প্রকাশ : 2019-09-17

রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী অত্যাধুনিক-রাজহংস,উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

১৭সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের চতুর্থ ড্রিমলাইনার রাজহংস উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মাধ্যমে বিমানের বহরে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির চতুর্থ ও শেষ ড্রিমলাইনারটি সংযুক্ত হলো। মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল সোয়া ৪টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিআইপি টার্মিনালে ফিতা কেটে রাজহংসের উদ্বোধন করেন তিনি। এর আগে ১৪ সেপ্টেম্বর বিকাল পৌনে ৪টায় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার- রাজহংস (বিজি-৫০০৪) উড়োজাহাজটি দেশে পৌঁছায়। এটি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ১৬তম উড়োজাহাজ। এর আগে গত বছরের আগস্ট ও ডিসেম্বর মাসে- আকাশবীণা ও হংসবলাকা নামের প্রথম ও দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার বোয়িং ৭৮৭-৮ বাংলাদেশে আনা হয়। গত জুলাই মাসে তৃতীয় বিমান- গাংচিল আনা হয়। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বিমানগুলোর নামকরণ করেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ২০০৮ সালে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। ইতিমধ্যে চারটি নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও তিনটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বিমানবহরে যুক্ত হয়েছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বহরে যুক্ত হতে যাওয়া চারটি ড্রিমলাইনারের নাম পছন্দ ও বাছাই করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এগুলো হল- আকাশবীণা, হংসবলাকা, গাঙচিল ও রাজহংস। এর আগে ৪টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ২টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ইআরের নামও প্রধানমন্ত্রীর দেয়া যথা- পালকী, অরুণ আলো, আকাশ প্রদীপ, রাঙা প্রভাত, মেঘদূত ও ময়ূরপঙ্খী।

জাতীয় পাতার আরো খবর