প্রকাশ : 2018-02-11

মালদ্বীপে কমছে কাজের ক্ষেত্র ফিরতে হতে পারে বহু কর্মীকে

মালদ্বীপ সঙ্কটে বাংলাদেশী কর্মীরা বড় ধরনের বিপাকে পড়তে যাচ্ছেন। দেশটিতে জরুরী অবস্থা জারির পর থেকে বিদেশী কর্মীদের কাজের ক্ষেত্র সঙ্কুচিত হয়ে পড়েছে। ইতোমধ্যে দেশটিতে বাংলাদেশী বহুকর্মী বেকার হয়ে পড়েছেন। গ্রেফতার এড়াতে অবৈধ কর্মীরা কর্মস্থলে যাওয়ার সাহস পাচ্ছেন না। এখন তাদের জমানো টাকা খরচ করে চলতে হচ্ছে। কাজে যেতে না পারলে অল্পদিনের মধ্যে তারা আরও খারাপ পরিস্থিতির শিকার হবেন। এমন অবস্থায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় আশঙ্কা প্রকাশ করেছে মালদ্বীপ থেকে বহু কর্মীকে দেশে ফিরতে হতে পারে। এদিকে মালদ্বীপ নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও যুক্তরাষ্ট্র মালদ্বীপের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারির চিন্তা করছে। যদি সীমিত আকারেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় তাহলেও দেশটির অর্থনীতিতে চরম চাপ সৃষ্টি হবে। অর্থনৈতিক সঙ্কট তৈরি হলে হাজার হাজার বিদেশী কর্মীদের চাকরি এমনিতেই চলে যাবে। বাংলাদেশের প্রায় এক লাখ কর্মী দেশটিতে বর্তমানে কাজ করছেন। মালদ্বীপ সঙ্কট নিয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মালদ্বীপ পরিস্থিতি সব সময় মনিটর করা হচ্ছে। দেশটিতে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন সর্বক্ষণিক মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। ইতোমধ্যে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কিছু নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দূতাবাস নির্দেশগুলো যথাযথভাবে পালন করেছে। দূতাবাস মালদ্বীপে বাংলাদেশী নাগরিকদের বিনা প্রয়োজনে বাইরে চলাফেরায় সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে। জরুরী প্রয়োজনে কর্মীদের জন্য একটি হটলাইনও চালু করা হয়েছে। দেশটিতে জরুরী অবস্থা জারির পর নিজ দেশের নাগরিক ও বিদেশী নাগরিকদের চলাফেরায় অনেক সীমাবদ্ধতা আরোপ করেছে সেনাবাহিনী। হাইকমিশন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে কর্মীদের নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের হিসাবে দেশটিতে বর্তমানে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত আছেন প্রায় এক লাখ বাংলাদেশী।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর