আমি একটি চাকরি পেয়েছি: পরীমনি
০২মে,বৃহস্পতিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শহরে নতুন সহকারী পরিচালক। এটা ছবির ক্যাপশন। আর ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ফারুকী চেয়ারে বসে আছেন, চেয়ারের পাশে মাটিতেই বসে আছেন পরীমনি। এ যেন গুরু-শিষ্যের সম্পর্ক। চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ফেসবুকে দেওয়া এমন একটি পোস্ট মঙ্গলবার শেয়ার করেছেন পরীমনি। জানা গেছে, পরীমনি নতুন কাজ শুরু করছেন। মোস্তফার সরয়ার ফারুকীর সঙ্গে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন তিনি। মঙ্গলবার ঢাকার মিরপুরের কোক স্টুডিওতে বিজ্ঞাপনচিত্রের শুটিং শেষে তিনি ফারুকীর সহকারী হিসেবে কাজ শুরু করেন। পরীমনি ফেসবুকে লিখেছেন, অবশেষে আমি একটি চাকরি পেয়েছি। এখন থেকে আমি মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সহকারী পরিচালক। পরীমনি বলেন, আমি সৌভাগ্যবান যে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর মতো বড় নির্মাতার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছি। আশা করি নির্মাণ বিষয়ে ভালো কিছু শিখতে পারবো। এদিকে -সোনার তরী নামে পরীমনির একটি প্রযোজনা সংস্থা রয়েছে। গত বছর এফডিসিতে প্রযোজনা সংস্থাটির ঘোষণা দেন তিনি।
এবার ঝড় তুলল সালমান-দিশার শুটিং ভিডিও
৩০এপ্রিল,মঙ্গলবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সালমান খানের ভারত সিনেমার স্লো মোশন গানটি মুক্তির পরেই অনলাইন দুনিয়ার ওপর একটা বড়সড় ঝাঁকুনি বয়ে যায়। গেল বৃহস্পতিবার মুক্তি পেয়েছিল গানটি। এবার এ গানের নেপথ্যের দৃশ্যে ঝড় উঠল। ভারত সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন আলি আব্বাস জাফর। স্লো মোশন গানের তালে পা মিলিয়ে সবার নজর কেড়ে নিয়েছেন সুপারস্টার সালমান খান ও বাঘি তারকা দিশা পাটানি। বৈভবী মার্চেন্টের কোরিওগ্রাফিতে গানটির সুর করেছেন বিশাল-শেখর। লিখেছেন ইরশাদ কামিল। গানটি গেয়েছেন শ্রেয়া ঘোষাল ও নাকাশ আজিজ। হলুদ শাড়ি পরে চোখ ধাঁধিয়ে দিয়েছেন দিশা পাটানি। আর সালমান খানকে দেখা গেছে তরুণ লুকে হ্যান্ডসাম, অভিজাত। এই গান ভারত-এর তরুণ দিনগুলোর (১৯৬৪) কথাই স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে। গানটি সম্পর্কে পরিচালক আলি আব্বাস জাফর বলেছেন, তরুণদের আকৃষ্ট করবে গানটি। ষাট-সত্তর দশকে বিশ্বে সার্কাস কেমন ছিল, তার একটা আঁচ পাওয়া যাবে। রাশিয়া, থাইল্যান্ড ও ইউরোপের প্রায় সব দেশের বেশ কয়েকজন এ গানে কাজ করেছেন। জীবনকে উদযাপনের জন্যই এ গান। গানের শিল্পী শ্রেয়া ঘোষালও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, আমি খুবই উত্তেজিত। কারণ, এ বছরের অন্যতম বহুল প্রতীক্ষিত সিনেমার গান এটি। এই গানে নেচেছেন সুনীল গ্রোভারও। বলেছেন, পুরো সেটআপই ছিল স্বপ্নের মতো। আমি নাচ পারি না, কিন্তু নাচতে ভালোবাসি। আপনারা নিশ্চয়ই আমার নাচ দেখতে চাইবেন না। প্রথমবার সালমান খানের সঙ্গে কাজ করলেন দিশা পাটানি। এ সুপারস্টার সম্পর্কে তিনি বলেন, সালমান খান খুবই মিষ্টি মানুষ। একটুও ভয় পাইনি, কারণ প্রত্যেককেই তিনি দারুণ স্বস্তিতে রেখেছিলেন। তিনি খুবই সহায়তা করেন, কো-অপারেটিভ। তাঁর কাছ থেকে অনেক কিছুই শেখার আছে। এই সময়ে এসেও তিনি যথেষ্ট পরিশ্রম করেন, প্রত্যেক টেকে নিজের শতভাগ ঢেলে দেন। এত বড় কাজের অংশ হতে পারাটা আমার জন্য বিশাল সুযোগ, আমি সৌভাগ্যবান। চলতি বছরের ঈদে মুক্তি পাবে আলি আব্বাস জাফর পরিচালিত ভারত। এ ছবি দিয়ে ক্যাটরিনা কাইফের সঙ্গে পুনর্মিলন হচ্ছে এ মহাতারকার। ভারত-এর পর দিশা পাটানিকে মোহিত সুরির মালাঙ্গ সিনেমায় দেখা যাবে। এতে আরো রয়েছেন আদিত্য রায় কাপুর, অনিল কাপুর ও কুনাল খেমু। আর সালমান খান কোরিওগ্রাফার, পরিচালক প্রভু দেবার সঙ্গে দাবাং থ্রি ছবির শুটিং করছেন। সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে শুটিং করেছেন সালমান। এতে তাঁর নায়িকা সোনাক্ষি সিনহা। সঞ্জয় লীলা বানসালির ইনশাআল্লাহ সিনেমাতেও কাজ করবেন সালমান, এই ছবিতে তাঁর সহ-অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। সূত্র : ডিএনএ
সাংবাদিককে আটকে রেখে চোর বলে সম্বোধন করায় শমী কায়সারের বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা
৩০এপ্রিল,মঙ্গলবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মোবাইল ফোন চুরির ঘটনায় সাংবাদিকদের আটকে রেখে চোর বলে সম্বোধন করায় ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) প্রেসিডেন্ট ও অভিনেত্রী শমী কায়সারের বিরুদ্ধে আদালতে ১০০ কোটি টাকার মানহানির একটি মামলা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার ঢাকা সিএমএম আদালতে মামলাটি করেন স্টুডেন্ট জার্নাল বিডির (অনলাইন পত্রিকা) সম্পাদক মিঞা মো. নুজহাতুল হাসান। ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নুর অভিযোগের বিষয়ে বাদীর জবানবন্দি গ্রহণের পর আদেশ পরে দেবেন বলে জানিয়েছেন। বাদীর আইনজীবী মেহেদী হাসান জানিয়েছেন, মামলায় তারা আসামি শমী কায়সারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছেন। মামলায় বলা হয়, গত ২৪ এপ্রিল শমী কায়সার তার মোবাইল চুরির ঘটনা নিয়ে দুপুরে প্রায় আধাঘণ্টা অর্ধশত সংবাদকর্মীকে জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে আটকে রাখেন। ওই সময় তার নিরাপত্তাকর্মীরা সংবাদকর্মীদের দেহ তল্লাশি করেন। কয়েকজন সাংবাদিক অনুষ্ঠানস্থল থেকে বের হয়ে যেতে চাইলে তাদের চোর বলেও সম্বোধন করেন শমী কায়সার। এ ঘটনায় সংবাদকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরে টেলিভিশন ক্যামেরার ফুটেজে ধরা পড়ে লাইটিংয়ের এক কর্মী অভিনেত্রীর মোবাইল ফোনটি চুরি করেছে। তখন দুঃখপ্রকাশ করেন শমী কায়সার। মামলায় আরও বলা হয়, শমী কায়সারের উক্তরূপ আচরণে বাদী ও সংবাদিকদের শত কোটি টাকার মানহানি হয়েছে।-আলোকিত বাংলাদেশ
মন ভেঙে গেছে, সন্তানদের সময় দিতে চান শাহরুখ!
২৯এপ্রিল,সোমবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বক্স অফিসে সর্বশেষ সিনেমা জিরোর ব্যর্থতার পর হৃদয় ভেঙে গেছে বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের। নতুন কোনো সিনেমা করতে মন থেকে সাড়া পাচ্ছেন না তিনি। বললেন, আপাতত তিনি সন্তানদের অধিক সময় দিতে চান। সম্প্রতি চীনে আয়োজিত বেইজিং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে শাহরুখ খানের জিরো প্রদর্শনের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। উৎসবের অন্যতম সম্মানিত অতিথি ছিলেন তিনি, ছিলেন বক্তা। চীনা গণমাধ্যমগুলোর সঙ্গে আলাপও করেন এ তারকা। বেইজিং উৎসবে শাহরুখের ছবি নির্বাচিত হলেও নিজের দেশে যে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন, সে কথা ভোলেননি তিনি। একটি রেডিও চ্যানেলের সঙ্গে আলাপকালে শাহরুখ বলেছেন, বক্স অফিসে জিরো ডুবে যাওয়ার পর অন্তর থেকে অভিনয়ে আর সাড়া পাচ্ছেন না। তিনি আরো বলেন, তিন-চারটি নতুন প্রকল্প চূড়ান্ত করলেও কোনোটাইকে হ্যাঁ বলতে পারছেন না তিনি। চায়না রেডিও ইন্টারন্যাশনালকে (হিন্দি) শাহরুখ খান বলেছেন, এখন (অভিনয়) করার মতো অবস্থায় নেই। ভাবছি সিনেমা দেখে, চিত্রনাট্য আর বই পড়ে সময় কাটাব। আমার সন্তানরা কলেজজীবন শেষ করতে চলেছে। সুহানা এখনো কলেজে পড়ছে, আশা করি এক বছরের মধ্যেই কলেজ থেকে বেরিয়ে যাবে আরিয়ান। এখন আমার পরিবারকে আরো সময় দিতে চাই। শাহরুখ আরো বলেন,কোথাও বলেছিলাম, আগামী জুনে পরবর্তী প্রকল্পের সিদ্ধান্ত জানাব। কিন্তু জুনে সেটা পারব না। যেদিন হৃদয় থেকে অনুভব করব, সেদিনই কেবল সিনেমা করব। মন চাইলেই কেবল আমি অভিনয় করি, কিন্তু এই সময় মন চাইছে না। অনেক মানুষ আমাকে গল্প বলেছে, ১৫ থেকে ২০টি গল্প শুনেছি, দু-তিনটা পছন্দও হয়েছে। কিন্তু কোনটা করব, সে সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। কারণ, সিদ্ধান্ত নিলেই সিনেমার কাজ শুরু করে দিতে হবে। আমাকে সম্পূর্ণভাবে সেটার প্রতি মনোযোগ দিতে হবে। শাহরুখ খান আপাতত অভিনয় না করলেও নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে সর্বশেষ মুক্তি পাওয়া বদলা বক্স অফিসে ভালো আয় করেছে। গত বছরের ডিসেম্বরে মুক্তি পায় বহুল প্রতীক্ষিত জিরো। বামনের চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। এতে তাঁর সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন আনুশকা শর্মা ও ক্যাটরিনা কাইফ। কিন্তু বক্স অফিসে তেমন ব্যবসা করতে পারেনি। অভিনয়ের প্রশংসা পেলেও চিত্রসমালোচকদের তোপের মুখে পড়ে এ ছবি। সূত্র : বলিউড হাঙ্গামা
ঈদুল আজহায় মুক্তি পাবে অপুর নতুন ছবি
২৮এপ্রিল,রবিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঈদকে কেন্দ্র করে প্রায় ১০ বছর ধরেই সিনেমা হলে আলো ছড়িয়েছেন জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস। প্রতি ঈদেই একাধিক ছবি নিয়ে দর্শকদের সামনে হাজির হয়েছেন এই নায়িকা। গত বছর ঈদুল ফিতরে মুক্তি পায় শাকিব খানের সাথে অপু বিশ্বাসের শেষ ছবি -পাংকু জামাই। আসন্ন ঈদে অপু বিশ্বাসের কোনো ছবি মুক্তি পাচ্ছে না। তবে আগামী ঈদুল আজহায় আসছে তাঁর নতুন ছবি শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ-২। শাকিব খান নয়, এই ছবির মধ্যে দিয়ে অভিষেক হচ্ছে অপু- বাপ্পী জুটির। ছবির চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করছেন দেবাশীষ বিশ্বাস। এ বিষয়ে দেবাশীষ বিশ্বাস বলেন, ঈদের সময় দর্শক বিনোদনমূলক ছবি দেখতে চায়। আমি এই ছবির মধ্যে দর্শকদের পূর্ণ বিনোদন দেবো। আসন্ন ঈদে ছবিটি মুক্তি দিতে পারছি না তবে ঈদুল আজহার জন্য ছবিটি প্রস্তুত করছি। ছবিতে দর্শক বিনোদনের পাশাপাশি পাবে বাপ্পী চৌধুরী ও অপু বিশ্বাস জুটি। প্রায় সত্তরটি ছবিতে আমরা অপুকে দেখেছি শাকিব খানের সাথে। এই প্রথম বাপ্পী চৌধুরীর সাথে দর্শক তাঁকে দেখতে পাবেন। আশা করি, ছবিটি সবার পছন্দ। দেবাশীষ বিশ্বাস আরো বলেন, আমি গল্প নির্ভর ও সময় উপযোগী চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে চেষ্টা করি। শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ-২ ছবিটি নিযে আমি আশাবাদি। চলতি সপ্তাহে আমরা ডাবিংয়ের কাজ শেষ করব। আগামী মাসে ছবির গানের শুটিং শেষ করব। রোজার মধ্যে ছবিটি সেন্সরে জমা দিতে পারব বলে আশা করছি। শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ-২ ছবিটি প্রযোজনা করেছে বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড। দীর্ঘ ১৭ বছর পর নির্মাতা দেবাশীষ বিশ্বাস শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ; ছবির দ্বিতীয় পর্ব নির্মাণ করছেন। ২০০১ সালে দেবাশীষ পরিচালিত, রিয়াজ-শাবনূর অভিনীত শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল। ২০০৪ সালে আমজাদ হোসেন পরিচালিত কাল সকালে ছবির মধ্যে দিয়ে চলচ্চিত্র শুরু করেন অপু বিশ্বাস। শাকিব খানের বিপরীতে কোটি টাকার কাবিন ছবিতে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা পান। শাকিব খানের বিপরীতে প্রায় ৭০টি ছবিতে অভিনয় করেন অপু বিশ্বাস।
চীনা ভাষায় সিনেমা করবেন শাহরুখ খান?
২০এপ্রিল,শনিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জিরো- সিনেমার প্রচারে বর্তমানে চীনে আছেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খান। বেইজিং ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সিনেমাটি নিয়ে অংশ নিয়েছেন তিনি। সেখানে মুখোমুখি হয়েছেন চায়না গ্লোবাল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক (সিজিটিএন)র সঙ্গে। টেলিভিশনটির পক্ষ থেকে শাহরুখকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল তিনি কোনও চাইনিজ সিনেমায় অভিনয় করতে চান কি-না? জবাবে শাহরুখ বলেন,আমি চাইনা কেউ আমার মুখে ডাবিং করুক। বরং এমন চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি যে শুধু গান গায় এবং নাচ করে। জিরো সিনেমাটি ভারতে মুক্তি পাওয়ার সময় খুব খারাপ রিভিউ পেয়েছিল। সিনেমাটির বিষয়ে শাহরুখ বলেন, আমি নিজেই তিন মাস পরে আবার সিনেমাটি দেখব। হয়তো এবার বুঝতে পারব কি ভুল করেছিলাম আগে। দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে শাহরুখ বলেন, দুর্ভাগ্যক্রমে জিরো নিজের দেশ ভারতে ভালো চলেনি। আমি একটা ভুল সিনেমা করে ফেলেছি। তাই আমি একটু চিন্তায় আছি যে এখানের দর্শকেরা সিনেমাটিকে পছন্দ করবেন কি না। দেখা যাক। জিরো সিনেমায় শাহরুখ খানকে একটি বামন চরিত্রে দেখা গেছে। চরিত্রটির নাম বাউয়া সিং। এ ছাড়া এতে আছেন ক্যাটরিনা কাইফ এবং আনুশকা শর্মা। এখানে আনুশকার নাম আফিয়া। আর ক্যাটরিনার নাম ববিতা কুমারী। তিনি একজন মাদকাসক্তের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন।-আরটিভি
নয় মাস শর্টফিল্মে তানিয়া বৃষ্টির সাথে অভিনয় করলেন ইরফান
৩০মার্চ,শনিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মডেল ও অভিনেত্রী তানিয়া বৃষ্টি নতুন একটি শর্টফিল্মে অভিনয় করলেন। নাম নয় মাস। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইরফান । শর্টফিল্মটির গল্প গড়ে ওঠেছে বাংলাদেশের একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী উত্তর প্রজন্মের বোধ নিয়ে। তানিয়া বৃষ্টি বলেন, আমাকে দর্শক ভিন্ন ধরণের চরিত্রে দেখতে পাবেন। আগে এমন চরিত্রে অভিনয় করিনি। কাজটি আমার নিজের কাছেও বেশ ভালো লেগেছে। সেই জায়গা থেকে বলতে পারি দর্শকরাও পছন্দ করবেন। শানের গল্প ভাবনায় নির্মিত এই শর্টফিল্মটির নাম নয় মাস। লতা আচারিয়ার চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় সম্প্রতি পুরান ঢাকায় শর্টফিল্মটির দৃশ্য ধারনের কাজ শেষ হয়েছে। শিগগিরই ইউটিউবে মুক্তি পাবে শর্টফিল্মটি। উল্লেখ্য, ২০১২ সালে ভিট চ্যানেল আই টপ মডেল প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় রানার আপ হয়ে শোবিজে পা রাখা তানিয়া। ঘাসফুল ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে তানিয়া বৃষ্টির। এরপর লাভার নাম্বার ওয়ান, আয়না সুন্দরী, যদি তুমি জানতে ছবিতে অভিনয় করেছেন। এছাড়া নিয়মিতভাবে নাটক ও বিজ্ঞাপনে কাজ করছেন তিনি।binodhon24
অস্কার বা অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডস তো শুনেছেন?
২৫মার্চ,সোমবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: এ বছরের সবচেয়ে খারাপ সিনেমা কী? নিকৃষ্টতম পরিচালক কে? নিকৃষ্টতম অভিনেতা কে? নিকৃষ্টতম অভিনেত্রীই বা কে? অস্কার বা অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডস তো শুনেছেন। সেরা সিনেমাকে পুরস্কৃত করতে রয়েছে ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডস ও অন্যান্য পুরস্কার। কিন্তু জানলে অবাক হবেন, সেরা নয়, সবচেয়ে খারাপ যে ছবিগুলি, তাদের জন্যও থাকে বিশেষ পুরস্কার। নিকৃষ্টতমদের স্বীকৃতি দেওয়ার এই অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানগুলির নামও বিচিত্র। ভারতে এই ধরনের একাধিক অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। যেমন গোল্ডেন কলা অ্যাওয়ার্ডস বা স্বর্ণ কদলী পুরস্কার। বলিউডে ২০০৯ থেকে এই অনুষ্ঠান হয়ে আসছে। ঘণ্টা অ্যাওয়ার্ডস বা ঘণ্টা পুরস্কার-ও দেওয়া হয় বলিউডের সবচেয়ে খারাপ ছবি বা নিকৃষ্টতম কলাকুশলীদের। ২০১১ সালে এই পুরস্কার চালু হয়। এই রকমই ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসের পাল্টা পুরস্কার হল ফিলম ফেল অ্যাওয়ার্ডস। ২০১৩ সাল থেকে বছরের সবচেয়ে ব্যর্থ সিনেমাটিকে বেছে নেওয়া হয় এই পুরস্কারের ক্ষেত্রে। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও চালু রয়েছে এমন উদ্ভট পুরস্কার। অস্কারের পাল্টা হিসেবে দেওয়া হয় গোল্ডেন র‌্যাসপবেরি অ্যাওয়ার্ডস। হলিউডের লড়ঝড়ে ছবিগুলিকে বেছে নেওয়া হয় এখানে। এই সব পুরস্কারগুলিই প্রমাণ করে বলিউড হোক বা হলিউড, বাজে সিনেমার সংখ্যা কোথাও কম নয়।
কিংবদন্তী শিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ আর নেই
২৪মার্চ,রবিবার,বিনোদন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কিংবদন্তী শিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ আর নেই (ইন্নালিল্লাহে ওয়াইন্নাইলাইহে রাজেউন)। আজ শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে বারিধারায় নিজ বাসায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন তিনি। মৃত্যুকালে স্বামী,এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন তিনি। শাহনাজ রহমতুল্লাহর জন্ম ১৯৫২ সালের ২ জানুয়ারি। বাবা এম ফজলুল হক এবং মা আসিয়া হক। মায়ের হাতেই ছোটবেলায় শাহনাজ রহমতুল্লাহর গানের হাতেখড়ি হয়। মাত্র ১১ বছর বয়সে রেডিও এবং চলচ্চিত্রের গানে তার যাত্রা শুরু হয় ১৯৬৩ সালে। আর ১৯৬৪ সালে টিভিতে প্রথম গান করেন তিনি। পাকিস্তানে থাকার সুবাদে করাচি টিভিসহ উর্দু ছবিতেও গান করেছেন। দীর্ঘ পঞ্চাশ বছরের ক্যারিয়ারে এক নদী রক্ত পেরিয়ে, জয় বাংলা বাংলার জয়, একবার যেতে দে না আমার ছোট্ট সোনার গাঁয়,একতারা তুই দেশের কথা বলরে এবার বল,প্রথম বাংলাদেশ আমার শেষ বাংলাদেশ,সাগরের তীর থেকে,খোলা জানালা, পারি না ভুলে যেতে,ফুলের কানে ভ্রমর এসে, আমি তো আমার গল্প বলেছি,আমায় যদি প্রশ্ন করে,যে ছিল দৃষ্টির সীমানায় সহ অসংখ্য কালজয়ী গান গেয়েছেন তিনি। এছাড়া শাহনাজ রহমতুল্লাহর একক গানের অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে চারটি। শাহনাজ রহমতুল্লাহ বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, একুশে পদক,বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কার,বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা লাভ করেছেন। বিবিসির এক জরিপে সর্বকালের সেরা কুড়িটি বাংলা গানের তালিকায় তাঁর গাওয়া চারটি গান রয়েছে। বছর পাঁচ আগে হঠাৎ গান থেকে বিদায় নেন এই কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী। এরপর থেকে মৃত্যুর আগে পর্যন্ত কিছুটা আড়ালেই ছিলেন তিনি। উল্লেখ্য,প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক সুরকার আনোয়ার পারভেজ তাঁর বড় ভাই ও চিত্রনায়ক জাফর ইকবাল তাঁর ছোট ভাই