বইমেলায় দর্শনার্থীর মিলন ঘটছে
শুরুর দিকে বই মেলার যে রূপ, এবারও তার ব্যত্যয় ঘটেনি। মেলা শুরুর সপ্তাহ গড়ালেও বিকিকিনি ঠিক জমে ওঠেনি বইমেলায়। বইমেলায় হাজারো দর্শনার্থীর মিলন ঘটছে শুরুর দিন থেকেই। তবে ঢিমেতালে চলছে বেচাকেনা। অমর একুশের গ্রন্থমেলায় ছয়দিনে পাঁচ শতাধিক নতুন গ্রন্থ প্রকাশ পেয়েছে। প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে কবিতা শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। তারপরই রয়েছে শিশুতোষ গ্রন্থ। এর পরের অবস্থানে রয়েছে উপন্যাস এবং ছোট গল্প। মেলায় মঙ্গলবার বাংলা একাডেমির তথ্য কেন্দ্র থেকে এ তথ্য জানানো হয়। এখন পর্যন্ত প্রকাশ পেয়েছে মাত্র ১৩৮টি নতুন বই। এর মধ্যে রয়েছে গল্প ২০, উপন্যাস ২৯, প্রবন্ধ ৬, কবিতা ৪৩, ছড়া ১, শিশুসাহিত্য ৫, জীবনী ৪, মুক্তিযুদ্ধ ৩, নাটক ১, বিজ্ঞান ২, ভ্রমণ ২, ইতিহাস ৫, চিকিৎসা/স্বাস্থ্য ১, অভিধান ১, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী ৩ এবং অন্যান্য বিষয়ের নতুন ১২টি বই। বইগুলোর মধ্যে রয়েছে রাবেয়া খাতুনের রূপালি পর্দায় সোনালি লেখা (অনন্যা), মাহবুবুর রহমানের নীল পাড়ের শাড়ি (দাঁড়কাক), ইজাজ আহ্মেদ মিলনের বেদনা আমার জন্ম সহোদর(প্রিয়মুখ), মোকারম হোসেনের নিসর্গ কথা (কথাপ্রকাশ), গোলাম মাওলা রনির ইতিহাসের নির্মম প্রতিশোধ (অনন্যা), আনিসুল হকের ছোট ছোট কিশোর গল্প (অনন্যা), ইমদাদুল হক মিলনের বুমার বাড়িতে ভূতের উপদ্রব(পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স), স্বকৃত নোমানের ইবিকাসের বংশধর (পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স), খালেক বিন জয়েনউদ্দিনের বাঙালির শ্রেষ্ঠ সন্তান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও একাত্তর পঁচাত্তর এবং বাংলাদেশ (বর্ণায়ন), জিমি হাইসানের এ ফায়ার অব ফোর্থ সেঞ্চুরি (ঐতিহ্য)। এ নিয়ে মেলায় গত ছয়দিনে ৫৩৬টি নতুন বই প্রকাশ পেল। মেলায় দুই ফেব্রয়ারি ৫৫টি, তিন ফেব্রয়ারি ১২০, ৪ ফেব্রয়ারি ১১১ ও ৫ ফেব্রয়ারি ১১৬টি নতুন বই প্রকাশ পেয়েছে। বই প্রকাশের ব্যাপারে প্রকাশকরা জানান, মেলায় সবসময়ই প্রথম সপ্তাহেই চার ভাগের এক ভাগ বই আসে। এবার ছয়দিনের মাথায় পাঁচ শতাধিক এসেছে। প্রকাশনার এই গতি সন্তোষজনক। বাংলা একাডেমির স্টল থেকে জানানো হয়, এ পর্যন্ত বাংলা একাডেমির স্টলে সর্বাধিক ৭৬টি নতুন বই এসেছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যোনে সৃষ্টিশীল প্রকাশনা সংস্থার স্টলগুলোতেই বেশি নতুন বই বেশি এসেছে। অন্য প্রকাশের স্বত্ত্বাধিকারী মাজহারুল ইসলাম বলেন, ছয়দিনে পাঁচ শতাধিক বই খুবই উল্লেখযোগ্য ব্যাপার। গতবারও পাঁচদিনে এতো বই মেলায় আসেনি। তিনি বলেন, বই আসছে প্রতিদিন। হয়তো অনেক বই তালিকায় আসছে না। আমার মনে হয় নতুন বই ৭০০ ছাড়িয়ে গেছে। অন্বেষা প্রকাশনের স্বত্ত্বাধিকারী শাহাদাত হোসেন জানান, তারা ১৮টি নতুন বই এনেছেন। হুমায়ুন আহমেদের পুরনো বইগুলো সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে তিনি জানান। তিনি মেলার ধূলা নিয়ে বিরক্ত প্রকাশ করেন। বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নির্মিত রাস্তাগুলোতে বালি উড়ছে সারাক্ষণ। তাদের স্টলের বইগুলোতে প্রতিদিন ধূলা এসে জমা হয়।
চট্টগ্রামজুড়ে তৎপর পুলিশ
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় ঘিরে বিএনপি মাঠে নামার আগেই আজ বুধবার সকাল থেকে চট্টগ্রামজুড়ে তৎপর পুলিশ। ঢাকা-চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার, চট্টগ্রাম-রাঙামাটি মহাসড়কসহ চট্টগ্রামে প্রবেশ পথের সব কটি সড়কে অবস্থান নিয়ে পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে। এতে যানবাহন চলাচল কমে গেছে। চট্টগ্রাম বিমান বন্দর সড়কসহ আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য কাজে ব্যবহৃত সড়কসমূহে যানবাহন চলাচলে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। আগামীকাল ৮ই ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুনীতির মামলায় খালেদা জিয়ার রায়কে ঘিরে সারাদেশের মতো চট্টগ্রামেও বিএনপির শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ বিক্ষোভের ঘোষণায় ব্যাপক প্রস্তুতি নেয় পুলিশ। ওদিকে, বিএনপিকে রাজপথে নামতে না দেয়ার জন্য লাঠি-সোটা নিয়ে মাঠে নামার হুমকি দেয় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাও। নাশকতার কোনো ঘটনা ঘটলে চট্টগ্রামে বিএনপি নেতাদের শিল্প কারখানাসহ বিভিন্ন স্থাপনায় হামলার হুমকিও দেন দলটির সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতারা। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীর জানিয়েছেন, আগামীকাল সকাল থেকে চট্টগ্রামের মোড়ে মোড়ে ও মহল্লায়-মহল্লায় লাঠি নিয়ে অবস্থান নেওয়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন তারা। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, খালেদা জিয়ার রায়কে গিরে বিএনপি-জামাতের তৎপরতা ঠেকাতে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা মাঠ দখলে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। সে হিসেবে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা মাঠে নামার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। আগামীকাল সকাল থেকে সেটা আপনারা দেখতে পাবেন। বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, এ রায়কে ঘিরে শান্তিপূর্ণ অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভের প্রস্তুতি নিয়েছেন তারা। মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, যে কোনো কিছুর বিনিময়ে মাঠে থেকে আমরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ বিক্ষোভ করব। প্রয়োজনে স্বেচ্ছা কারবরণ করব। এ জন্য নেতাকর্মীরা প্রস্তুত রয়েছে। তবে মাঠে কেউ নামার আগেই নেমে গেছে পুলিশ। ধরপাকড় শুরুর পর পুলিশের বিশেষ টিম বুধবার সকাল থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই থেকে সীতাকুন্ড পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে ব্যাপক তল্লাশি চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে বার আউলিয়া হাইওয়ে পুলিশের এসআই মনিরুজ্জামান বলেন, চট্টগ্রামে মিরসরাই ও সীতাকুন্ড হচ্ছে বিএনপি-জামাত অধ্যুষিত জোন। এখানে জেএমবির তৎপরতাও বেশি। অতীতে যানবাহন থেকে বিভিন্ন স্থাপনার উপর নাশকতার ঘটনাও ঘটেছে বেশি। ফলে পুলিশের তালিকায় এ দুটি উপজেলা ডেঞ্জার জোন হিসেবে চিহ্নিত। তাই খালেদা জিয়ার রায়কে ঘিরে কোনো ধরণের নাশকতার ঘটনা যাতে না ঘটে সে হিসেবে পুলিশ তল্লাশি ও যানবাহন চলাচলে নিয়ন্ত্রণ করছে।
৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় সকল সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুদকের দায়ের করা মামলার রায়ের দিন ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার রাস্তায় দাঁড়িয়ে বা বসে কোনও ধরনের মিছিল করা যাবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি বলেছেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় সব ধরনের ছড়ি বা লাঠি, ছুরি, চাকু বা ধারালো অস্ত্র, বিস্ফোরক দ্রব্য ও দাহ্য পদার্থ বহন নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘যানবাহন ও জনসাধারণের চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি ও রাস্তায় দাঁড়িয়ে/বসে কোনও ধরনের মিছিল করা যাবে না মর্মে ঘোষণা করছি। ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা ও জননিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি।’ রাজধানী ঢাকার বাসা বাড়ির প্রাঙ্গণে কিংবা ছাদে, সর্বসাধারণের ব্যবহার্য রাস্তা কিংবা উন্মুক্ত স্থান যার চারপাশে সাধারণ মানুষ বসবাস করে এমন স্থানে কোনো অনুষ্ঠান ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অনুমতি ছাড়া করা যাবে না। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। ওই বার্তায় উল্লেখ করা হয়, অনুমতি ছাড়া রাজধানীর বাসা বাড়ির প্রাঙ্গণে কিংবা ছাদে, সর্বসাধারণের ব্যবহার্য রাস্তা কিংবা উন্মুক্ত স্থান যার চারপাশে সাধারণ মানুষ বসবাস করে এমন স্থানে মাইক্রোফোন, লাউড স্পিকার বা উচ্চ মাত্রার মিউজিক জোরদার করার ব্যবহৃত যন্ত্র বাজিয়ে বা কনসার্ট, সঙ্গীতানুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের শান্তিপূর্ণ বসবাসে বিঘ্ন সৃষ্টি করে এরূপ কার্য সম্পাদন করা যাবে না। তাই সাধারণ মানুষের শান্তিপূর্ণ বসবাসে বিঘ্ন সৃষ্টি করা থেকে বিরত থাকার জন্য ঢাকা মহানগরীর নাগরিকদের অনুরোধ করা হলো। ডিএমপি কমিশনারের দেওয়া ঘোষণায় বলা হয়, বিচারাধীন একটি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে ঢাকা মহানগরীতে কোনও কোনও ব্যক্তি বা গোষ্ঠী অরাজকতা ও নৈরাজ্য সৃষ্টির মাধ্যমে জননিরাপত্তা ও জনশৃঙ্খলা বিঘ্নের অপপ্রয়াস চালাতে পারে মর্মে বিভিন্ন গোয়েন্দা তথ্য, ইলেকট্র্রনিক, প্রিন্ট ও সোশ্যাল মিডিয়ার সূত্রে জানা যায়। আছাদুজ্জামান মিয়ার ঘোষণায় বলা হয় , যেহেতু ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা ও জননিরাপত্তা নিশ্চিত করা প্রয়োজন, সেহেতু আমি মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বিপিএম-বার পিপিএম, পুলিশ কমিশনার, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ অর্ডিন্যান্স (অর্ডিন্যান্স নং- III/৭৬) এর ২৮ ও ২৯ ধারায় অর্পিত ক্ষমতাবলে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ (বৃহস্পতিবার) সকাল চারটা (ভোর রাত) থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় সব ধরনের ছড়ি বা লাঠি, ছুরি, চাকু বা ধারালো অস্ত্র, বিস্ফোরক দ্রব্য ও দাহ্য পদার্থ বহন নিষিদ্ধ ঘোষণা করছি।
আকাশ আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে
সিলেট বিভাগের দুএক জায়গায় হালকা বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। একইসাথে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। আজ রোববার সকাল ৯ টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে একথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আবহাওয়া অফিস আরও জানায়, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকার কোথাও কোথাও মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে। রোববার সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল শতকরা ৯৬ ভাগ। আগামীকাল সোমবার ঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৬ টা ৩৮ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধ্যা ৫ টা ৪৭ মিনিটে ।
দেশের কোথাও কোথাও হালকা বৃষ্টি হতেপারে
অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ শনিবার সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সেইসাথে সিলেট বিভাগের দুএক জায়গায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। আজ সকাল ৯ টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে একথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। পূর্বাভাসে বলা হয়, সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। আজ সকাল ৬ টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৭ শতাংশ। আবহাওয়া অফিস সূত্র জানায়, মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। আগামীকাল ঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৬টা ৩৮ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধ্যা ৫টা ৪৬ মিনিট ।
সিইউজের নির্বাচন, সভাপতি শ্যামল, সম্পাদক ফেরদৌস
চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে নাজিমউদ্দিন শ্যামল সভাপতি ও হাসান ফেরদৌস সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। গতকাল সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণের পর গণনা শেষে রাতে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেমুল হক। জানা গেছে, এবারের নির্বাচনে নয়টি পদে ২৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ইউনিয়নের মোট ৩৯২ জন ভোটারের মধ্যে ৩৬১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সভাপতি পদে নাজিমউদ্দিন শ্যামল ১৭৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াজ হায়দার চৌধুরী মাত্র ৯ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। তিনি পেয়েছেন ১৭০ ভোট। অন্যদিকে সিনিয়র সহসভাপতি পদে ১৪৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন একাত্তর টেলিভিশনের ব্যুরো প্রধান মাঈনুদ্দিন দুলাল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দৈনিক পূর্বদেশের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রতিবেদক রতন কাান্তি দেবাশীষ পেয়েছেন ১১৬ ভোট। এছাড়া সহসভাপতি পদে দৈনিক পূর্বকোণের সিনিয়র রিপোর্টার মোহাম্মদ আলী ২১১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকার সহসম্পাদক আবসার মাহফুজ পেয়েছেন ১২৯ ভোট। অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে হাসান ফেরদৌস পেয়েছেন ১৯২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ম. শামসুল ইসলাম পেয়েছেন ১৬২ ভোট। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে দৈনিক আজাদীর সিনিয়র রিপোর্টার সবুর শুভ ১৬৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দৈনিক আমাদের সময়ের ব্যুরো প্রধান হামিদ উল্লাহ পেয়েছেন ১২৫ ভোট। এছাড়া অর্থ সম্পাদক পদে বিজয়ী দৈনিক আজাদীর সহ সম্পাদক কাশেম শাহ বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২১৮ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সৌমেন ধর পেয়েছেন ১০৪ ভোট। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দৈনিক পূর্বকোণের সিনিয়র রিপোর্টার এসএম ইফতেখারুল ইসলাম ১৯০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আলোকময় তলাপাত্র পেয়েছেন ১৫১ ভোট। অপরদিকে প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন দৈনিক সমকালের স্টাফ রিপোর্টার আহমেদ কুতুব। তিনি পেয়েছেন ১৫৫ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দৈনিক ভোরের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার প্রীতম দাশ পেয়েছেন ১১৪ ভোট। এছাড়া নির্বাহী সদস্য পদে বিজয়ী হয়েছেন বিডিনিউজটোয়েন্টিফোর. ডটকমের উত্তম সেনগুপ্ত। তিনি পেয়েছেন ১৩৯ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দৈনিক সমকালের ক্রাইম অ্যান্ড স্পোর্টস রিপোর্টার রুবেল খান পেয়েছেন ১৩৫ ভোট।
তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে
সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। এছাড়া অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। আজ সকাল ৯ টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ কথা বলা হয়। এতে বলা হয়, দিনাজপুর, পঞ্চগড় ও কুড়িগ্রাম অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা প্রশমিত হতে পারে। শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। পরবর্তী ৭২ ঘন্টায় আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, রাত এবং দিনের তাপমাত্রা আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। আজ সকাল ৬ টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৩%। আগামীকালঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৬ টা ৩৯ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫ টা ৪৫ মিনিটে ।
আজকের আবহাওয়া
সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সে. বাড়তে পারে। এছাড়া, যশোর নীলফামারী, দিনাজপুর, সৈয়দপুর, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম ও শ্রীমঙ্গলের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কমতে হতে পারে। আজ সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ কথা বলা হয়। এতে বলা হয়, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। অন্যদিকে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও-কোথাও মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমির স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। আগামীকাল ঢাকায় সুর্যোদয় ভোর ৬ টা ৪০ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫ টা ৪৪ মিনিটে ।
সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বই প্রকাশ করলেই ব্যবস্থা
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, অমর একুশে বইমেলায় সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানতে পারে, এমন কোনো বইয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট লেখক-প্রকাশকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। মঙ্গলবার বইমেলার নিরাপত্তাব্যবস্থা পরিদর্শনের পর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। লেখক-প্রকাশকদের উদ্দেশে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে এমন বই মেলায় না আনার অনুরোধ করছি। যদি কেউ এমন বই আনে, তা হলে বাংলা একাডেমির গঠিত কমিটি এবং ডিএমপির সদস্যরা এগুলো শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেবে। এ ছাড়া গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা বই শনাক্তে নজরদারি করবেন। একুশে বইমেলার নিরাপত্তার বিষয়ে কমিশনার বলেন, মেলা কেন্দ্র করে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মেলার ভেতর ও চারপাশে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। মেলায় প্রবেশ ও বাইরে আলাদা গেট থাকবে, যাতে দর্শনার্থী বের হওয়ার সময় শ্লীলতাহানি কিংবা ধাক্কাধাক্কির ঘটনা না ঘটে। প্রবেশ গেটে আর্চওয়ে লাগানো হবে। এ ছাড়া পুলিশের সদস্যরা মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে আগতদের তল্লাশি করবে। নিরাপত্তার স্বার্থে মেলায় আগতদের ভ্যানিটি ব্যাগ, ব্যাকপ্যাক, ধারালো অস্ত্র এবং দাহ্য পদার্থ নিয়ে না আসার অনুরোধ জানান কমিশনার।

সারা দেশ পাতার আরো খবর