ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ড ছাত্রলীগের বিক্ষোভ
১৪সেপ্টেম্বর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের মেয়াদ উত্তীর্ণ, গঠনতন্ত্র বিরোধী ও অকার্যকর কমিটি বাতিল ও নতুন কমিটির দাবীতে ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ড ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ছাত্রনেতা মোঃ আরাফাতের সভাপতিত্বে ও সৌরভ দাশের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ নেতা অনিন্দ্য দেব। অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন ফরহাদ আহমেদ রুবেল, নাবেদ খান, রিমন দত্ত, শাহেদুল আলম বাপ্পী, তন্ময় দাশগুপ্ত, ইজাজুল হক এজাজ, জয় দাশগুপ্ত, মো. আতিকুর রহমান, মিনহাজুল আবেদীন মিরাজ, মো. সাজ্জাদ, হৃদয় দাশ, মো. ফাহিম, মো. রাফসান আহমেদ, শাখাওয়াত হোসেন সাগর, অন্তু দাশ, দিবাকর সরকার মান্না, ভাষ্কর নন্দী প্রমুখ। প্রধান অতিথি বলেন, অকার্যকর ও ব্যর্থ কমিটি দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ করা সম্ভব নয়। অবিলম্বে মেয়াদ উত্তীর্ণ ও গঠনতন্ত্র বিরোধী চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি বাতিল করে সাধারণ ছাত্রদের সমন্বয়ে নতুন কমিটি গঠন করতে হবে।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
সিটি মেয়রের সাথে নাটাব নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ
১৪সেপ্টেম্বর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, যক্ষা রোগ প্রতিরোধে বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষা নিরোধ সমিতি নাটাব চট্টগ্রাম শাখার কার্যক্রমকে আরো গতিশীল এবং সমাজের প্রত্যন্ত অঞ্চলে এর কর্মকান্ডকে আরো ব্যাপ্তি করার লক্ষ্যে সবাইকে সচেতন হতে হবে। যক্ষা হলে রক্ষা নাই এই প্রবাদটি আজ মিথ্যা হিসেবে প্রমাণিত। নাটাব চট্টগ্রামের নব নির্বাচিত ২০১৯-২০২১ কার্যকরী কমিটির কর্মকর্তাগণ গত ৮ সেপ্টেম্বর সিটি মেয়রের আন্দরকিল্লাস্থ বাসভবনে এক সৌজন্য সাক্ষাতকার ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে গেলে সিটি মেয়র নির্বাচিত কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। তিনি নির্বাচিতদের উদ্দেশ্যে বলেন আপনারা অনেকেই সমাজে সুপ্রতিষ্ঠিত। আপনাদের সমন্বিত প্রয়াস আগামী দিনে এই নাটাবের মাধ্যমে রোগীদের সেবার কার্যক্রমকে আরো ত্বরান্বিত করতে সক্ষম হবে। আমি নিজেও আপনাদের এসকল কর্মকান্ডের সাথে সর্বদা নিজেকে সম্পৃক্ত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি। নাটাব চট্টগ্রাম শাখার নব-নির্বাচিত কার্যকরী কমিটির সভাপতি মোরশেদুল আলম কাদেরী ও সাধারণ সম্পাদক এম এ ছবুর এর নেতৃত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ-সম্পাদক শাহজাহান সুফি, সাংগঠনিক সম্পাদক নিজাম উদ্দিন মাহমুদ হোসেন, নির্বাহী সদস্য নোমান আল মাহমুদ, আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুক, মো: আতিকুর রহমান, মো: গোলাম মনসুর, দিদারুল আলম আকাশ, মো: জসিম উদ্দিন, ডা: সুমি খান, মো: মুজিব সম্রাট সহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
প্রাণ গেল নারীর পল্লী বিদ্যুতের অবহেলায়
১৩সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলায় ঝড়ো হাওয়ায় ছিঁড়ে পড়া বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে এক নারীর করুণ মৃত্যু হয়েছে। ওই নারীর স্বজনসহ এলাকার লোকজনের অভিযোগ, ছিঁড়ে পড়া তারটি মেরামতের জন্য স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি অফিসে জানানো হয়েছিল। কিন্তু তারা এ কাজের জন্য দুই হাজার টাকা দাবি করে। টাকা না দেওয়ায় তারটি মেরামত না করায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার শাকপুরা ইউনিয়নের পূর্ব শাকপুরা গ্রামে দুর্ঘটনাটি ঘটে। এদিকে দুর্ঘটনায় মৃত্যু নিয়ে মামলা নিতে বোয়ালখালী থানা গড়িমসি করছে বলে অভিযোগ করেছেন ওই নারীর স্বজনেরা। তবে এলাকায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকাণ্ড নিয়ে মানুষের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। মৃত রূপনা দাশ পূর্ব শাকপুরা গ্রামের কানু দাশের স্ত্রী। কানু জানান, সকালে বাড়ির পাশের জমিতে ছাগল চরাতে যান রূপনা। বৃষ্টিতে জমে থাকা পানিতে অসতর্কতাবশত রূপনা ছাগলটি নিয়ে ছিঁড়ে পড়া বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে যান। মুহূর্তের মধ্যে রূপনা ও ছাগল মরে পড়ে থাকে সেখানে। এদিকে জমিতে জমে থাকা পানি বিদ্যুতায়িত থাকায় স্থানীয়রা রূপনার মরদেহ উদ্ধার কাজ করতে না পেরে পুলিশকে খবর দেয়। এরপর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের টিম এসে পল্লী বিদ্যুত অফিসের কর্মচারী এনে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে মরদেহ উদ্ধার করে। রূপনার দেবর রুবেল দাশ বলেন, গতকাল (বৃহস্পতিবার) বাতাসে খুঁটি থেকে তারটি ছিঁড়ে পড়ে। আমরা সঙ্গে সঙ্গে বেঙ্গুরা বাজারে পল্লী বিদ্যুতের অফিসে বিষয়টি অবহিত করি। বিকেলে অফিসের কয়েকজন লোক এসে পরিদর্শন করে দুই হাজার টাকা লাগবে বলে জানায়। আজ (শুক্রবার) এলাকার লোকজনের কাছ থেকে টাকা তুলে তাদের দেওয়ার কথা ছিল। তারটি মেরামত করা তাদের দায়িত্ব। এরপরও তারা অবহেলা করায় একজন মানুষকে প্রাণ দিতে হলো। বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, পূর্ব শাকপুরা গ্রামের লোকজন অভিযোগ করেছেন বিদ্যুতের তারটি ছিঁড়ে পড়ার পর তারা পল্লী বিদ্যুতের অফিসে জানিয়েছিলেন। কিন্তু তারটি ঠিক করা হয়নি। সকালে ওই তারে জড়িয়ে একজন নারী মারা যান। এলাকার লোকজন কিছুটা ক্ষুব্ধ। আমরা তাদের লিখিত অভিযোগ করতে বলেছি। অভিযোগ করলে অবশ্যই মামলা নেব। মামলা নিয়ে গড়িমসির কিছু নেই। এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কোনো কর্মকর্তার বক্তব্য জানতে পারেনি ।
চুয়েটের সাথে বেজার প্রতিনিধিদের মতবিনিময়
১৩সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর শিল্প-প্রযুক্তি সেবা প্রদানকারী ও পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ব্যুরো অব রিসার্চ, টেস্টিং এন্ড কনসাল্টেন্সি (বিআরটিসি)-এর বিশেষজ্ঞ দলের সাথে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) কর্তৃক নির্মিতব্য নাফ ট্যুরিজম পার্কে ক্যাবল কার নির্মাণ প্রকল্পে কারিগরি সহায়তা ও বিভিন্ন বিষয়ে মতামত প্রদানের লক্ষ্যে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের কনফারেন্স কক্ষে উক্ত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন বিআরটিসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. হযরত আলী। এ সময় চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম উপস্থিত ছিলেন। অন্যদিকে মতবিনিময় সভায় বেজার পক্ষে তিনজন সম্মানিত প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। তারা হলেন বেজার উপ-সচিব (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন-২) মো. আ. আলীম খান, উপ-সচিব (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন-৪) মো. মাহবুবুর রহমান এবং ইনফ্রাস্ট্রাকচার কনসাল্টেন্ট নাসিরউদ্দিন মাহমুদ চৌধুরী। সভায় চুয়েটের পক্ষ থেকে প্রজেক্ট টিম লিডার অধ্যাপক ড. মাহমুদ ওমর ইমাম, প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর অধ্যাপক ড. কাজী দেলোয়ার হোসেনসহ পরামর্শক সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিভাগের সম্মানিত বিশেষজ্ঞগণ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, কক্সবাজারের জালিয়ার দ্বীপে নির্মাণাধীন নাফ ট্যুরিজম পার্কে ক্যাবল কার স্থাপন প্রকল্পের পরামর্শক দল হিসেবে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-কে গত ২১ মার্চ, ২০১৯ খ্রি. একটি পরামর্শ পরিসেবা চুক্তির মাধ্যমে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেয় বেজা। চুক্তির আওতায় ক্যাবল কার স্থাপনের জন্য সম্ভাব্যতা যাচাই, পরিবেশগত ও সামাজিক প্রভাব সমীক্ষা চালাবে চুয়েট। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
প্রধানমন্ত্রীকে ড. মাধব আচার্য রচিত গ্রন্থ- হরসকোপ প্রদান
১৩সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশের গর্ব প্রজ্ঞাবান জোতিষ গবেষক জাতিসংঘ ইউএসও পুরস্কারপ্রাপ্ত বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে জ্ঞান গর্ব আলোচক ড. মাধব আচার্যের দীর্ঘ দিনের গবেষণার ফসল বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের অমূল্য দলিল স্বরূপ আগামী দুই শত বছর বাংলাদেশের ভালো মন্দের উপর হরসকোপ রচনা করেছেন। যাহা বাংলাদেশের ভবিষ্যত প্রজন্মের যথার্থ কল্যাণে আসবে। অন্যদিকে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিল হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। সত্যই এই ধরনের গবেষণা এ প্রথম গত ৪ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর মাদার অব ইউমিনিটি শেখ হাসিনা ওয়াজেদকে অত্যন্ত উৎসবমূখর পরিবেশে গণভবনে উপহার প্রদান করেন। এ হরসকোপ টা ইংরেজি বাংলা ভার্সনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা ফজেলেনুতেচ্ছা মুজিব ও সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামে উৎসর্গ করেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলাই কারবালার শিক্ষা: সাবেক মেয়র মনজুর আলম
১৩সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের বাসভবনে গত ১০ মহররম দশ দিনব্যাপী শোহাদায়ে কারবালা মাহফিলের সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলাই কারবালার শিক্ষা । এ উপলক্ষে খতমে কুরআন, খতমে সহীহ বুখারী শরীফ, স্মৃতিচারণ, আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। পরে সিটিগেইটস্থ মোস্তফা-হাকিম বাগানবাড়ি হযরত আবু বকর জামে মসজিদে মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম। আলহাজ্ব মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠিত মাহফিলে এম মনজুর আলম বলেন, মুসলিম উম্মাহ’র জন্য ১০ মহররম একটি শোকাবহ দিন। এদিন মহানবীর (দ.) দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসাইন (রা.) ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন। রাসুল পরিবারের এই আত্মত্যাগ আজ বিশ্বব্যাপী চির স্মরণীয়। তাঁদের এই ত্যাগ ইসলামকে করেছে আরো সমুন্নত আরো উজ্জ্বল। আর এই পবিত্র মাস মহররমকে যথাযথ মর্যাদার মাধ্যমে পালন করা সকলের দায়িত্ব। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন, জামিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার শায়খুল হাদিস আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী। আলোচক ছিলেন জামিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি অছিয়র রহমান আল কাদেরী, মুফতি মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াজেদ, মাওলানা সৈয়দ ইউনুছ রজবী, মাওলানা আব্দুল মান্নান ও মাওলানা আবু তাহের নিজামী। উপস্থিত ছিলেন সীতাকুণ্ডের এমপি দিদারুল আলম, এম এ তাহের, নিজামুল আলম, সারওয়ার আলম, শাহীনুল আলম, ফারুক আজম, সাইফুল আলম, সাহিদুল আলম, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলমগীর, উপাধ্যক্ষ বাদশা আলম, নেছার আহাম্মদ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
দেশপ্রেম আর মেধা দিয়ে পেরিয়ে যাও স্বপ্নের ঠিকানা: আ.জ.ম নাছির
১৩সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, দেশপ্রেম, মমতা, মূল্যবোধ আর মেধা দিয়ে নিজের এবং দেশের স্বপ্নের ঠিকানা পেরিয়ে যাও। গতকাল বুধবার বিকেলে জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে চট্টল ইয়ুথকয়ার আয়োজিত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রয়ান দিবস উপলক্ষে শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও দুদিনব্যাপী রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মিলন অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। চসিক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লবের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক সুজিত চৌধুরী মিন্টুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টল ইয়ুথকয়ারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অরুণ চন্দ্র বণিক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন, বীরকন্যা প্রীতিলতা ট্রাস্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি পঙ্কজ চক্রবর্তী, মো. খোরশেদ আলম । বক্তব্য রাখেন এ কে জাহেদ চৌধুরী, সুজিত দাশ অপু, প্রণব রাজ বড়ুয়া, রিয়া দাশ চায়না, হিল্লোল দাশ সুমন, মোহাম্মদ হোসেন, সজল দাশ, শিল্পী হানিফুল ইসলাম, সবির আহমদ, সমিরণ পাল, সালাম আকতার শীলা, নারগিস ফাতেমা, প্রিয়াংকা দাশ মন্ডল প্রমুখ। সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় মহানগর ও বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ের স্কুল-কলেজের প্রায় সহাস্রাধিক শিল্পী অংশগ্রহণ করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
শিক্ষার্থীদের পরিচ্ছন্ন স্কুল ব্যাগ ও টিফিন বক্স ব্যবহারে গুরুত্বারোপ
১৩সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: মোবাশ্বিরা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পূর্ব নাসিরাবাদ এ.জলিল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্কুল ভিত্তিক সচেতনতা ক্যাম্পেইন গত বুধবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতের অংশ হিসেবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, স্বাস্থ্যসম্মত ও পরিবেশবান্ধব প্রাথমিক বিদ্যালয় গড়ে তুলতে এই ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন ডা. মো. আফসারুল আমীন এম পি। প্রধান অতিথি শিক্ষার্থীদের পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন পোশাকে বিদ্যালয়ে আসা, পরিচ্ছন্ন স্কুল ব্যাগ, টিফিন বক্স ও পানির পাত্র ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করা, শ্রেণিকক্ষের সামনে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ঢাকনাযুক্ত পাত্র (বিন) রাখা ও তাতে ময়লা আবর্জনা ফেলতে শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। ক্যাম্পাইনে সভাপতিত্ব করেন মোবাশ্বিরা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ-আল-মামুন চৌধুরী। তিনি বলেন, খেলার মাঠ যথাসম্ভব পরিচ্ছন্ন ও খেলাধুলার উপযোগী রাখতে হবে। বিদ্যালয়ের দেয়ালে নীতিবাক্য ছাড়া অন্য কোনো দেয়াল লিখন বন্ধ করতে হবে। তিনি স্থান সংকুলান সাপেক্ষে বৃক্ষরোপণ ব্যবস্থাসহ মৌসুমি ফুলের বাগান করা ও বাইরে ফুলের টব স্থাপন করার কথা বলেন। ফাউন্ডেশনের সমন্বয়ক মোবারক বাবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা কে.এম.চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ভারত চন্দ্র বড়ুয়া, প্রধান শিক্ষিকা জোবায়দা খাতুন, দ্বীন বাবু দাশগুপ্ত, হারুন সর্দার, শাহিনুল আলম, মাকসুদ চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম শহীদ, আব্দুল মালেক হাজী, সঞ্জীব দাশ ভূট্টো, এস.এম.এ কায়েস, সজীব। অনুষ্ঠানে শেষে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সকলে গাছের চারা রোপণ করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
ডা. আফসারুল আমীন প্রকৃতি বাঁচাতে চাই বৃক্ষের সমাবেশ
১০সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি, চট্টগ্রাম-১০ আসনের সংসদ সদস্য ডা. আফসারুল আমীন বলেছেন, বিশ্ব উষ্ণায়নের করাল গ্রাস থেকে মুক্তির একমাত্র পথ বৃক্ষরোপণ। সবুজের ছায়ায় হোক আগামীর সুন্দর পৃথিবী। বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশ অনেকখানি ঝুঁকিতে রয়েছে। সিডর, আইলা, রোয়ানুর মতো ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে দেশের বৃক্ষ জগত ক্রমেই ধবংস হচ্ছে। তিনি বলেন, এই মুহূর্তে প্রকৃতিকে বাঁচাতে চাই বৃক্ষের সমাবেশ। বর্ষাকালে বৃষ্টি নেই গরমের দাপটে প্রাণ হাঁসফাঁস। আর দেরী নয় এবার সবাই শপথ করুন, সবুজ চাদরে পৃথিবী গড়ুন। গত ৭ সেপ্টেম্বর সকালে মোবাশ্বিরা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী ও পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে স্কুল ভিত্তিক সচেতনতা ক্যাম্পেইন-২০১৯ কার্যক্রম এর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। পূর্ব নাসিরাবাদ এ.জলিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মোবাশ্বিরা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ-আল-মামুন চৌধুরী। তিনি বলেন, বাড়ির আঙিনা থেকে শুরু করে সুন্দরবন-সবখানেই গাছের অবাধ বিচরণ বাঁচিয়ে রাখতে পারে সবাইকে। নির্মল বাতাস দীর্ঘায়ু করতে পারে মানুষকে। তাই জন সচেতনতা বাড়াতে এই ধরনের উদ্যোগ আরো বেশি করে নিতে হবে। ফাউন্ডেশনের সমন্বয়ক মোবারক বাবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব কে.এম.চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ভারত চন্দ্র বড়য়া, এ.জলিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েল প্রধান শিক্ষিকা জোবায়দা খুতুন, দ্বীন বাবু দাশগুপ্ত, হারুন সর্দার, শাহিনুল আলম, মাকসুদ চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম শহীদ, আব্দুল মালেক হাজী, সঞ্জীব দাশ ভূট্টো, এস এম এ কায়েস, সজীব। অনুষ্ঠানে শেষে সকলের হাতে বৃক্ষের চারা তুলে দেন অতিথিরা।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর