বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
পাহাড়ি সংগীত তারকা পঙ্কজের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
১৬অক্টোবর,বুধবার,বান্দরবান প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বান্দরবানে পাহাড়ের সংগীত অঙ্গনের উজ্জল নক্ষত্র কন্ঠশিল্পী পংকজ দেবনাথ (২৯) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বান্দরবান জেলা শহরের বালাঘাটাস্থ নিজ বাসায় ঘরের সিলিংয় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় সংগীত তারকা পঙ্কজ দেবনাথ (২৯) এর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে হতাশাগ্রস্থ হয়ে জীবনের মায়া ত্যাগ করে আত্মহত্যা করে পৃথিবী ছেড়েছেন সংগীত প্রতিভা অন্বেষণ প্রতিযোগিতা বাংলাদেশ আইডলের এ তারকা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, ফাঁস লাগানো অবস্থায় পরিবারের লোকজন পঙ্কজকে দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে মারমা সম্প্রদায়ের এক মেয়ের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিলো পাহাড়ের এ সংগীত তারকার। প্রেমিকার সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় আত্মহত্যা করেছে বলে পারিবারের ধারণা। এদিকে বাংলাদেশ আইডলের সেরা ৮ এর তারকা কণ্ঠশিল্পীর মৃত্যুর খবরে পাহাড়ে সংগীঙ্গনের শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
কুড়িগ্রামে হত্যা মামলায় ছেলের যাবজ্জীবন, বাবার ৭ বছরের জেল
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুড়িগ্রামের রাজারহাটে চাঞ্চল্যকর শাহ আলম (স্বপন) হত্যা মামলায় ছেলের যাবজ্জীবন ও বাবার সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন জেলা জজ আদালত। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- উলিপুর উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়নের উত্তর দলদলিয়া গ্রামের নুরনবী ও তার বাবা পেয়ারুল ইসলাম ইসলাম। এছাড়া নুরনবীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড এবং পেয়ারুলকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। আজ মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) বিকেল ৪টায় জেলা ও দায়রা জজ মুন্সী রাফিউল আলম এ রায় ঘোষণা করেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, রাজারহাট উপজেলার নাজিমখান ইউনিয়নের মনারকুটি গ্রামের আব্দুল হাই সরকারের ছেলে শাহ আলম স্বপন (২২) ২০০০ সালের ৪ এপ্রিল পার্শ্ববর্তী উলিপুর উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়নের উত্তর দলদলিয়া গ্রামের পেয়ারুল ইসলামের ছেলে নুরনবীর (২০) সঙ্গে পান কেনাকে কেন্দ্র করে পানের দোকানে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে নুরনবী তার পরিবারের কয়েকজনকে নিয়ে শাহ আলমের উপর চড়াও হয়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় শাহ আলমকে রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর ওইদিন রাতে তার চাচা মকবুলার রহমান বাদী হয়ে রাজারহাট থানায় হত্যা মামলা করলে দীর্ঘ শুনানি শেষে আজ আদালত এ রায় দেন।
অসামাজিক কর্মকাণ্ডের আখড়া খুলনার এই আবাসিক হোটেলটি
১৪অক্টোবর,সোমবার,খুলনা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: খুলনা মহানগরীর একটি আবাসিক হোটেল থেকে অসামাজিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে সাতজনকে আটক করেছে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা। গতকাল রোববার বিকেলে সদর থানার বড় বাজারের ডেল্টা এলাকার সোহাগ হোটেল থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন, কমল চক্রবর্তী (৫০), মো. ইসমাইল সরদার (৪০), মোছা. নিপা (২৫), মোছা. লিপি বেগম (৩০), মোছা. নাসরিন বেগম (২৮), ডালিম বেগম (৩০)ও রহিমা বেগম (৪৩)। খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) ভারপ্রাপ্ত উপ-কমিশনার (সদর) মনিরুজ্জামান মিঠু জানান, গোপন খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। পরে তাদের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের তৃতীয় আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত হোটেলটির মালিক কমল চক্রবর্তীকে পনের দিনের ও অন্য সব আসামিদেরকে চার দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।
আবরার হত্যায় জড়িয়ে ভ্যানচালক বাবার স্বপ্ন শেষ করেছেন আকাশ
১৪অক্টোবর,সোমবার,জয়পুরহাট প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার ১৩ নং আসামি মো. আকাশ হোসেনের বাড়ি জয়পুরহাটে। তিনি সদর উপজেলার দোগাছী-দরগাতলা গ্রামের দরিদ্র ভ্যানচালক আতিকুল ইসলামের ছেলে। আকাশ বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। আবরার হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে আকাশ গ্রেফতারের খবরে হতবাক তার পরিবার ও এলাকাবাসী। কিছুতেই তারা বিশ্বাস করতে পারছেন না যে, আবরার হত্যায় আকাশ জড়িত। আকাশ গ্রেফতারের পর কান্না থামছে না তার মায়ের। বাবাও বুঝে উঠতে পারছেন কি করবেন। সরেজমিনে জানা গেছে, আকাশ হোসেন জয়পুরহাট সদর উপজেলার দোগাছী-দরগাতলা গ্রামের দরিদ্র ভ্যানচালক আতিকুল ইসলামের বড় ছেলে। আতিকুলের তিন সন্তানের মধ্যে কন্যা মরিয়ম আক্তার পড়ে নবম শ্রেণিতে আর ছোট ছেলে ইয়াসিন দোগাছী উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। আতিকুল স্বপ্ন দেখতেন ভ্যান চালিয়ে ছেলে-মেয়েদের মানুষের মতো মানুষ করে গড়ে তুলবেন। তার এ স্বপ্ন পূরণ করতে তিনি দিন গুনছিলেন বড় ছেলে আকাশের বুয়েটে পড়া শেষ করার। অভাব-অনটনের মধ্যে বিত্তবান ও গ্রামবাসীদের সাহায্য সহানুভূতিতে আকাশ ২০১৪ সালে স্থানীয় দোগাছী-দরগাতলা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ২০১৬ জয়পুরহাট সরকারি ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসিতে গোল্ডেন পেয়ে বুয়েট, রুয়েট, কুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের শীর্ষ স্থানীয় সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেও বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি হন। বাহারউদ্দিন, হাবিল হোসেন, আলম হোসেন ও স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ উদ্দিন বলেন, বাবার কষ্টার্জিত অর্থ আর এলাকাবাসীর দান-অনুদানে স্বপ্নপূরণের এতগুলো ধাপ পেরিয়ে আসা আকাশ বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যাকারীদের একজন এমন কথা বিশ্বাসই করতে পারছি না। আকাশের সহপাঠী মেহেদী হাসান, নোমানসহ স্থানীয় যুবকরা জানান, শৈশব থেকে আজ পর্যন্ত কারও সঙ্গে আকাশের কোনো বিষয়েই বিরোধ হয়নি। রাতারাতি কেউ নষ্ট হতে পারে না। আকাশ যেন অযথা হয়রানি না হয়। আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে আকাশকে গ্রেফতারের খবরে তার পরিবারে চলছে আহাজারি। বাবা দিগ্বিদিক ঘুরছেন। আর মা নাজমা বেগমের নির্ঘুম রাত-দিন কাটছে শুধু কান্না আর বিলাপে। নাজমা বেগম বলেন, স্বামী আতিকুল ভ্যান চালিয়ে আকাশসহ তিন সন্তানের লেখাপড়ার খরচ চালাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন। আকাশের বুয়েটে ভর্তির টাকা দেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলামসহ এলাকাবাসী । তাই আকাশ শুধু আমার সন্তান নয়, এলাবাসীরও সন্তান। তিনি নিজেকে আবরারেরও মা মনে করে তার হত্যার ন্যায় বিচার দাবি করেন। পাশাপাশি নির্দোষ প্রমাণিত হলে তার সন্তান আকাশকে যেন তার ফিরে পান সেই প্রত্যাশা করেন। দোগাছী-দরগাতলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আফজাল হোসেন বলেন, স্কুল থেকে কলেজ পর্যন্ত আকাশ কোনো রাজনৈতিক সংগঠন কিংবা কোনো অরাজকতায় সম্পৃক্ত ছিল না। থাকলে মেধাবীর তালিকায় তার নাম থাকত না। তবে বুয়েটে পড়ার সময় কি হয়েছে তা বলতে পারবো না। জয়পুরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া হোসেন রাজা বলেন, মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পারলাম জয়পুরহাটের আকাশ ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আগে কখনও তার নাম শুনিনি। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের নেতা ও সদস্য করার ক্ষেত্রে আমাদের কাছে খোঁজ খবর নেয়া হয়। কিন্তু আকাশের ব্যাপারে আমাদের কাছে কেউ খোঁজ নেয়নি। আমি যতদূর জানি সে জয়পুরহাটে কোনো রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল না। বুয়েটে গিয়ে ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়েছে। জয়পুরহাট সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) রায়হান হোসেন বলেন, আকাশের বাবা ভ্যান চালান বলে শুনেছি। থানায় আকাশের বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই।
ইউএনও আসার খবর শুনে কনের আসনে ভাবি
১২অক্টোবর,শনিবার,নাটোর প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: নাটোরের গুরুদাসপুরে চলছিল বিয়ের অনুষ্ঠান। আত্মীয় ও স্বজনদের আনন্দ যেন ধরছিল না। কিন্তু সে আনন্দে পানি ঢেলে দিল প্রশাসন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে গুরুদাসপুর উপজেলার বিয়াঘাট ইউনিয়নের যোগেন্দ্রনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে হাজির হলেন গুরুদাসপুর সহকারী কমিশনার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ নাহিদ হাসান খান। প্রশাসনের গাড়ি দেখে মুহূর্তের মধ্যেই বদলে গেল কনে। শুধু তাই নয় যে ইমাম কবুল পড়াবেন তিনি ইউএনওকে দেখেই দৌড়ে পালান। সঙ্গে সঙ্গে কনের জায়গায় কনের ভাবিকে বসিয়ে শুরু হয় নাটকীয় অভিনয়। ভাবীকে কনে বলে পরিচয় দিলে তাকে এবং কনের ভাইকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হয় উপজেলায়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, কনে বিউটিকে পালিয়ে দিয়ে তার ভাবি শ্রাবণী কনে সেজে বসেছিলেন। এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার যোগেন্দ্রনগর গ্রামে দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ১৬ বছরের এক ছাত্রীর বিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে জানিয়ে ফোন করা হয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার তমাল হোসেনের কাছে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ নাহিদ হাসান খান ওই গ্রামে বিয়ের বাড়িতে যান। অনুষ্ঠানে গিয়ে কনেকে না পেয়ে কনে সেজে বসে থাকা কনের ভাবি ও তার ভাইকে আটক করে নিয়ে আসে। পরে তাদের পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।
ফ্রেন্ডস ঝিনাইয়া উচ্চ বিদ্যালয় আলোচনা সভা অনুষ্টিত
১১অক্টোবর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম:মতলব উত্তরে ফ্রেন্ডস ঝিনাইয়া উচ্চ বিদ্যালয় আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। আলোচনা সভায় সংগঠনের নতুন নাম করন, বিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি প্লার্টফর্মে তৈরি করা, গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাহায্য সহযোগিতা করা এবং প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে পূর্ন মিলনী অনুষ্ঠান করা সহ আরো অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন সংগঠনকে সুসংগঠিত করা, এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষালগ্ন শুরু থেকে বর্তমান পর্যন্ত সকল শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে ২০২০ সালে একটি পূর্ন মিলনী অনুষ্ঠান করার জন্য সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। অন্যান্যদের মধ্যে বলেন প্রাক্তন ছাত্র আক্তারুজ্জামান বলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান উন্নয়ন এবং শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি পরিবার তৈরি করা এবং ২০২০ সালের পূর্ন মিলনী অনুষ্ঠানকে সাফল্য করার জন্য সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান করেন। প্রাক্তন ছাত্র মামুন বলেন সকলে এগিয়ে আসলে সংগঠনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে। প্রাক্তন ছাত্র মমিন বলেন সকলে এগিয়ে আসলে পূর্ন মিলনী অনুষ্ঠান সফল করা যাবে আশা করেন। প্রাক্তন ছাত্র সাইদুর জানান ইতিমধ্যে সংগঠনের বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করছি, সংগঠনের সদস্যদের তথ্য সংগ্রহ চলছে সকলকে তথ্য দিয়ে (নাম, ফোন, পেশা, প্রতিষ্ঠান, ব্যাচ, গ্রাম) দিয়ে সাহায্য করতে বলেন এবং আরো বলেন এই সংগঠনটি হবে ঝিনাইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের জন্য একটি প্রানের সংগঠন। এ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মো ফারুক আহমেদ। বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন মো আক্তারুজ্জামান, মো মামুন, মো মমিন খান, মো সাইদুর রহমান, মো নাজমুল হাসান, বাছির সরকার, মো জুয়েল, মেহেদী, উজ্জল, শরিফুল, মনিরুল, ইমরান, আলআমিন, সোহরাব, মাসুদ, হৃদয়, মিরাজ, নাইম প্রমুখসহ আরো অনেকে।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
Rabর ৩ সদস্য ও ২ নারী সোর্সকে ধরে নিয়ে গেল বিএসএফ
১০অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,কুমিল্লা প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার আশাবাড়ি সীমান্ত থেকে তিন Rab সদস্য ও তাদের দুই নারী সোর্সকে ধরে নিয়ে গেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। আজ বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) সকাল ৯টার দিকে উপজেলার আশাবাড়ি সীমান্তের ১০ নম্বর গেট এলাকা থেকে তাদের ধরে নিয়ে যায়। তারা হলেন- কনস্টেবল রিগান বড়ুয়া, কনস্টেবল আবদুল মতিন ও সৈনিক আবদুল ওয়াহেদ। ও দুই মহিলা সোর্স। তাদের নাম জানা যায়নি। ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি শাহজাহান কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ভারতের বিএসএফ ধরে নিয়ে যাওয়া Rab সদস্যরা Rab-১১ এর কুমিল্লা সিপিসি-২ এর সদস্য বলে জানা গেছে। স্থানীয় ও Rabর পক্ষ থেকে খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে যান। খবর পেয়ে Rab, বিজিবি ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছেন। কিন্তু এখনও এ ঘটনার বিষয়ে Rab-বিজিবির আনুষ্ঠানিক কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে স্থানীয় আনোয়ার হোসেন জানান, দুই মহিলা সোর্সসহ তিন Rab সদস্যকে নিয়ে Rabর একটি দল মাদক উদ্ধার করতে কুমিল্লার আশাবাড়ি সীমান্তে ২০৫৯ নম্বর পিলার সংলগ্ন একটি বাড়িতে যান। এ সময় মাদককারবারিদের ধাওয়া করতে গিয়ে ভুলে ভারতীয় সীমান্ত অতিক্রম করায় ভারতের স্থানীয়রা Rab ৩ জনসহ ৫ জনকে আটক করে বিএসএফ এর কাছে হস্তান্তর করেছে। বিকেলে বিজিবি-বিএসএফ এর মধ্যে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাদেও ফিরিয়ে আনা হবে বলে স্থানীয়দের বিজিবি জানিয়েছে। কুমিল্লা জেলা পুলিশের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করা শর্তে জানান, ভারতের বিএসএফ এর কাছে আটক তিন Rab সদস্য ও দুই সোর্সকে ফিরিয়ে আনতে কিছুক্ষণের মধ্যে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আনা হবে।
বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের দাফন সম্পন্ন
০৮অক্টোবর,মঙ্গলবার,কুষ্টিয়া প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে তৃতীয় জানাজা শেষে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গায় পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৬টায় কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডস্থ আল -হেরা জামে মসজিদের পাশের সড়কে ফাহাদের দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল সোমবার রাত ১০টার দিকে বুয়েট ক্যাম্পাসে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। গেল রোববার দিবাগত রাত তিনটার দিকে বুয়েটের শের-ই-বাংলা হলের একতলা থেকে দোতলায় ওঠার সিঁড়ির মাঝ থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। আবরার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার সন্ধ্যার পর চক বাজার থানায় হত্যা একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের বাবা বরকতুল্লাহ। এছাড়া আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত হিসেবে শনাক্ত করে বুয়েটের ৯ জন ছাত্রলীগ নেতাকে পুলিশ আটক করেছে। এছাড়া বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সহ-সভাপতিসহ কমিটির ১১ জন নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।
গোপালগঞ্জে স্কুলছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা
০৭অক্টোবর,সোমবার,গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় সৌরভ গাঙ্গুলী (১৫) নামে দশম শ্রেণির এক ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার (৬ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টায় কোটালীপাড়া উপজেলার দেবগ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সৌরভ গাঙ্গুলী কোটালীপাড়া উপজেলার মধ্য দেবগ্রামের বিমল গাঙ্গুলীর ছেলে। সে উমাচরণ পূর্ণচন্দ্র সার্বজনীন উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল। কোটালীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. লুৎফর রহমান জানান, সৌরভ গাঙ্গুলী উমাচরণ পূর্ণচন্দ্র সার্বজনীন উচ্চ বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে হোস্টেলে থাকত। রোববার রাতে বিদ্যালয়ের পাশের মাঠের কাছে সৌরভের পেটে ছুরি দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে সে দৌড়ে হোস্টেলের কাছে এসে অজ্ঞান হয়ে পড়লে অন্য শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সৌরভকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। তবে এ হত্যাকাণ্ডের কারণ জানতে পারেনি পুলিশ।

সারা দেশ পাতার আরো খবর