মঙ্গলবার, আগস্ট ৪, ২০২০
প্রকাশ : 2020-06-19

দ্বিতীয় দফা আলোচনাও ব্যর্থ, লাদাখে শক্তি বাড়াচ্ছে চীন

১৯জুন,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনের মার্কেটে ৫১৬১টি পণ্যের শুল্ক মুক্ত রপ্তানির সুবিধা পেয়েছে বাংলাদেশ। আগামী ১ জুলাই থেকে এই সুবিধা কার্যকর হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানায়। সূত্র জানায়, চীন বাংলাদেশের জন্য যেসব পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দিয়েছে, তার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ চীনা বাজারে মোট রপ্তানি পণ্যের ৯৭ শতাংশই শুল্ক মুক্ত সুবিধা পাবে। চীনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহবুব উজ জামান বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চীনা শুল্কমুক্ত সুবিধা নিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন। সেই বার্তায় ৫১৬১টি পণ্যের শুল্ক মুক্ত রপ্তানির সুবিধার কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে দিয়ে চীনা বাজারে বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানির দুয়ার খুলবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেছেন, বাংলাদেশ যে অর্থনৈতিক কূটনীতি চালু করেছে, এটা সেদিক থেকে খুব বড় একটা অর্জন। চীন সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশটির বাজারে বাংলাদেশ যত পণ্য পাঠাবে তার ৯৭ শতাংশই শুল্ক মুক্ত সুবিধা পাবে। এটাকে এক অর্থে শতভাগ শুল্কমুক্ত রপ্তানি সুবিধাও বলা হচ্ছে। কারণ বাংলাদেশ থেকে যত ধরনের পণ্য চীনে রপ্তানি হয় তার মধ্যে মাত্র তিনটি বাদে সবই বিনা শুল্কে দেশটির বাজারে ঢুকতে পারবে। এদিকে, বাংলাদেশ সরকার তথা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক কূটনীতির অংশ হিসেবে এমন সুবিধার অনুরোধ করে চীন সরকারকে চিঠি দেয়া হয়। এ অনুরোধের প্রেক্ষিতে চীনের স্টেট কাউন্সিলের ট্যারিফ কমিশন সম্প্রতি এ সুবিধা প্রদান করে নোটিশ জারি করে। বাংলাদেশ আগে থেকে চীনে ‍Asia Pacific Trade Agreement (APTA) এর আওতায় ৩ হাজার ৯৫টি পণ্যের শুল্কমুক্ত রপ্তানি সুবিধা ভোগ করে আসছে। নতুন করে দ্বিপক্ষীয় সুবিধা প্রাপ্তির ফলে এখন চীনে বাংলাদেশের ৮ হাজার ২৫৬টি পণ্য বিনা শুল্কে ঢুকবে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর