রবিবার, এপ্রিল ৫, ২০২০
Rab এর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জকির বাহিনীর ২ সদস্য নিহত
১২মার্চ,বৃহস্পতিবার,টেকনাফ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে Rabর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা ডাকাত জকির বাহিনীর ২ সদস্য নিহত হয়েছে। আজ বুধবার (১১ মার্চ) রাত ১টার দিকে টেকনাফের শাপলাপুর মেরিনড্রাইভ সড়কে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী ও Barর মধ্যে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিদেশি ১টি পিস্তল, ৬ রাউন্ড গুলি, ১টি এক নলা বন্দুক ও ৫ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। এতে Rabর ৩ সদস্য আহত হয়েছেন। Rab-15 এর টেকনাফ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মির্জা শাহেদ মাহতাব জানান, রাতে সশস্ত্র ডাকাত দল মেরিনড্রাইভ সড়কে জড়ো হয়েছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে Rab এর একটি দল সেখানে গেলে ডাকাত দলের সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এ সময় Rab ও পাল্টা গুলি ছুড়ে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল থেকে দু জনের মরদেহ, অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়। তিনি জানান, নিহত দু জনই রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার জকির গ্রুপের সদস্য। নিহতদের মরদেহ টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সেখান থেকে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও জানান, এর আগে গত ১ মার্চ দিবাগত রাতে টেকনাফের মোচনী জাদিমোরা ক্যাম্প সংলগ্ন গভীর পাহাড়ে রোহিঙ্গা শীর্ষ সন্ত্রাসী ও ডাকাত জকির বাহিনীর সঙ্গে Rab এর গোলাগুলিতে সাতজন নিহত হন। এসময় ১০টি অস্ত্র ও ২৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। ৬ মার্চ বিকেলে হাবিরছড়া পাহাড়ি এলাকায় ডাকাত জকির গ্রুপের সঙ্গে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত ও রোহিঙ্গা ৩ ডাকাতকে অস্ত্র, গুলি, ইয়াবা ও বিভিন্ন বাহিনীর পোশাকসহ আটক করা হয়। উল্লেখ্য, টেকনাফের নয়াপাড়া, শালবাগান ও জাদিমোরা রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায় অবস্থান নিয়ে অস্ত্রধারী জকির বাহিনীসহ বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী গ্রুপ মাদক ব্যবসা, খুন, অপহরণসহ নানা অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিল। এর আগেও সন্ত্রাসীদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গোলাগুলির একাধিক ঘটনা ঘটেছিল। এতে রোহিঙ্গা শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরুল আলমসহ বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী নিহত হন।
দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমান স্মৃতি বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠিত
১০মার্চ,মঙ্গলবার,মো.আনোয়ারুল জামান,সন্দ্বীপ,নিউজ একাত্তর ডট কম: সন্দ্বীপের সাবেক সাংসদ প্রয়াত দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমানের নামে অনুষ্ঠিত দ্বীপবন্ধু স্মৃতিবৃত্তি পরীক্ষা-২০১৯ প্রদান করা হয়েছে। ৯ মার্চ সন্দ্বীপ উপজেলা মাঠে এই বৃত্তি প্রাপ্তদের মাঝে সনদ ক্রেস্ট ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম। সভায় সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সাংসদ ও দ্বীপবন্ধু স্মৃতিবৃত্তি পরীক্ষার পৃষ্ঠপোষক মাহফুজুর রহমান মিতা। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মাষ্টার শাহজাহান বি.এ,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিদর্শী সম্বৌধী চাকমা। পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন,দ্বীপবন্ধু মরহুম মুস্তাফিজুর রহমান ছিলেন একজন মহৎ প্রাণ। এমন মানুষ বারবার জন্মগ্রহণ করে না। ওনার দান অনুদান ওনাকে সন্দ্বীপবাসীর মধ্যে হাজার বছর বাঁচিয়ে রাখবে। তার উত্তরসুরী মাহফুজুর রহমান মিতা জননেত্রী শেখ হাসিনার আশির্বাদ পুষ্ট হয়ে সন্দ্বীপকে একটি মডেল উপজেলায় পরিণত করবে। দ্বীপবন্ধু ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত ও দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনায় এই পরীক্ষায় বৃত্তি প্রাপ্তদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান আজ উপজেলা মাঠে বর্নাঢ্য কলেবরে আয়োজন করা হয়। সন্দ্বীপ প্রেসক্লাব সভাপতি রহিম মোহাম্মদ এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির আহব্বায়ক ও দ্বীপবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাষ্টার দিদারুল আলম। বৃত্তি সংক্রান্ত তথ্য উপস্থাপন করে বক্তব্য রাখেন মাষ্টার রতন মানিক বসু।বৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, তানিয়া আক্তার নিপা প্রাথমিক শিক্ষক প্রতিনিধি তাহমিনা বেগম, মাধ্যমিক শিক্ষক প্রতিনিধি মাষ্টার দেলোয়ার হোসেন। বক্তারা বলেন, ২০১৪ সাল থেকে শুরু হয়ে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ষষ্ঠবারের মতো এ পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পরীক্ষা বাবদ কোন ফি নেওয়া হয় না। মোট ৩১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ও শিক্ষক মন্ডলীদের সহায়তায় এই পরীক্ষা সুন্দর ও আনন্দঘন পরিবেশের মধ্য দিয়ে ছয় বছর সুনামের সহিত পরিচালিত হয়ে আসছে।
নিহত শাওনসহ ৬ বিজিবি সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা
০৭মার্চ,শনিবার,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলায় বিজিবির গুলিতে চারজন নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগী পরিবার। মামলায় মাটিরাঙ্গার খেদাছড়া ব্যাটালিয়নের হাবিলদার ইসহাক আলীসহ ছয়জন বিজিবি সদস্যকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় নিহত শাওনকেও আসামি দেখানো হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে মাটিরাঙ্গা থানায় মামলাটি দায়ের করেন নিহত মফিজ আলীর ছেলে মানিক মিয়া। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে মাটিরাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শামছুদ্দিন ভূইয়া বলেন, হত্যা, হুমকি, অনধিকার প্রবেশ, আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে গুলিসহ মোট নয়টি ধারায় মামলাটি রুজু করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এর আগে গেলো বৃহস্পতিবার বিজিবির পক্ষ থেকে ঘটনায় নিহত চার গ্রামবাসীসহ ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করা হয়। হাবিলদার ইসহাক আলী মাটিরাঙ্গা থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় আরও অজ্ঞাত ৬০-৭০ জনকে আসামি করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, গেলো মঙ্গলবার জেলার মাটিরাঙ্গা উপজেলার গাজীনগর এলাকায় গাছ পরিবহনে বাঁধা দেয়াকে কেন্দ্র করে বিজিবি ও গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে এক বিজিবি সদস্য ও চার গ্রামবাসী গুলিতে নিহত হন। এর মধ্যে তিনজন একই পরিবারের সদস্য। আহত হন আরও একজন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চার মোটরসাইকেলসহ চোরচক্রের ৬ সদস্য আটক
০৫মার্চ,বৃহস্পতিবার,মোহাম্মদ আলমগীর,ব্রাহ্মণবাড়িয়া,নিউজ একাত্তর ডট কম: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অভিযান চালিয়ে ৪টি চোরাই মোটরসাইকেলসহ ছয় যুবককে আটক করেছে Rab। বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) শহরের পীরবাড়ি এলাকা থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেপ্তার করে Rab-14 এর ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা। Rab জানায় আটক যুবকেরা চোরাকারবারের সঙ্গে জড়িত। তারা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মুসা, নাদিম খান, কামাল হোসেন, ইফরাত খান হৃদয়, কসবা উপজেলার নাদিম এবং আখাউড়া উপজেলার জাহিদুল ইসলাম জনি। Rab-14 এর ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ জোবায়ের জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে Rab জেলা শহরের পীরবাড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে চোরাই মোটরসাইকেলসহ দুই যুবককে আটক করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার গভীর রাতে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে অন্যদের আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সদর থানায় নিয়মিত মামলা করা হবে বলেও জানান তিনি। উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেলের মধ্যে একটি ভারতীয় ব্র্যান্ড পালসার এবং তিনটি অ্যাপাচি। যেগুলোর আনুমানিক মূল্য ৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা।
টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ৭ রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত
০২মার্চ,সোমবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের টেকনাফে Rapid Action Battalion Rab-15 এর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ৭ রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়েছে। আজ সোমবার ভোরে টেকনাফ উপজেলার জাদিমরা পাহাড়ে এই ঘটনা ঘটে। এসময় ৫টি দেশিয় এলজি ও বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। টেকনাফ Rab-15 সিটিসি-১ টেকনাফ ক্যাম্পের ইনচার্জ লে. মির্জা সাহেব মাহতাব বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সোমবার ভোরে টেকনাফ জাদিমরা পাহাড়ে কুখ্যাত ডাকাত জকিরের সন্ধানের খবরে তিনিসহ Rabর একটি দল ওই ক্যাম্পের পাশের পাহাড়ে অভিযান চালান। এ সময় পাহাড় থেকে Rab কে লক্ষ্য করে গুলি চালায় ডাকাত দল। Rab ও আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়। এতে সাত রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৫টি দেশিয় তৈরি এলজি বন্দুক ও বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি টেকনাফ থানা পুলিশকে অবগত করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে ডাকাতদের পরিচয় নিশ্চিত করা যাবে বলে জানান তিনি।
জয়পুরহাটে জঙ্গলে গাছের ডালে স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ
০১মার্চ,রবিবার,জান্নাতুল ফেরদৌস,জয়পুরহাট,নিউজ একাত্তর ডট কম: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরের গুডুম্বা চাত্রা গ্রামে স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তারা দুজনেই গুডুম্বা গ্রামের বাসিন্দা। আজ রোববার ভোরে চাত্রা গ্রামের পুকুরপাড়ে গাছে ঝোলানো অবস্থায় মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ মরদেহ দুটি উদ্ধার করে। নিহতরা হলেন, উপজেলার রায়কালী ইউনিয়নের গুডুম্বা গ্রামের শাহীন মিয়া (৩৮) ও তার স্ত্রী আশা পারভীন (২৬)। আক্কেলপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ জানান, সকালে বাড়ি থেকে কিছু দূরে পুকুরপাড়ের জঙ্গলাকৃর্ণ এলাকার গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য তাদের মরদেহ জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে ওই দম্পতি গাছের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তবে, প্রতিবেদন পেলে মূল কারণ যাবে জানা যাবে।
কুমিল্লায় পিকনিকের বাস খাদে, নিহত ৩
২৯ফেব্রুয়ারী,শনিবার,কুমিল্লা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুমিল্লার দাউদকান্দিতে পিকনিকের বাস খাদে পড়ে এক পথচারীসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১৫ জন। আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দির জিংলাতলী নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, পিকনিক শেষ করে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী খাদিজা ভিআইপি কোচ সার্ভিসের একটি বাস সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বেপোয়ারা গতিতে কুমিল্লার দাউদকান্দির জিংলাতলী এলাকায় এক পথচারীকে ধাক্কা দিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এসময় হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দুর্ঘটনা কবলিত বাস ও যাত্রীদের উদ্ধার করেন। পরে গুরুতর আহতাবস্থায় ৫ জনকে উদ্ধার করে দাউদকান্দির গৌরিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর এক পথচারী ও ২ বাসযাত্রী মারা যান। নিহতরা হলেন, পথচারী দাউদকান্দির সহিদ মোল্লা, বাসযাত্রী ঢাকা কেরানীগঞ্জের শফিকুল ইসলাম ও মুঞ্জিগঞ্জ জেলার মো. রমজান আলী। এ ঘটনায় দাউদকান্দি থানায় একটি মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।
পাপিয়ার আমলনামা,ভিডিও ক্লিপ দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করতেন পাপিয়া
২৩ফেব্রুয়ারী,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:আজকে সবচেয়ে আলোচিত নাম পাপিয়া । রাজনীতির আড়ালে মাদক ও নারী বাণিজ্য করেন তিনি। রাজধানীর তারকা হোটেলগুলোতে আয়োজন করতেন পার্টির। সাপ্লাই দিতেন নারী। এসকর্ট সার্ভিস। সুন্দরী তরুণীদের চাকরি দেয়ার নামে নরসিংদী থেকে ঢাকায় নিয়ে আসতেন। তারপর তাদের জিম্মি করে দিনের পর দিন করাতেন দেহ ব্যবসা।নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাাদক পাপিয়ার আমলনামা প্রকাশের পর সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে তাকে। তার কুকর্মের ভিডি ক্লিপ রয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে। কী আছে এসব ভিডিও ক্লিপে? তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নরসিংদী ও ঢাকার অনেক তরুণীদের চাকরির নামে তারকা হোটেলে ডেকে নিতেন পাপিয়া। পার্টি গার্ল হিসেবে ব্যবহার করতেন তাদের। তারপর টাকার প্রলোভন দেখিয়ে অনেকের শয্যা সঙ্গী করতে বাধ্য করতেন। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, তারকা হোটেলে এসকর্ট সার্ভিস দিতে বাধ্য করা হতো তরুণীদের। তার আগে পার্টিতে মদ পান করিয়ে মাতাল করা হয়। মাতাল অবস্থায় হোটেলের রুমে তরুণীর কক্ষে ঢুকানো হয় খদ্দেরকে। এভাবেই নির্যাতনের শিকার হন তার সংগ্রহ করা প্রায় সকল তরুণী। পরবর্তীতে পাপিয়ার হাত থেকে মুক্তি চাইলেও বিপাকে পড়ে যান তারা। কারণ ইতিমধ্যে মদ্য পান ও পরবর্তী দৃশ্য গোপনে ধারণ করা হয়েছে ক্যামেরায়। কথামতো না চললে ভিডিও ছড়িয়ে দেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হয়। এভাবেই জিম্মি করা হয় তরুণীদের। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, এভাবেই তরুণীদের ভিডিও ধারণ করে জিম্মি করতেন পাপিয়া। সুন্দরী তরুণীদের পাঠানো হতো প্রভাবশালীদের বাসায়, হোটেলের রুমে। এছাড়াও ভয়ঙ্কর অনেক অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িত শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ। পাপিয়ার কাছ থেকে গোপন ক্যামেরায় ধারণকৃত অনেক ভিডিও ক্লিপ উদ্ধার করা হয়েছে। এতে অনেক ধনাঢ্য ও প্রভাবশালী ব্যক্তির সঙ্গে তরুণীদের একান্ত মুহূর্তের দৃশ্য রয়েছে। কিছু ধনাঢ্যদেরও এসব ভিডিও ক্লিপ দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করতেন পাপিয়া। কয়েক ভিডিও ক্লিপে দেখা গেছে, রাতের পার্টির দৃশ্য। গর্জিয়াস মেকাপে সেজে পাপিয়া উপভোগ করছে পার্টি। মেয়েরা সেখানে নাচছে। অভিযোগ রয়েছে, কোনো মেয়ে আপত্তি করলে ভিডিও ক্লিপ দিয়ে ব্ল্যাকমেইল ছাড়াও লাঠি দিয়ে পেটাতেন যুব মহিলী লীগের এই নেত্রী। লাঠি হাতে সোফায় বসে পার্টি উপভোগ করার ভিডিও পেয়েছেন তদন্ত সংশ্লিষ্টরা। গত শনিবার সকালে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান সুমনসহ সহযোগীদের গ্রেপ্তার করেছে RAB।

সারা দেশ পাতার আরো খবর