প্রকাশ : 2019-01-25

কুমিল্লায় ট্রাক উল্টে ১৩ শ্রমিক নিহত

২৫ জানুয়ারী,অনলাইন ডেক্স,(নিউজ একাত্তর ডট কম) :কুমিল্লায় কয়লাবাহী ট্রাক উল্টে ইটভাটার ১৩ ঘুমন্ত শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন। শুক্রবার ভোরে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গোলপাশা ইউনিয়নের নারায়ণপুর এলাকায় একটি ইটভাটার পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার নিজপাড়া গ্রামের সুরেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে রঞ্জিত চন্দ্র রায় (৩০), মানিক চন্দ্র রায়ের ছেলে তরুণ চন্দ্র রায় (২৫), কৃষর চন্দ্র রায়ের ছেলে সংকর চন্দ্র রায় (২২), অমল চন্দ্র রায়ের ছেলে দিপু চন্দ্র রায় (১৯), কামাক্ষা রায়ের ছেলে অমিত চন্দ্র রায় (২০), জাহাঙ্গির আলমের ছেলে মো. সেলিম (২৮), পাঠানপাড়া গ্রামের নূর আলমের ছেলে মো. মোরচালিন (১৮), ফজলুল করিমের ছেলে মো. মাসুম (১৮), রামপ্রসাদের ছেলে বিল্লব (১৯), শিমুল বাড়ি গ্রামের মনোরঞ্জন রায় (১৯), দিনেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে মিনাল চন্দ্র রায় (২১), রাজবাড়ি গ্রামের খোকা চন্দ্র রায়ের ছেলে বিকাশ চন্দ্র রায় (২৮) ও ধলু রায়ের ছেলে কনক চন্দ্র রায় (৩৪)। তারা মেসার্স কাজী এন্ড কোং ইটভাটায় কাজ করতেন। দুর্ঘটনায় সময় কয়লার স্তুপের পাশে একটি ঘরে তারা ঘুমিয়ে ছিলেন। চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মাহফুজ জানান, ওই ট্রাকে করে ইটভাটার জন্য কয়লা আনা হয়েছিল। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ট্রাকের চালক কয়লা নামানোর জন্য গাড়িটি পেছন দিকে নেয়ার চেষ্টা করলে তা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের শেডে ঘুমিয়ে থাকা শ্রমিকদের ওপর উল্টে পড়ে। এতে চাপা পড়ে ঘুমন্ত অবস্থায় ১২ শ্রমিকের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হয় আরও ছয় জন। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। এ সময় মারাত্মক আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর আরও একজনের মৃত্যু হয়। এদিকে দুর্ঘটনার পর থেকে ওই ট্রাকের চালক ও তার সহকারী পলাতক রয়েছে। কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। কুমিল্লা জেলা প্রশাসক নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে ২০ হাজার এবং ইটভাটা মালিক ১০ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছেন।

সারা দেশ পাতার আরো খবর