শপিংব্যাগ সুপারশপে চলছে বৈশাখ অফার ক্যাম্পেইন
১৩এপ্রিল,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলা নববর্ষের আনন্দ দ্বিগুণ করতে চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় সুপারশপ শপিংব্যাগে চলছে বৈশাখ অফার ক্যাম্পেইন। বর্ষবরণ উৎসবের আমেজ বাড়িয়ে দিতে ওই ক্যাম্পেইনের আওতায় বিশাল ছাড়ে কেনা যাবে নিত্যপ্রয়োজনীয় কাঁচাবাজার ও অন্যান্য পণ্যসামগ্রী। গত শুক্রবার শুরু হওয়া বৈশাখ অফার ক্যাম্পেইনটি চলবে আগামীকাল পহেলা বৈশাখ পর্যন্ত। নগরীর কাজীর দেউড়ি ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারের ৩০ হাজার বর্গফুট আয়তনের চারটি ফ্লোরে বিন্যস্ত এ সুপারস্টোরে রয়েছে আকর্ষণীয় সব সুবিধা। রয়েছে প্রয়োজনীয় ৫০ হাজারেরও বেশি পণ্যের সংগ্রহ। বৈশাখ অফার ক্যাম্পেইনের বিশেষ আকর্ষণ হচ্ছে আকর্ষণীয় মূল্যে হরেক সাইজের সুস্বাদু ইলিশ মাছ। বৈশাখ আসায় এমনিতেই ইলিশের চাহিদা বেড়েছে অনেক। ক্রেতার চাহিদা মেটানোর জন্য শপিংব্যাগ সুপারশপ আয়োজন করেছে ইলিশের মহা উৎসব। গতকাল প্রথম দিনেই ইলিশ কিনতে ভিড় করতে দেখা যায় প্রচুর ক্রেতাকে। শপিংব্যাগ সুপারশপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রফিক বলেন, বর্ষবরণ জাতি- ধর্ম নির্বিশেষে সকল বাংলাদেশির জন্যই অন্যতম বড় উৎসব। এদিনটি সবাই ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা এবং বেশ আনন্দমুখর পরিবেশে উদযাপন করে থাকে। আর শপিংব্যাগ সুপারশপ পহেলা বৈশাখের উৎসবমূখর আমেজে নতুন মাত্রা যোগ করতে বৈশাখ অফার ক্যাম্পেইনের আয়োজন করেছে। শপিংব্যাগের চারটি ফ্লোরের মধ্যে বিশেষায়িত কাঁচাবাজারে তরতাজা শাকসবজি থেকে প্রিমিয়াম শুঁটকি, দেশি ও সামুদ্রিক মাছ, তাজা মাংসসহ পাওয়া যাবে সব কিছুই। এ ফ্লোরেই রয়েছে লাইভফিশ বা জীবন্ত মাছ কেনার সুযোগ। ক্রেতারা স্বচক্ষে দেখে যে কোনো জীবন্ত মাছ কিনে নিতে পারবেন। এখানকার বিশেষ আকর্ষণ হলো যে কোনো পণ্যের তাৎক্ষণিকভাবে ফরমালিন পরীক্ষা করে দেখার সুযোগ পাবেন ক্রেতারা। শপিংব্যাগের নিচতলায় প্যাকেটজাত খাবার, মসলা থেকে শুরু করে সব ধরনের ড্রাইফুডের বিপুল সমাহার রয়েছে। দ্বিতীয় তলায় রয়েছে এ টু জেড ফ্যামিলি আইটেম। রয়েছে দেশি-বিদেশি নামি ব্র্যান্ডের কসমেটিকস পণ্যের কালেকশন। তৃতীয় তলায় রয়েছে সব ধরনের গিফট আইটেমের বড় কালেকশন। উপহারের নানা সামগ্রীর পাশাপাশি ব্যাগ-জুতা ছাড়াও রয়েছে বাচ্চাদের জন্য আন্তর্জাতিক মানের খেলনা সামগ্রী। এখানে রয়েছে বাচ্চাদের জন্য বিদেশি ইলেকট্রনিক খেলনা গাড়িও। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রামের জিইসি আবাসিক এলাকায় স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে স্বামী গ্রেপ্
১২এপ্রিল,শুক্রবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগরীর পাঁচলাইশ থানার জিইসি আবাসিক এলাকায় স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে স্বামী আরশাদুল আলমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গুরুতর আহত গৃহবধূ তাসমিন সাঈদা চৌধুরীকে বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (চমেক) ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূঁইয়া জানান, গৃহবধূকে মারধর করে গুরুতর আহত করার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। ‘রাতেই আমরা অভিযুক্ত আসামি আরশাদুল আলমকে গ্রেপ্তার করেছি।’ মামলার বিবরণ অনুযায়ী পুলিশ জানায়, ২০০৯ সালে আবদুল মালেকের ছেলে আরশাদুল আলমের সাথে তাসমিন সাঈদা চৌধুরীর বিয়ে হয়। এ দম্পতির তিন সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই প্রায় সময় রাতে মাতাল হয়ে স্ত্রীকে মারধর করতেন আরশাদুল। বৃহস্পতিবার রাতে স্বামীর পরকিয়ায় বাধা হয়ে দাঁড়ানোয় স্ত্রীকে ব্যাপক নির্যাতনের এক পর্যায়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়ার চেষ্টা করেন আরশাদুল। এ সময় পরিবারের লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় ওই গৃহবধূকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে আরশাদুল ও তার মা সরওয়ার জাহান মালেককে আসামি করে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের করেন সাঈদার চাচা হাসান মোহাম্মদ রাশেদ। মামলার পরপরই পুলিশ জিইসি এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরশাদুলকে গ্রেপ্তার করে।
চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সাথে মিলেনিয়াম হিউম্যান রাইটসের নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত
১১এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামের পাহাড়তলী থানাধীন অলংকার মোড়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর মরহমানের প্রতিকৃতি স্থাপনের প্রস্তাব পত্র নিয়ে অদ্য ১১ ই এপ্রিল মিলেনিয়াম হিউম্যান রাইটস্ এন্ড জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন (এমজেএফ) চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির পক্ষ থেকে মহানগর চেযাররম্যান এম.এ নুরুন্নবী চৌধুরীর নেতৃত্বে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সাথে সাক্ষাত করে এবং প্রস্তাবনা নিয়ে আলোচনা করেন। উক্ত প্রস্তাবনার আলোকে জেলা প্রশাসক বলেন,এইটি একটি মহৎ উদ্দ্যেগ।এই ধরনের মহতী উদ্দ্যেগের জন্য অত্র সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দকে আমি অভিনন্দন জানাই।আমি আশা করব অত্র সংগঠন দেশ ও জনগনের কল্যানে কাজ করে যাবে।এই সাক্ষাত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলার মহাসচিব ও উত্তর জেলা কৃষকলীগের সহ সভাপতি মোঃ ফজলুল ইসলাম ভূইয়াঁ,মহানগরের মহাসচিব ও আওয়ামীলীগের পেশা জীবীলীগের নেতা মোঃ তছলিম কাদের চৌধুরী,সিঃ ভাইস চেয়ারম্যান ও গাউসিয়া কমিটির পাহাড়তলী শাখার সভাপতি ইদ্রিস মোঃ নুরুল হুদা,মহিলা বিষয়ক সচিব ও মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের নেত্রী শিরিন আক্তার,প্রচার ও প্রকাশনা সচিব সুজন আচ্যার্য,নিউজ একাত্তরের সাংবাদিক মোঃ সোহেল,আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ শফিকুর রহমান,মোঃ ইরফান চৌধুরী,মোঃ আরাফাত প্রমূখ।
ভালো-মন্দ খুঁজে পেতে বিতর্কের বিকল্প নেই : অনুপম সেন
১১এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেছেন,শিক্ষার্থীদের জীবনে সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য বিতর্ক সঠিক পথ বাছাই করতে সহায়তা করে। ভালো, মন্দ খুঁজে পেতে বিতর্কের বিকল্প নেই। পিইউডিএস ধারাবাহিকভাবে বিতর্কের যে চর্চা করে যাচ্ছে, তা নিঃসন্দেহে সমাজে একটি ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। গতকাল ১০ এপ্রিল নগরীর প্রবর্তক মোড়স্থ প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ভবনে উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেনের সাথে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি-পিইউডিএস-এর বিতার্কিকরা সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হলে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি যুক্তি হোক তীক্ষ্নধার, চেতনা হোক সমতার স্লোগান সামনে রেখে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অব ডিবেটের আয়োজনে ২৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২টি দলের অংশগ্রহণে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় পিইউডিএস রানার আপ হওয়ায় এই পিইউডিএস-এর বিতার্কিকরা উপাচার্যের সাথে সাক্ষাত করেন। বিতার্কিকদের মধ্যে ছিলেন পিইউডিএস-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক তাসনিয়া আল সুলতানা, সভাপতি কাজী নুরুল হক, সহ-সভাপতি রাজর্ষি ধর রাজ, সাধারণ সম্পাদক মার্সেল অনিক হালদার প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন পিইউডিএস-এর মডারেটর সঞ্জয় বিশ্বাস, সাইফুদ্দিন মুন্না এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর (স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার) পঙ্কজ বিশ্বাস প্রমুখ। উল্লেখ্য, উক্ত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় পিইউডিএস-এর সভাপতি কাজী নুরুল হক শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক নির্বাচিত হন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ন্যায়কে অর্জন ও অন্যায়কে বর্জন করাই হজের মূল শিক্ষা : মেয়র
১০এপ্রিল,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেছেন, হজ এমন একটি এবাদত যা মানুষ সহজে করতে পারে না। শারীরিক ও আর্থিক উভয় শক্তি দিয়ে এই এবাদত পালন করতে হয়। যাদের হজ কবুল হবে তাদের পুরস্কার পরকালীন বেহেস্তই হবে বলে আল্লাহ ঘোষণাও দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, হজ থেকে ফিরে এসে ন্যায়কে অর্জন করতে হবে আর অন্যায়কে বর্জন করতে হবে তাহলেই আমাদের হজ কবুল হয়েছে মর্মে বুঝা যাবে। গত সোমবার রাতেচান্দগাঁও আবাসিক এলাকা কল্যাণ সমিতি বি ব্লক মাঠে অনুষ্ঠিত কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পবিত্র ওমরাহ হজ পালনকারীদের প্রশিক্ষণ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র উপরোক্ত কথা বলেন। সমিতির সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী অধ্যাপক মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্যানেল মেয়র বেগম জোবাইরা নার্গিস খান, চান্দগাঁও ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন খালেদ সাইফু, কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ হাসান মাহমুদ চৌধুরী সিআইপি, বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক ওমর ফারুক, আলহাজ সোলায়ম আলম শেঠ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহম্মদ, সমিতির সহসভাপতি আলহাজ ইউসুফ সিকদার, আহসানুল করীম, আলহাজ নুরুল আমীন, মাওলানা মহিউদ্দিন, মাওলানা সলিমুল্লাহ হাবীবি, মাওলানা অলী উল্লাহ, সালাহ উদ্দিন, আলহাজ ফজলে আহাদ প্রমুখ। হাসান মাহমুদ চৌধুরী বলেন, পদ-পদবি ও অবস্থানগত পার্থক্য মানুষের মধ্যে যে অদৃশ্য দেয়াল তৈরি করে, হজের মাধ্যমে তা দূর হয়। তাই হজকে মানবতার প্রশিক্ষণ বলা যায়। উল্লেখ্য, আজ ১০ এপ্রিল ও কাল ১১ এপ্রিল কাশেম নূর ফাউন্ডেশনের সার্বিক ব্যবস্থাপায় চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার ১৬০ জন ওমরা পালনের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম ত্যাগ করবেন।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চট্টগ্রাম নগরীতে পহেলা বৈশাখে ৪ স্তরের নিরাপত্তা
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: আগামী ১৪ এপ্রিল উদযাপন হবে বাঙালির প্রাণের মেলা পহেলা বৈশাখ। বৈশাখ ঘিরে প্রতি বছরের মতো এবারো নগরীর ডিসি হিল ও সিআরবিতে পৃথকভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়েছে। এছাড়া পতেঙ্গাসহ আরও কিছু জায়গায় ছোট পরিসরে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আযোজন করা হয়। নববর্ষ ঘিরে এর মধ্যে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। গতকাল দুপুরে দামপাড়াস্থ সিএমপি কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নগর পুলিশ কমিশনার মাহাবুবর রহমান পহেলা বৈশাখ উদযাপনের দিন চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। এ সময় তিনি পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে শেষ করার নির্দেশনা দেন। এছাড়া নিরাপত্তা সংক্রান্ত ঝামেলাগুলো খুশি মনে মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান পুলিশ কমিশনার। নগর পুলিশের চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কেমন হয়ে থাকে সে ব্যাপারে নগর পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) উপ কমিশনার আব্দুল ওয়ারিশ গতকাল বলেন, কোনো ভেন্যু ঘিরে সাধারণত চারস্তরের নিরাপত্তা সম্পর্কে যা বুঝায়- তারমধ্যে প্রথম স্তরটি হচ্ছে ভেন্যুর অভ্যন্তরের নিরাপত্তা, দ্বিতীয় স্তরটি ভেন্যুর অভ্যন্তরের নিরাপত্তার বহির্বেষ্টনী নিরাপত্তা, তৃতীয় স্তরটি থাকে ভেন্যুর প্রবেশ ও বহির্গমনে রাখা আর্চওয়ে গেটসহ পুলিশের নানা তল্লাশি কার্যক্রম। সর্বশেষ চতুর্থ স্তরটি ওই ভেন্যুর আশপাশ ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাধারণত ভেন্যুর খুব কাছে না আবার দূরেও না এমন জায়গায় দেয়া হয়ে থাকে।আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বলছে, বৈশাখের মঞ্চটির নিরাপত্তার বিষয়টি আগে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক নিশ্চিতের পর মঞ্চটি বুঝিয়ে দেওয়া হবে আয়োজকদের কাছে। অনুষ্ঠানস্থলের ভেতর নজরদারির জন্য ওয়াচ টাওয়ার ও কন্ট্রোল রুমের ব্যবস্থা থাকবে। যা দ্বারা সার্বক্ষণিক নজরদারি রাখা হবে। অনুষ্ঠান স্থলে প্রবেশ ও বহির্গমনের পথে থাকবে আর্চওয়ে। এছাড়া অনুষ্ঠানস্থলের প্রবেশের সময় পুলিশের তল্লাশি কার্যক্রমও থাকবে। সিএমপি কমিশনার সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, পহেলা বৈশাখ বাঙালির প্রাণের উৎসব। বৈশাখের এ আনন্দ যাতে বিষাদে রূপ না নেয় সেজন্য এ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। দর্শনার্থীদের মুখোশ পড়ে অনুষ্ঠানস্থলে না আসার পাশাপাশি ব্যাগ বহন না করার ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি। এছাড়া ভুভুজেলা, বাঁশি বাজনো নিষিদ্ধ বলে জানান পুলিশ কমিশনার। তিনি বলেন, গতবছর পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান পাঁচটা পর্যন্ত ছিল। এবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাখা হয়েছে।
চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে ইঞ্জিনবোট ডুবিতে নিখোঁজ দুইজনের লাশ উদ্ধার
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে ইঞ্জিনবোট ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ দুইজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলেন- মো. আকবর (৩৫) ও মো. হানিফ (৩৬)। মঙ্গলবার ভোরে ইপিজেড থানাধীন কর্ণফুলীর নেভাল বার্থ-১ এলাকায় ভাসমান অবস্থায় মরদেহ দুটি পাওয়া যায় বলে জানান বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল হুদা। নিহত আকবর জুলধা ইউনিয়নের ডাঙ্গারচর ১ নম্বর ওয়ার্ডের সিরাজ মেম্বারের বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে। আর হানিফ একই গ্রামের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শুক্কুর মেম্বারের বাড়ির আবদুল খালেকের ছেলে। নিহত আকবরের স্ত্রী, দুই কন্যা ও এক ছেলে এবং হানিফের স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। রবিবার রাতে সল্টগোলা ঘাটে থেকে ডাঙ্গারচর যাওয়ার সময় এ নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড ও ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে আসছিল। নৌকাডুবির ঘটনায় সাদিয়া টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেডের ম্যানেজার জুলধা ১০০ মেগাওয়াট পাওয়ার প্লান্টে কর্মরত শেরপুরের হাবিব (৩০) এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।
চট্টগ্রামে গ্রেপ্তারের পর বন্দুকযুদ্ধে হত্যা মামলার আসামি নিহত
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম মহানগর বাকলিয়া থানার কল্পলোক আবাসিক এলাকায় মঙ্গলবার ভোর ৪টায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক হত্যা মামলার প্রধান আসামির নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ। নিহত মো. সাইফুল (২৮) বাকলিয়া থানার সবুজবাগ আবাসিক এলাকার রফিক আহমদের ছেলে। সে বাকলিয়া এলাকায় সংগঠিত লোকমান হত্যা মামলার প্রধান আসামি। পুলিশ জানায়, স্থানীয় কিশোরদের কাছে বড়ভাই হিসেবে পরিচিত ছিল সাইফুল। গত ৬ এপ্রিল শনিবার নগরীর বাকলিয়া ও গোলপাহাড় এলাকার কিশোরদের দুই পক্ষের মধ্যে প্রেম সংক্রান্ত বিরোধ মেটাতে গিয়ে গভীর রাতে বাকলিয়ার খালপাড় এলাকায় গুলিতে নিহত হন এইচ এম লোকমান হোসেন। বাকলিয়া থানার ওসি প্রনব চৌধুরীর ভাষ্য, সোমবার ফটিকছড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে সম্প্রতি নিহত লোকমান হোসেন জনি হত্যার মামলার প্রধান আসামি সাইফুল ও জিয়া উদ্দিন বাবলুকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে সাইফুলের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাতে নগরীর কল্পলোক আবাসিক এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারে গেলে তাদের সহযোগীরা পুলিশের ওপর গুলি চালিয়ে আসামি ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ পাল্টা গুলি চালিয়ে সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করে। বন্দুকযুদ্ধে সাইফুল গুলিবিদ্ধ হলে তাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন, বলেন তিনি। ওসি বলেন, হত্যাকাণ্ডের শিকার লোকমান গোলপাহাড় এলাকার কিশোরদের কথিত বড় ভাই হিসেবে পরিচিত ছিল। অন্যদিকে বাকলিয়া এলাকার কিশোরদের কাছে বড় ভাই হিসেবে পরিচিত নিহত মো. সাইফুল।-ইউএনবি
অংকুর সোসাইটি গার্লস হাইস্কুলে পুরস্কার বিতরণী
৯এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটিস্থ অংকুর সোসাইটি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গত রোববার সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অংকুর সোসাইটি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক উপ পর্ষদের আহবায়ক সৈয়দ রফিকুল আনোয়ার। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম ও বিএফইউজের সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দি চিটাগাং কো. অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লি. এর সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক উপ পর্ষদের সদস্য মো. আলমগীর পারভেজ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কমিটির সদস্য সচিব ও প্রধান শিক্ষক লিলি বড়য়া। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন অংকুর সোসাইটির ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ সভাপতি মো. ইদ্রিস, সদস্য নুরুল ইসলাম মিনু, আলাউদ্দীন আলম, রাশেদুল আমিন, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের অভিভাবক সদস্য সৈয়দ শাহারিয়া পারভেজ, মো. শাহ আলম, শিপ্তী মহাজন, সাবেক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সাবেক পরিচালক মো. সাজ্জাদ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন যথাক্রমে সহকারি শিক্ষক শ্বেতা বড়ূয়া চৌধুরী ও কাজি সুলতানা ইয়াছমিন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমে মনোনিবেশ করতে হবে। কারণ মেধা মননের পূর্ণ বিকাশে সহশিক্ষা কার্যক্রমেরও গুরুত্ব রয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর