প্রকাশ : 2019-09-09

অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে খেলাঘরের বিকল্প নেই : মেয়র

০৯সেপ্টেম্বর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাঙালি জাতির অস্তিত্বের উৎস- সংস্কৃতি। সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে অসামপ্রদায়িক বাংলাদেশ ও গোড়ামি মুক্ত মানুষ গড়তে খেলাঘরের বিকল্প নেই। কারণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ গড়ে তুলতে খেলাঘর নিরলসভাবে কাজ করছে। গত শুক্রবার সন্ধ্যে ৬টায় প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হল মিলনায়তনে খেলাঘর চট্টগ্রাম সাংস্কৃতিক একাডেমির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন একথা বলেন। খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সভাপতি ড. গাজী সালেহ উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক ছিলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুস সালাম। তিনি বলেন, শরীরের অসুখ দূর করতে যেমন হাসপাতাল তেমনি মনের অসুখ দূর করতে চাই বই পড়া, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া চর্চা। নৈতিকতার অবক্ষয়ের কারণে দেশে বর্তমানে হত্যা, রাহাজানি, মাদক ও শিশু নির্যাতন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। নৈতিক অবক্ষয় থেকে মুক্ত হয়ে উন্নত বাংলাদেশ গড়তে সাংস্কৃতিক একাডেমির প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্য্য বলেন, সংস্কৃতি পরিবর্তনশীল। শুদ্ধ সংস্কৃতি গ্রহণ ও অপসংস্কৃতি বর্জনের মাধ্যমে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সাংস্কৃতিক চর্চায় সম্বৃদ্ধ করে আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ডা. লেনিন চৌধুরী বলেন, খেলাঘর আন্দোলনের মূলভিত্তি সাহিত্য ও সংস্কৃতি। সাংস্কৃতিক একাডেমি উদ্বোধনের মাধ্যমে খেলাঘর চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক অঙ্গণে এক সোনালী অধ্যায়ের জন্ম দিয়েছে। খেলাঘর চট্টগ্রাম সাংস্কৃতিক একাডেমির পরিচালক প্রকৌশলী রথীন সেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, খেলাঘর কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার, দক্ষিণ জেলা কমিটির সভাপতি জসিম চৌধুরী সবুজ ও কাউন্সিলর তারেক সোলায়মান সেলিম। শেষে খেলাঘর জাতীয় শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম মহানগরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর