প্রকাশ : 2020-04-06

দিনব্যাপী সাড়াশি অভিযান ৬৩ মামলায় তিন লক্ষ টাকা জরিমানা আদায়

0৬এপ্রিল,সোমবার,কমল চক্রবর্তী,বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:করোনভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ও জনগণের অবাধ চলাচল নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসন এবং সেনাবাহিনীর যৌথ অভিযানে ৬৩ টি মামলায় তিন লক্ষাধিক টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। জনসমাগম ঠেকাতে ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য প্রশাসন কিছুটা কঠোর অবস্থানে। এর প্রেক্ষিতে প্রতিদিন দুটি শিফটে অভিযান পরিচালনা করছে ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল ৫ এপ্রিল সকাল ৯ টা থেকে রাত ৯ পযর্ন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা প্রশাসন ও সেনা বাহিনীর যৌথ অভিযান পরিচালনা করেন দুই শিফটে ১০ টি টিম। প্রথম শিফট সকাল ৯ থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত। দ্বিতীয় শিফটে দুপুর ৩টা- রাত ৯ টা পর্যন্ত। প্রথম শিফটের চারটি ম্যাজিস্ট্রেসি টিম অভিযান পরিচালনা করেনঃ চান্দগাঁও, পাঁচলাইশ, খুলশী, বাকলিয়া এলাকায় অভিযান চালান র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল হাসান। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন অভিযান চালায় ডবলমুরিং, বন্দর, ইপিজেড, পতেঙ্গা এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা আফরোজ চকবাজার, বায়েজিদ, সদরঘাট, কোতোয়ালী এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক অভিযান চালায় হালিশহর, পাহাড়তলী, আকবরশাহ এলাকায়। দ্বিতীয় শিফটে জেলা প্রশাসন ও সেনা বাহিনীর যৌথ অভিযান পরিচালনা করেন নিম্নোক্ত ছয়টি ম্যাজিস্ট্রেসি টিমঃ র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনূন আহমেদ অনিক অভিযান পরিচালনা করেন চান্দগাঁও, পাঁচলাইশ, খুলশী এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ অভিযান চালায় বাকলিয়া , ডবলমুরিং এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী অভিযান চালায় সদরঘাট, কোতোয়ালী এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আশরাফুল আলম অভিযান চালায় বন্দর, ইপিজেড, পতেঙ্গা এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার অভিযান চালায় হালিশহর ,পাহাড়তলী, আকবরশাহ এলাকায়। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আলী হাসান অভিযান চালায় চকবাজার, বায়েজিদ এলাকায়। সকাল ৯ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় জেলা প্রশাসন, সেনা বাহিনী ও পুলিশ কঠোরভাবে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণে, জনগণের অযথা ঘরের বাইরে ঘুরাঘুরি নিয়ন্ত্রণে, ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরবাইক নিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণে, যত্রতত্র বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থা কর্তৃক বিশৃঙ্খলভাবে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে, বাজার মনিটরিং এ যৌথ অভিযান পরিচালনা করেছেন । বিকাল ৩ টায় দ্বিতীয় শিফটে যৌথ অভিযান শুরু হওয়ার পর হালিশহর এলাকায় বিভিন্ন দোকান ও প্রতিষ্ঠানকে নিষেধ করা সত্ত্বেও রাত ৮ঃ৩০ টায় হালিশহরের স্বপ্ন সুপার স্টোর খোলা পাওয়া যায়। এজন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরিন আক্তার হালিশহরের স্বপ্ন সুপার শপকে দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ২৬৯,২৭০ ধারায় ২ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন। র্নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ বাকলিয়া এলাকার দেওয়ান বাজারে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন অপরাধে ২১,২০০ (একুশ হাজার দুই শত টাকা) টাকা জরিমানা আদায় করেন। আজকের অভিযানে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকা খুলশী, চান্দগাও, বায়েজিদ, পাচলাইশ, চকবাজার, পাহাড়তলি, আকবর শাহ, পতেঙ্গা, লালখান বাজার মোড়, জিইসি মোড়, বন্দর এলাকা, হালিশহর এলাকায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গণ সেনাবাহিনী ও পুলিশ সহযোগে চেকপোস্ট বসিয়ে জনগণের অবাধ চলাফেরা কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছে। এমনকি অলিগলিতে অভিযান হয়েছে আড্ডাবাজি থামাতে। বিনা কারণে অহেতুক যারা ঘরের বাইরে বের হয়েছেন তাদেরকে জরিমানা করা হয়েছে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে। জেলা প্রশাসন চট্টগ্রাম সেনাবাহিনী ও সিএমপি সদস্যগণ এর সহযোগে চট্টগ্রাম মহানগরী ব্যাপী আজকে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করেন। আজকের এ অভিযানের ফলে চট্টগ্রাম মহানগরীতে আজকে ঘরের বাইরে লোকজনের যাতায়াতের প্রবণতা কমেছে। সরকারি আদেশ অমান্য করে বিনা কারণে ঘরের বাইরে ঘুরাঘুরি করার দায়ে, সরকারি আদেশ অমান্য করে জরুরি সেবা ও পণ্য ব্যতীত অপ্রয়োজনীয় দোকান খোলা রাখার কারণ, অলিগলিতে বিভিন্ন স্থানে আড্ডাবাজি বসানোর দায়ে, বিনা প্রয়োজনে গাড়ি, মোটরবাইকে যাতায়াত করায় উপরোক্ত ম্যাজিস্ট্রেটগণ মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে মোট ৬৩ টি মামলায় ৬৩ জন ব্যক্তি/ দোকান/প্রতিষ্ঠানকে সরকারি আদেশ ও রাষ্ট্রীয় আইন ভঙ্গ করেছেন তাদের সামর্থ্য বিবেচনায় রেখে আজকের যৌথ অভিযানে মোট ৩১৪,৮০০/- (তিন লক্ষ চৌদ্দ হাজার আটশত) টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর