প্রকাশ : 2018-07-18

মরহুম জননেতা ইসহাক মিয়ার মত বিশ্ব ও অভিভাবকতুল্য নেতা বর্তমানে বিরল : বক্তারা

চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক উপদেষ্ঠা, গণপরিষদ ও সাবেক সংসদ সদস্য, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সংগঠনের প্রধান উপদেষ্ঠা, মরহুম জননেতা ইসহাক মিয়ার ১ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে এক স্মরণ আলোচনা, মিলাদ, দোয়া মাহফিল ও এতিম ছাত্রদের মাঝে মৌসুমী ফল বিতরণ অনুষ্ঠান গত ১৭ জুলাই বিকেল ৫টায় সংগঠনের সহ সভাপতি ডাঃ জামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে তনজিমুল মোছলেমিন এতিমখানায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব নঈম উদ্দীন চৌধুরী। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি লায়ন মোঃ জাফর উলøাহ এম,জে,এফ,সাতকানিয়ার পৌরসভার মেয়র কবি মোঃ জোবায়ের, চসিক কাউন্সিলর ও মহানগর যুবলীগনেতা আলহাজ্ব হাসান মুরাদ বিপ্লব, তনজিমুল মোছলেমিন এতিমখানার তত্ত¡াবধায়ক হাফেজ মোঃ আমান উলøাহ, সাবেকমন্ত্রী জহুর আহমদ চৌধুরীর কনিষ্ঠ সন্তান শরফুদ্দীন আহমদ চৌধুরী রাজু, ফুলকলির মহাব্যবস্থাপক এম,এ,সবুর,মাহবুবুর রহমান, জামাল উদ্দীন হেজাজী, হাফেজ ফজলুল কাদের, মো: সেলিম উদ্দিন প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন মরহুম জননেতা ইসহাক মিয়া ছিলেন একজন মহৎ প্রাণ রাজনীতিবিদ। যার সমগ্র জীবন জুড়েই ছিল মানুষের কল্যাণের জন্য রাজনীতি করা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বা¯Íবায়নে মরহুম জননেতা ইসহাক মিয়া আজীবন অবিচল ছিলেন। চট্টগ্রামের আওয়ামী রাজনীতিতে ইসহাক মিয়া সবসময় অভিভাবকের মত সকল আন্দোলন, সংগ্রাম ও দলের কর্মসুচী পালনে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা রাখতেন। বাংলাদেশের মহান সংবিধানে যার স্বাক্ষর রয়েছে। আওয়ামী রাজনীতির চরম দুঃসময় তথা ৭৫ পরবর্তী রাজনীতিতে দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে বদ্ধপরিকর ছিলেন। গণপরিষদ সদস্য, সংসদ, সদস্য চট্টগ্রাম বন্দরের প্রশাসক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ২ বার উপদেষ্ঠা থাকলেও ব্যক্তিগত জীবনে তেমন কোন রাষ্ট্রীয় সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করেনি। অত্যন্ত সাদামাটা জীবন ও কর্মীবান্ধব নেতা ছিলেন। তিনি বলেন বলতে দ্বিধা নেই বর্তমান চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও চসিক মেয়র আলহাজ্ব আ,জ ম,নাছির উদ্দীনকে আজকের অবস্থান তথা নেতত্বের আসনে বসাতে মরহুম ইসহাক মিয়া সবচেয়ে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন। তিনি আরো বলেন আমাদের একজন বিশ্ব¯Í নেতা ও অভিভাবক হিসেবে মরহুম ইসহাক মিয়া আজকে খুব প্রয়োজন। সামনে যে জাতীয় নির্বাচন সে নির্বাচনে ইসহাক মিয়ার শূন্যতা আমরা এখন থেকেই অনুভব করছি। রাজনীতির মাঠের, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন ত্যাগী ও মহৎ মনের অসাধারণ নেতা ইসহাক মিয়া চট্টগ্রামবাসীর সর্ব¯Íরের মানুষের মণিকোঠায় শ্রদ্ধার পাত্র হয়ে চিরঞ্জীব হয়ে থাকবে। আজকে মরহুম ইসহাক মিয়ার ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে এতিমছাত্রদের মাঝে বিভিন্ন মৌসুমী ফল বিতরণ একটি মহতি আয়োজন। সভায় মিলাদ, দোয়া ও মোনাজাত করেন হাফেজ ফজলুল কাদের। সভাশেষে এতিম ছাত্রদের মাঝে মৌসুমী ফল বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সারা দেশ পাতার আরো খবর