শুক্রবার, এপ্রিল ৩, ২০২০
কুয়াশা: শাহ আমানতে নামেনি ৩টি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট
৩০ডিসেম্বর,সোমবার,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঘন কুয়াশার কারণে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৩টি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট অবতরণ করতে পারেনি। সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) সকালে ফ্লাইটগুলো চট্টগ্রামে নামতে না পেরে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চলে যায়। বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক উইং কমান্ডার সারওয়ার ই জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, সকাল ৭টায় দোহা থেকে উড়ে আসা রিজেন্ট এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটি চট্টগ্রামে ঘন কুয়াশার কারণে অবতরণ করতে পারেনি। এরপর সেটি আকাশে আধঘণ্টা অবস্থান করে। পরে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চলে যায়। সকাল ৮টা ২২ মিনিটে দোহা থেকে আসা ইউএস বাংলার ফ্লাইটও নামতে না পেরে ঢাকা চলে যায়। ৮টা ২৬ মিনিটে মাসকাট থেকে আসে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ৭৮৭ ড্রিমলাইনার প্লেনটি। সেটিও ঢাকা চলে যায়। এদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে সকালের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটগুলো শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দেরিতে ছাড়বে বলে জানা গেছে।
ইউপি: ৭৪টি উপ নির্বাচন ও ৬টি সাধারণ নির্বাচন চলছে
৩০ডিসেম্বর,সোমবার,ষ্টাফ রিপোর্টার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের ৮০টি ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন পদে সাধারণ নির্বাচন ও উপ নির্বাচন চলছে। সোমবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোট বিকাল ৫টা পর্যন্ত একটানা চলবে। নির্বাচন কমিশনের সহকারী সচিব আশফাকুর রহমান জানান, ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান, সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য পদে সাধারণ নির্বাচন হচ্ছে। বাকি ৭৪টি ইউনিয়নে বিভিন্ন পদে উপ-নির্বাচন চলছে। সাধারণ নির্বাচন হচ্ছে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার মরিয়ম নগর ও স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া; ভোলার চরফ্যাশনের নূরাবাদ ও আহাম্মদপুর; কুমিল্লা সদর দক্ষিণের গলিয়ারা (উত্তর) ও গলিয়ারা দক্ষিণ ইউনিয়নে। আশফাকুর রহমান বলেন,সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য মোতায়েনসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা রয়েছে। এসব নির্বাচনের মধ্যে মাত্র দুটি ওয়ার্ডে ইভিএমে ভোট হচ্ছে। বাকিগুলোতে ব্যালট পেপারে ভোটগ্রহণ হচ্ছে।
দুর্নীতি রোধ করা গেলে উন্নত দেশের স্বীকৃতি পাবে বাংলাদেশ
৩০ডিসেম্বর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: দি ইনস্টিটিউট অব কস্ট এন্ড ম্যানেজমেন্ট একাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি) চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চ কাউন্সিলের উদ্যোগে গত ২৮ ডিসেম্বর ভিশন ২০৪১ এবং এসডিজি অর্জনের পথে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ শীর্ষক দিনব্যাপী সম্মেলন আগ্রাবাদস্থ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি। সম্মেলনের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজি এন্ড এঙচেঞ্জ কমিশন এর কমিশনার এবং আইসিএমএবি এর কোক্ষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. স্বপন কুমার বালা এফসিএমএ। বিশেষ অতিথি ছিলেন চেমা্বার প্রেসিডেন্ট মাহবুলল আলম, আইসিএমএবি এর চেয়ারম্যান আবুল কালাম মজুমদার ও আব্দুর রহমান খান । প্রধান অতিথি মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি বলেন, বাংলাদেশ সরকার ভিশন ২০৪১ এবং এসডিজি কে সামনে রেখে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে এবং এই ধারা অব্যাহত থাকলে ২০৪১ সালে জাতিসংঘ কর্তৃক উন্নত দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পাবে। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে, সম্মেলনে উপস্থাপন করা বিষয় ও আলোচনা এবং উপকরণ সমূহ অংশগ্রহনকারীদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করবে এবং আহরিত জ্ঞান তাঁদের নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি দেশ ও জাতির কল্যানে সর্বোত্তম সেবা প্রদানে সহায়তা করবে। বেঙ্মিকো গ্রুপের চিফ ফাইনানসিয়াল অফিসার মো. আলী নেওয়াজ এফসিএমএ এর পরিচালনায় বাংলাদেশে দুর্নীতি প্রতিরোধে প্রফেশনাল হিসাববিদগণের ভূমিকা শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি. এর এঙিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ গৃহ ঋণ সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডঃ সেলিম উদ্দিন। আবদুল আজিজ এফসিএমএ এর পরিচালনায় ব্যাংকিং সেক্টর এবং বাংলাদেশের অর্থনেতিক উন্নতির দক্ষতা শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইনফিনিটি গ্রুপের চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আলম । আলোচনায় অংশ নেন আকতার সানজিদা কাশেম, অধ্যাপক ড. মাহমুদ ওসমান ইমাম, আবুল কালাম মজুমদার, মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, মোঃ মামুনুর রশিদ, জহির উদ্দিন আহমেদ, মোহাম্মাদ আব্দুস সালাম, কাওসার আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা, শীর্ষস্থানীয় ব্যাংকার, বিভিন্ন বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রী এবং আইসিএমএবি এর মেম্বার ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
স্বামীর পর স্ত্রীর কাছ থেকে ৭৯৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার
২৯ডিসেম্বর,রবিবার,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চলতি ডিসেম্বর মাসের ৫ তারিখ মোঃ শাহ আলম কর্ণফুলি থানায় ৭৯৫০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে জেল হাজতে আছে। আর গতরাতে তার স্ত্রী অজিফা বেগম (৩৫) নগরীর কোতোয়ালী থানা পুলিশের হাতে আটক হলো ইয়াবা সহ৷ কোতোয়ালী থানার ওসি, মোঃ মহসিন একাত্তরকে জানিয়েছেন, গতকাল (২৮ ডিসেম্বর) রাত ১১ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানাধীন নতুন রেলওয়ে ষ্টেশন প্রবেশ মুখে হাতের বামপাশে ফুটপাতে শিপনের ভাসমান চা-পরটার দোকানের সামনে রাস্তার উপর থেকে অজিফা বেগমকে থানার অফিসার ও ফোর্স দ্বারা আটক করেন। এসময় আসামীর দেহ তল্লাশী করে তার ডান হাতে থাকা স্কুল ব্যাগ তল্লাশী করে ভিতর থেকে ৭৯৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারপূর্বক জব্দ করা হয়। আটকের পর আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে সে ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো কক্সবাজার জেলার সদর এলাকা হইতে পাইকারী ভাবে সংগ্রহ করে গাজীপুরের মোঃ আবীর (৩৫) এর কাছে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে ট্রেনযোগে গাজীপুর যাওয়ার জন্য ঘটনাস্থলে অবস্থান করছিল বলে স্বীকার করে। আসামী অজিফা বেগম (৩৫), বগুড়ার সারিয়াকান্দি থানার বাসিন্দা৷ তার পিতার নাম মুক্তার হোসেন এবং স্বামী মোঃ শাহ আলম৷ অজিফা বর্তমানে গাজীপুরের টঙ্গি থানায় বসবাস করছে বলে জানা গেছে৷
শীতার্তদের পাশে লায়ন্স ক্লাব প্লাটিনাম
২৯ডিসেম্বর,রবিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর আলকরণের একটি কমিউনিটি সেন্টারে গতকাল শনিবার লায়ন্স ক্লাব অব চট্টগ্রাম প্লাটিনামের উদ্যোগে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ক্লাব প্রেসিডেন্ট লায়ন এম এ কাশেম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন লায়ন জেলা ৩১৫ বি-এর প্রথম ভাইস জেলা গভর্নর লায়ন ডা. সুকান্ত ভট্টাচার্য্য। বিশেষ অতিথি ছিলেন দ্বিতীয় ভাইস জেলা গভর্নর লায়ন আল-সাদাত দোভাষ। ক্লাব কোর্ডিনেটর ও রিজিয়ন চেয়ারপার্সন লায়ন আব্দুল্লাহ আল হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা কেবিনেট সেক্রেটারী লায়ন জি কে লালা, কেবিনেট ট্রেজারার লায়ন আশরাফ-উল-আলম আরজু, জোন চেয়ারপার্সন (ক্লাব) লায়ন আবু বক্কর সিদ্দিক, গভর্নর অ্যাডভাইজার লায়ন ডা. শ্যামল বৈদ্য, লায়ন ইঞ্জিনিয়ার দীপঙ্কর সেনগুপ্ত, ক্লাবের চার্টার্ড প্রেসিডেন্ট লায়ন কে এম মাহাবুবুর রহমান আলমগীর, সদ্য প্রাক্তন ক্লাব প্রেসিডেন্ট লায়ন আব্দুল্লাহ আল আহাদ, ক্লাব সেক্রেটারী প্রবীর কুমার দত্ত সাজু, ক্লাব ট্রেজারার চিরঞ্জীব চৌধুরী বিজু, লায়ন ফরিদ মজুমদার, লায়ন এম ডি নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, লায়ন অ্যাডভোকেট প্রতাপ পাল। অনুষ্ঠানের কো-অর্ডিনেটর ছিলেন ফারুক আহমেদ। এতে প্রায় ৩শ শীতার্ত ও অসহায় মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি
সাংবাদিকদের জন্য ফ্ল্যাট তৈরীর ঘোষনা মেয়রের
২৮ডিসেম্বর,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: আগামিতে মেয়র নির্বাচিত হলে চট্টগ্রামের সাংবাদিকদের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিত্বে শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং এলাকায় আবাসন বঞ্চিত সাংবাদিকদের জন্য ফ্ল্যাট তৈরী করবেন বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি বলেছেন, বিভিন্ন সময়ে নিজের কর্মকান্ড নিয়ে গণমাধ্যমে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশিত হলেও এ নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে কখনো কৈফিয়ত চাইনি। আজ শনিবার ২৮শে ডিসেম্বর চট্টগ্রাম মহানগরীর শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটি চত্বরে ফ্ল্যাট ব্লক কাম শপিং ও কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মেয়র বলেন, আমাকে যখন সাংবাদিক হাউজিং এলাকার নাগরিক সুযোগ-সুবিধা নিয়ে জানানো হয় আমি চেষ্টা করেছি সহযোগিতা করার জন্য। এটা এখন সমাধান হয়েছে। এখন এখানে ভবন নির্মাণ করতে হবে। সিটি নির্বাচন সন্নিকটে। আমি জানি না, হয়তো দল বিবেচনা করবে, মনোনয়ন কাকে দেবেন না দেবেন। তারপর জনগণের উপর নির্ভর করে, উনারা কাকে রায় দেবেন। তিনি বলেন, যদি আমি মেয়র নির্বাচিত হই, তাহলে আমি সাংবাদিকদের জন্য ফ্ল্যাট নির্মাণকে অগ্রাধিকার দেব, কাজটি করবো। সংগঠনের পরিচালক মহসীন কাজীর সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক কো আপারেটিভ হাউজিং সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজের সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেসসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটির সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, প্রবীণ সাংবাদিক মাঈনুদ্দিন কাদেরী শওকত, শামসুল হক হায়দরী, প্রকল্পের কনসালট্যান্ট, রাশিয়ার অনারারি কনসাল ও সিডিএর বোর্ড সদস্য স্থপতি আশিক ইমরান, মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু ও সুখময় চক্রবর্তী প্রমুখ। এসময় অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক কোঅপারেটিভ হাউজিং সোসাইটির সাবেক সভাপতি অঞ্জন কুমার সেন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি কাজী আবুল মনসুর, বিএফইউজের সাবেক সদস্য মোহাম্মদ ফারুক, হামিদ উল্লাহসহ সিনিয়র সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, আমি সাংবাদিকবান্ধব একজন মানুষ। আমার সাথে সাংবাদিকদের আত্মার বন্ধন ছিল, এখনো আছে। আমি বিশ্বাস করি, যেখানে থাকি যে অবস্থাতেই থাকি না কেন এটি আমৃত্যু থাকবে। পৃথিবীতে যতদিন বেঁচে থাকবো এই সম্পর্কটা ততদিন থাকবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে কারো পক্ষে নয়, আবার বিপক্ষেও নই। আমি সাংবাদিক মাত্রই সবাইকে সম্মান করার পক্ষপাতী। সবার সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখার পক্ষপাতী। মেয়র বলেন, আমি যেহেতু রাজনীতি করছি, আমাকে নিয়ে আলোচনা থাকবে, সমালোচনা থাকবে, পর্যালোচনা থাকবে, এটা বাস্তব। জীবনে অনেক কঠিন সময়ের মুখোমুখি হয়েছি। কিন্তু আমি কাউকে কখনো জিজ্ঞেস করিনি, এই নিউজটি আপনি কেন করলেন, কী কারণে করলেন? কোন কিছু বলিনি। উনি করেছেন উনার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে, ভালো-মন্দ যাই হোক আমার বিপক্ষে গেছে। কিন্তু আমি কিছু বলি না। আমি সবার সাথে সুসম্পর্ক রাখার চেষ্টা করি। পরে মেয়র শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং এলাকায় আবাসন বঞ্চিত সাংবাদিকদের জন্য ফ্ল্যাট ব্লক কাম শপিং ও কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন, ফলক উন্মোচন ও উদ্বোধন করেন। এসময় মোনাজাত পরিচালনা করেন শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং জামে মসজিদের খতির মাওলানা নজরুল ইসলাম আশারফী।
কিডস কেয়ার গ্রামার স্কুলের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন
২৮ডিসেম্বর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাঁশখালী পুকুরিয়া চৌমুহনীস্থ কিডস্ কেয়ার গ্রামার স্কুলের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ ও ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠান ২০১৯ আজ ২৮ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১১টায় সম্পন্ন হয়। স্কুলের পরিচালক, বিশিষ্ট আয়কর আইনজীবী জরজিস আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রফেসর ড. সানাউল্লাহ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন আয়কর আইনজীবী কে.এম নজমুল হক সিকদার, এডভোকেট সুমন ধর। অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন স্কুলের পরিচালক এডভোকেট মফিজুর রহমান, নাছির উদ্দিন, গিয়াস উদ্দিন, মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, আনছার উদ্দিন, সমাজ সেবক মোহাম্মদ শামাউন চৌধুরী, মোহম্মদ আনোয়ার, রুহুল আমিন। অনষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন অধ্যক্ষ এম মহিউদ্দিন ও শিক্ষক বখতেয়ার হোছাইন। প্রধান অতিথি ছিলেন প্রফেসর ড. সানাউল্লাহ চৌধুরী বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হবে আনন্দময় স্থান। তবেই শিক্ষার্থীরা স্কুলে থাকবে, ফলাফল ভালো করবে। গ্রামের শিক্ষার্থীরা প্রাকৃতিক পরিবেশে বড় হয়, চারদিকে সবুজ প্রান্তর, বৃক্ষ তরুলতায় ঘেরা গ্রামের আবাস, তা সত্ত্বেও প্রকৃত জ্ঞানার্জন, শিক্ষার হার ও ভালো ফলাফলের দিক থেকে এখন শহর এগিয়ে। তিনি বলেন, একসময় গ্রামের ছেলেরা ফলাফলের দিক থেকে পিছিয়ে ছিল না। তবে গ্রামে শিক্ষার হার কম ছিল, কারণ অতীতে বেশিরভাগ অভিভাবক মেয়েদের স্কুলে দিত না। ফলে গ্রামের অর্ধেক জনগোষ্ঠী নিরক্ষরই থেকে যেত। আজ সেই অবস্থা নেই, অভিভাবকদের মনোভাব অনেক পরিবর্তন হয়েছে, মেয়েরা দল বেঁধে স্কুলে যাচ্ছে। কিন্তু সন্তানের পড়াশুনায় যে পরিবেশ দরকার, উৎসাহ-উদ্দীপনা ও তদারকি দরকার তা পাচ্ছে না। এ কারণে পরীক্ষার ফলাফল আশানুরূপ হয় না। ভালো ফলাফল ও শিক্ষার অগ্রগতিতে অভিভাবকদের অধিকতর সচেতনতা প্রয়োজন। তিনি বলেন, সন্তান পড়ার সময় পড়ে কিনা, খেলার সময় খেলে কিনা দেখা প্রয়োজন। আড্ডা দেয়া, পাড়া-মহল্লায় ঘুড়ে বেড়ানো, সময় নষ্ট করা থেকে বিরত করা অভিভাবকের কাজ।
উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট দিন:মোছলেম উদ্দীন আহমদ
২৮ডিসেম্বর,শনিবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোছলেম উদ্দীন আহমদ বলেছেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ উপ-নির্বাচনে আপনাদের সহযোগিতা চাই, দোয়া চাই এবং আমাকে ভোট দেওয়ার আহবান জানাই। আপনারা জানেন এই নির্বাচন বোয়ালখালীবাসীর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বোয়ালখালী ছিল সবচেয়ে সমৃদ্ধ এলাকা, উচ্চ শিক্ষার জন্য এক সময় বোয়ালখালী কানুনগোপাড়া স্যার আশুতোষ কলেজে আসতো সবাই। কিন্তু আজ আমরা সর্বক্ষেত্রে পিছিয়ে আছি, আগে যারা সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন তারা সবাই শহর এলাকার মানুষ ছিলেন। মঈনুদ্দিন খান বাদল সাংসদ হওয়ার পর বোয়ালখালীতে কিছু কিছু কাজ হয়েছে, কিন্তু আরো অনেক কাজ বাকি রয়ে গেছে। এ অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে আপনারা নৌকায় ভোট দিন। তিনি আজ ২৮ ডিসেম্বর শনিবার শাকপুরা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বোয়ালখালী মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মিলন মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ১৯৭৩ সালের পর থেকে এখানে কোন আওয়ামী লীগের এমপি ছিল না, এবার সুযোগ তৈরি হয়েছে এবং বোয়ালখালীবাসীর জন্য এটা একটা পরীক্ষা। এখানে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও অন্যান্য দলের সমর্থকও থাকতে পারে, সবার মনে দেশপ্রেম অবশ্যই আছে এবং তারা উন্নয়ন চাই। আমি যখন এমপি ছিলাম না তখনও বোয়ালখালীর জন্য অনেক কাজ করেছি, যার মধ্যে বোয়ালখালী পৌরসভা প্রতিষ্ঠা, বোয়ালখালীতে গ্যাস লাইন স্থাপন। এছাড়াও আরো অনেক প্রকল্পের মাধ্যমে এ এলাকায় উন্নয়ন হয়েছে। তিনি উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে ১৩ জানুয়ারি উপ-নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহবান জানান। বোয়ালখালী মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মো: হারুন মিয়ার সভাপতিত্বে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মিলন মেলায় বক্তব্য রাখেন, বোয়ালখালী সহকারি কমিশনের ভূমি একরামুল ছিদ্দিক, সারোয়াতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ বেলাল হোসেন, বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এস এম জহিরুল আলম জাহাঙ্গীর, চেয়ারম্যান মোঃ মোকারম , পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহবায়ক জহুরুল ইসলাম জহুর, বীর মুক্তিযোদ্ধা বন গোপাল দাশ, শরৎ চন্দ্র বড়ুয়া, বেলাল মিয়া চৌধুরী, আবুল বশর ফারুকী, সাহাব মিয়া, মোঃ ইসমাইল, আহমদ হোসাইন, আবদুর রশীদ, মোঃ ইদ্রিচ, আলতাপ হোসেন, মোঃ শামশুল আলম, শিবু শীল, নুর মোহাম্মদ, ডিজিএম রফিকুল আজাদ, পরিচারক আশরাফুল ইসলাম কাজল, মো: সামশুদ্দিন প্রমুখ। এর আগে তিনি ৪ নং চান্দগাঁও ওয়ার্ডে ছাত্র ও যুব সমাজ কর্তৃক আয়োজিত গণ-সংযোগ ও পথ সভায় বক্তব্য রাখেন, এ সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আইন বিষয়ক সম্পাদক এড: মির্জা কছির উদ্দিন, শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন এমরান, কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন, সাবেক ছাত্রনেতা এম আর আজিম প্রমুখ।
চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে টিকিটসহ এক কালোবাজারি আটক
২৮ডিসেম্বর,শনিবার,কমল চক্রবর্তী,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: রেলওয়ের টিকিট কালোবাজারির ঘটনা নতুন নয়। প্রতিনিয়তই রেলের টিকিট চলে যায় কালোবাজারিদের হাতে, যাত্রীদের টিকিট কিনতে হয় দ্বিগুন দামে টিকিট নিয়ে যাত্রীদের ভোগান্তিরও শেষ নেই। সম্প্রতি টিকিট কালোবাজারি মুক্ত করার ঘোষণা দেয়া হয়।এরই ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রাম নতুন রেলওয়ে স্টেশনে বিভিন্ন আন্ত:নগর ট্রেনের ১১টি আসনের ৮টি টিকিটসহ মো. মিজানুর রহমান (৩৮) নামে এক কালোবাজারিকে গ্রেফতার করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ের নিরাপত্তাবাহিনী (আরএনবি)। আজ শনিবার ২৮শে ডিসেম্বর দুপুর ১:৩০ মিনিটের সময় চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আটককৃত মোঃ মিজানুর রহমান বি-বাড়িয়া জেলার কসবার নেমতাবাদ এলাকার মোঃ আবু তাহেরের ছেলে। বাংলাদেশ রেলওয়ের নিরাপত্তাবাহিনী (আরএনবি)এর সহকারী উপ-পরিদর্শক মো. শওকত হোসেন সজল জানান, মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনের দুটি, চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনের দুটি ও তূর্ণা এক্সপ্রেসের ৪টি ট্রেনের ১১টি আসনের টিকিটসহ ওই কালোবাজারিকে হাতে নাতে গ্রেফতার করা হয়। আরএনবির পরিদর্শক আমান উল্লাহ আমান জানান, আটককৃত টিকিট কালোবাজারিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। কালোবাজারি রোধে আরএনবির বিশেষ টিম কাজ করছে এবং আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর