রবিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৯
প্রকাশ : 2019-08-07

চট্টগ্রামে অবৈধ পশু বাজারে অভিযান চালিয়ে চার ব্যবসায়ীকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা

০৭আগস্ট,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে নগরীর পথে ঘাটে গরু ছাগলের বাজার বসতে শুরু করেছে। কোনো ধরনের নিয়ম কানুনের তোয়াক্কা না করে বসে যাওয়া বাজারগুলো নাগরিক দুর্ভোগের কারণ হয়ে উঠছে। গতকাল মঙ্গলবার চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নগরীর খুলশী এবং হালিশহর এলাকায় দুইটি অবৈধ পশুর বাজারে অভিযান চালিয়ে চার ব্যবসায়ীকে পাঁচ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। তাদেরকে অবিলম্বে অবৈধ বাজার সরিয়ে অনুমোদিত স্থানে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। চসিকের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, কোরবানি উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকায় প্রতিবছর এক লাখেরও বেশি গরু মহিষ বিক্রি হয়। নগরীতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের অনুমোদিত সাগরিকা এবং বিবির হাটে গরু মহিষের এবং ধনিয়ালা পাড়ার পোস্তারপাড়ে ছাগলের একটি বাজার রয়েছে। এই তিনটি বাজারের বাইরে আরো ছয়টি অস্থায়ী পশুর বাজারের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে কোরবানি উপলক্ষে। এই ছয়টি বাজারের ব্যাপারে চসিক ও জেলা প্রশাসনের অনুমোদনসহ প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হয় বেশ আগে। বাজারগুলো হচ্ছে নুর নগর হাউজিং, সল্টগোলা ক্রসিং, স্টিল মিল বাজার, পতেঙ্গা হাই স্কুল মাঠ, কমল মহাজন হাট এবং পতেঙ্গা বাটার ফ্লাই পার্কের সন্নিকটের খোলা জায়গা। স্থায়ী এবং অস্থায়ী মিলে নয়টি পশুর বাজারে কোরবানি উপলক্ষে পশু বিক্রি শুরু হয়েছে। কিন্তু ওই নয়টি বাজারের বাইরেও নগরীর বিভিন্ন স্থানে বেশ কয়েকটি পশুর বাজার বসানো হয়েছে। এসব বাজারের ব্যাপারে সিটি কর্পোরেশন বা জেলা প্রশাসনের কোনো অনুমোদন নেই। অবৈধ এসব বাজারকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্থানে যানজটসহ নাগরিক দুর্ভোগ বৃদ্ধি পেয়েছে। গতকাল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ম্যাজিস্ট্রেট নগরীর হালিশহর এবং খুলশী এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুইটি অবৈধ পশুর বাজারের ব্যবসায়ীদের জরিমানা করে একদিনের মধ্যে বাজারগুলো বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। একইসঙ্গে অবৈধ বাজারগুলো থেকে কোরবানির পশু চসিকের ইজারাকৃত বাজারে স্থানান্তরে একদিনের সময় দেওয়া হয়। গতকাল দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত পরিচালিত অভিযানে নেতৃত্ব দেন চসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আকতার ও স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট জাহানারা ফেরদৌস।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর