সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০
বেগম রোকেয়া বাঙালি নারী জাগরণের আলো
২২ডিসেম্বর,রবিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে ঊনবিংশ শতাব্দাদীর নারী শিক্ষা ও জাগরণের সাহসিকা জননী বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে এক আলোচনা সভা, শিক্ষাবৃত্তি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান গত ১৯ ডিসেম্বর সুপ্রভাত স্টুডিও হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি বাবুল কান্তি দাশ। প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড.ইফতেখার উদ্দীন চৌধুরী। প্রধান আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ আবু জাফর। সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাববিদ, গবেষক ও সঙ্গীতজ্ঞ প্রফেসর হাসিনা জাকারিয়া বেলা। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন চবির পালি বিভাগের অধ্যাপক প্রফেসর ড. জিনবোধি ভিক্ষু, অধ্যক্ষ বিজয় লক্ষী দেবী, প্রবীণ সাংবাদিক বেলায়েত হোসেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা জাসদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ভানুরঞ্জণ চক্রবর্তী, দৈনিক সমকালের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার সুজিত কুমার দাশ, লেখক কামাল উদ্দীন, অধ্যাপিকা নিশাত হাসিনা শিরিন, শারদাঞ্জলী ফোরাম চট্টগ্রামের সভাপতি অজিত কুমার শীল। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শিক্ষক বিজয় শংকর চৌধুরী, কবি সজল দাশ, সংগঠক অমর কান্তি দত্ত, এম, নুরুল হুদা চৌধুরী, রতন দাশ গুপ্ত, স, ম, জিয়াউর রহমান, নারায়ন দাশ, সাইফুল আরাফাত বাপ্পা প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন নাট্যজন সজল চৌধুরী, নোমান উল্লাহ বাহার, রতন ঘোষ, মো. তিতাস। সভায় নারী শিক্ষার প্রসারে বিশেষ অবদানের জন্য প্রফেসর হাসিনা জাকারিয়া বেলাকে বেগম রোকেয়া স্মৃতি সম্মাননা স্মারক ২০১৯ প্রদান করা হয়। বৃত্তিপ্রাপ্ত ছাত্র ছাত্রীরা হল সায়মা আকতার, পুজা চৌধুরী, অর্পিতা দে, আরশি দে, আদিত্য দাশ। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, যে কয়জন মানুষের প্রচেষ্টায় নারী সমাজের প্রভূত উন্নয়ন হয়েছে বেগম রোকেয়া তাদের মধ্যে অন্যতম। নারী জাগরণের অগ্রদূত এই মহীয়সী নারী কাজ করে গেছেন নারী স্বাধীনতা, নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে। নারী শিক্ষা প্রসারে বেগম রোকেয়া আমৃত্যু কাজ করে গিয়েছেন। বেগম রোকেয়া তাঁর জীবন সংগ্রামের মাধ্যমে বুঝতে পেরেছিলেন শিক্ষা ছাড়া নারীর মুক্তি নেই। কেননা একমাত্র শিক্ষাই পারে আমাদের যুক্তির আলোয় নিয়ে আসতে, মুক্তির পথ দেখাতে।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্গ্রামে চোরাই মোবাইল বিক্রেতা গ্রেফতার
২১ডিসেম্বর,শনিবার,স্টাফ রির্পোটার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:চট্গ্রামে ৬২টি মোবাইলসহ মোঃ আরমান (২৮) নামক এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেচে মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগ। শনিবার (২১ডিসেম্বর) সিএমপির কোতোয়ালী থানাধীন স্টেশন রোড এলাকা হতে তাকে গ্রেফতার করে মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগ। সিএমপির নিয়োমিত অভিযানের অংশ হিসাবে বিশেষ টিমরর পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ হোছাইন এর নেতৃত্বতে মহানগর এলাকায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় অভিযান পরিচালনাকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আরমান গ্রেফতার হয়। গ্রেফতারকৃত আসামি আরমান লোহাগাড়া থানাধীন পাহাড়িকা গুচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা। আরমানকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে একজন পেশাদার চোরাই মোবাইল বিক্রেতা। সে দীর্ঘদিন যাবৎ চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন এলাকা হইতে চোরাইকৃত মোবাইল সংগ্রহ পূর্বক বিক্রি করে আসছে। এমনকি ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন এলাকা হতে চোরাইকৃত মোবাইল সংগ্রহ পূর্বক বিক্রি করে। এ সংক্রান্তে কোতোয়ালী থানায় নিয়মিত মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।
সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মাঝে জয়ীর শীতবস্ত্র বিতরণ
২১ডিসেম্বর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুয়াশা ঢাকা সকালে শীতের উপকরণ নিয়ে সুখকর নিদ্রায় যখন আমরা বিভোর থাকি, তখন সমাজের অসহায় সুবিধাবঞ্চিত মানুষ কনকনে এই শীতে মানবেতর জীবনযাপন করছে । এসকল সুবিধাবঞ্চিত শীতার্ত মানুষদের কথা চিন্তা করে, তাদের পাশে দাঁড়াতে সামাজিক সংগঠন জয়ীর এ মহৎ কর্মকান্ড সত্যিই প্রশংসনীয়। তাদের এ প্রয়াসের সাথে সামিল হয়ে সমাজের বিত্তশালীদের প্রতি এমন মানবিক কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার হাত নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান ৮নং শুলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মোরশেদ আলম ।গত ১৮ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় বেবি সুপার মার্কেটস্থ এক কমিউনিটি সেন্টারে সামাজিক সংগঠন জয়ীর উদ্যোগে শীতার্ত মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণকালে অনুষ্ঠিত সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহ্বায়ক যমুনা তালুকদার। সদস্য জান্নাতুন্নাহার মহুয়ার সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শেখ ফরিদ চশমা ইউনিট আওয়ামী লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এম.এ.মান্নান খান, পলিটেকনিক্যাল ইউনিট আওয়ামীলীগের সভাপতি হোসেন মো. মাসুদ, নাসিরাবাদ শিল্পাঞ্চল ইউনিট আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. জাফর আহম্মদ, ৪২নং সাংগঠনিক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ শাহজাহান, পলিটেকনিক্যাল ইউনিট আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোতালেব সরকার, শেখ ফরিদ চশমা ইউনিট আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন লেদু, সমাজসেবক আব্দুস সালাম, ইউএনডিপি চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি আনোয়ারা আলম, পলিটেকনিক্যাল ইউনিট আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মো. কামাল হোসেন, সমাজসেবক মনির হোসেন, জয়ীর সদস্য লুৎফুন্নেসা, রিমু বেগম, শিরিন আক্তার, লিপি বেগম, সাকি দাস, মনোয়ারা বেগম, ফেরদৌসি ইয়াসমিন, অঞ্জু ভৌমিক, নুরনাহার বেগম, শিমুল আক্তার, মর্জিনা আক্তার, পাপিয়া তালুকদার প্রমুুুখ।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ এর মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,স্টাফ রির্পোটার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রামের দামপাড়া পুলিশ লাইন্সস্থ চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ সদর দপ্তর সম্মেলন কক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) জনাব আমেনা বেগম, বিপিএম-সেবা মহোদয়ের সভাপতিত্বে আগামী ২৫ ডিসেম্বর যীশুখ্রিস্টের জন্মদিন (বড়দিন) উদযাপন, ৩১ ডিসেম্বর ইংরেজী বর্ষবিদায় এবং ইংরেজী ২০২০ বর্ষবরণ উপলক্ষে সার্বিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মত বিনিময় সভায় যীশুখ্রিস্টের জন্মদিন (বড়দিন) সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মাধ্যমে পালনের জন্য উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ পুলিশের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন। অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মহোদয় তাদেরকে সর্বাত্মক পুলিশী সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন। অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মহোদয় যীশুখ্রিস্টের জন্মদিন (বড়দিন) উদযাপন, ৩১ ডিসেম্বর বর্ষবিদায় এবং ইংরেজী ২০২০ বর্ষবরণ অনুষ্ঠান চলাকালে নগরীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে চট্টগ্রামের সম্মানিত সকল নগরবাসী ও বিভিন্ন পেশাজীবীদের সহযোগিতা করার আহ্বান জানান।সভায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) জনাব শ্যামল কুমার নাথ সহ যীশুখ্রিস্টের জন্মদিন (বড়দিন) উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ ও পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
শেখ হাসিনা বাংলাদেশের রোলমডেল:পরিকল্পনামন্ত্রী
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,মো.কালাম,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, স্বাধীনতাপূর্ব সময়কালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতির আশা আকাংখার প্রতীক। বাংলাদেশের রোলমডেল। তাঁর কথায় জীবন বাজি রেখে এদেশের জনগণ বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিলেন। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থনৈতিক মুক্তির যুদ্ধে জাতিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনা বর্তমানে বাংলাদেশের রোল মডেল।মন্ত্রী আজ চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের রজত জয়ন্তী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। বিশবিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শিরিন আখতার দুইদিনব্যাপী এ রজত জয়ন্তী অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন।পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ একসময় পরাধীন ছিলো। বিভিন্ন বাধা-নিষেধের কারনে অনেক কিছু করা সম্ভব ছিলনা। কিন্তু বর্তমান প্রজন্ম স্বাধীন। তারা শৃংখলমুক্ত। এজন্য তাদেরকে আরো বেশি দায়িত্ব নিতে হবে। নিজেকে ধ্বংস ও জাতিকে কলংকিত করার মতো কোন কাজে জড়িত হওয়া যাবে না। নেতিবাচক সকল প্রভাব উপেক্ষা করে বিশ^মানের জ্ঞান অর্জন করতে হবে। তবেই নতুন প্রজন্ম জাতিকে আরো এগিয়ে নিতে পারবে। গণমাধ্যমকে রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকরা জাতির দর্পণ। তাদের মাধ্যমে জনআকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটে। এজন্য গণমাধ্যমে প্রকাশিত সকল মন্তব্য ও প্রতিবেদন হতে হবে বস্তুনিষ্ঠ ও গঠনমূলক। যাতে করে এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারে। এ বিশবিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা কর্মজীবনে বাস্তব প্রতিবেদন তুলে ধরার মাধ্যমে সত্যিকার অর্থেই জনগণের মূখপাত্র হয়ে উঠবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের উন্নয়নে বিভিন্ন দাবীর প্রেক্ষিতে মন্ত্রী বলেন, যথার্থ পরিকল্পনার মাধ্যমে সঠিক প্রকল্প জমা করলে তা মঞ্জুর করা হবে। সরকার সবসময় গবেষণা ও উন্নয়নে চট্টগ্রাম বিশবিদ্যালয়ের পাশে রয়েছে বলে তিনি এসময় উল্লেখ করেন। অনুষ্ঠানে এ বিভাগের বেশ কয়েকজন প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের সম্মাননা জানানো হয়। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. ফরিদ উদ্দিন আহাম্মেদ, পিএইচপি গ্রুপের চেয়ারম্যান সূফি মিজানুর রহমান, চ.বি. সেন্ট্রাল এ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক ও চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর আলী আজগর চৌধুরী, এ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি শিমূল নজরুল, সাধারন সম্পাদক হামিদ উল্লাহ বক্তৃতা করেন। সকালে রজত জয়ন্তী উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য RAILLY ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে।
বাকলিয়া স্কুলে প্রশ্নপত্র বিভ্রাটের কারনে ভর্তি পরীক্ষা শুরুতে বিলম্ব
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী, বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:বাকলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত ৬ষঠ শ্রেণির ভর্তি পরিক্ষা প্রশ্নপত্র বিভ্রাট কারনে শুরুতে বিলম্ব হয়েছে। ছাপানো প্রশ্নপত্রে ৪০ মার্কের অঙ্কের পরিবর্তে উভয় পৃষ্ঠায় ৬০ মার্কের বাংলা ও ইংরেজির প্রশ্ন ছাপানো হয়। যা পরীক্ষার হলে প্রশ্নপত্র বিতরণের সময় বিষয়টি ধরা পরে। যার ফলে এক ঘণ্টা দেরিতে পরীক্ষা শুরু হয়।আজ বৃহস্পতিবার ১৯শে ডিসেম্বর বাকলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত ভর্তি ৬ষঠ শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় এ ঘটনা ঘটে।সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা শুরু হলেও প্রশ্নপত্র বিতরণের সময় দেখা গেছে ছাপানো প্রশ্নপত্রে অঙ্কের পরিবর্তে উভয় পৃষ্ঠায় ৬০ মার্কের বাংলা ও ইংরেজি ছাপানো হয়। যা নিয়ে অভিবাবকদের মধ্যে উৎকণ্ঠা বিরাজ করে। পরীক্ষা হবে কি হবে না এ নিয়ে ছিল নানা দুশ্চিন্তা ।যদিও পরে ৬০ মার্কের প্রশ্ন পত্র দিয়ে পরীক্ষা শুরু হয় বেলা ২.৫০ মিনিটে। পরবর্তীতে ৪০ মার্কের অংকের জন্য আলাদা প্রশ্নপত্র নিয়ে কেন্দ্রে আসেন এডিসি(শিক্ষা ও আইসিটি)আবু হাসান সিদ্দিকী।পরে দুই প্রশ্নের সমন্বয়ে ১০০ মার্কের পরীক্ষা শেষ হয় বিকাল ৪.৫০ মিনিটে।এ বিষয়ে জানতে সরাসরি কথা হয় এডিসি(শিক্ষা ও আইসিটি)আবু হাসান সিদ্দিকীর সাথে তিনি জানান, প্রেসের মুদ্রন জনিত ত্রুটির কারনে প্রশ্নপত্রে ভুল হয়।যার কারনে পরীক্ষা শুরু করতে এক ঘণ্টা বিলম্ব হয়। বেলা ২ টায় পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও পরীক্ষা শুরু হয় বেলা ২.৫০ মিনিটে এবং যথারীতি পরীক্ষা বিকাল ৪.৫০ মিনিটে শেষ হয় বলে জানান। তিনি আরো জানান, আজকের পরীক্ষায় বাকলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে মোট ২৩১৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিতি ছিল ২২৩৫ জন। প্রশ্নপত্র বিভ্রাট ছাড়া বাকি সব কিছু সুন্দর ও সুশৃঙ্খল পরিবেশে হয়েছে। বাকলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, কেন্দ্র ব্যবস্থাপনায় আমাদের কোন ত্রুটি নেই। এখানে ১০০ সিটের বিপরীতে ২৩১৭ জন আবেদন কারীর মধ্যে পরীক্ষায় অংশ গ্রহন কারীর সংখ্যা ২২৩৫ জন। প্রশ্ন পত্রের বিভ্রাটের কারনে পরীক্ষা শুরু করতে প্রায় ১ ঘণ্টা বিলম্ব হয়। বেলা ২ টায় পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও পরীক্ষা শুরু হয় বেলা ২.৫০ মিনিটে এবং যথারীতি সুশৃঙ্খল ও শান্তি পূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা শেষ হয় বিকাল ৪.৫০ মিনিটে। তিনি আরো জানান আজকের পরীক্ষার ফলাফল আগামী ২৩ তারিখের পর জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে প্রকাশিত হবে।
কোতোয়ালী থানায় পুলিশ ভীতি কাটাতে নানা উদ্যোগ
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,কমল চক্রবর্তী চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: কোতোয়ালী থানায় পুলিশ ভীতি কাটাতে নানা উদ্যোগ থানায় সেবা নিতে আসা মানুষের কথা চিন্তা করে কোতোয়ালী থানা চত্তরে গড়ে তোলা হয়েছে এক সুদৃশ্য সেবা ছাউনী। যা দূর থেকে দেখে মনে হবে এ যেন এক বিনোদনের স্থান। সেই সাথে পুরো থানা চত্তরে রয়েছে সচেতনতার নানা উক্তি ও বানী। মানুষের মনে থাকা পুলিশ ভীতি কাটিয়ে সর্বোত্তম সেবা দিতেই এ উদ্যোগ। নগরীর কোতোয়ালী থানা প্রাঙ্গণে শোভা পাচ্ছে বিখ্যাত মানুষদের নানা উক্তি, জঙ্গিবাদে না জড়ানোর আহ্বান, ইভটিজিং না করার আহ্বান, গুজব না ছড়ানোর আহ্বান। থানার সীমানা দেওয়ালের ভেতরে ও বাইরের অংশে নানা দেয়াল লিখন ও চিত্র শোভা পাচ্ছে। সড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় চোখে পড়বে নানা দেয়াল লিখন। শুধু লেখা নয় একই সঙ্গে রয়েছে প্রতীকী চিত্রও। সরকারি মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয় গেটের সামনে দিয়ে কোতোয়ালী মোড়ের দিকে হেঁটে যাওয়া যেকোনো পথচারীর নজর কাড়বে এসব চিত্রকর্ম। প্রথমে থানায় ঢোকার মুখে চোখে পড়বে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত দেয়াল চিত্র। এতে শোভা পাচ্ছে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী । থানার ভেতরের অংশে রয়েছে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এ পি জে আবদুল কালাম, আব্রাহাম লিংকনসহ বিখ্যাত মানুষদের উক্তি। পুরো থানা এলাকায় ভেতরে-বাইরে মিলে ৫৯টি চিত্রকর্ম ও দেয়াল লিখন দিয়ে সাজানো হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, পু্লিশ কমিশনার মাহবুবর রহমান স্যারের দিক নির্দেশনায় থানা প্রাঙ্গণ এভাবে সাজানো হয়েছে। থানার সীমানা দেয়াল বাইরে ও ভেতরের অংশে বিখ্যাত মানুষদের বাণী সম্বলিত চিত্র ও সচেতনতামূলক বিভিন্ন লেখা দিয়ে সাজানো হয়েছে। পুরো থানা এলাকায় ভেতরে-বাইরে মোট ৫৯টি চিত্রকর্ম ও দেয়াল লিখন করা হয়েছে। ওসি মহসীন আরো বলেন, থানায় আসা মানুষের মনে প্রশান্তি আসবে এসব চিত্রকর্ম দেখে এবং তারা সচেতন হবে। আমরা মানুষের মনে থাকা পুলিশ ভীতি কাটিয়ে সর্বোত্তম সেবা দিতে চাই। উল্লেখ্য চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ- প্রত্যয় একটাই-মানবিক পুলিশ হতে চাই, এ সংকল্পকে সামনে রেখে বেশ কিছু সেবার কার্যক্রম হাতে নিয়েছে তারমধ্যে অন্যতম হল আধুনিক ডিজিটাল ও জনবান্ধব ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা, হ্যালো পুলিশ কমিশনার, হ্যালো ওসি কার্যক্রম, সিআইএমএস, সিডিএমএস, ৯৯৯ জাতীয় জরুরী সেবা, ওপেন হাউজ ডে, ভিকটিম সাপোর্ট, কিশোর সংশোধন, কমিউনিটি পুলিশিং, বিট পুলিশিং, উঠান বৈঠক, স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশ, মানবিক পুলিশ ইউনিট ইত্যাদি এই সকল কার্যক্রমের মাধ্যমে সিএমপি ইতোমধ্যে জনগণ এবং পুলিশের মধ্যে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরী করতে সক্ষম হয়েছে বলে মনে করেন সিএমপি।
দক্ষতা অর্জন করতে পারলে দেশকে এগিয়ে নেয়া যাবে
১৯ডিসেম্বর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেছেন, প্রবাসীদের প্রেরিত রেমিট্যান্সের কারণে আমাদের দেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ কর্মী বিদেশে বৈধভাবে কর্মরত রয়েছেন। অবৈধভাবে রয়েছেন আরো প্রায় ৩০ লাখ। উপযুক্ত প্রশিক্ষণের অভাবে তারা ন্যায্য পাওনা পাচ্ছেন না। বিদেশের শ্রম বাজারে চাহিদা থাকলেও প্রশিক্ষণ না থাকায় অনেকের ভাগ্যোন্নয়ন ঘটছে না। এজন্য প্রত্যেককে দক্ষ হতে হবে। দক্ষতা অর্জন করতে পারলে দেশকে সম্মানজনক পর্যায়ে নেওয়া যাবে। গতকাল বুধবার সকালে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস-২০১৯ উপলক্ষে নগরীর আগ্রাবাদস্থ সরকারি কার্যভবনের-২ সামনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোহাম্মদ কামাল হোসেন এসব কথা বলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার। সঞ্চালনায় ছিলেন আঁখি। বিশেষ অতিথি ছিলেন ওমান চট্টগ্রাম সমিতির সভাপতি মো. ইয়াছিন চৌধুরী, এনআরবি এসোসিয়েশনের অর্থ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুর রহমান, বায়রা প্রতিনিধি এমদাদ উল্লাহ, চট্টগ্রাম বিকেটিটিসির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নওরীন সুলতানা, আশিফা তানজীম এবং সহকারী পরিচালক মহেন্দ্র কুমার চাকমা। শেষে সেরা রেমিট্যান্স প্রেরণকারী পরিবারের সদস্যদের মাঝে ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়। একই সঙ্গে প্রবাসী কর্মীদের ১৪ জন সন্তানকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় আর্ন্তজাতিক অভিবাসী দিবসের উদ্বোধন ঘোষণার পর এক বর্ণাঢ্য Railly বের হয়।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
অভিবাসী কর্মীদের কারিগরি শিক্ষা অবশ্যই দরকার: অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক
১৮ডিসেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেছেন, বর্তমানে প্রায় এক কোটি বিশ লক্ষ কর্মী বিদেশে বৈধভাবে কর্মরত রয়েছে। উপযুক্ত প্রশিক্ষণের অভাবে তারা ন্যায্য পাওনা পাচ্ছে না। সরকারও আশানুরুপ রেমিট্যান্স থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। উপযুক্ত প্রশিক্ষণ নিয়ে কর্মক্ষেত্রে নিজেকে যোগ্য প্রমাণ করতে হলে অভিবাসী কর্মীদের কারিগরি শিক্ষা অবশ্যই দরকার । অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আজ ১৮ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসে আগ্রাবাদ সরকারি কার্যভবন- ২ এর সামনে জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস, চট্টগ্রাম আয়োজিত আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে র‌্যালি শেষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। অভিবাসী দিবসে এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘দক্ষ হয়ে বিদেশ গেলে অর্থ সন্মান দুই-ই মেলে। এসময় জেলা কর্মসংস্থান ও জন শক্তি অফিসের উপপরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ আশরিফা তাজরিন, বিকেটিটিসির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নওরিন সুলতানা, জেলা কর্মসংস্থান ও জন শক্তি অফিসের সহকারি পরিচালক মাহিন্দ্র চাকমা, এনআরবি এসাসিয়েশন এর সভাপতি মোহাম্মদ ইয়াসিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম সমিতি ওমান এর সভাপতি এমদাদ ঊল্লাহ উপস্থিত ছিলেন। দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে আগ্রাবাদ সরকারি কার্যভবন-২ থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করেছে। এছাড়াও রয়েছে আলোচনাসভা, অভিবাসী তথ্য মেলা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, প্রবাসীকর্মীর সন্তানদের শিক্ষা বৃত্তির চেক প্রদান, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর কর্তৃক প্রবাসী কর্মীদেরকে আগমনী ও বিদায় অভ্যর্থনা জ্ঞাপন দিনব্যাপী কর্মসূচি। সভাপতির বক্তব্যে মোহাম্মদ জহিরুল আলম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর নির্বাচনী ইসতেহারে ঘোষনা দিয়েছেন, প্রতি উপজেলা থেকে ১ হাজার দক্ষকর্মী বিদেশে পাঠাবেন। সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। তবে সরকারের এ বিষয় আরো তৎপর হতে হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি আরো বলেন, দেশে দশ কোটি যুবক বেকার রয়েছে। আগামী ২০৩৫ সালের মধ্যে এদের কর্মক্ষম করতে হবে। এর ব্যতয় ঘটলে ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ হওয়া সম্বব হবে না এবং দেশের উন্নয়নও স্থবির হয়ে পড়বে। এসময় প্রবাসীকর্মীর সন্তানদের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের জন্য ১৪ জনকে শিক্ষা বৃত্তির চেক প্রদান করেন। সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রদানকারী তিন জন প্রবাসীকর্মীদের সন্মাননা স্মারক তুলে দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর