বুধবার, এপ্রিল ৮, ২০২০
সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে বিদায় অনুষ্ঠান
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গ্রাজুয়েট শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান গত শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ারস ইনস্টিটিউটর(আইইবি) অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। প্রো-ভিসি ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার আলী আশরাফের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাদার্ন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা। আরও উপস্থিত ছিলেন উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর সরওয়ার জাহান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উপদেষ্টা প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শরীফুজ্জামান, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. ইসরাত জাহান, বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও উপদেষ্টা, রেজিস্ট্রার, সাংবাদিক, আমন্ত্রিত অতিথি ও শিক্ষকবৃন্দসহ শিক্ষার্থীরা।প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নুরুল মোস্তফা বলেন, ইউনিভার্সিটির কাজ হচ্ছে শিক্ষা ও গবেষণা তাই সাদার্ন গবেষণাধর্মী শিক্ষাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। সাদার্ন এর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের গবেষণা প্রবন্ধ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জার্নালে নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে যা ইতোমধ্যে বেশ প্রশংসা পেয়েছে এবং বিভিন্ন সেক্টরে কাজে লাগানো হচ্ছে। নিয়মিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন করছে সাদার্ন। ইতোমধ্যে বিভিন্ন বিভাগের উদ্যোগে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে অনেকগুলো আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাদার্ন ইউনিভার্সিটির আটটি বিভাগ ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাংক ও ইউজিসির আইকিউএসি হেকেপ প্রজেক্টের পিয়ার রিভিউতে খুব প্রশংসীয় মার্ক অর্জন করেছে। প্রফেসর সরওয়ার জাহান বলেন, সুশৃংখল বিভাগ হিসেবে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ইতোমধ্যে পরিচিত লাভ করেছে, সমৃদ্ধ বিভাগগুলোর মধ্যে এই বিভাগটি অন্যতম। আইইবির Ranking এ বিভাগটির অবস্থান ষষ্ঠ। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ যোগ্যতাবলে আইইবির অ্যাক্রেডিটেশন পেয়েছে। প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক বলেন, জীবনে ইঞ্জিনিয়ার হতে পারলে কি না সেটা বড় কথা নয় বরং ভালো মানুষ হয়েছো কি না সেটা চিন্তা করবে। পরে আমন্ত্রিত অতিথিরা সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রকাশনা ম্যাগাজিন অ্যাংকর-২০১৯ এর মোড়ক উন্মোচন করেন। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র মাহাদী হাসানের অকাল মৃত্যুতে উপস্থিত সকলে দাঁিড়য়ে শোক প্রকাশ ও মোনাজাতে মাগফেরাত কামনা করেন । অনুষ্ঠানের সভাপতি প্রো-ভিসি প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার আলী আশরাফ উপস্থিত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীাত ভোজের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতার সমাপ্তি হয়।
দুদকের গণশুনানিতে বেশিরভাগ অভিযোগ ছিল প্রকৌশল ও রাজস্ব বিভাগের বিরুদ্ধে
১৪অক্টোবর,সোমবার,সুজন আর্চায্য চট্টগ্রাম, একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে দুর্নীতিদমন কমিশন দুদকের গণশুনানিতে অভিযোগকারীদের বেশিরভাগই ছিলো অনুপস্থিত।সোমবার সকাল ১০টা থেকে চমেক হাসপাতালের শাহ আলম বীর উত্তম মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে শুরু হলেও মূল অনুষ্ঠান শুরু হয় ১১টায়।অনুষ্ঠান শুরু হলেও লিখিতভাবে (অভিযোগ দেওয়া) অভিযোগকারীরা প্রায়ই অনুপস্থিত। শুনানি চলাকালে বেশিরভাগ অভিযোগ ছিল প্রকৌশল ও রাজস্ব বিভাগের বিরুদ্ধে।এছাড়া আগ্রাবাদ এলাকার মাহবুবুল আলম নামের একজন পরিচ্ছন্ন কর্মীকে ১০ লক্ষ টাকা ও জাল সার্টিফিকেটের মাধ্যমে পদোন্নতির অভিযোগ উঠে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে।বিষয়টি সিটি মেয়র আজম নাছির উদ্দীনকে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন দুদক কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম।
২ দিন ব্যাপী মাইজভান্ডার দরবার শরীফে বাবা ভান্ডারীর ১৫৭ তম খোশরোজ শরীফ শুরু
১৪অক্টোবর,সোমবার,সজল চক্রবর্তী,ফটিকছড়ি,চট্টগ্রাম: মাইজভান্ডার দরবার শরীফের আধ্যাতিক সাধক, আওলাদে রাসূল (স:) ত্বরিকায়ে মাইজভান্ডারীয়ার পূর্ণতাদানকারী হযরত গাউছুল আজম সৈয়্যদেনা শাহছুফি মাওলানা সৈয়দ গোলামুর রহমান আল-হাচানী আল মাইজভান্ডারী প্রকাশ বাবা ভান্ডারীর (ক:)র ১৫৭ তম পবিত্র খোশরোজ শরীফ রবিবার ও সোমবার (১৩ - ১৪ অক্টোবর) থেকে ২ দিন ব্যাপী চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার মাইজভান্ডার দরবার শরীফের গাউছিয়া রহমান মঞ্জিলের উদ্্েযাগে মহা সমারোহে শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে গাউছিয়া রহমান মঞ্জিল , আশেকানে মাইজভান্ডারী এসোসিয়েশন ও বাবা ভান্ডারী পরিষদের পক্ষে ব্যাপক কর্মসূচী পালন গ্রহন করেছে। খোশরোজ শরীফ সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ, গাউছিয়া রহমান মঞ্জিলের ও আশেকানে মাইজভান্ডারী এসোসিয়েশন স্বেচ্ছা সেবকবৃন্দ আইন শৃংখলা রক্ষার্থে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করেছে। শনিবার সন্ধ্যা হতে দেশ-বিদেশের লাখো আশেকান ও ভক্তবৃন্দ বিভিন্ন যানবাহন যোগে দরবারে এসে উপস্থিত হতে দেখা যায়। আগত ভক্ত ও আশেকানরা মাইজভান্ডার এসে গাউছিয়া রহমান মঞ্জিলের বর্তমান সাজ্জাদানশীন শাহ ছূফি মাওলানা ছৈয়দ মুজিবুল বশর আল-হাছানী আল-মাইজভান্ডারী (ম:জি:আ:) সারিবদ্ধভাবে সাজ্জাদানশীনদের সাথে পূর্ব বাড়ীতে সাক্ষাত করে দোয়া কামনা করতে দীর্ঘ লাইনে ধীরে ধীরে এগুতে থাকে। ভক্তরা মাইজভান্ডার শরীফের সকল রওজায় জেয়ারতের মাধ্যমে নিজ নিজ মনোবাসনা পূরনের জন্য কোরআন তেলোয়াত, জিকির আজকার করে মহান রাব্বুল আলামীনের দরবারে ফরিয়াদে মশগুল থাকবে। খোশরোজ শরীফের প্রধান দিবসে লাখো ভক্তের মিলন ঘটবে । খোশরোজ শরীফের প্রধান দিবস সোমবার ১৪ অক্টোবর রাতে আলোচনা সভা শেষে মিলাদ মাহফিল ও জিকির শেষে বিশ্বের সকল উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করবেন, বর্তমান সাজ্জাদানশীন শাহ ছূফি মাওলানা ছৈয়দ মুজিবুল বশর আল-হাছানী আল-মাইজভান্ডারী (ম:জি:আ:)। এদিকে খোশরোজ শরীফ উপলক্ষে বাবা ভান্ডারীর রওজাসহ মাইজভান্ডার এলাকায় ব্যাপক আলোকসজ্জা ও তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। আইন শৃংখলা রক্ষার্থে নাজিরহাট- মাইজভান্ডার সড়ক সহ এলাকা জুড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এব্যাপারে, জানতে চাইলে থানার ওসি মুহাম্মদ বাবুল আকতার বলেন, খোশরোজ শরীফ সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করতে গুরুত্ব পূর্ণ স্থানে পুলিশ ক্যাম্প ও টহলের ব্যবস্থা রয়েছে যানজট নিরসনের জন্য থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ সর্বাক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবে।
সত্যের পক্ষে যারা অবস্থান নেবে না তারাও অপরাধী
১৪অক্টোবর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, প্রবারণা পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মের বড় ধর্মীয় উৎসব। গৌতম বুদ্ধের শিক্ষা হচ্ছে দু:খ ও মুক্তির কঠিন সাধনায় সব ধরনের বাধা দূর করা। খসরু বলেন, সত্য ও শান্তির পক্ষে যারা অবস্থান নেবে না তারাও অপরাধী। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ সকল ধর্মের অধিকার নিশ্চিত করে। বিএনপি সকল ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি গতকাল সন্ধ্যায় কাতালগঞ্জ নব পন্ডিত বৌদ্ধ বিহারে প্রবারণা পূর্ণিমার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। প্রধান বক্তা মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, প্রবারণা পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব। সকল ধর্মের মর্মবাণী হচ্ছে- সত্য ও ন্যায়ের পথ অনুসরণ করা। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর। কাতালগঞ্জ নব পন্ডিত বৌদ্ধ বিহারের উপানন্দ্র মহাথেরোর সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী বৌদ্ধ ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগরের আহ্বায়ক অধ্যাপক ঝন্টু বড়ুয়ার পরিচালনায় এতে আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি এম এ আজিজ, যুগ্ম সম্পাদক ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, সামশুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, কোতোয়ালী থানার সভাপতি মঞ্জুর রহমান চৌধুরী মঞ্জু, নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান, চকবাজার ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নূর হোসেন, নগর যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি মো. মহসিন, থানা বিএনপির সংগঠনিক সম্পাদক খায়রুজ্জামান জুনু, নগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মনজুর আলম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক এম এ হালিম বাবলু, বৌদ্ধ নেতা ড. পরিতোষ বড়ুয়া, দিবাকর বড়ুয়া, রুবেল বড়ুয়া, বাপ্পি বড়ুয়া প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রাম আদালতে দ্রুত মামলা নিস্পতিতে সন্তোষ প্রকাশ
১৪অক্টোবর,সোমবার,সুজন আর্চায্য চট্টগ্রাম, একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রাম চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দ্রুত মামলা নিস্পতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুন নাহার রুমী বলেন,মেডিকেল রির্পোট ও যথাসময়ে স্বাক্ষীর অনুপস্থিতির কারনে অনেক ক্ষেত্রে মামলা নিস্পত্তিতে দেরী হচ্ছে। সময় মত মেডিকেল রির্পোট (এমসি) ও যথাসময়ে স্বাক্ষীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করার জন্য তিনি নির্দেশ প্রদান করেন এবং ইতি মধ্যে নিস্পত্তিকৃত মামলার মালামাল রাষ্ট্রের অনুকুলে দ্রুত বাজেয়াপ্ত করার তাগিদ দেন। এই সময় জেলা পিপি এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বলেন,দ্রুত সময়ে মামলা নিস্পত্তির লক্ষ্যে যথাসময়ে মামলার নথী প্রেরন করা প্রয়োজন।১২ অক্টোবর চট্টগ্রাম চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট আদালত ভবনের সম্মেলন কক্ষে পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসী কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুন নাহার রুমির সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত উক্ত পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেট কনফারেন্সে অতি:চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: রবিউল আলম,সিনি: জুডিসিয়াল ম্যাজস্ট্রেট কৌশিক আহম্মদ খন্দকার,সিনি: জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০২ মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০১ মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ কাইছার,বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০২ শিবলু কুমার দে,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০৩ জয়ন্তি রাণী রায়,জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ০৪ জিহান সানজিদা,জুডিসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (বন আদালত) সুস্মিতা আহমেদ,বিদ্যুৎ ম্যাজিস্ট্রেট (উত্তর) কহিনুর আক্তার,দক্ষিন-আইরিন পারভীন,সি: জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট(পটিয়া চৌকি) বিশ্বেশ্বর সিংহ,সি: জুডিসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট(সন্দিপ চৌকি) আকবর হোসেন,সি: জুডিুসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (বাশখাঁলি চৌকি) মাইনুল ইসলাম,চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার - নুরে আলম মিনা, অতি: পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল , অতি: পুলিশ সুপার (দক্ষিন) মোহাম্মদ আফরুহল হক টুটুল , অতি: পুলিশ সুপার (সদর) মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, অতি: পুলিশ সুপার সিতাকুন্ড সার্কেল শম্পা রাণী সাহ পি.পি.এম, অতি: পুলিশ সুপার সাতকানিয়া সার্কেল হাসানুজ্জামান মোল্যা ,এএসপি মীরসরাই সার্কেল মোহাম্মদ ছামসুদ্দিন ছালেহ আহম্মদ চৌধুরী পি.পি.এম (বার) ,সিভিল সার্জন মো: আজিজুল রহমান,চট্টগ্রাম কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক বাবু সুব্রত চৌধুরী,জেলা পিপি সিরাজুল ইসলাম,সি আইডি ইন্সপেক্টর বাবু দুলন বিশ্বাস,আর ও আই বিজন বড়য়া,RAB-০৭ এর সহকারি পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম,চীফ জুুডিসয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চট্টগ্রামের নাজের ও ভারপ্রাপ্ত প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো: আবু তাহের এবং চট্টগ্রামের সকল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গন উপস্থিত ছিলেন।
শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক সম্মাননা ২০১৯ পেলেন চট্টগ্রামের হাছিনা আকতার
১৪অক্টোবর,সোমবার,নিউজ চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম:ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি) শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক সম্মাননা ২০১৯ পেয়েছেন মোছাম্মৎ হাছিনা আকতার। রোববার (১৩ অক্টোবর) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহ্ কামাল তাকে এ সম্মাননা প্রদান করেন। এর আগে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবসের এ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।হাছিনা আকতার চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহা গ্রামের মো. রফিক আহমদের কন্যা। হাছিনা আকতার ১৯৯৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সিপিপিতে যোগদান করে অদ্যবধি সেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি সিপিপি ৬ নস্বর ইউনিটের ইউনিট লিডার। ১৯৯৮ সালে তিনি ইসলামীয়া ডিগ্রি কলেজ থেকে বিএ ( স্নাকত) পাশ করেছেন।এছাড়া তিনি ইউ, এস, এ আইডি এর সহযোগীতায় পরিচালিত প্রটেক্টিং হিউম্যান রাইটস (পিএইচ আর), সমাজিক সুরক্ষা দল ও ঘাসফুল : পি এইচ আর : এ ( নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক কার্যক্রম) এবং বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পরিসদ ও স্মৃতি পাঠাগার বাংলাদেশ এর সদস্য।তিনি কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহা এস এ কাদের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তিনি পটিয়া উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক।ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই সন্তানের জননী। তার স্বামী আনোয়ার হোসেন একজন ব্যবসায়ী। তিনি একাধারে একজন সামাজিক নারী, আদর্শ শিক্ষক, একজন মা ও ২০১৯ সালের সেরা স্বেচ্ছাসেবক।তিনি নগর বিশেষ শাখার ইন্সপেক্টর মর্জিনা আকতার ও নগরের ডবলমুরিং থানার সাব ইন্সপেক্টর মো. ইমরান এর বড় বোন। উল্লেখ্য, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধিনে সিপিপির উপকূলীয় ৪১টি উপজেলার ১ জন পুরুষ ও ১ জন মহিলা হিসেবে মোট ৮২ জনকে শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক পুরস্কার প্রদান করেছেন।
আকবরশাহ থানাধীন সিটি গেইট এলাকায় ১৫০ পিস ইয়াবা সহ গ্রেফতার ১
১৩অক্টোবর,রবিবার,নিউজ চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: আকবরশাহ্ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, সিএমপি, চট্টগ্রাম এর নের্তৃত্বে এসআই(নিঃ)আশহাদুল ইসলাম সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ সিটি গেইট চেক পোষ্ট ডিউটি করাকালে আকবরশাহ্ থানাধীন সিটি গেইটের উত্তর পার্শ্বে মোস্তফা হাকিম কলেজ রোডের মাথায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পাক্কা রাস্তার উপর হইতে ১৫০(একশত পঞ্চাশ) পিস ইয়াবা সহ আসামী মোঃ আবু তাহের(২৮), পিতা-আব্দুল খালেদ, মাতা-শাহিনুর বেগম, সাং-পাদরি শিবপুর, খালেদ হাওলাদারের বাড়ি, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল কে আটক করেন। আসামীর বিরুদ্ধে আকবরশাহ্ থানায় মাদকদ্রব্য আইনে নিয়মিত মামলা রুজু করা হইয়াছে।
প্রেমের ফাঁদে ফেলে অর্থ আদায়
১২অক্টোবর,শনিবার,নিউজ চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রথমে মোবাইল ফোনে কথোপকথন। এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলা। সপ্তাহ খানেক কথা বলার পর নির্জন স্থানে ঘুরতে যাওয়া। এরপর অনৈতিক সম্পর্কের কথা বলে নিজের বাসায় নিয়ে গিয়ে আটকে রেখে অর্থ আদায় করা। পেশাদার অপরাধীদের পাশাপাশি এখন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষিত তরুণরা জড়িয়ে পড়েছে এ কাজে। এ অপরাধে তিন ছাত্রকে আটক করেছে খুলশী থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলো চট্টগ্রাম কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ইফতেখারুল আলম (২৫), ইউএসটিসির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ষষ্ঠ সেমিস্টারের ছাত্র মোহাম্মদ তালিম উদ্দিন (২৪) ও আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র সালেহিন আরাফাত (২৮)। পড়াশোনার পাশাপাশি সালেহীন তার বাবার সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠানেও কাজ করেন। খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রণব চৌধুরী বলেন, তিন যুবকই অভিজাত পরিবারের সন্তান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। তারা একটি ব্ল্যাকমেইলিং চক্রের সদস্য। ঘটনার শিকার হাসান তারেক (৩৭) নগরীর পাঁচলাইশ থানার রহমান নগরের হাতিম বিল্ডিংয়ের বাসিন্দা মোফাজ্জল আহমেদের ছেলে। তিনি রেনেটা ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিতে কর্মরত আছেন। গতকাল শুক্রবার সকালে নগরীর বিশ্বকলোনি ডি-ব্লকের একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে ওষুধ কোম্পানির ওই কর্মকর্তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযুক্তদের বাসাও বিশ্বকলোনি এলাকায়। তিনি বলেন, দুই সপ্তাহ আগে হাসান তারেক কোম্পানির কাজে বিশ্বকলোনিতে যান। সেখানে ইশরাত নামে এক মেয়ের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। সেই সূত্রে ১০ অক্টোবর রাতে মেয়েটি হাসান তারেককে বিশ্বকলোনির ডি-ব্লকে তার বাসায় ডেকে নেয়। বাসায় যাওয়ার পর চার যুবক সেখানে প্রবেশ করে এবং তাকে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে। হাসান তারেক প্রথমে বিকাশের মাধ্যমে ২৪ হাজার টাকা দেন। কিন্তু এতে ঘটনায় জড়িতরা খুশি হননি। তারা আরও টাকা দাবি করলে ভোরের দিকে হাসান তারেক তার ছোট বোনকে দুটি চেক নিয়ে খুলশীতে ইউএসটিসির সামনে আসতে বলেন। এসময় হাসানের কণ্ঠস্বর শুনে বোনের সন্দেহ হলে তিনি ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চান। খুলশী থানার একটি টিমও ছদ্মবেশে ইউএসটিসির সামনে অবস্থান নেয়। তালিম চেক নিতে এলে পুলিশ তাকে হাতেনাতে আটক করে। এরপর তার দেওয়া তথ্যমতে ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে হাসানকে উদ্ধার করা হয় এবং দুই জনকে আটক করা হয়। তবে ইসরাত এবং রুমি নামে দুই জন পালিয়ে যান। ওসি খুলশী জানান, যেহেতু ঘটনাস্থল আকবরশাহ থানাধীন এলাকায় তাই ভিকটিম এবং আসামিসহ সবাইকে ওই থানায় প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনায় হাসান তারেকের বোন শারমিন ফারজানা বাদী হয়ে সেই থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এ চক্রের অন্য দুই সদস্য পলাতক ইসরাত এবং রুমিকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।
দুস্থদের মাঝে লায়ন্স ক্লাব বাতিঘরের বস্ত্র বিতরণ
১২অক্টোবর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং বাতিঘর -এর উদ্যোগে মাঝির ঘাট চট্টগ্রাম বন্দর লাইটারেজ ঠিকাদার সমিতির কার্যালয়ে পার্বত্য ফকিরপাড়ায় দুস্থদের মাঝে নতুন শাড়ী- লুঙ্গি বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে ক্লাব প্রেসিডেন্ট লায়ন এম এ মুসা বাবলুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা গভর্নর লায়ন কামরুন মালেক। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কেবিনেট সেক্রেটারি লায়ন জি.কে লালা, রিজিয়োন চেয়ারপারসন হেড কোয়ার্টার লায়ন মো. হারুন ইউসুফ, কর্নসান রিজিয়ন চেয়ারপারসন লায়ন এ্যাডভোকেট এম নুরুল ইসলাম, রিজিয়ন চেয়ারপারসন লায়ন কাজী মনিরুল ইসলাম, ক্লাব সেক্রেটারি লায়ন হারন অর রশিদ মান্না, ক্লাব ট্রেজারার লায়ন লতিফা ইয়াসমিন নিপা। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্লাব মেম্বার লায়ন নোবেল কিশোর চৌধুরী, লায়ন প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী, লায়ন প্রনব সাহা, লায়ন অর্জিত চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ১০০ জনের মধ্যে নতুন শাড়ী ও লুঙ্গি বিতরণ করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর