প্রকাশ : 2019-07-01

প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে চাই পেশাগত জ্ঞান

১জুলাই ২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: একাডেমিক ডিগ্রির মাধ্যমে থিওরি ও কাজের ধরন, কর্মপরিবেশ সম্পর্কে বিশদ জ্ঞান আহরণ করা যায় ঠিকই, কিন্তু কর্মক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জনে চাই পেশাগত বা প্রফেশনাল ডিগ্রি। বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে অন্যদের চেয়ে নিজেকে এগিয়ে রাখতে এ ধরনের ডিগ্রি অর্জন জরুরি। ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে এসোসিয়েশন অব চার্টার্ড সার্টিফাইড একাউন্ট্যান্টস (এসিসিএ) এর যৌথ উদ্যোগে গতকাল রবিবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সেমিনার হলে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে একথা বলেন এসিসিএর সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার শাহ ওয়ালিউল্লাহ মঞ্জুর। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এসিসিএর বিজনেস রিলেশনশিপ ম্যানেজার রেহানা শাম্মী। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে প্রতিটি সেক্টরে প্রযুক্তির প্রাধান্য প্রতিনিয়ত বাড়ছে। বদলে যাচ্ছে কাজের পরিবেশ ও ধরন। এর ব্যতিক্রম নয় একাউন্টস ও ফাইন্যান্স সেক্টরও। তাই এক্ষেত্রে কর্মরতদের নতুন প্রযুক্তি সম্পর্কে দক্ষ হয়ে ওঠা প্রয়োজন। কিন্তু একাডেমিক কারিকুলাম এজন্য পর্যাপ্ত নয়। তাই বিশ্বব্যাপী এসিসিএর প্রফেশনাল প্রোগ্রামগুলো পেশাজীবীদের কাছে জনপ্রিয়। ১৯০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত এসোসিয়েশন অব চার্টার্ড সার্টিফাইড একাউন্ট্যান্টসের কোর্সগুলো সম্পর্কে সেমিনারে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এতে রেহানা শাম্মী বলেন, যুক্তরাজ্যভিত্তিক এই ডিগ্রি সারা বিশ্বেই চাকরির বাজারে ব্যাপক জনপ্রিয়। এসিসিএ বাংলাদেশ কান্ট্রি অফিসের মাধ্যমে বাংলাদেশে বসেই এ ডিগ্রি নেওয়ার সুযোগ আছে। যেকোনো দেশেই রয়েছে এসিসিএ সনদধারীর জন্য চাকরির দারুণ সুযোগ। কর্মজীবী থেকে সাধারণ শিক্ষার্থী সবাই দেশে-বিদেশে ব্যাংক, বিমা প্রতিষ্ঠান, চার্টার্ড প্রতিষ্ঠান, টেলিকম প্রতিষ্ঠান, মাল্টিন্যাশনাল ও ডোনার এজেন্সিতে সহজেই চাকরি পেতে পারেন এসিসিএ ডিগ্রি নিয়ে। এসিসিএর দুই প্রতিনিধি গতকাল সকালে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে এলে তাদের বরণ করে নেন স্কুল অব বিজনেসের অ্যাসোসিয়েট ডিন মুহাম্মদ রকিবুল কবির ও সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট রেজিস্ট্রার ফারহানা আহ্মদ সিগমা। এসময় এক সৌজন্য সাক্ষাতে ইডিইউ ও এসিসিএর দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো জোরদারে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণের লক্ষ্যে আলোচনা হয়। এতে এসিসিএর সহযোগিতায় ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে মাস্টার্স ইন অ্যাকাউন্টিং চালুর বিষয়ে প্রাথমিক আলোচনা হয়। এছাড়া ইডিইউর বিবিএতে চলমান এসিসিএর চারটি প্রোগ্রামকে আটটিতে বর্ধিত করার বিষয়েও আলোচনা হয়। ইডিইউর প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেন, ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি নিষ্ঠার সঙ্গে জ্ঞানসমৃদ্ধ ও কর্মদক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টি করছে। যার লক্ষ্যে সূচনালগ্ন থেকেই গ্রহণ করেছে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ। ইডিইউ গ্র্যাজুয়েটরা যাতে পেশাগতভাবে দক্ষ হিসেবে আন্তর্জাতিক কর্মবাজারে প্রবেশ করে, তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে একাডেমিক প্রোগ্রামের পাশাপাশি পাঠ্যক্রমে যুক্ত করা হয়েছে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন বিভিন্ন প্রফেশনাল সার্টিফিকেট কোর্স।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর