুরক্ষা ও কভিড-১৯ সম্পর্কে অবগত ও সচেতন করতেও যুক্তরাষ্ট্র সহায়তা করেছে। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া
লন্ডনে বঙ্গমাতার জীবনাদর্শ নিয়ে রচিত গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন
০৯আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : লন্ডনে হাই কমিশন বঙ্গমাতার জীবনের ওপর বই ও প্রবন্ধের বিশেষ ইংরেজি সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন করেছে। বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেসা মুজিবের ৯১তম জন্মর্বাষিকীতে সেখানকার সময় অনুযায়ি গতকাল বাংলাদেশ হাই কমিশন বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছার প্রতি বিন&;্র শ্রদ্ধা সংগ্রামে-সংকটের নির্ভীক সাথী র্শীষক এক স্মারক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এ বই ও প্রবন্ধের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা এম.পি. বঙ্গমাতার জীবনের ওপর লেখা বই ও প্রবন্ধের বিশেষ ইংরেজি সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন করেন। যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীমের সভাপতিত্বে স্মারক অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট রাজনৈতিক কর্মী ও সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, এমপি। আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন শিশু একাডেমির সভাপতি প্রখ্যাত নাট্য ব্যক্তিত্ব লাকি ইনাম, যুক্তরাজ্যে মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ ও ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতৃস্থানীয় সদস্য সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক। এই ভার্চুয়াল স্মারক অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশি বিশিষ্ট ব্যক্তির্বগসহ তরুণ প্রজন্মের অনেকে অংশ গ্রহণ করে বঙ্গমাতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বঙ্গমাতার জীবনের ওপর লন্ডন মিশনের বিশেষ ইংরেজি প্রকাশনার উদ্যোগকে স্বাগত: জানান মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী। ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা বলেন, বঙ্গমাতা সরাসরি রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন না। কিন্তু তিনি ছিলেন দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ একজন অত্যন্ত রাজনীতি সচেতন এবং রাজনৈতিক ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর অন্যতম পথ প্রর্দশক। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া
প্রস্তাব যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে: বয়সে ২১ মাসের ছাড় পাচ্ছেন চাকরিপ্রার্থীরা
০৯আগষ্ট ২০২১, নিজেস্ব সংবাদদাতা , নিউজ একাত্তর : করোনা মহামারীর কারণে সরকারি চাকরিতে সব ধরনের নিয়োগ স্থগিত রয়েছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন চাকরিপ্রত্যাশীরা। তাদের ক্ষতি পুষিয়ে দিতে বয়সে ২১ মাস ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। গত বছরের ২৫ মার্চ পর্যন্ত যাদের বয়স ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে, তারা আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রকাশিতব্য সব নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের সুযোগ পাবেন। এ সময়ের মধ্যে যাদেরই বয়স ৩০ বছর হবে তারাও এই সুযোগ পাবেন। এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবের সার-সংক্ষেপ তৈরি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রস্তাবটি অনুমোদনের জন্য আজ প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হতে পারে। খবর সংশ্লিষ্ট সূত্রের। জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গতকাল সচিবালয়ে বলেন, করোনার কারণে সরকারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি স্থগিত রয়েছে। চাকরিপ্রত্যাশী শিক্ষিত বেকারদের ক্ষতি পুষিয়ে দিতে তাদের বয়সে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। যাদের বয়স ২০২০ সালের ২৫ মার্চ ৩০ বছর পূর্ণ হয়েছে, তারা যাতে চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির বিপরীতে আবেদন করতে পারেন- এমন একটি প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি সাপেক্ষে এটি কার্যকর হলে চাকরিপ্রার্থীরা করোনাকালীন ২১ মাস বয়সের ছাড় পেতে পারেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা জানান, এর আগে গত বছরের সেপ্টেম্বরে চাকরিপ্রত্যাশীদের পাঁচ মাসের বয়সের ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। তবে ওই সময় শুধু ২৫ মার্চের আগে ছাড়পত্র পাওয়া নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়সের ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু এবার সব ধরনের সরকারি নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়সের এ ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবেন প্রধানমন্ত্রী। তার সম্মতি পাওয়া গেলে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হয়। এরপর দিন দিন বাড়তে থাকে করোনা সংক্রমণ। করোনার কারণে গত বছরের ২৬ মার্চ থেকে দেশে টানা ৬৬ দিন সাধারণ ছুটি (লকডাউন) ছিল। মাঝে কিছুদিন বিরতি দিয়ে চলতি বছরের এপ্রিল থেকে আবারও শুরু হয়েছে বিধিনিষেধ (লকডাউন)। প্রায় দেড় বছর ধরে দেশে সরকারি চাকরির নিয়োগ কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও এর অধীনস্থ দফতরগুলোতে ৩ লাখ ৮০ হাজার ৯৫৫টি পদশূন্য রয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সরকারি চাকরির মোট অনুমোদিত পদ রয়েছে ১৮ লাখ ৮৫ হাজার ৮৬৮টি। এর মধ্যে কর্মরত রয়েছে ১৫ লাখ ৪ হাজার ৯১৩ জন। এর মধ্যে নারী ৪ লাখ ১৪ হাজার ৪১২ জন। শূন্য পদগুলোর মধ্যে প্রথম শ্রেণির পদ খালি ৪৬ হাজার ৬০৩টি, দ্বিতীয় শ্রেণির পদ রয়েছে ৩৯ হাজার ২৮, তৃতীয় শ্রেণির পদ রয়েছে ১ লাখ ৯৫ হাজার ৯০২ এবং চতুর্থ শ্রেণির পদ খালি রয়েছে ৯৯ হাজার ৪২২টি। এসব পদের বিপরীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেও করোনার কারণে পরীক্ষা নিতে পারছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ সময়ের মধ্যে অনেকের চাকরির বয়স ৩০ বছর পেরিয়ে গেছে। এ কারণেই ৩০ বছর পেরিয়ে যাওয়া প্রার্থীদের চাকরির আবেদনে ২১ মাসের সময় ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বর্তমানে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ বছর, মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে ৩২ বছর। প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) মাধ্যমে নিয়োগ দেওয়া হয়। তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির পদগুলোতে নিয়োগের দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের। এ প্রসঙ্গে সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার বলেন, করোনার কারণে চাকরিপ্রার্থীদের বয়সে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত খুবই ভালো উদ্যোগ। করোনাকালে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। ফলে শিক্ষিত বেকাররা চাকরির জন্য আবেদন করতে পারেনি, অথচ অনেকের চাকরিতে আবেদনের বয়স শেষ হয়েছে। করোনার কারণে নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়সে ছাড় দেওয়া হলে চাকরিপ্রার্থীদের ক্ষতি অনেকটা পুষিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস। নিউজ একাত্তর / ভুঁইয়া

জাতীয় পাতার আরো খবর