সোনালী ব্যাংক উথলী শাখায় ডাকাতির ঘটনায় আটক ৩
১৭নভেম্বর,মঙ্গলবার,চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চুয়াডাঙ্গার সোনালী ব্যাংক উথলী শাখায় ডাকাতির ঘটনায় সন্দেহভাজন তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল ভোরে তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়।আটককৃতরা হলেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আকুন্দবাড়ীয়া গ্রামের রহমানের ছেলে জনি (২৫), দেলবারের ছেলে কালু ও হাসমত আলীর ছেলে হূদয় (২৮)। জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, সোনালী ব্যাংক উথলী শাখায় ডাকাতির প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই শাখার গ্রাহকরা অভিযোগ করে বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংকের উথলী শাখায় কোনো সিসিটিভি ক্যামেরা নেই। এছাড়া ব্যাংকে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকা দুজন নিরাপত্তা প্রহরীর হাতে একটা লাঠি পর্যন্ত ছিল না। ব্যাংকে লেনদেন চলাকালে অধিকাংশ সময় নিরাপত্তা প্রহরীরা চায়ের দোকানে আড্ডা দেন। আগে থেকেই ব্যাংকে নিরাপত্তার চরম ঘাটতি রয়েছে। সোনালী ব্যাংকে ডাকাতির ঘটনার পর উথলী বাজার এলাকায় বসবাসরত সাধারণ মানুষের মধ্যে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। উথলী বাজারপাড়ার স্থায়ী বাসিন্দা আব্দুল মান্নান পিল্টু বলেন, যেখানে রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংকের মতো প্রতিষ্ঠানে দিনে ডাকাতি সংঘটিত হতে পারে। সেখানে আমাদের মতো সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা কোথায়? এদিকে ডাকাতি ঘটনার পর খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (ক্রাইম) একেএম নাহিদুল ইসলাম গত রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঘটনাস্থল সোনালী ব্যাংক উথলী শাখা পরিদর্শনে এসে ব্যাংকের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি বলেন, ব্যাংক চালানোর জন্য এ ভবন মোটেও উপযুক্ত নয়। এ ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। আমারা ধারণা করছি, এ জেলার মধ্যেই অপরাধীরা অবস্থান করছে। অল্প সময়ের মধ্যেই অপরাধীদের আটক করা সম্ভব হবে। তিনি আরো বলেন, ব্যাংক কর্তৃপক্ষের চরম গাফিলতি রয়েছে। ব্যাংকে কোনো সিসিটিভি ক্যামেরাও নেই। বর্তমান যুগে এটা ভাবা যায় না। গতকাল সকাল থেকে ডাকাতি ঘটনার ক্লু উদ্ধারের জন্য সাদা পোশাকে র্যাব, সিআইডি, ডিজিএফআই, পুলিশ ও ডিবি পুলিশের কর্মকর্তাদের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে দেখা গেছে।
সীতাকুণ্ডে আগুনে পুড়লো ৫ দোকান
১৫নভেম্বর,রবিবার,সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারি ইউনিয়নের বিএমএ গেট এলাকায় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে ৫টি দোকান পুড়ে গেছে। এতে ৬ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। রোববার (১৫ নভেম্বর) পৌনে ১টার দিকে ভাটিয়ারি সি গোল্ড ফিলিং স্টেশন এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পশ্চিম পাশে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ছুটে যান কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। তারা আড়াইটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। তাদের সঙ্গে যোগ দেন নৌবাহিনীর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিটও। দোকানগুলোতে স্ক্র্যাপ জাহাজের লোহা ও কেবল (তার) বিক্রি করা হতো বলে জানিয়েছেন কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার সুলতান মাহমুদ। তিনি বলেন, প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট আগুনে ৬ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
নৌকা চালিয়ে ৮ জনের সংসার চালান আবেদা বেগম
১৪নভেম্বর,শনিবার,রাজবাড়ী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: আবেদা বেগম, বয়স পঞ্চাশেরও বেশি। জীবিকার তাগিদে হাতে তুলে নিয়েছেন নৌকার বৈঠা। সেই ভোরে হাতে ওঠে বৈঠা আর শেষ হয় রাতে। বিশ বছর ধরে নৌকা চালিয়ে ৮ জনের সংসার চালাচ্ছেন তিনি। কাঁকডাকা ভোরে নদী পাড়ে চলে যান আবেদা বেগম। এরপর শুধুই বৈঠা বাওয়া। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার তেনাপচা ও উত্তর কাওয়ালজানী গ্রামের পদ্মা নদীর ছোট কোল নদী। দুই গ্রামের বাসিন্দাদের নদী পারের একমাত্র ভরসা তার নৌকা। বিশ বছর ধরে এভাবেই চলছে আবেদা বেগমের বৈঠা। আবেদা বেগম জানান, পাঁচ মেয়ে নিয়ে বড় সংসার। তাই দু’জনে মিলে খাটাখাটনি করে কোনরকম সংসারটা চালাচ্ছি। প্রতিদিন নৌকা চালিয়ে দুই থেকে আড়াইশ’ টাকা হয়। তা দিয়েই চলে সংসার। অসুস্থ্য স্বামী। নৌকা চালিয়ে চার মেয়েকে বিয়ে দিলেও এখনও সংসারের সদস্য চারজন। ছোট মেয়ে কলেজে আর ছেলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। যে নৌকার ওপরেই সংসার, এখন সেটিও নড়বড়ে, ভেঙ্গে যাওয়ার মত অবস্থায়। এনিয়ে দুশ্চিন্তায় দিন কাটছে তার। এলাকাবাসীরা জানান, পাঁচটা মেয়ে ও স্বামী সবাই এই নৌকার উপর নির্ভরশীল। কষ্ট করে নৌকা বেড়ে খাচ্ছে, তাছাড়া তো ওনার উপায় নেই। উনি চলবেন কি করে, খুবই অসহায়। অন্য আরেকজন জানান, যার টাকা আছে সে দেয়, যার টাকা নেই তাকেও পাড় করে সে। তার নৌকাটার অবস্থা খুবই নাজুক। এই নৌকাটা তৈরির করার জন্য সমাজের বিত্তশালীদের সাহায্যের প্রয়োজন, যাতে ওনার সংসারটা ভালভাবে চলতে পারে। সংগ্রামী এই নারীর পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন জেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা। রাজবাড়ী সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রোবায়েত মো. ফেরদৌস বলেন, আমাদের যে বিভিন্ন সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচি আছে এর একটিতে তাকে সম্পৃক্ত করা হবে। পুঁথিগতভাবে নারীর ক্ষমতায়ন হয়তো বোঝেন না আবেদা বেগম। শুধু বোঝেন, ভাঙ্গা নৌকা নিয়েই ঝড়-ঝঞ্জা উপেক্ষা করে এগিয়ে যেতে হবে। সহৃদয়বান মানুষ যদি একটু সহায়তার হাত বাড়ান, তাহলেই হয়তো সহজ হবে আবেদা বেগমের পথচলা।
টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ইয়াবা কারবারি নিহত
১৩নভেম্বর,শুক্রবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক ইয়াবা পাচারকারী নিহত হয়েছে। আজ শনিবার ভোররাত ৪টার দিকে নাফ নদীর ১নং স্লুইচ গেট এলাকায় বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ২ লাখ ১০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশিয় অস্ত্র ও দুই রাউন্ড বন্দুকের খালি খোসা উদ্ধার করা হয়। তবে নিহত ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি বিজিবি। টেকনাফ ২নং বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, নাফ নদীতে স্পিডবোট নিয়ে বিজিবির একটি বিশেষ দল টহল দেয়ার সময় দেখতে পায় একটি নৌকায় তিন ব্যক্তি মিয়ানমার জলসীমা পার হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে। এ সময় টহলরত বিজিবির সদস্যরা তাদের চ্যালেঞ্জ করলে পাচারকারীরা বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্য করে অতর্কিতভাবে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও পাল্টা গুলি চালালে ২ পাচারকারী মিয়ানমার সীমান্তের অভ্যন্তরে পালিয়ে যায়। তিনি জানান, পরে ঘটনাস্থল তল্লালি করে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে নৌকাসহ জব্দ করে বিজিবি সদস্যরা। তাকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। নিহত ব্যক্তির কোন পরিচয় পাওয়া যায়নি। এ সময় আহত দুই বিজিবি সদস্যকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। নিহত ব্যক্তির মৃতদেহ টেকনাফ থানার মাধ্যমে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।
ঝিনাইদহে মাস্ক না পরায় ৬০ জনকে জরিমানা
১৩নভেম্বর,শুক্রবার,ঝিনাইদহ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঝিনাইদহে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মানা ও মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে গত মঙ্গলবার থেকে অভিযান পরিচালনা করছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। মাস্ক না পরায় গত তিনদিনে ৬০ জনকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। গত মঙ্গলবার থেকে গতকাল সকাল পর্যন্ত শহরের পায়রা চত্বর, আরাপপুর, হামদহ, বাস টার্মিনালসহ বিভিন্ন স্থানে এ অভিযান পরিচালনা করে জেলা প্রশাসন। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আরিফ-উজ-জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. সেলিম রেজা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. এরফানুল হক চৌধুরি, এসএম রকিবুল হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ জানান, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত জেলা শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মাস্ক না পরার অপরাধে ৬০ জনকে ৩২ হাজার ৭৫০ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল ও মাস্ক ব্যবহার করতে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।
মাস্ক না পরায় নোয়াখালীতে কয়েকজনকে জরিমানা
১২নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,মল্লিক উদ্দিন,নোয়াখালী প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীতে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ধাপ মোকাবিলায় মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে মাঠে নেমেছে প্রশাসন। জেলার ৯টি উপজেলায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে একযোগে নো মাস্ক, নো সার্ভিস শ্লোগানে অভিযানে নামে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় কয়েকজনকে জরিমান ও জনসাধারণকে মাস্ক বিতরণ করা হয়। ঘণ্টাব্যাপী এ অভিযানে জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খান, পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেনসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ অংশ নেন। এ সময় একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও কর্মচারী মাস্ক না পরায় তিনদিনের জন্য দোকানটি বন্ধ করে দেয়া হয়।
বিচার বিভা. কর্মচারী: মাদারীপুরে ৩ দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি
১১নভেম্বর,বুধবার,আব্দুল্লাহ আল মামুন,মাদারীপুর,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী এসোসিয়েশন-মাদারীপুর জেলা শাখার উদ্যোগে বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারীদের ৩ দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষে বুধবার (১১ নভেম্বর) সকালে মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুনের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী এসোসিয়েশনের ৩ দফা দাবিগুলো হচ্ছে ১। অধঃস্তন আদালতের কর্মচারীদের বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস কমিশনের সহায়ক কর্মচারী হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করতঃ উক্ত স্কেলে বেতন ভাতা প্রদান ২। সকল ব্লক পদ বিলুপ্ত করে যুগোপযোগী পদ সৃষ্টি করে হাইকোর্ট ও মন্ত্রণালয়ের ন্যায় জেষ্ঠ্যতা ও দক্ষতার ভিত্তিতে প্রতি ৫ বছর অন্তর অন্তর পদোন্নতি, উচ্চতর গ্রেড প্রদানের ব্যবস্থা এবং ৩। অধঃস্তন সকল আদালতের কর্মচারীদের নিয়োগ বিধি সংশোধন করে এক ও অভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রনয়ন। স্মারক লিপি প্রদান শেষে জেলা প্রসাশকের কার্যালয়ের সামনে এক সংক্ষিপ্ত পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত পথসভা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী এসোসিয়েশনের মাদারীপুর জেলা শাখা কমিটির সভাপতি জনাব মোঃ মিজানুর রহমান সিকদার, সাধারণ সম্পাদক জনাব মুহাম¥দ শহিদুল ইসলাম ও যুগ্ম সাধারন সম্পাদক জনাব জালাল মোল্লাসহ আরো অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এসময় বক্তারা বলেন, তাদের ন্যায্য ৩ দফা দাবী দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ করে এবং তাদের ন্যায্য ৩ দফা দাবী দ্রুত বাস্তবায়ন না হলে কর্মবিরতি সহ কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষনা প্রদান করে।
কাপ্তাইয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুইজন নিহত
১১নভেম্বর,বুধবার,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলার ওয়াগ্গা ইউনিয়নের গর্জনিয়া এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুইজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- সুভাষ তঞ্চঙ্গ্যা (৪৫) ও ধনঞ্জয় তঞ্চঙ্গ্যা (৩২)। কাপ্তাই থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীরা ধনঞ্জয় তঞ্চঙ্গ্যার বাড়িতে এসে ঘুম থেকে ডেকে তুলে তাদের গুলি করে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়। ওসি আরও জানান, নিহতরা জেএসএস-এর সমর্থক বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে। প্রতিপক্ষরা এ হামলা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাঙ্গামাটি হাসপাতালে পাঠিয়েছে। বর্তমানে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
২ কেজি হেরোইনসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জে যুবক আটক
১০নভেম্বর,মঙ্গলবার,চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ছত্রাজিতপুর কাঠালিয়াপাড়া এলাকা থেকে সোমবার রাতে দুই কেজি হেরোইনসহ এক যুবককে আটকের কথা জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। আটক সুমন আলী (৩৮) ওই এলাকার মনিরুল ইসলামের ছেলে। চাপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল সোমবার রাত সোয়া ২টার দিকে উপজেলার ছত্রাজিতপুর কাঠালিয়া এলাকায় সুমন আলীর বাড়িতে তল্লাশি চালায়। এ সময় দুই কেজি হেরোইনসহ সুমন আলীকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সারা দেশ পাতার আরো খবর