বর্তমান সরকার ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষায় দৃঢ় অঙ্গিকারবদ্ধ :মঈনুদ্দিন খান বাদল এম.পি
চট্টগ্রাম- ৮আসনের সংসদ সদস্য মঈনুদ্দিন খান বাদল এম.পি বলেছেন, বর্তমান সরকার ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষায় দৃঢ় অঙ্গিকারবদ্ধ। বাংলাদেশ ধর্মীয় সম্প্রীতিকে প্রাধান্য দেয় এবং একে অপরের সঙ্গে সুসম্পর্ক ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বজায় রাখছে। প্রতিটি ধর্মীয় উৎসবে একে অপর আনন্দ ভাগাভাগি করে। ইতিমধ্যে প্রমাণ করেছে বাংলাদেশ সম্প্রদায় সম্প্রীতির মিলবন্ধন এটি আজ বিশ্বে স্বীকৃত। তিনি আরো বলেন, ধর্মীয় নিয়মনীতির মধ্যে থাকলে সমাজে শান্তির পূর্ণ পরিবেশ বজায় থাকবে। আমি মনে করি যুব সমাজকে অবক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা করতে আমাদের সন্তানদের ধর্মীয় শিক্ষা বার্ধত্যমূলক করতে হবে। তিনি গত ৯ নভেম্বর ৫নং মোহরা ওয়ার্ড আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইস্কন) কর্তৃক আয়োজিত শ্রীশ্রী রাধাগৌবিন্দ মন্দির ও শিব মন্দিরের অন্নকূট মহোৎসবে প্রধান অতিথির ভাষণে উপরোক্ত কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের চান্দগাঁও থানার সভাপতি মতিলাল দেওয়ানজী। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবক ও দানবীল ধর্মানুরাগী সুকুমার চৌধুরী। আশির্বাদক ছিলেন ইস্কন বাংলাদেশ এর সহ-সভাপতি শ্রীমৎ ভক্তিপ্রিয়ম গদাধর গোস্বামী মহারাজ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইস্কন শ্রীশ্রী রাধামাধব মন্দির ও গৌর নিতাই আশ্রম, নন্দনকানন, চট্টগ্রামের অধ্যক্ষ শ্রীমান পন্ডিত গদাধর দাস ব্রহ্মচারী। বিশেষ অতিথি ছিলেন মোহরা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জসিম উদ্দিন, মহানগর যুবলীগের সদস্য নঈম উদ্দিন খান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মোহরা ওয়ার্ড ইস্কন শ্রীশ্রী রাধাগৌবিন্দ মন্দিরের অধ্যক্ষ শ্রীমান সর্বমঙ্গল গৌরহরি দাস ব্রহ্মচারী। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আস্থাশীল যুবকদের নিয়েই বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষি
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার উদ্দোগে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সমাবেশ মহানগর যুবলীগ সদস্য কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব এর সভাপতিত্বে এবং মহানগর যুবলীগ সদস্য বেলায়েত হোসেন বেলাল ও শাখাওয়াত হোসেন শাকু এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে শেষে কেক কাটা ও বেলুন উড়ানোর মাধ্যমে উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানের পর বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠি হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের সাবেক সভাপতি নোমান আল মাহমুদ, মহানগর আওয়ামী লীগ সদস্য বিজয় কিষাণ চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের উপ-সমবায় সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন মহানগর যুবলীগ সদস্য আবুল কালাম আবু, মহানগর যুবলীগের সাবেক সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শাহেদুল ইসলাম শাহেদ, এডভোকেট আরশাদুল আলম আসাদ, সাবেক ছাত্রনেতা দিদারুল আলম দিদার, সুমন দেবনাথ, জহির উদ্দিন আহমেদ বাবর, ওয়াহিদুল আলম শিমুল, মহানগর যুবলীগ সদস্য খোরশেদ আলম রহমান, নঈম উদ্দিন খান, ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা জাকির মিয়া, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, আতিকুর রহমান, বেলাল হোসেন, ইকবাল জনি। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ সদস্য মোহাম্মদ লোকমান হাকিম, সাবেক ছাত্রনেতা এস এম আলম, পুলক খাস্তগীর, মহানগর যুবলীগ সদস্য লিটন রায় চৌধুরী, বেলায়েত হোসেন রুবায়েত, তারেক সুলতান, আবদুল হাই, মোস্তাক আহমেদ টিপু, জাবেদুল আলম সুমন, শহিদুর রহমান, ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ আইয়ুব, হাজী আবদুল মান্নান, আবদুর রহিম, আনিসুর রহমান, শহিদুল ইসলাম শহিদ, গিয়াস উদ্দিন, জাবেদুল আলম সিপন, সাকিব হোসেন, আহমেদ নুর, তাজউদ্দিন রিজভি, আবদুল হালিম, সাহাবউদ্দিন সজিব, মনছুর আলী, নাজমুল আলম খান, জামশেদুল আলম চৌধুরী, মাসুদ আকবরী, মোঃ ইসমাইল, এস এম নাছির, শাহেদ হোসেন টিটু, জেড এম খসরু, এডভোকেট মোহাম্মদ কায়সার, কায়সার আহমেদ, ফজলে হাসান, ইসতেহার উদ্দিন পারভেজ, সিজার বড়–য়া, জসিম উদ্দিন, আবদুল মান্নান, সুমন চৌধুরী, মামুনুর রশিদ, এডভোকেট মঞ্জুরুল আজম চৌধুরী, এডভোকেট নজরুল ইসলাম, হেলাল উদ্দিন, ফয়সাল বাপ্পি, আবু সুফিয়ান, রিদোয়ান ফারুক, সাইফুল আলম লিমন, শেখ নাসির উদ্দিন আরজু, লায়ন সালাউদ্দিন সামির, সৈয়দুল ইসলাম, তানজিরুল হক, রবিউল আলম, রুপম চক্রবর্তী, অভিজিৎ দে ঝুমুর, আরশাদ কিবরিয়া, অঞ্জন সিকদার, শাহিন, মিন্টু, ওয়াসিম আকবরী, শাওন, কামরুল, কাজী রুবেল, ইসমাইল সিকদার রুবেল, সোহেল রহমান, আশা, পুতুল, নাছরিন, পারভিন। আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ বলেন ১৯৭২ সালে ১১ নভেম্বর, দেশের প্রথম ও সর্ববৃহৎ যুবসংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনায় মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক প্রথিতযশা সাংবাদিক শেখ ফজলুল হক মনির সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক ও শোষণমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা সংগ্রামে যুব সমাজকে সম্পৃক্ত করতে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আস্থাশীল যুবকদের নিয়েই বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ। নেতৃবৃন্দ বলেন রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ গঠনে গঠনতান্ত্রিক ভাবে যুব সমাজকে সংঘবদ্ধ করে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে প্রগতিশীল যুব সমাজকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন বিজিএমইর সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নাছির
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) সংসদীয় আসনে মনোনয়ন পত্র পটিয়ার সর্বস্তরের নেতা-কর্মী নিয়ে দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন বিজিএমইর সহ-সভাপতি ও দক্ষিণ আওয়ামীলীগের সাংষ্কৃতিক সম্পাদক মোহাম্মদ নাছির। তৃণমূল পর্যায়ের ব্যাপক সমর্থন নিয়ে তিনি পটিয়ায় বিগত দিনগুলোতে ব্যাপক জনসংযোগ অব্যাহত রেখে, সরকারের উচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ করে, বিভিন্ন বরাদ্দ এনে ও উন্নয়ন কাজে সহায়তা দিয়ে ব্যাপক জনসমর্থন আদায়ে সমর্থ হয়েছেন। ব্যবসা ও রাজনীতিতে একনিষ্ঠ, ত্যাগী ও পরিশ্রমি এই নেতার পক্ষে ইতিমধ্যে পটিয়ায় আওয়ামী লীগে এক মহাজাগরণ ঘটেছে। দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরাও পূর্বের যে কোন সময়ের চাইতে আজ ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই নেতার পক্ষে দৃঢ় অবস্থান নিয়েছে ও দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে মোহাম্মদ নাছিরকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার জন্য জোর দাবি জানিয়েছে। দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার সময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা কাজী আবু তৈয়ব, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য মোহাম্মদ সেলিম নবী, সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ মাঈন উদ্দীন চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা কাজী আবু জাফর। এছাড়া এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ'র সিনিয়র নেতৃবৃন্দ, পটিয়া আওয়ামী লীগ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ইসলামী ফ্রন্ট ফটিকছড়ি উপজেলা দক্ষিণের জনসভায় এম এ মান্নান, জনগণ অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চায়
বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নান বলেন, জনগণ একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায়। মানুষ কেন্দ্রে গিয়ে নিজের ভোট নিজে দিতে চাই। মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার দায়িত্ব এখন নির্বাচন কমিশনের। তিনি বলেন, সংলাপের মাধ্যমে রাজনীতিতে চলা বাষ্পরুদ্ধ পরিস্থিতি অনেকটা হালকা হয়েছে। অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের যে আভাস লক্ষ্য করা যাচ্ছে তা নিশ্চিতে বড় দলগুলোর আন্তরিকতার পাশাপাশি ইসিকেও ভূমিকা রাখতে হবে। সংবিধান ইসিকে যে ক্ষমতা দিয়েছে তার সদ্ব্যবহার করে ইসিকে গণতন্ত্রের পথ সুগম করতে হবে। ইভিএমসহ যেসব বিষয় নিয়ে নির্বাচন প্রশ্নের সম্মুখীন হতে পারে সেসব বিষয় থেকে ইসিকে সরে আসার আহবানও জানান তিনি। বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট যুবসেনা ও ছাত্রসেনা ফটিকছড়ি দক্ষিণের যৌথ উদ্যোগে আজ ১২ নভেম্বর সোমবার সকালে মাইজভান্ডার দরবার শরীফ চত্বরে অনুষ্টিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের প্রেসিডিয়াম সদস্য পীরে তরিকত আল্লামা সৈয়দ মসিহুদ্দৌলা (মা.আ.)'র সভাপতিত্বে অনুষ্টিত জনসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ছাত্রসেনা কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম শহিদুল্লাহ, ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার মুহাম্মদ আবুল হোসেন, ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইয়াসিন হোসাইন হাইদারী, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ইসলামী ফ্রন্ট সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর আলম, জেলা ইসলামী ফ্রন্ট নেতা রফিকুল ইসলাম, যুবসেনা উত্তর জেলা সভাপতি মাষ্টার মুহাম্মদ ইসমাইল, চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর ছাত্রসেনার সভাপতি ছাত্রনেতা মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ, রাউজান উত্তর ইসলামী ফ্রন্ট সভাপতি মাওলানা জামাল উদ্দীন, মাওলানা ফোরকান, জেলা যুবসেনা যুগ্ম সম্পাদক মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন, হোসেন উদ্দিন, নাসির উদ্দীন রুবেল, নেজাম উদ্দীন। এতে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ফটিকছড়ি দক্ষিণ সভাপতি মাষ্টার খোরশেদুল আলম, যুগ্ন সম্পাদক শাহ জালাল, শহিদুল্লাহ কায়সার, আব্দুল মোতালেব পারভেজ, ফটিকছড়ি দক্ষিণ যুবসেনা সহ সভাপতি আলমগীর হোসেন মামুন, সাধারণ সম্পাদক তারেকুল আলম, মহাম্মদ ফয়েজ, মুহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন সিদ্দিকী, ফটিকছড়ি দক্ষিণ ছাত্রসেনা সভাপতি নাজিম রাশেদ, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হামিদুল ইসলাম ও আব্দুল্লাহ আল নোমানসহ জেলা ও উপজেলার নেতৃবৃন্দ। দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় পীরে তরিকত আল্লামা সৈয়দ মসিহুদ্দৌলা (মা.আ.)'র মোনাজাতের মাধ্যমে জনসভা সমাপ্তি হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বরমা মাদরাসায় একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন সাংসদ নজরুল ইসলাম চৌধুরী
৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার চন্দনাইশের বরমা ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসায় নতুন একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন জাতীয় সংসদের প্যানেল স্পিকার এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সরকার ধর্মানুরাগী ও শিক্ষা বান্ধব সরকার। তাই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শিক্ষার উন্নয়নের কাজ করছেন। বিশেষ করে মাদরাসাসহ ধর্মীয় শিক্ষাকে গুরুত্ব দিচ্ছে। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাদরাসা সাবেক সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মো: নুরুল ইসলাম ও বরমা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আবুল মনছুর মোহাম্মদ হাবীব। মাদরাসা কমিটি ও বরমা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব শহিদুল ইসলাম কাজেমীর সভাপতিত্বে ও মাদরাসার সুপারিনটেন্ডেন্ট মাওলানা মুহাম্মদ আবুল বশরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও দোয়া মাহফিলে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাদরাসা প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আবু তৈয়ব, দাতা সদস্য মাহমুদ বিন কাসেম, আওয়ামীলীগ নেতা আহসান ফারুক, সাবেক শিক্ষানুরাগী সদস্য সাংবাদিক সৈয়দ শিবলী ছাদেক কফিল, বরমা ইউপি সদস্য মো: আবু জাফর, মাদরাসা কমিটির অভিভাবক সদস্য আবুল কালাম, মাওলানা আবদুল মালেক, খলিলুর রহমান, সহ-সুপার মাওলানা নুরুল হক প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, যুবসেনা ও ছাত্রসেনা বৃহত্তর হাটহাজারীর উদ্যোগে মাহে রবিউল আউয়ালকে স্ব
পবিত্র মাহে রবিউল আউয়ালকে স্বাগত জানিয়ে আজ ১২ নভেম্বর সোমবার সকালে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, যুবসেনা ও ছাত্রসেনা বৃহত্তর হাটহাজারীর উদ্যোগে ইমাম শেরে বাংলা (রহ.) মাজার শরীফ হতে এক বিশাল স্বাগত র‌্যালী বের করা হয়। উক্ত স্বাগত র‌্যালিটি হাটহাজারী বাসষ্ট্যান্ড, বাজার, কাচারী সড়ক, কলেজ গেইট ও রাঙ্গামাটি রোড হয়ে পুনরায় বাসষ্ট্যান্ড চত্¦রে সংক্ষিপ্ত পথ সভার মাধ্যমে সমাপ্ত হয়। বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট হাটহাজারী উপজেলার সভাপতি অধ্যাপক গিয়াস উদ্দীনের সভাপতিত্বে এবং যুবসেনা হাটহাজারী উপজেলা শাখার সভাপতি মুহাম্মদ ওয়াহিদের সঞ্চালনায় র‌্যালি শেষে পথ সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় সদস্য মাষ্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন, ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক এস.এম. জাহাঙ্গীর আলম। পথ সভায় বক্তরা বলেন, এ মাস মো’মিনদের জন্য আল্লাহর রহমতের মাস। এ মাসেই পৃথিবীর বুকে আবির্ভাব হয়েছিলেন আল্লাহর তায়ালার শ্রেষ্ঠ নেয়ামত ও তার প্রিয় হাবিব হযরত মুহাম্মদ (দরুদ)। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (দ.) এমন সময় দুনিয়াতে আসেন যখন আইয়্যামে জাহেলিয়াত তথা অন্ধকারে নিমজ্জিত, তার আগমনের পর সব ধুয়ে মুছে শান্তি ও আলোতে পরিণত হয়। তাই এ মাসটি মোমিনদের জন্য খুশির, শান্তির ও রহমতের মাস। র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ফ্রন্ট উপজেলার সাধারণ সম্পাদক এস. এম. ফখর উদ্দীন, আলহাজ্ব মুহাম্মদ হারুন সওদাগর, আবদুল্লাহ আল আজিজী, মোহাম্মদ কামাল পাশা, সেকান্দর মিয়া, ডা. জহুরুল হক, নুরুল ইসলাম, মাওলানা ইউনুছ হেলালী, সৈয়দ মুহাম্মদ আবু তালেব, মাওলানা আবদুল হামিদ আরজু, নুরুল আমিন হোসাইনী, আনোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ শফি, যুবসেনা উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ জাবের, পৌরসভা যুবসেনার সভাপতি মাওলানা ছগির আহমদ, অ্যাডভোকেট মোখতার আহমদ ছিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক-সৈয়দ নেজাম উদ্দীন, মাওলানা সালাহ উদ্দীন, মাওলানা তাজুল ইসলাম, একরামূল হক, অর্থ সম্পাদক নাছির উদ্দীন রুবেল, নুরুল আজিম, জাহেদ, সাহেদ, আজিজ, ওসমান গণী বাবলু, ছাত্রসেনা হাটহাজারী দক্ষিণের সভাপতি আবদুল মোতালেব রাজু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাাহ আল ফারুক, ছাত্রসেনা হাটহাজারী উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মজিদ, আলা উদ্দীন, ছাত্রসেনার পৌরশাখার সভাপতি সাধারণ সম্পাদক মহি উদ্দীন, মুহাম্মদ জুনায়েদ, হাটহাজারী কলেজের অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ মুন্না, ফুটন্ত ফুলের সাধারন সম্পাদক নাফিজ সিদকার প্রমুখ। সব শেষে জাতি ও দেশের কল্যাণে মুনাজাত পরিচালনা করেন মুহাম্মদ মনিরুর রহমান খসরু। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
যশোরের চৌগাছায় বিষপানে ইমামের আত্মহত্যা
অনলাইন ডেস্ক: যশোরের চৌগাছায় ইউসুফ আলী (৪০) নামের এক ইমাম আগাছা নাশক (ঘাষ পোড়া) বিষ পান করে আত্মহত্যা করেছে। নিহত ইউসুফ উপজেলার সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে এবং বর্ণী জামে মসজিদের ইমাম। পরিবার সূত্রে জানা যায় পারিবারিক কোলহের জের ধরে স্ত্রী হাসিনা বেগমের উপরে অভিমান করে শনিবার সন্ধ্যায় আগাছা নাশক বিষ পান করে সে। জানতে পেরে প্রতিবেশিরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চৌগাছা সরকারি মডেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎস্যক তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানে রাত ১১ টার দিকে মারা যায়। উইপি সদস্য তারিক হাসান বাবুল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশের আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পরে বিকেলে লাশ দাফন করা হবে। চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। এখন খোজখবর নিয়ে দেখছি।
আ.লীগের ভিআইপি প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ফেনীর ৩টি আসনে
অনলাইন ডেস্ক: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনীর তিনটি আসনে আওয়ামী লীগের ২০ ভিআইপি প্রার্থী মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। শুক্রবার ও শনিবার জেলার ৩টি আসনে ১৫ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। অপর দুটি আসনে একাধিক ফরম বিক্রি হলেও ফেনী-১ (পরশুরাম-ফুলগাজী ও ছাগলনাইয়া) আসনে কেবলমাত্র কিনেছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম। শুক্রবার ও শনিবার বিকেলে বিপুল নেতাকর্মী নিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ের নতুন ভবন থেকে আলাউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী নাসিম এবং ফেনী-২ (সদর) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। এছাড়া ফেনী-২ সদর আসনে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন হাজারী, জেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট ফারুক আলমগীর চৌধুরী, জেলা যুবলীগ-ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আজহারুল হক আরজু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সহ-সম্পাদক সাইফুদ্দিন নাছির, আওয়ামী আইন ছাত্র পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কাজী ওয়ালী উদ্দিন ফয়সাল মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। ফেনী-৩ (দাগনভূঞা-সোনাগাজী) আসনে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বিকম, সহ-সভাপতি ও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান আক্রাম হোসেন হুমায়ুন। গতবারের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য হাজী রহিম উল্লাহ ছাড়াও যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য আবুল বাশার, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক নিজাম চৌধুরী, সাবেক সেনা কর্মকর্তা মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় মহিলা লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক রোকেয়া প্রাচী, সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জেডএম কামরুল আনাম, সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সোনাগাজী পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, জেলা যুবলীগ সভাপতি ও দাগনভূঞা উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক এডভোকেট শাহাজাহান সাজু, জাপান আওয়ামী লীগের আহবায়ক শামসুল আলম ভুট্রু মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। প্রসঙ্গত, মনোনয়নপত্র বিক্রি শেষে ১১ নভেম্বর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের সংসদীয় বোর্ডের সভা হবে। সেখানে দলের মনোনয়ন বোর্ড প্রার্থিতা চূড়ান্ত করতে পারে। নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৩ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়পত্র দাখিলের শেষ দিন ১৯ নভেম্বর। যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বর, প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বর।
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার
অনলাইন ডেস্ক: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীন ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ প্রভাষক খন্দকার মিজানুর রহমানকে নাশকতা মামলায় গ্রেফতার করেছে পুুুুলিশ। থানা সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার কাশদহ গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ওই গ্রামের মৃত খন্দকার আব্দুল কুদ্দুসের পুত্র। তিনি রামজীবন ইউনিয়ন জামায়াতের আমির। তার বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৪ পুলিশ হত্যাসহ ৯টি নাশকতা মামলা রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে থানা অফিসার ইনচার্জ এসএম আব্দুস সোবহান জানান, গ্রেফতারকৃত আসামি রামজীবন ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারের ব্যাপারে নিন্দা জানিয়ে উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি প্রভাষক শহিদুল ইসলাম জানান, উপজেলা জামায়াতের শুরা সদস্য ও রামজীবন ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। তিনি কয়েকটি মামলায় জামিনে আছেন।