রক্তাক্ত সাংবাদিক শরীফের অবস্থা আশংকাজনক দূর্বৃত্তদের গ্রেপ্তারের দাবি বিএমএসএফর
০৪জুলাই,শনিবার,কুমিল্লা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংবাদ প্রকাশের জের ধরে কুমিল্লার মুরাদনগরে চেয়্যারম্যান শাহজাহান তার বাহিনী কর্তৃক সমকাল প্রতিনিধি শরিফুল ইসলামকে বাড়িতে ঢুকে কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে। দূর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে হাত পা ভেঙ্গেই ক্ষান্ত হয়নি এসময় তার বাগার উঠানে ফেলে মুক্তিযোদ্ধা পিতা এবং বৃদ্ধা মাকে কুপিয়ে আহত ও লাঞ্ছিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনার পরপরই পুলিশ শাহজাহান চেয়ারম্যানকে আটক করলেও সাঙ্গপাঙ্গরা ধরাছোয়ার বাইরে রয়ে গেছে। এদিকে নৃশংস হামলার এ ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি করেছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম। শনিবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএমএসএফর কেন্দ্রিয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের নিকট হামলাকারীদের গ্রেফতার দাবি করেন। বিএমএসএফ নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশে যেন সাংবাদিক নির্যাতনের মহোৎসব চলছে। যেমন খুশি প্রভাবশালীরা হামলা মামলা চালিয়েই যাচ্ছে। অথচ রাষ্ট্রযন্ত্র সাংবাদিকদের নিরাপত্তায় চরম উদাসীন। দ্রুত সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে আইন প্রণয়নেরও দাবি করেন নেতৃবৃন্দ। পাশাপাশি সাংবাদিকদের নিরাপত্তায় জেলা-উপজেলায় সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।
ফটিকছড়ি প্রেসক্লাব ভবন নির্মাণে দুই লাখ টাকা অনুদান দিল মানারাত
০৪জুলাই,শনিবার,সজল চক্রবর্তী,ফটিকছড়ি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি প্রেসক্লাব ভবন নির্মাণে দুই লাখ টাকা অনুদান দিলেন তরুণ শিল্পপতি ও মানারাত ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদুল হাসান রনি। শনিবার (৪ জুলাই) ফটিকছড়ি প্রেসক্লাব সভাপতি জাহেদ কুরাইশীর হাতে এ অনুদানের চেক হস্তান্তরে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক জামাল হোসেন টিপু। মানারাত ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থপনা পরিচালক মাহমুদুল হাসান রনি এ বিষয়ে বলেন, মফস্বল পর্যায়ে উন্নয়ন তরান্বিত করতে গণমাধ্যম কর্মীদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সমস্যা, সম্ভাবনা ও শৃঙখলা প্রতিষ্ঠায় পত্রিকার মফস্বল প্রতিনিধিরা কাজ করছে। ফটিকছড়ি প্রেসক্লাব এ উপজেলার সাংবাদিকদের একটি শক্তিশালী প্লাটফর্ম। এ সংগঠনটির সদস্যরা এ উপজেলার মানুষের কথা তুলে ধরছে রাষ্ট্রের সামনে। ফটিকছড়ির সংবাদকর্মীদের কল্যাণে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল সব সময় পাশে থাকবে।
যশোরে ১ লাখ ইউএস ডলারসহ ৩ হুন্ডি ব্যবসায়ী আটক
০৪জুলাই,শনিবার,মো.ইনজামুল ইসলাম,যশোর প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বেনাপোল থেকে প্রাইভেট কারে করে ঢাকায় পাচার করার সময় যশোরের খাজুরা বাসস্ট্যান্ড হতে এক লাখ ১৫ হাজার ইউএস ডলারসহ বেনাপোল-শার্শার তিন হুন্ডি ব্যবসায়ীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। যা বাংলাদেশী টাকায় এক কোটি বাইশ লাখ ছাপ্পান্ন হাজার ছয়শত টাকা সমপরিমাণ। এ সময় হুন্ডির টাকা পাচারে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেট কারও জব্দ করে বিজিবি। শুক্রবার (৩ জুলাই) বেলা ৩টার দিকে তাদের আটক করা হলেও বিজিবি রাত সাড়ে ৯টায় প্রেসনোটের মাধ্যমে সাংবাদিকদের জানায়। আটক হুন্ডি ব্যবসায়ীরা হলো, বেনাপোল পোর্ট থানার গাজিপুর গ্রামের আব্দুল বারীর ছেলে জাকির হোসেন (৩৬), একই থানার পুটখালি বালুন্ডা গ্রামের ইয়াছিন সরকারের ছেলে শাহ আলম (৩৫) ও শার্শা উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে মাসুদ রানা (২৮)। যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোঃ সেলিম রেজা নিউজ একাত্তরকে জানান, নিজস্ব গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, বেশ কয়েকটি হুন্ডি চোরাকারবারী চক্র দীর্ঘদিন যাবত যশোর বেনাপোল রোডে চোরাচালানী কার্যক্রম পরিচালনা করছে। শুক্রবার বেলা ৩টার দিকে যশোরের খাজুরা বাসস্ট্যান্ডে যশোর বিজিবির বিশেষ দল বেনাপোল সীমান্ত হতে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো-গ-২৩-৭৯৫৯) আটক করে। পরে প্রাইভেট কারে থাকা জাকির হোসেন, শাহ আলম ও মাসুদ রানা নামে তিন হুন্ডি ব্যবসায়ীকে আটক করে শরীর তল্লাশি চালিয়ে এক লাখ ১৫ হাজার ইউএস ডলার (যা বাংলাদেশী টাকায় এক কোটি ২২ লাখ ৫৬ হাজার ছয়শত) উদ্ধার করা হয়। এ সময় প্রাইভেট কারও জব্দ করা হয়। আটককারীরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হুন্ডি ও স্বর্ণ চোরাকারবারীর সাথে দীর্ঘদিন যাবত জড়িত বলে স্বীকার করে। মাদক, চোরাচালান, হুন্ডি ও স্বর্ণ পাচারের বিরেদ্ধে সীমান্তে কঠোর নজরধারী জারী রয়েছে। উদ্ধারকৃত হুন্ডির টাকাসহ আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান ওই বিজিবি কর্মকর্তা।
উখিয়ায় ইয়াবাসহ Rab-15 এর হাতে যুবক আটক
০৩,জুলাই,শুক্রবার,কক্সবাজার প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায় পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী বাজার থেকে অভিযান চালিয়ে ১৬ হাজার পিস ইয়াবাসহ একজন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে Rab-15 এর সদস্যরা। শুক্রবার সকাল তাকে আটক করে টেকনাফ থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয় বলে Rab-15 জানিয়েছেন। কক্সবাজার ক্যাম্পের সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) আবদুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী নিউজ একাত্তরকে জানান, উখিয়া থানাধীন থাইংখালী বাজার থেকে মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা বেচাকেনার উদ্দেশ্য অবস্থান করছিল, এমন তথ্যের ভিত্তিতে Rabর একটি দল ওই এলাকায় অভিযান চালায়। Rab এর উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। পরে উপস্থিত লোকজনের সামনে তাদের হাতে থাকা ব্যাগ ও দেহ তল্লাশি করে ১৬ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত স্বীকারোক্তিতে জানা যায়, পলাতক আসামিরাসহ তারা দীর্ঘদিন যাবৎ সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করে আসছে। পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
ভুয়া সাংবাদিককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ, মুচলেকায় মুক্তি
০৩,জুলাই,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: লোহাগাড়ায় মো. সেলিম উদ্দিন (৪৫) ওরফে বাটোয়ার সেলিম নামের এক প্রতারক সাংবাদিক পরিচয়ে থ্রী স্টার অটো পার্টস নামের একটি দোকানে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করতে গিয়ে গণধোলাইয়ে শিকার হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকেলে লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ পুরান বিওসি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গণধোলাই দিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। পাঁচ ঘণ্টা থানা হাজতে থাকার পর রাত সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয় আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস এম ইউনুছের জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে তাকে মুক্তি দেয়া হয়। সেলিম উদ্দিন আমিরাবাদ মল্লিক ছোবহান বেপারী পাড়ার আলী আহমদের পুত্র। তিনি নিজেকে বাংলা টাইমস নামের একটি অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বেশ দাপটের সঙ্গে চলাফেরা করতেন। ভুক্তভোগী থ্রী স্টার অটো পার্টসের মালিক মো. জিয়া উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার আমিরাবাদ পুরান বিওসি এলাকায় তার মালিকানাধীন থ্রী স্টার অটো পার্টস দোকান থেকে কোন কারণ ছাড়াই ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে তার সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু করে কথিত সাংবাদিক সেলিম উদ্দিন। তার অযাচিত এমন আচরণে এসময় দোকানের আশ-পাশের ব্যবসায়ীসহ অনেক লোক জড়ো হলে সেলিম দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাকে ধরে উত্তেজিত ব্যবসায়ীরা গণধোলাই দেয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়। লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, জিয়া উদ্দিন নামের এক ব্যবসায়ীর মৌখিকভাবে চাঁদা দাবির অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠিয়ে সেলিম নামের ওই প্রতারককে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। লোহাগাড়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম জানান, সেলিম উদ্দিন নামের কোনও সাংবাদিককে তিনি চিনেন না। আর এ নামের কেউ লোহাগাড়া প্রেস ক্লাবের সদস্য নেই। সেলিম নামের এক প্রতারকের সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজির বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।- বাংলা নিউজ
মাদারীপুরে স্কুলছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগ
০২,জুলাই,বৃহস্পতিবার,সাবরীন জেরীন,মাদারীপুর,নিউজ একাত্তর ডট কম: মাদারীপুর সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের রাজারচর গ্রামের অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী অপহরণের ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালে থানায় মোঃ আজিজুল ফকির (২২) সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্কুল ছাত্রীর মা শাহিনুর বেগম জানান, মাদারীপুর সদর উপজেলার কুনিয়া বাজিতপুর ইউনিয়নের মাহমুদসী গ্রামের কুদ্দুস ফকির এর ছেলে মোঃ আজিজুল ফকির (২২) গত বুধবার ১ জুলাই রাত আনুমানিক ২ টা ৩০ ঘটিকার সময় আমার মেয়ের প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার লক্ষে ঘর হইতে বাহির হইয়া বসত ঘরের পুর্বকোনায় পৌছালে পূর্ব থেকে ওত পাতিয়া থাকা মোঃ আজিজুল ফকির (২২) সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন মুখ চাপিয়া ধরিয়া আমার মেয়েকে পাজা কোলে করিয়া আমাদের বাড়ির সামনের রাস্তায় পূর্ব হইতে অবস্থানরত একটি সিলভার কালারের মাইক্রো বাসে উঠাইয়া নিয়া যাইতে থাকে। ওই সময় আমার মেয়ে অনেক চেষ্টা করিয়া তাহার মুখ হইতে হাত সরাইয়া ডাক চিৎকার দিলে আমি আমার মেয়ের চিৎকার শুনিয়া ঘর হইতে বাহিরে বাহির হইয়া দেখতে পাই আমার মেয়েকে তাহাদের হাত হইতে বাচানোর আগেই তাহারা আমার মেয়েকে জোড়পুর্বক মাইক্রোবাসে উঠাইয়া অপহরন করিয়া উত্তর দিকে চলিয়া যায়। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার মাদারীপুর সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম বলেন,এবিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পুর্বক আইনানুক ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।
সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্ত থেকে সাড়ে ৪ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার
২৮,জুন,রবিবার,মো.ইসমাইল,সাতক্ষীরা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতে পাচারকালে সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্ত এলাকা থেকে চার কেজি ৫৪০ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা। রোববার (২৮ জুন) ভোর ৫টার দিকে উপজেলার কেড়াগাছির গফফারের ঘাট এলাকা থেকে এ স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। তবে এ সময় কোনো চোরাকারবারীকে আটক করতে পারেনি বিজিবি। বিজিবির সাতক্ষীরা ৩৩ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ গোলাম মহিউদ্দীন খন্দকার জানান, স্বর্ণ চোরাচালান হচ্ছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কাকডাঙ্গা বিওপির সদস্যরা কেড়াগাছি গফফারের ঘাট এলাকা থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ২৪টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করে। যার ওজন চার কেজি ৫৪০ গ্রাম। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় দুই কোটি ৬৮ লাখ ৫২ হাজার ৬৮৫ টাকা।
সাতকানিয়ায় হত্যা মামলার আসামি বন্দুকযুদ্ধে নিহত
২৭,জুন,শনিবার,মো.আমিন,সাতকানিয়া প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাতকানিয়া উপজেলার বারদোনা এলাকায় যুবলীগ কর্মী মোসাদ্দেকুর রহমান হত্যা মামলার প্রধান আসামি সোহেল পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। শনিবার (২৭ জুন) ভোরে সাতকানিয়া উপজেলার গারাংগিয়া মাদ্রাসার পশ্চিম পাশে কোতোয়াল দিঘীর পাড় এলাকায় 'বন্দুকযুদ্ধের' এই ঘটনা ঘটে বলে দাবি পুলিশের। নিহত সোহেল বারদোনা ৭ নম্বর ওয়ার্ড আদর্শপাড়ার মোহাম্মদ আলীর ছেলে। সাতকানিয়া থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মোবারক নিউজ একাত্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গত ২২ জুন বিকেলে সাতকানিয়া উপজেলার বারদোনা এলাকায় মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের হাতে ছুরিকাঘাতে খুন হন যুবলীগ কর্মী মোসাদ্দেকুর রহমান। এ সময় মোসাদ্দেকুর রহমানের ভাই ফয়সালুর রহমানকেও ছুরিকাঘাত করা হয়। মোসাদ্দেকুর রহমান বারদোনা এলাকার মাহবুবুর রহমানের ছেলে। তিনি স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। তিনি বারদোনা এলাকায় সামাজিক সংগঠনের ব্যানারে মাদক বিরোধী কার্যক্রম করে আসছিলেন। মোসাদ্দেকুর রহমান কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা মো. আমিনুল ইসলামের অনুসারী। স্থানীয় সূত্র জানায়, সোহেল নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিতে বলেন যুবলীগ কর্মী মোসাদ্দেকুর রহমান। এ নিয়ে সোহেলের রোষানলে পড়েন মোসাদ্দেকুর। এ ঘটনার রেশ ধরে ২২ জুন বিকেলে মোসাদ্দেকুর রহমানকে পেয়ে ছুরিকাঘাত করে সোহেল ও তার সহযোগীরা। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন সোহেল।
আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল হক চৌধুরীর উপর হামলার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন ও প্রতিবাদ
২৬,জুন,শুক্রবার,বাশখালী সংবাদদাতা,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাশখালী কাথারিয়া ইউনিয়ন ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সমাজসেবক এনামুল হক চৌধুরীর উপর শাহাজাহান চেয়ারম্যান কর্তৃক সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর উদ্যোগে কাথারিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ জাগার,মোঃ নেচার,মোঃ আবছার,মোঃ হোসন, মোঃ বেলাল,মোঃঅগ্গল, মোঃ মুনছুর,মোঃ ইসমাইল,ওয়ার্ড নেতা মোঃশাহজাহান,মোঃ জিল্লুর, মোঃসাদ্দাম, মোঃ পেচু,বাঁশখালী থানা ছাত্রলীগের নেতা মোঃপারভেজ,মোঃ মাইমুন,মোঃ আনছার, মোঃ তারেক,মোঃ পারভেজ,মোঃ রাকিব,ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা মোঃ শিপন,মোঃরিপন,মোঃ আরকান,মোঃআমিন হোসেন,মোঃ মুরাদ ওমর,এমরান, লিটন মিরাজ,রিদুওয়ান,আনিছ,ফরহাদ,ফাহিম,এইচ এম সুমন,ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতা সোহেল,মান্নান সও, আঃ মান্নান,রানা,আজিজ,হাসিব,তৌহিদ রায়হান,মারুফুল ইসলাম, মনির,আজিজ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। তারা বলেন এনামুল হক চৌধুরী একজন আদর্শিক,ত্যাগী ও সমাজসেবী লোক।তিনি মানুষের জন্য রাজনীতি করেন।এলাকার ভুমি দস্যু,দালাল,চাদাবাজ চেয়ারম্যান শাহাজাহান চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে।আজকে প্রমাণ হয়েছে এনামুল হক চৌধুরী সাহেব একজন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করে এলাকার জনপ্রিয় লোক।অবিলম্বে দুর্নীতিবাজ,ভুমি দস্যু, দালাল,ত্রান আত্ত্বসাতকারী শাহাজাহান চেয়ারম্যান ও তার সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানাচ্ছি।যদি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নাহয় তাহলে এলাকার জনগণ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য থাকিবে। বাশখালীর টিএনও,ওসি সহ প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করছি অনতিবিলম্বে শাহাজাহান চেয়ারম্যান ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানাচ্ছি।