কুষ্টিয়ায় ট্রেনের সঙ্গে ট্রলির সংঘর্ষে নিহত দুই
২৪ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,সৈয়দ নুর,কুষ্টিয়া,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কাঠদহ এলাকায় অরক্ষিত রেলগেটে অবৈধ রেলক্রসিংকালে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে একটি ট্রলির ধাক্কা লেগে ট্রলির চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় ট্রেনের ফ্রন্ট প্লেটের সঙ্গে ট্রলি আটকে যাওয়ায় সেখানেই ট্রেনটি আটকে আছে। পোড়াদহ রেল স্টেশন মাস্টার শরিফুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকালে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী আন্তঃনগর কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস আপ ট্রেনটি পোড়াদহ রেলওয়ে জংশনের অদূরে কাঠদহ অরক্ষিত রেল গেটে পৌঁছালে স্থানীয় একটি ইটভাটার মাটিভর্তি ট্রলি রেললাইন পার হচ্ছিল। সেই মুহূর্তে দ্রুতগামী ট্রেনটি ঢুকে পড়ে। ট্রেনের ধাক্কায় ট্রলিটি ট্রেনের সামনেই আটকে যায়। কিছুদূর গিয়ে ট্রেনটি থেমে যায়। এ সময় ট্রলি থেকে ছিটকে পড়ে দুইজন মারা যান। প্রত্যক্ষদর্শী আজিবর জানান, ট্রেন আসার সময় চিৎকার করে থামতে বলতে বলতেই মাটি ভর্তি ট্রলিটা লাইনের ওপর ওঠে পড়ে। চোখের পলকে ট্রলিটা ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে আটকে যায়। ট্রলির ভটভট শব্দে সম্ভবত ট্রলিচালক ট্রেন আসার শব্দ শুনতে পায়নি। এদিকে, ট্রেনের সঙ্গে ট্রলি আটকে যাওয়ায় আপ লাইনে ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, ট্রলিটি রেলক্রসিং পাড় হওয়ার সময় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করতে রেলওয়ে শ্রমিকরা কাজ করছে।
পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যা, স্ত্রীসহ প্রেমিক আটক
২২ডিসেম্বর,রবিবার,রাজনীতি ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে পরকীয়ার জেরে স্বামী তোফাজ্জল হোসেন তোতাকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী সাথী ও পরকীয়া প্রেমিক উজ্জ্বলকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার (২১ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার পাথালিয়া এলাকা থেকে প্রথমে সাথী খাতুনকে পরে প্রেমিক উজ্জ্বলকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় তোফাজ্জল হোসেন তোতার ছোট ভাই তারা মিয়া বাদী হয়ে নিহতের স্ত্রী সাথী খাতুন, তার প্রেমিক উজ্জ্বল এবং তার সহযোগী আব্দুল জলিলকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, নিহত তোফাজ্জল হোসেনের স্ত্রী সাথী খাতুনের সাথে উজ্জ্বলের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে। শুরু হয় অবৈধ মেলামেশা। বিষয়টি তোফাজ্জল হোসেন তোতা জানার পর উভয়কেই নিষেধ করে। তারই ধারাবাহিকতায় গত বৃহস্পতিবার সকালে রাজমিস্ত্রির কাজ করার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। এ ঘটনায় সাথী খাতুন শুক্রবার কালিহাতী থানায় একটি নিখোঁজ সংক্রান্ত সাধারণ ডায়েরী করেন। এ খবর শুনে তোতার স্বজনরা অনেক খোঁজাখুঁজি করে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে জানতে পারে রাত সাড়ে ৮টার দিকে পাথালিয়া বাজারে ঘোরাফেরা করে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিল তোতা। এদিকে আসামী জলিলের বাড়ির পাশে তোতার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি পাওয়া যায়। অপরদিকে ওইদিন দুপুরে ওই গ্রামের মোকছেদ আলী তার বাড়ির পূর্ব পাশে টয়লেটের সেপটিক ট্যাংকের মাটির পাট ভাঙ্গা এবং স্লাপ পরিবর্তন করা দেখতে পান। এই বিষয়টি তিনি স্থানীয় মেম্বার ও এলাকাবাসীদের জানান। পরে তোতার নিখোঁজ হওয়ার খবর শুনে স্থানীয়রা ওই ঘটনাটি আমলে নিয়ে কালিহাতী থানা পুলিশকে খবর দেয়। পরে শনিবার বিকেলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সেপটিক ট্যাংক থেকে একটি লাশ উদ্ধার করে। লাশটি দেখে স্থানীয় লোকজন নিখোঁজ তোতার লাশ বলে সনাক্ত করেন। এ ঘটনায় শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার পাথালিয়া এলাকা থেকে স্ত্রী সাথী খাতুন ও প্রেমিক উজ্জ্বলকে আটক করে কালিহাতী থানা পুলিশ। এ বিষয়ে কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন বলেন, তোফাজ্জল হোসেন তোতা রাজমিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে তিনি নিখোঁজ হয়। সেই প্রেক্ষিতে তার স্ত্রী সাথী থানায় এসে প্রথমে একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। সেই ডায়েরীর সূত্রধরে তোতা মিয়াকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাই। একপর্যায়ে জানতে পারি তার স্ত্রীসহ পরকীয়ার প্রেমিক উজ্জ্বল দু’জন মিলে তোতাকে হত্যা করে লাশ গুম করার জন্য পার্শ্ববর্তী এক পরিত্যক্ত বাড়ির সেপটিক ট্যাংকের ভিতরে ফেলে রাখে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করে।খবর আরটিভি অনলাইন । এ ঘটনায় নিহত তোফাজ্জল হোসেন তোতার ছোট ভাই তারা মিয়া বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে ঘটনার সঙ্গে জড়িত তোতার স্ত্রীসহ পরকীয়ার প্রেমিক উজ্জ্বলকে গ্রেপ্তার করি।
গ্রেফতারের পর বন্দুকযুদ্ধে যুবক নিহত
২২ডিসেম্বর,রবিবার,সেলিম হোসেন মারুফ,নোয়াখালী,নিউজ একাত্তর ডট কম: নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে গ্রেফতারের পর পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন। তার নাম মো. রতন (২৯)। শনিবার দিবাগত রাতে সোনাইমুড়ি উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়নের পদিপাড়া গ্রামে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত রতনের বাড়ি উপজেলার মাহতাবপুর গ্রামে। পুলিশের দাবি, রতন একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে এবং রতনের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা রয়েছে। সোনাইমুড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুস সামাদ বলেন, শনিবার রাতে সোনাইমুড়ির মাহতাবপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে রতনকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেওয়া তথ্যানুযায়ী তাকে সঙ্গে নিয়ে অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধারের জন্য উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়নের পদিপাড়া গ্রামে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় আগে সেখানে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা রতনের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে উভয়পক্ষের মধ্যে কয়েক রাউন্ড গুলিবিনিময় হয়। একপর্যায় রতন গুলিবিদ্ধ হন। তাকে উদ্ধার করে সোনাইমুড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
মৌলভীবাজারে দুই নারীকে ধর্ষণ,আটক ৭
২১ডিসেম্বর,শনিবার,স্টাফ রির্পোটার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় সিএনজি থেকে নামিয়ে দুই নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার একটি চাবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার ওই দুই নারীকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের একজনের বয়স ২৮ অন্যজনের ২৪ বছর। এ ঘটনায় শনিবার দুপুর পর্যন্ত তিনটি সিএনজি এবং ৭ জনকে আটক করা করেছে। মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ দুপুরে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে গিয়ে ওই দুই নারীর খোঁজখবর নেন। এ বিষয়ে কমলগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। নির্যাতনের শিকার দুই নারী জানান, শুক্রবার রাতে ৯টার দিকে তিন বছরের একটি শিশুসহ মৌলভীবাজার শহর থেকে কমলঞ্জ উপজেলায় বাড়িতে যাবার উদ্দেশে সিএনজি অটোরিক্সা ভাড় করেন তারা। সিএনজি অটোরিক্সাটি কিছু দূর যাওয়ার তার বাধা দেওয়া সত্ত্বেও দুই যাত্রী তোলেন চালক। তারা জানান, এক পর্যায়ে চাবাগানের এক নির্জন জায়গায় আগে থেকে অবস্থান নেওয়া সাত থেকে আটজন তাদেরকে সিএনজি অটোরিক্সা থেকে নামিয়ে সন্তানের সামনে তাদের ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটিকে মারধর করা হয়। পরে কৌশলে সিএনজিতে স্থানীয় রহিমপুর ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার আব্দুল মজিদ খানের কাছে বিষয়টি জানান তারা। পরে তিনি বিষয়টি পুলিশকে জানান। কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান জানান, এই ঘটনায় মামলার রস্তুতি চলছে। এখন পর্যন্ত ৭ জন অভিযুক্ত এবং তিনটি সিএনজি আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে যাদের নাম আসবে তাদেরকে আটক করা হবে। মামলার পর তাদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে ।
যশোরে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত ১
২১ডিসেম্বর,শনিবার,মাসুদুজ্জামান,যশোর,নিউজ একাত্তর ডট কম: জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে যশোর শহরের মোল্লাপাড়ায় আব্দুর রহমান নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের ভাই সালাউদ্দিন বাবু জানায়, একই এলাকার আকরাম-আল-হোসেনদের সঙ্গে আব্দুর রহমানের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে সকালে চিহ্নিত সন্ত্রাসী কুদ্দুস ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন আব্দুর রহমানের হত্যাকারীদের আটকের চেষ্টা চলছে।
কুড়িগ্রামে বইছে শৈত্যপ্রবাহ, তাপমাত্রা ৯.৮ ডিগ্রি
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,হাবীবুর রহমান,কুড়িগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুড়িগ্রামে বইছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ।বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তিন ঘণ্টার ব্যবধানে সকাল নয়টার পরিমাপেও ৯.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এদিকে ঘন কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। নদ-নদীর অববাহিকায় ঘন কুয়াশাসহ শীতের তীব্রতা বেশি অনুভূত হচ্ছে। সকাল ১১টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকছে জেলার অধিকাংশ জনপদ। শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন শ্রমজীবী ও ছিন্নমূল মানুষ। কুয়াশার কারণে বিঘ্নিত হচ্ছে যান চলাচল। ফলে দিনের বেলা সড়কে হেডলাইট জ্বালিয়ে যান চলাচল করতে দেখা গেছে। জেলার চরাঞ্চল এবং গ্রামাঞ্চলের মানুষ শীতের প্রকোপে আগুন জ্বালিয়ে ঠাণ্ডা নিবারণের চেষ্টা করছেন। এদিকে শীতের কারণে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বিশেষ করে শিশুরা অত্যাধিক ঠাণ্ডার কারণে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে বেশি। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ২৭ জন শিশুসহ ৩১ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ছয়জন ডায়রিয়া ও তিনজন নিউমোনিয়া রোগী ভর্তি হয়েছে। কুড়িগ্রাম জেনারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. জাকিরুল ইসলাম জানান, শীতজনিত রোগের প্রকোপ ব্যাপক আকারে দেখা দেয়নি। ডায়রিয়া ও নিমউমেআনিয়াসহ শীতজনিত রোগের সুচিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের পর্যবেক্ষক জাকির হোসেন জানান, মৃদু শৈত্যপ্রবাহটি আগামী দুই তিনদিন চলবে। মাঝখানে বিরতি দিয়ে আবার একটি শৈত্যপ্রবাহ আসবে এ জেলায়। ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনাও রয়েছে।
মেহেরপুরে কৃষকের ১০টি ছাগল পুড়ে ছাই
১৮ডিসেম্বর,বুধবার,হুমায়ুন মাসুদ,মেহেরপুর,নিউজ একাত্তর ডট কম: মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার রাধাগোবিন্দপুর ধলা গ্রামে এক কৃষকের ১০টি ছাগল আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা গেছে। মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) দিনগত রাতে মনিরুল ইসলাম নামে ওই কৃষকের বাড়িতে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তার ধারণা, বৈদ্যুতিক লাইনের গোলযোগ থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। ভুক্তভোগী মনিরুল ইসলাম বলেন, রাতে আমরা ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এ সময় একটি ঘরে হঠাৎ আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণের আগেই তা ছাগলের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এতে আগুনে পুড়ে মারা যায় ১০টি ছাগল। যার আনুমানিক মূল্য অর্ধ লক্ষাধিক টাকা। ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি নিশ্চিত করে কাথুলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে প্রাথমিকভাবে ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়া হয়েছে।
টাঙ্গাইলে ট্রাক-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নিহত ১
১৭ডিসেম্বর,মঙ্গলবার,প্রদীপ কুমার দাশ,টাঙ্গাইল,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের সেতু পূর্ব থানার সামনে মাইক্রোবাস-ট্রাকের সংঘর্ষে হাবিবুর রহমান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন। আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়ায়। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী আয়ুবুর রহমান জানান, আজ (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের সেতু পূর্ব থানার সামনে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকের সাথে সিরাজগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই হাবিবুর রহমান মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন। আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর আগেও এ এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছিল।
বরিশালে যাত্রীবাহী লঞ্চের ধাক্কায় ক্লিংকারবাহী কার্গো ডুবি
১৫ডিসেম্বর,রবিবার,বরিশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরিশাল নদীবন্দরের অপরপাড় চরকাউয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চের ধাক্কায় ক্লিংকারবাহী একটি কার্গো ডুবে গেছে। শনিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে চরকাউয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, বরগুনা থেকে তিন শতাধিত যাত্রী নিয়ে ছেড়ে আসা শাহরুখ-২ লঞ্চের সাথে চট্টগ্রাম থেকে এ্যাংকর সিমেন্টের ১২০০ মেট্রিক টন ক্লিংকার বহনকারী কার্গো হাজী মো. দুদু মিয়া-১ এর মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের ফলে ক্লিংকারবাহী এ্যাংকর সিমেন্টের মালিকাধীন কার্গোটি ডুবে যায় এবং লঞ্চের সামনের অংশটি ছিদ্র হয়ে যায়। তাই বিআইডব্লিউটিএ লঞ্চটি নদীর তীরে ভিড়িয়ে যাত্রীদের নামিয়ে যাত্রা বাতিল করে। বিকল্প ব্যবস্থায় কিছু যাত্রী বরগুনা-ঢাকাগামী পূবালী-১ লঞ্চে ঢাকায় পাঠানো হয়। যাত্রীদের অনেকেই ঐসময় ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ জোরে ধাক্কা লাগলে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। বিশেষ করে নারী ও শিশু যাত্রীরা কান্না জুড়ে দেয়। তবে লঞ্চ চরকাউয়া খেয়াঘাটে ভিড়ানো হলে যাত্রীরা নিরাপদে তীরে নেমে পড়েন। টার্নিং করার সময় কার্গোটির চালক হঠাৎ ঘুরিয়ে দেয়ায় দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান শাহরুখ-২ লঞ্চের সুপারভাইজর সেলিম হোসেন মারুফ। অপরদিকে এ্যাংকর সিমেন্ট কোম্পানীর জিএম আনসার আলী হাওলাদার বলেন, লঞ্চের ভুলের কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থলে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে ছুটে আসেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।

সারা দেশ পাতার আরো খবর