প্রকাশ : 2021-01-06

মার্সেল ফ্রিজ-ওয়াশিং মেশিনে প্রতি ঘণ্টায় টিভি ফ্রি

০৬,জানুয়ারী,বুধবার,অর্থনীতি ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে দেশের অন্যতম জনপ্রিয় ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড মার্সেল সারা দেশে শুরু করেছে- ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৯। এর আওতায় ক্রেতাদের জন্য প্রতি- ঘণ্টায় টিভি ফ্রি শীর্ষক সুবিধা ঘোষণা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সিজন-৯ এ মার্সেল ফ্রিজ অথবা ওয়াশিং মেশিন কিনে ক্রেতারা প্রতি ঘণ্টায় টিভি ফ্রি পেতে পারেন। এছাড়া থাকছে লাখ লাখ টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। ২ জানুয়ারি থেকে সারা দেশে কার্যকর করা হয়েছে এই সুবিধা। বুধবার (০৬ জানুয়ারি) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। রাজধানীর মার্সেল করপোরেট অফিসে আয়োজিত এক ডিক্লারেশন প্রোগ্রামে- ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৯ চালুর ঘোষণা দেওয়া হয়। অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক এস এম আশরাফুল আলম ও তাহমিনা আফরোজ তান্না। ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন প্রকৌশলী গোলাম মুর্শেদ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, ইভা রিজওয়ানা নিলু, এমদাদুল হক সরকার ও মো. হুমায়ূন কবীর, নির্বাহী পরিচালক এস এম জাহিদ হাসান, উদয় হাকিম, মোহাম্মদ রায়হান, প্রকৌশলী আনিসুর রহমান মল্লিক, আরিফুল আম্বিয়া, আমিন খান, ড. মো. সাখাওয়াত হোসেন, প্রকৌশলী ইয়াসির আল-ইমরান, ফিরোজ আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিক্রয়োত্তর সেবাকে অনলাইনের আওতায় আনতে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে মার্সেল। উদ্দেশ্য, গ্রাহকদের আরও দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা দেওয়া। আর তাই সারা দেশে চালাচ্ছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এখন চলছে সিজন-৯। এর মাধ্যমে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতিতে ক্রেতার নাম, মোবাইল নম্বর এবং বিক্রি করা পণ্যের মডেল ও বারকোডসহ বিস্তারিত তথ্য ওয়ালটনের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ফলে, ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে গেলেও দেশের যেকোনো ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত সেবা পাচ্ছেন গ্রাহক। অন্যদিকে সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারছেন। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ উদ্বুদ্ধ করতে ক্যাম্পেইনের প্রতিটি সিজনেই আকর্ষণীয় উপহারসহ লাখ লাখ টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে সাশ্রয়ী দামে বিএসটিআইয়ের ফাইভ স্টার এনার্জি এফিশিয়েন্সি রেটিং প্রাপ্ত, ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির সাইড বাই সাইড গ্লাস ডোরের মতো সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ফ্রিজ ক্রেতাদের হাতে তুলে দিচ্ছে মার্সেল। ফলে, স্থানীয় বাজারে ব্যাপক গ্রাহকপ্রিয়তা পাচ্ছে মার্সেল ফ্রিজ। আন্তর্জাতিক মান যাচাইকারি সংস্থা নাসদাত ইউনিভার্সাল টেস্টিং ল্যাব থেকে মান নিশ্চিত হয়ে মার্সেলের প্রতিটি ফ্রিজ বাজারে ছাড়া হচ্ছে। আর তাই ফ্রিজে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধার পাশাপাশি কম্প্রেসরে ১২ বছরের গ্যারান্টি দেওয়া হচ্ছে। তিনি জানান, বাজারে রয়েছে মার্সেলের ৪ মডেলের টপ লোড অটোমেটিক ও ম্যানুয়াল ওয়াশিং মেশিন। এগুলোর দাম ৬ হাজার ৯শ টাকা থেকে ২২ হাজার টাকা। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারা দেশে আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্টের আওতায় ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার রয়েছে মার্সেলের। যার পরিপ্রেক্ষিতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ফ্রিজের সার্ভিস দিতে সক্ষম হচ্ছে দেশীয় প্রতিষ্ঠানটি।

অর্থনীতি পাতার আরো খবর