প্রকাশ : 2020-04-05

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা

0৫এপ্রিল,রবিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা রোধে বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারান্টাইন নিশ্চিতকরণ, বাজার মনিটরিং ও সেনা বাহিনীকে আইনানুগ নির্দেশনা প্রদানের উদ্দেশ্যে নগরীতে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত। আজ রবিবার (৫ মার্চ) সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় এই অভিযান চালানো হয়। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন এর নেতৃত্বে আজ সকাল ৯ টা থেকে নগরীর ডবলমুরিং, বন্দর, ইপিজেড ও পতেঙ্গার বিভিন্ন আবাসিক এলাকা ও বাজারে অভিযান চালানো হয়। অভিযান চলাকালে করোনা ভাইরাসজনিত প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধের লক্ষ্যে বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারান্টাইন নিশ্চিতকরণ, বাজার মনিটরিং ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা হয়। তবে এসকল এলাকায় আজ কোন জরিমানা বা মামলা করা হয়নি। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা আফরোজ এর নেতৃত্বে কোতোয়ালি, সদরঘাট, চকবাজার, বায়েজিদ এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানে দন্ডবিধি ২৬৯ ধারা ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বায়েজিদ এলাকায় ২ প্রবাসীর হোম কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করণ মনিটরিং করা হয়। এদিকে ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক এর নেতৃত্বে পাহাড়তলী, হালিশাহ ও আকবরশাহ এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানে বিদেশ ফেরত প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টেন নিশ্চিত করা হয়। বাংলাদেশ কোরিয়া প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের কলোনীতে আসা একজন তাবলিগের মুসল্লিকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্যে অনুরোধ করা হয়। এছাড়াও ম্যাজিস্ট্রে আশরাফুল হাসানের নেতৃত্বে চান্দগাও, পাঁচলাইশ, খুলশি, বাকলিয়া এলাকার অভিযান চালানো হয়। অভিযানে বিদেশ ফেরত প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হয়। এসময় ফয়েজ লেক এলাকায় একটি সেলুন খোলা রাখায় এবং সেলুনের ভেতর একসাথে অনেক লোকের ভীড় পাওয়ায় সেলুনের মালিককে ৫০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। জেলা প্রশাসকের স্টাফ অফিসার ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদুর রহমান এ অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর থেকে জানানো হয়, গত ১০ মার্চ থেকে চট্টগ্রামে হোম কোয়ারেন্টাইন করেছেন ১৫ হাজার ১ শত ৬২, হোম কোয়ারেন্টাইন হতে ছাড়পত্র পেয়েছেন ১৩ হাজার ৯ শত ৬৩ জন, বিভিন্ন হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনরত আছে ৪২ জন, হাসপাতাল কোয়ারেন্টাইন হতে ছাড়পত্র প্রাপ্ত ২৮ জন, আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ২০ জন, আইসোলেশন হতে ছাড়পত্র প্রাপ্ত ১৩ জন। আজ চট্টগ্রামে করোনায় কোন রোগী মারা যায়নি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর