মঙ্গলবার, এপ্রিল ৭, ২০২০
প্রকাশ : 2020-03-12

Rab এর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জকির বাহিনীর ২ সদস্য নিহত

১২মার্চ,বৃহস্পতিবার,টেকনাফ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে Rabর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা ডাকাত জকির বাহিনীর ২ সদস্য নিহত হয়েছে। আজ বুধবার (১১ মার্চ) রাত ১টার দিকে টেকনাফের শাপলাপুর মেরিনড্রাইভ সড়কে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী ও Barর মধ্যে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিদেশি ১টি পিস্তল, ৬ রাউন্ড গুলি, ১টি এক নলা বন্দুক ও ৫ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। এতে Rabর ৩ সদস্য আহত হয়েছেন। Rab-15 এর টেকনাফ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মির্জা শাহেদ মাহতাব জানান, রাতে সশস্ত্র ডাকাত দল মেরিনড্রাইভ সড়কে জড়ো হয়েছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে Rab এর একটি দল সেখানে গেলে ডাকাত দলের সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এ সময় Rab ও পাল্টা গুলি ছুড়ে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল থেকে দু জনের মরদেহ, অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়। তিনি জানান, নিহত দু জনই রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার জকির গ্রুপের সদস্য। নিহতদের মরদেহ টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সেখান থেকে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও জানান, এর আগে গত ১ মার্চ দিবাগত রাতে টেকনাফের মোচনী জাদিমোরা ক্যাম্প সংলগ্ন গভীর পাহাড়ে রোহিঙ্গা শীর্ষ সন্ত্রাসী ও ডাকাত জকির বাহিনীর সঙ্গে Rab এর গোলাগুলিতে সাতজন নিহত হন। এসময় ১০টি অস্ত্র ও ২৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। ৬ মার্চ বিকেলে হাবিরছড়া পাহাড়ি এলাকায় ডাকাত জকির গ্রুপের সঙ্গে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত ও রোহিঙ্গা ৩ ডাকাতকে অস্ত্র, গুলি, ইয়াবা ও বিভিন্ন বাহিনীর পোশাকসহ আটক করা হয়। উল্লেখ্য, টেকনাফের নয়াপাড়া, শালবাগান ও জাদিমোরা রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায় অবস্থান নিয়ে অস্ত্রধারী জকির বাহিনীসহ বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী গ্রুপ মাদক ব্যবসা, খুন, অপহরণসহ নানা অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিল। এর আগেও সন্ত্রাসীদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গোলাগুলির একাধিক ঘটনা ঘটেছিল। এতে রোহিঙ্গা শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরুল আলমসহ বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী নিহত হন।

সারা দেশ পাতার আরো খবর