শনিবার, এপ্রিল ৪, ২০২০
দেশের সার্বিক উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন
২৭সেপ্টেম্বর,শুক্রবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (স্থানীয় সরকার) ও সরকারের অতিরিক্ত সচিব দীপক চক্রবর্তী বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সার্বিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মানুষের জীবনমান উন্নয়ন কর্মকান্ড বেগবান করতে সরকারের পাশাপাশি দেশী-বিদেশী বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহন করেছেন। সরকারি বরাদ্ধের সাথে বিদেশী উন্নয়ন সংস্থা জাইকা দেশের উপজেলা পর্যায়ে ৫০ লাখ টাকা করে বরাদ্ধ দিয়ে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে জনপ্রতিনিধিরা তাদের এলাকায় ছোট ছোট প্রকল্প নিয়ে কাজ করতে পারবে। জনপ্রতিনিধিরা কোন ধরণের দুর্নীাতর আশ্রয় না নিয়ে সততা, আন্তরিকতা ও দেশপ্রেম নিয়ে সরকারি-বেসরকারি প্রকল্পের কাজগুলো দৃশ্যমান করতে পারলে সরকার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবে। শুধু জাইকা নয়, সকল প্রকল্পের কাজ দুর্নীতিমুক্ত ও টেকসই করে সম্পন্ন করতে হবে। মান বজায় রেখে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে দুদিন ব্যাপী আয়োজিত উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্প অবহিতকরণ প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাপান ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন এজেন্সীর (জাইকা) সহায়তায় চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার অফিস প্রশিক্ষণের আয়োজন করেন। উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্পের (ইউজিডিপি) ডেপুটি টিম লিডার মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকীর সঞ্চালনায় প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউজিডিপি’র উপ-প্রকল্প পরিচালক মো. মোকতার হোসেন, ইউজিডিপি’র পরামর্শক ড. মোল্লা মাহমুদ হাসান (উপ-সচিব) ও বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার) নুসরাত সুলতানা। দু’দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে চট্টগ্রাম বিভাগের অধীন নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ, চাঁটখীল, ফেনী জেলার দাগন ভূঁইয়া এবং লক্ষীপুর জেলার সদর ও রায়পুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা প্রকৌশলী, স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা, কৃষি কর্মকর্তা ও শিক্ষা কর্মকর্তাগণ অংশ নেন।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বাংলাদেশ সামপ্রদায়িক সমপ্রীতির দেশ: আবদুচ ছালাম
২৬সেপ্টেম্বর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষে মহানগরীর ১৫ থানার ৪১টি ওয়ার্ডের পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে ধারাবাহিকভাবে মতবিনিময় করছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল ওয়েল পার্কের হল রুমে চার থানার ৫০টি পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন তিনি । তিনি দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি অর্জনে দেশের বিদ্যমান সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি কাজে লাগানোর জন্য সব ধর্মের অনুসারীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি সামপ্রদায়িক সমপ্রীতির দেশ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে এ দেশের মানুষ, জাতি, ধর্ম, নারী, পুরুষ নির্বিশেষে মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সবাই এক সঙ্গে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল পরাধীনতার হাত থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করতে সেই মহান স্বাধীনতার যুদ্ধে। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে একটি সামপ্রদায়িক সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে স্বাধীন করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব আর অসামপ্রদায়িক চেতনার কারণেই বিশ্বে বাংলাদেশ সামপ্রদায়িক সমপ্রীতির দেশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। আর তাই এ দেশে প্রতিটি উৎসবেই সকল ধর্মের মানুষ অংশ নিয়ে উৎসবে মেতে উঠেন। উল্লেখ্য এর আগের দিনও চার থানার ৫০টি পূজা মন্ডপের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বায়েজিদ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সফিউল আলম ছগীর, আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ সফিউল আলম বি কম, ২৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম, মোহরা আওয়ামী লীগে নেতা মোহাম্মদ ফারুক, মুরাদ চৌধুরী, নগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমদ, এড. শিবু চন্দ্র মজুমদার, যুবলীগ নেতা সাইফুদ্দিন, বায়েজিদ থানা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি উজ্জ্বল দেওয়ানজিসহ বায়েজিদ, পাঁচলাইশ, ইপিজেড ও হালিশহর থানার ৫০টি পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকগণ । প্রেস বিজ্ঞপ্তি
কাপাসগোলায় সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ
২৬সেপ্টেম্বর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর কাপাসগোলায় সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে চকবাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন। সম্প্রতি কাপাসগোলা কমিশনার কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে বক্তারা প্রধানমন্ত্রীর শুদ্ধি অভিযানকে স্বাগত জানান। এতে বক্তব্য দেন চকবাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুর রহমান, সহ-সভাপতি আমিনুল হক রমজু, চকবাজার বৃহত্তর ব্যবসায়ী সমিতি সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আবুল খায়ের বাচ্চু, কাপাসগোলা ইউনিট আওয়ামী লীগ সভাপতি মনজুরুল আলম মান্নান, সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. সেলিম রহমান, মো. একরাম হোসেন, কাজল প্রিয় বড়ুয়া, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ সদস্য দেলোয়ার হোসেন ফরহাদ, মুজিব ইমরান বিপ্লব, চক সুপার ব্যবসায়ী সমিতি সভাপতি খোরশেদ আলম, শহীদুল ইসলাম মন্ডল, মো. গোলাম মোস্তফা, ইদ্রিস হোসেন সুমন ও ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আমিনুল ইসলাম আমিন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মো. সালাউদ্দিন, মীর হোসেন, এস এম হীরু, ফরমান আহমেদ জনি, আরিফুর রহমান মাসুদ, সামির চৌধুরী, ইমরান খান ইমন, রুবায়েত হোসেন অনিক, জিকু দেবনাথ, মুজিবুর রহমান রাসেল, সাইফুল আলম মোরশেদ, সান্টু গুহ, এম রিদুয়ান রনি, ইমতিয়াজ তুষার, মো. বাদশা, অর্পণ বড়ুয়া, নেওয়াজ শরীফ অমি, আব্দুর রায়হান কিরণ, মো. তন্ময়, শাখাওয়াত হোসেন রাকিন, ফারদিন ইসলাম, সাকিব ইসলাম, মো. টিপু, আশরাফ উদ্দিন সাকিব, আরাফাত আব্দুল্লাহ, ফরহাদুর রহমান ফয়সাল প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
বিজিসি ট্রাস্ট ভার্সিটির ফার্মাসিস্ট দিবস পালন
২৬সেপ্টেম্বর,বৃহস্পতিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সেইফ অ্যান্ড ইফেকটিভ মেডিসিন ফর অল প্রতিপাদ্য নিয়ে গতকাল বুধবার বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের ফার্মেসি বিভাগের চেয়ারম্যান অনিন্দ্য কুমার নাথের সভাপতিত্বে বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কেক কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সরোজ কান্তি সিংহ হাজারী। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর আ.ন.ম ইউসুফ চৌধুরী, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. নারায়ন বৈদ্য, ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক প্রফেসর ড. হযরত আলী মিয়া, প্রফেসর ড. জাহেদ হোসেন, রেজিস্ট্রার এ.এফ.এম আখতারুজ্জামান কায়সার, ডেপুটি রেজিস্ট্রার সালাহউদ্দিন শাহরিয়ার, সহকারী রেজিস্ট্রার অজয় মজুমদার, ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জাহেদ বিন রহিম, সহকারী অধ্যাপক মোঃ জিয়া উদ্দিন, সহকারী অধ্যাপক জয়শ্রী দাশ, সহকারী অধ্যাপক ড. তালহা বিন ইমরান, সহকারাী অধ্যাপক মাইকেল দত্ত, সহকারী অধ্যাপক আনোয়ারা জেনী, সহকারী অধ্যাপক জুয়েল মল্লিক, প্রভাষক শারমিন আক্তার প্রমুখ। প্রধান অতিথি বলেন, রোগ ব্যাধি নিরাময়ের জন্য আমাদের ওষুধ খেতে হয়, কিন্তু অনেক সময় নিম্ন মানের ওষুধ গ্রহণের ফলে বিপরীত চিত্রও দেখা যায়। তাই নিরাপদ এবং কার্যকরী ওষুধ তৈরীর জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। ব্যবসায়িক মনোবৃত্তি পরিত্যাগ করে যাতে মানুষ সুস্থ ও সুন্দর জীবন উপভোগ করতে পারে সেটাই হোক ফার্মাসিস্টদের আদর্শ এবং উদ্দেশ্য। সভা শেষে ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রীদের একটি Raily সমগ্র ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
সমাজে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসতে হবে: লতিফ
২৫সেপ্টেম্বর,বুধবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: মতিয়ারপুল মহল্লা কমিটির নবগঠিত কার্যকরী পরিষদ ২০১৯-২০২২র অভিষেক ও শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান গত ২১ সেপ্টেম্বর রাত ৮ টায় কদমতলী আবেদীয়া স্কুল প্রাঙ্গণে সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আকবর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম ১১ আসনের সংসদ সদস্য এম এ লতিফ। কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস.এম ইকবালের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ২৮নং পাঠানটুলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব আব্দুল কাদের, মতিয়ারপুল মহল্লা কমিটির প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব মোহাম্মদ আলী সওদাগর, নগর ২২ মহল্লা সর্দার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মুহাম্মদ মকসুদ আহমেদ সর্দ্দার, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব এ.এস.এম. শওকত হোসেন কামরু, সদর ঘাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ এস.এম. ফজলুর রহমান ফারুকী, ইসমাইল সর্দার, হাজী মহসিন মোতোয়াল্লী, নওশাদ মোতোয়াল্লী, ইসমাইল খান সর্দার, রমজান আলী সর্দার, ইব্রাহিম কোম্পানী, ২৩নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আলহাজ্ব এম.এ. জাফর, ২৪নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর জাবেদ নজরুল ইসলাম, নারী নেত্রী অধ্যাপিকা বিবি মরিয়ম, আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম, হাজী আবসার আহমদ, জাহেদ আলী, হাজী রহিম, শফিকুল আলম মুন্না, অভিষেক উদ্যাপন কমিটির আহব্বায়ক আলহাজ্ব রমজান আলী, সদস্য সচিব মোঃ আব্দুর রশিদ, হাজী ইয়াছিন আলী, মোঃ মুজিবুর রহমান, মাসুদ খান খোকন, মোঃ আরমান, মোঃ জাহেদ প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, সমাজের সার্বিক উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিশেষ করে মহল্লার নেতাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য অন্তর্নিহিত রয়েছে। একটি সমাজের শান্তি শৃঙ্খলা, উন্নয়ন এবং সমৃদ্ধিতে সকল স্তরের নাগরিককে সচেতনতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। তিনি বলেন, সমাজের তথা রাষ্ট্রের নানা সমস্যা বিরাজমান। যাবতীয় সমস্যা সমাধানে আমরা জনপ্রতিনিধির পাশাপাশি সমাজের দায়িত্বশীল সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে একটি সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে বহুমুখী প্রকল্প বাস্তবায়ন করে চলেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কর্মকান্ড এখন সারাবিশ্বে প্রশংসিত। তিনি অত্র এলাকাকে মাদক সন্ত্রাস চাঁদাবাজ এবং অপসংস্কৃতি মুক্ত করতে সকলকে সজাগ থাকার আহব্বান জানান। সভা শেষে নবনির্বাচিত কমিটির সকলকে শপথ বাক্য পাঠ করান আলহাজ্ব এম এ লতিফ এমপি।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি
মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের মানববন্ধন, বিক্ষোভ সমাবেশ
২৪সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংসদ পংকজ দেব নাথ এর নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা ও ভূয়া তথ্য প্রচারের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে আজ প্রেস ক্লাব চত্বরে নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য দেবাশীষ নাথ দেবুর সভাপতিত্বে ও মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো: আবু তাহের। আরো বক্তব্য রাখেন নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সদস্য মো: সিরাজুল ইসলাম, মো: জালাল মিয়া, খুরশিদ হাসান, মো: জাকির হোসেন, মোরশেদুল আলম, আবুল মনসুর টিটু, মো: রফিক, আবদুর রাজ্জাক বাবু, দোলন বৈষ্ণব, এম.কে আলম বাসেদ, মো: রাজু, এস.এম. আব্বাস উদ্দিন, মাইনুদ্দিন চৌধুরী ইমন, আবুল কাশেম মাসুদ, ডা: রতন দেবনাথ, মামুন বাদশা, আশরাফুল আলম শিবলু, নাজিম উদ্দিন রাসেল, কার্তিক রঞ্জন শীল টিটু, সজল কান্তি দাশ, তাপস দাশ, নাজিম উদ্দিন সাইফুল, মো: নওশাদ, মো: সাইফুল, মো: পারভেজ, মো: জয়নাল আবেদীন, মো: জহির, মো: রাসেল, অপু দাশ, মো: রাকিব, কনক মজুমদার, হাজী শাহ আলম আলী, জহিরুল ইসলাম সাজু, আবদুল মান্নান, মো: নাদিম, মো: তুহিন প্রমুখ।
উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হবে এবারের দুর্গোৎসব: নওফেল
২৪সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপির সাথে তাঁর চশমাহিলস্থ বাসভবনে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগর পূজা পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন মহানগর পূজা পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি লায়ন আশীষ ভট্টাচার্য্য, মহানগর পূজা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত। সাবেক সভাপতি সাধন ধর, মুক্তিযোদ্ধা অরবিন্দ পাল অরুণ, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এডভোকেট সুনীল সরকার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রত্মাকর দাশ টুনু, যুগ্ম সম্পাদক হিল্লোল সেন উজ্জ্বল, সাংগঠনিক সম্পাদক সজল দত্ত, সিনিয়র সদস্য প্রদীপ শীল, ভারপ্রাপ্ত অর্থ সম্পাদক বিপ্লব সেন, দপ্তর সম্পাদক দোলন দেব, প্রচার সম্পাদক এডভোকেট টিপু শীল জয়দেব, শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক সুকান্ত মহাজন টুটুল, রুমকি সেনগুপ্তা, আইন বিষয়ক সম্পাদক গৌতম হাজারী, গণসংযোগ সম্পাদক চন্দন পালিত, প্রিয়তোষ ঘোষ রতন, বিপু ঘোষ বিলু, লিটন মহাজন, অঞ্জন দত্ত, তাপস দে, অজয় চৌধুরী সাজু, রাহুল দাশ, জয় চৌধুরী, যীষু তালুকদার। এতে আরো বক্তব্য রাখেন কোতোয়ালী থানা পূজা পরিষদের সভাপতি লিটন শীল, বাকলিয়া থানা পূজা পরিষদের সভাপতি ডা: নেহেরুলাল ধর, সাধারণ সম্পাদক মিত্র কুমার শীল, প্রশান্ত কুমার পান্ডে, রিপন সিংহ, নিলয় দত্ত আকাশ, পাভেল চৌধুরী, দীব্য পুরোহিত, রাহুল দে। ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এম.পি বলেন, আসন্ন শারদীয়া দুর্গোৎসব শান্তি শৃঙ্খলা সম্প্রীতির এই দেশে উশৃঙ্খল উগ্রবাদীর স্থান নেই। অসাম্প্রদায়িক দেশ নির্মাণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত আন্তরিক। সনাতনী সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান যাতে শান্তি-শৃঙ্খলা, সৌহার্দ্যপূর্ন নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তার মাধ্যমে উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপন করতে পারে বর্তমান সরকারের সার্বিক সহযোগিতা থাকবে।প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ক্লাবে চলমান অভিযানে ক্ষুব্ধ হুইপ শামসুল হক
২৩সেপ্টেম্বর,সোমবার,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম-১২ আসনের সংসদ সদস্য হুইপ শামসুল হক চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রামে শতদল, ফ্র্রেন্ডস, আবাহনী, মোহামেডান, মুক্তিযোদ্ধাসহ ১২টি ক্লাব আছে। ক্লাবগুলো প্রিমিয়ার লিগে খেলে। ওদের তো ধ্বংস করা যাবে না। ওদের খেলাধুলা বন্ধ করা যাবে না। প্রশাসন কি খেলোয়াড়দের পাঁচ টাকা বেতন দেয়? ওরা কীভাবে খেলে, টাকা কোন জায়গা থেকে আসে, সরকার কি ওদের টাকা দেয়? দেয় না। এই ক্লাবগুলো তো পরিচালনা করতে হবে। দেশজুড়ে আলোচনার তুঙ্গে থাকা বিভিন্ন ক্লাবে চলমান অভিযান নিয়ে এভাবে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন তিনি। রবিবার দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে অনুষ্ঠিত একটি সমন্বয় সভায় যোগ দিয়ে তিনি গণমাধ্যমের কাছে তার এই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। চট্টগ্রাম বিভাগের উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে অনুষ্ঠিত সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। হুইপ শামসুল হক চৌধুরী বলেন, আপনারা সাংবাদিকেরা প্রেসক্লাবে বসে তাস খেলেন। এটা কি জুয়া হলো? জুয়া হলে তো আপনারা প্রেসক্লাবেও বসতে পারবেন না। তাস খেললেও জুয়া, তাস ধরলেই জুয়া। আর অভিযানে ক্যাসিনো বের করতে পারলে তাদের বাহবা দেওয়া যেত। তিনি বলেন,আমাদের প্রশাসনকে বলব, ঘুষের ব্যবসা যাঁরা করেন তাঁদের ধরেন। ঘুষ যাঁরা নেন, তাঁদের ধরেন। যাঁরা দেন, তাঁদেরও ধরেন। হুইপ বলেন, ক্লাবের তাস খেলা বন্ধ করে কোনো লাভ হবে না। তাস খেলা বন্ধ করলে ছেলেরা রাস্তায় ছিনতাই করবে। এটা বন্ধ করে লাভ হবে না। এখানে কোনো ক্যাসিনো নেই। ক্যাসিনো ধরেন, তাস খেলা হয় এ রকম ক্লাব ধরবেন না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ক্যাসিনো এবং মদের ব্যবসা যারা করেন, তাদের ধরতে বলেছেন। ঘুষ কে খান- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আপনি খান। আমি খাই। সবাই ঘুষ খান। ঘুষ কে দেন- প্রশ্নে তিনি বলেন,আপনি দেন। আমি দিই। সবাই দেন। আগে তাঁদের ধরেন।
কৃষি পদক পেল প্রাণ
২২সেপ্টেম্বর,রবিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কৃষিক্ষেত্রে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-চ্যানেল আই কৃষি পদক-২০১৯ পেয়েছে প্রাণ এগ্রো বিজনেস লিমিটেড। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক উজমা চৌধুরীর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। এ বছর আট ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-চ্যানেল আই কৃষি পদক প্রদান করা হয়। কৃষিক্ষেত্রে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে জুরি স্পেশাল পদক পায় প্রাণ এগ্রো বিজনেস লিমিটেড। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চ্যানেল আই এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাসের এজাজ বিজয়সহ পদক প্রাপ্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। প্রাণ গ্রুপের প্রায় এক লাখ চুক্তিভিত্তিক কৃষক রয়েছে। উত্তরাঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় এসব কৃষকের কাছ থেকে আম, টমেটো, কাসাভা, মসলা, বাদাম, চাল, ডাল ও দুধ সংগ্রহ করে প্রাণ। স্থানীয় পর্যায়ের কৃষকদের কাছ থেকে সংগৃহীত কাঁচামাল থেকে উৎপাদিত হয় প্রাণ এর প্রক্রিয়াজাত খাদ্যপণ্য। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর