রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০
প্রকাশ : 2020-02-04

বর্তমানে দেশে দৈনিক পত্রিকা ১২৭৭টি : সংসদে তথ্যমন্ত্রী

০৪ফেব্রুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশে প্রচলিত দৈনিক পত্রিকার সংখ্যা এক হাজার ২৭৭টি। এরমধ্যে ইংরেজী দৈনিক পত্রিকার সংখ্যা ৪০টি।সংসদে প্রশ্নোত্তরে মঙ্গলবার সরকারি দলের বেনজীর আহমদের (ঢাক-২০) লিখিত প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী এই তথ্য জানান। মঙ্গলবার বিকালে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উপস্থাপিত হয়। মন্ত্রী প্রচার সংখ্যার ক্রমানুসারে পত্রিকাগুলোর তালিকা সংসদে তুলে ধরেন। সেখানে শীর্ষে বাংলাদেশ প্রতিদিন। পত্রিকাটির প্রচার সংখ্যা ৫ লাখ ৫৩ হাজার ৩০০। এরপরে রয়েছে দৈনিক প্রথম আলো ৫ লাখ ১ হাজার ৮০০টি। তৃতীয় থেকে সপ্তম স্থানে যৌথভাবে রয়েছে দৈনিক জনকন্ঠ, কালেরকণ্ঠ, ইত্তেফাক, আমাদের সময়। এসব পত্রিকার প্রচার সংখ্যা ২ লাখ ৯০ হাজার ২শ। ৮ম স্থানে সমকাল, ৯ম এ সংবাদ এবং দশম স্থানে রয়েছে ভোরের কাগজ। এরপরে রয়েছে বিজনেস বাংলাদেশ, অন্যদিকে ইংরেজি দৈনিকের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে ডেইলি স্টার (প্রচার সংখ্যা ৪৪ হাজার ৮১৪), দ্বিতীয় স্থানে যৌথভাবে ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস ও ডেইলি সান (৪১ হাজার) এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছে ঢাকা ট্রিবিউন (৪০ হাজার ৬শ)। সরকার দলের অসীম কুমার উকিলের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী জানান, বর্তমান সংস্কৃতিবান্ধব সরকারের আমলে চলচ্চিত্রকে যুগোপযোগী উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প ও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। মানসম্পন্ন ও সৃষ্টিশীল চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকার অনুদান প্রদান করছে। অনুদানপ্রাপ্ত বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসা অর্জন করেছে। এছাড়াও দেশীয় সংস্কৃতি লালনে বর্তমান সরকার সৃজনশীল চলচ্চিত্র নির্মাতাদের আগ্রহ সৃষ্টির লক্ষ্যে সরকারি অনুদানে ছবি নির্মাণের সুযোগ বৃদ্ধি করেছে। মন্ত্রী জানান, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র, শিশুতোষ চলচ্চিত্র ও দেশীয় সংস্কৃতি লালনে যেকোনো ধরনের চলচ্চিত্র নির্মাণে কেউ আগ্রহী হলে সরকার বিশেষ পৃষ্ঠপোষকতা করে থাকে। সরকারের এই সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করার ফলে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র তার হারানো গৌরব ফিরে পাবে বলে আশা করা যায়। সংরক্ষিত মহিলা আসনের মোছাঃ শামীমা আক্তার খানমের প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান মাহমুদ জানান, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদফতর মুজিব বর্ষ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনা-সংগ্রাম, স্বাধীনতা ও উন্নয়ন শীর্ষক প্রামাণ্যচিত্রগুলো তৈরি করা হচ্ছে। প্রামাণ্যচিত্রগুলো তৈরি সম্পন্ন হলে সেগুলো গণযোগাযোগ অধিদফতরের মাধ্যমে দেশের সকল জেলা, উপজেলা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা নেয়া হবে।