প্রকাশ : 2019-09-17

উদ্বোধনের দিনই পদ্মা সেতু দিয়ে ট্রেন চলবে: রেলমন্ত্রী

১৭সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: উদ্বোধনের দিনই স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে ট্রেন চলাচল করবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, এ লক্ষ্যে পুরোদমে রেল লাইনের কাজ চলছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে রেলভবন মিলনায়তনে রেলমন্ত্রীর ভারত ও চীন সফর নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সালের জুলাইয়ে রেলপথের কাজ শুরুর পর তা ২০২৪ সালের ডিসেম্বরে শেষ করার কথা রয়েছে। তবে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা পর্যন্ত ৪২ কিলোমিটার রেলপথ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে খুলে দেওয়ার জন্যে সরকার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করছে। তিনি বলেন, দুই ধাপে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। প্রথম ধাপে ঢাকা থেকে মাওয়া হয়ে পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে ভাঙ্গা পর্যন্ত ৮২ কিলোমিটার ও দ্বিতীয় ধাপে ভাঙ্গা থেকে যশোর পর্যন্ত ৮৫ কিলোমিটার ব্রডগেজ রেলপথ নির্মিত হবে। এ ছাড়া ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে মাওয়া পর্যন্ত প্রকল্পের কাজে সবচেয়ে বেশি অগ্রগতি হয়েছে। পদ্মা সেতুর অগ্রগতি হয়েছে এখন পর্যন্ত ৭৩ শতাংশ। স্বপ্নের এ সেতু উদ্বোধনের দিনেই এর ওপর দিয়ে ট্রেন চলাচল করবে। মন্ত্রী এ সময় ভারত ও চীন সফর নিয়ে তার অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, আমরা ভারতের ট্রেন, তাদের ট্রেনে আধুনিকতা সরেজমিনে দেখে এসেছি। আমাদের দেশে চলাচল করা ২৬৩ ট্টেনের ৬৮ শতাংশ মেয়াদ আছে, বাকিগুলোর নেই। আমরা ভারতের কাছে থেকে কিছু ইঞ্জিন কেনার প্রস্তাব দিলে তারা বন্ধুত্বের নিদর্শন স্বরূপ ২০টি ইঞ্জিন উপহার দেবে, যেগুলো তিন বছর পর ফেরত দেবো। ঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেসের চলাচল সপ্তাহে চার দিন থেকে বাড়িয়ে ছয় দিন করতে ভারতীয় রেলওয়েকে রাজি করিয়েছেন বলেও জানান সুজন। খুলনা-কলকাতা রুটের বন্ধন এক্সপ্রেসের যাত্রা বাড়ানোর আশাও করেন তিনি। রেলমন্ত্রী বলেন, এখন মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেন সপ্তাহে চার দিন চলাচল করে। এটাকে বাড়িয়ে ছয় দিন করতে চাই। মানে ছয় দিনে ১২ বার চলাচল করবে। বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি এক দিনের বদলে সপ্তাহে যেন তিন দিন চলতে পারে, সে বিষয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। সংবাদ সম্মেলনে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন, মহাপরিচালক মো. শামসুজ্জামানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত ২৯ আগস্ট সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, ২০২১ সালের জুনে পদ্মাসেতুর ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করবে। সেদিন তিনি আরো জানান, পদ্মাসেতুর কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৭৩ শতাংশ। তার মতে, ২০২০ সালের মধ্যে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হবে। অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজ শেষ হতে আরো ৫ থেকে ৬ মাস লাগবে বলেও উল্লেখ করেন সেতুমন্ত্রী।

জাতীয় পাতার আরো খবর