শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২০
প্রকাশ : 2018-07-27

নির্বাচন কমিশন এখন গৃহপালিত পশুর মতো

অনলাইন ডেস্ক :রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটের আগের রাতে নৌকায় সিলমারা ব্যালট ভোটকেন্দ্রে লুকিয়ে রাখা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। তিনি অভিযোগ করেন, ‘নির্বাচনে ৯০ শতাংশ প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসার ‘আওয়ামী ঘরানার’ লোক থেকে বাছাই করা হয়েছে। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড তারা (ক্ষমতাসীনরা) করবেই। তারা চেষ্টা করছে ভোটের আগের দিন প্রিজাইডিং অফিসারদের দিয়ে ভোট কেটে বিভিন্ন জায়গায় সেটা লুকিয়ে রাখা হবে (স্কুলের) হেডমাস্টারের রুমে বা এসিসট্যান্ট হেডমাস্টারের রুমে।’ শুক্রবার সকালে রাজশাহী নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় গণসংযোগে গিয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি। বুলবুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পোস্টার সন্ত্রাস থেকে আরম্ভ করে এখন পর্যন্ত, যে সন্ত্রাসগুলি করেছে, সমস্ত কিছু আমরা আপনাদের মাধ্যমে বলেছি জনগণের কাছে এবং নির্বাচন কমিশনের কাছে আমরা লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন এখন গৃহপালিত পশুর মতো, জন্তুর মতো আচরণ করছে। এখানে সরকারের যে ভূমিকা বা নির্বাচন কমিশনের যে ভূমিকা রাখা উচিত ছিল, অন্যান্য দেশে যেটা হয়, সে ভূমিকা এখানে নাই।’ সেনা মোতায়েনের দাবি বুলবুল বলেন, ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি, সেনাবাহিনী নিয়োগ করে রাজশাহীতে নিরপেক্ষ ভোটের অবস্থা সৃষ্টি করা হোক। আগামী জাতীয় নির্বাচনে এটা জনগণের কাছে উপযুক্ত প্রমাণ হয়ে থাকবে।’ বরিশাল ও সিলেটের সঙ্গে রাজশাহী সিটি করপোরেশনেও ৩০ জুলাই ভোট হবে। মেয়র পদে ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপির মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।ইনকিলাব

সারা দেশ পাতার আরো খবর