সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০
করোনা: চট্টগ্রামে নতুন আক্রান্ত ২২০
০৫জুলাই,রবিবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ২২০ জনের। মৃত্যুবরণ করেছেন দুই জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৯ জন। এ নিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯ হাজার ৮৮৮জন। এদের মধ্যে নগরে ১৬২ জন এবং উপজেলায় ৫৮ জন। রোববার (৫ জুলাই) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রামের ৫টি ল্যাব ও কক্সবাজার ল্যাবে মোট ১ হাজার ৫০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাবে ৫১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১০ জন করোনা পজেটিভ রোগী শনাক্ত হয়। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ১৪১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় আরও ১৪ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৪৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৯৩ জন করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) ২০৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ২০ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। এছাড়া এইদিন বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের রিপোর্ট পাওয়া না গেলেও শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ২০৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ৮৩ জন শনাক্ত হয়। অন্যদিকে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজে চট্টগ্রামের তিনটি মাত্র নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে কারও শরীরে করোনা পজেটিভ পাওয়া যায়নি। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৫০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নতুন আক্রান্ত হয়েছে ২২০ জন।
নকল স্যানিটাইজার বিক্রি, জরিমানা ৮৫ হাজার
০৫জুলাই,রবিবার,শারমিন আকতার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হেক্সিসল এবং অনুমোদনহীন ও সরকারি ওষুধ বিক্রির দায়ে ৫টি ফার্মেসিকে ৮৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার (৫ জুলাই) নগরের অক্সিজেন এলাকায় ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের সহায়তায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে এই জরিমানা আদায় করেন। এতে নেতৃত্ব দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হাসান। অভিযানে অংশ নেন ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের তত্বাবধায়ক মো. কামরুল হাসান। অভিযানে ড্রাগ আইন লঙ্ঘনের দায়ে কিউর অ্যান্ড কেয়ার ফার্মেসিকে ৩০ হাজার, বিসমিল্লাহ ফার্মেসিকে ২০ হাজার, হাফসা হানিফ মেডিক্যালকে ১৫ হাজার, আল মাশাফি ফার্মেসিকে ১৫ হাজার এবং ইকবাল ফার্মেসিকে ৫ হাজার টকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ব্যবসা পরিচালনা করায় অক্সিজেন এলাকার ৩ জন খুচরো বিক্রেতাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
নগর জুড়ে ৫০ হাজার গাছের চারা রোপণ করা হবে: মেয়র
০৫জুলাই,রবিবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর ৪১ ওয়ার্ড জুড়ে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি বাস্তবায়নের আওতায় ৫০ হাজার গাছের চারা বিতরণের উদ্যোগ হাতে নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। আজ ০৫ জুলাই সকালে মিউনিসিপাল সিটি কর্পোরেশন মডেল হাই স্কুল মাঠে কর্মসূচি উদ্বোধন করেছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এসময় তিনি স্কুল মাঠে একটি আম গাছের চারা রোপন করেন। মেয়র শিক্ষার্থীদের হাতে একটি করে গাছের চারা তুলে দেন। এসময় সিটি মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম, বন ও বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তা মইনুল হোসেন আলী চৌধুরী, স্থপতি আবদুল্লাহ আল ওমর, মিউনিসিপাল হাই স্কুল প্রধান শিক্ষক শাহেদুল কবির, আহমদ হোসেন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা এস এম মামুনুর রশীদসহ স্থানীয় হকার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
কুরুচিপূর্ণ ভিডিও ধারণ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার ০১
০৪জুলাই,শনিবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড থানাধীন উত্তর বাজার সংলগ্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে কুরুচিপূর্ণ ভিডিও ধারণ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের অভিযোগে গোলাম মোক্তাদি(২৩)কে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা(উত্তর) বিভাগ। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মুহাম্মদ আলী হোসেন এর সার্বিক দিক নির্দেশনায় অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার আসিফ মহিউদ্দীন এর তত্ত্বাবধানে পুলিশ পরিদর্শক মোঃ মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের সাইবার ক্রাইম টীম চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড থানাধীন উত্তর বাজার সংলগ্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে কুরুচিপূর্ণ ভিডিও ধারণ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের অভিযোগে গোলাম মোক্তাদি(২৩)কে গ্রেফতার করেন। গত ০৬ মাস পূর্বে চট্টগ্রামের জিইসি মোড় সংলগ্ন একটি কন্সট্রাকশন ফার্মে চাকুরীসূত্রে গ্রেফতারকৃত আসামী গোলাম মোক্তাদি চট্টগ্রামে আসে। পরবর্তীতে সে নিজস্ব মোবাইলের মাধ্যমে বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করে গোপনে নগরীর জিইসি, বাওয়া স্কুল, সেন্ট্রাল প্লাজা, সী বীচ সহ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় চলাচলরত মহিলাদের কুরুচিপূর্ণ ভিডিও ধারণ করে এবং তা ফেসবুক পেইজে কুরুচিপূর্ণ ক্যাপশন সহ আপলোড করে। গোলাম মোক্তাদিরের এ ধরনের কার্যক্রমের প্রেক্ষিতে অভিযোগের ভিত্তিতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের সাইবার ক্রাইম টীম চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড থানাধীন উত্তর বাজার সংলগ্ন এলাকা থেকে গোলাম মোক্তাদি(২৩)কে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতার পরবর্তী জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। এসময় তার কাছে থাকা ল্যাপটপ, মোবাইল ও পেনড্রাইভ এরকম শতাধিক ভিডিও সহ জব্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে।
সিটিজি ক্রাইম টিভির চট্টগ্রাম অফিসে যড়যন্ত্রমূলকভাবে তালা ভাঙচুর
০৪জুলাই,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কে বা কারা অফিসের দুটি তালা ভেঙে ফেলেছে। স্বরযন্ত্র করে দুর্বৃত্তরা সিটিজি ক্রাইম টিভির চট্টগ্রাম অফিসের তালা ভেঙে ফেলেছে। চট্টগ্রামের এক ব্যক্তি চট্টগ্রামে অবস্থিত সিটিজি ক্রাইম টিভির অফিসের তালা ভাঙা অবস্থায় দেখা যায় বলে সিটিজি ক্রাইম টিভির চেয়ারম্যানকে জানানো হয়। উল্লেখ্য, বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে গত চার মাস যাবৎ অফিস বন্ধ রাখা ছিল এবং জমিদারকে মৌখিকভাবে এ বিষয়ে জানানো হলে, তারা এ বিষয়ে কিছু জানে না বলে জানান। অফিসের তিনটি রুমের দুই রুমের চাবি বাড়িওয়ালা/জমিদারকে দেয়া হলেও সিটিজি ক্রাইম টিভির চট্টগ্রাম অফিসের এই রুমের তালার চাবি দেয়া ছিল না। অফিসের ভেতরের কিছু হারালে বা কোন অবৈধ বা অনৈতিক কার্যক্রম সাধিত হলে সিটিজি ক্রাইম টিভি এর দায় ভার নেবে না। বাড়িওয়ালা/জমিদার এ কাজ করেছে বলে সন্দেহ করছেন সিটিজি ক্রাইম টিভির চেয়ারম্যান আজগর আলী মানিক। এ বিষয়ে চট্টগ্রাম থানায় ওসিকে অবহিত করা হয়েছে। এমন ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচতে এবং নিজেদেরকে আশু বিপদ থেকে রক্ষা পেতে ভবিষ্যতে আইনী সহায়তা গ্রহণ কার্যক্রম অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি। জমিদারের কাছে চাবি দেয়া ছিল। তবে এই রুমের চাবি জমিদার /বাড়িওয়ালাকে দেয়া হয় নাই। কিন্তু চার মাস আগে মৌখিক ভাবে অফিস বন্ধ রাখার কথা জানানো হয়েছিল। তালা ভাঙার পর এখন কোন প্রকার ক্ষতি, চুরি, অন্যায়, অনৈতিক কার্য সাধিত হলে এর দায়ভার বাড়িওয়ালা/জমিদারকে নিতে হবে। দায়ভার প্রতিষ্ঠান নেবে না। আদেশক্রমে সিটিজি ক্রাইম টিভি চেয়ারম্যান আজগর আলী মানিক ও চট্টগ্রাম ব্যুরো দীপু তালুকদার। সূত্র: সিটিজি ক্রাইম টিভি
চবিতে লকডাউন শুরু
৪জুলাই,শনিবার,চবি প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ক্যাম্পাসে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ১৪ দিনের জন্য লকডাউন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো প্রশাসনিক কার্যক্রমও চলবে না। শনিবার (৪ জুলাই) সকাল থেকে এই লকডাউন কার্যকর করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান। রেজিস্ট্রার জানান, ক্যাম্পাসে করোনাভাইরাসের দ্রুত সংক্রমণের আশংকায় ৪ জুলাই থেকে ১৭ জুলাই পর্যন্ত ১৪ দিন চবি ক্যাম্পাস সর্বাত্মক লকডাউন করা হয়েছে। এ সময়ে চবি জরুরি প্রশাসনিক কার্যক্রম নগরের চারুকলা ইনস্টিটিউট অফিস হতে পরিচালিত হবে। বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সদস্যবৃন্দের সঙ্গে জরুরি আলোচনা শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। উল্লেখ, গত সপ্তাহে উপাচার্য দপ্তরের ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর করোনায় আক্রান্ত হন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নম্বর গেইট সংলগ্ন কর্মচারীদের আবাসিক এলাকা শোভা কলোনীতে দুই জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর পরই ক্যাম্পাস এলাকা লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৯৬৬৮ জন, নতুন ২৬৩
০৪জুলাই,শনিবার,শারমিন আকতার,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রামে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এরই মধ্যে শনাক্ত সংখ্যা অতিক্রম করেছে সাড়ে ৯ হাজার। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ২৬৩ জন। শনিবার (৪ জুলাই ) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রামের ৬টি ল্যাব ও কক্সবাজার ল্যাবে মোট ১ হাজার ২৩৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ল্যাবে ২১৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৬৩ জন করোনা পজেটিভ রোগী শনাক্ত হয়। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ২৬১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় আরও ১৭ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩৬৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ৮৭ জন করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) ১৩৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। এছাড়া বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ১৫৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৪ জন এবং শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৯৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫৪ জন শনাক্ত হয়। অন্যদিকে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজে চট্টগ্রামের একটি মাত্র নমুনা পরীক্ষা করলে সেটিও করোনা পজেটিভ পাওয়া যায়। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ২৩৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নতুন আক্রান্ত হয়েছে ২৬৩ জন। এ নিয়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৯ হাজার ৬৬৮জন। এদের মধ্যে নগরে ১৯৬ জন এবং উপজেলায় ৬৭ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৫ জন।
চট্টগ্রামে ছাত্রদল নেতা খুন: ৪ ভাই গ্রেফতার
০৩,জুলাই,শুক্রবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিং এলাকার ছাত্রদল কর্মী মীর ছাদেক অভি খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আপন চার ভাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় খুনের কাজে ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুর থেকে শুক্রবার (৩ জুন) ভোর রাত পর্যন্ত নগরীর আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল এলাকা, আকবরশাহ এলাকা ও হাটহাজারী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে ডবলমুরিং থানা পুলিশ। ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জহির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মো. ইব্রাহীম মুন্না (২৬), মো. শাহরিয়া ফারদিন (তুহিন ) (১৯ ), মো. ইয়াছিন আরাফাত (টিটু) (৩০) ও মো. ইরফান (বাবু) (২৩)। তারা ডবলমুরিং এলাকার হাজিপাড়ার মো. কামালের সন্তান। পুলিশ বলছে, গ্রেফতারকৃত চারজনের মধ্যে ইব্রাহিম মুন্না ছাড়া বাকী তিনজন মৃত্যুর আগে মীর ছাদেক অভির দায়েরকৃত মামলার এজহারভুক্ত আসামি। ইব্রাহিম মুন্না এজহারভুক্ত আসামি না হলেও ঘটনাস্থলে সেদিন সে উপস্থিত ছিল। গত ১৫ জুন রাত ১১ টায় ডবলমুরিংয়ের হাজীপাড়া মসজিদের পাশে ইমরানের রিকশার গ্যারেজের সামনের রাস্তার উপর ছাত্রদলকর্মী মীর ছাদেক অভিকে ছুরিকাঘাত করে জখম করলে এলাকার লোকজন তাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসা শেষে গত ২৪ জুন মীর ছাদেক অভি সুস্থ হয়ে তার দেওয়ানহাটের বাসায় চলে যায়। পরদিন ২৫ জুন নিজ বাসায় ভমি শুরু হলে তাকে ফের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় এবং একপর্যায়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক মীর ছাদেক অভিকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর পর মীর ছাদেক অভি ও নগর বিএনপি বলে আসছে- মাদক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় সেদিন গত ১৫ জুন ছাত্রদল কর্মী মীর ছাদেক অভিকে ছুরিকাঘাত করা হয়। ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জহির হোসেন বলেন, মীর ছাদেক অভি খুনের ঘটনায় ৪ জনকে নগরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা চারজনই আপন ভাই। ঘটনার সময় চারজনই ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল। অভির খুনে ব্যবহৃত ছুরিটিও উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতার পরবর্তী দুপুরে (শুক্রবার ৩ জুন) তাদের চারজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানায় পুলিশ কর্মকর্তা জহির হোসেন।
অন্ধের মতো সমালোচনা গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় সহায়ক নয়: তথ্যমন্ত্রী
০৩,জুলাই,শুক্রবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ করোনা মহামারির মধ্যে কোনো সংবাদকর্মীকে চাকরিচ্যুত না করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, করোনা মহামারির মধ্যে কোনো মানুষের চাকরিচ্যুতি অমানবিক। মালিকপক্ষকে বিষয়টি অনুধাবন করতে হবে। শুক্রবার (৩ জুলাই) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুত সাংবাদিকদের করোনাকালীন সহায়তার চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী এ আহ্বান জানান। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, কোভিড-১৯ জনিত পরিস্থিতিতে সাংবাদিকদের সহায়তা করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করলে তিনি আমাকে উদ্যোগ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। প্রথমে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে ২ কোটি ৩১ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছিলাম। এরপর তথ্য মন্ত্রণালয়ের অব্যয়িত অর্থ থেকে আরও ২ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। মোট ৪ কোটি ৩১ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা করে কারা সহায়তা পাবেন তারা নির্ধারণ করে দিয়েছেন। সাংবাদিক ইউনিয়নগুলোই তালিকা করেছেন। যারা ইউনিয়নের বাইরে আছেন তাদের জন্য ডিসির সুপারিশ নিয়ে অন্তর্ভুক্তের অপশন রাখা হয়েছে। প্রথম দফায় ১ হাজার ৫০০ সাংবাদিককে এ সহায়তার আওতায় আনা হয়েছে। সেখানে চট্টগ্রাম থেকে ২৫০ জন সাংবাদিক পাচ্ছেন। এবার যারা বাদ যাবেন তারা পরবর্তীতে পাবেন। সিইউজের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলামের সঞ্চালনায় চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে’র সহ-সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব আলী আব্বাস, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিশ্বের কোনো দেশ করোনা মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত ছিলো না। মানব সভ্যতার ইতিহাসে এ ধরণের কোন মহামারি মোকাবিলা করার ইতিহাস নেই। এতো ছোট ভাইরাস চোখেও দেখা যায় না। এ ভাইরাস ছড়িয়ে না দিয়ে মানব জাতিকে সুরক্ষা দিতে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রথম দিকে চীন করোনা ভাইরাসকে অস্বীকার করেছে। যে ডাক্তার করোনা ভাইরাস চিহ্নিত করেছেন, চীন সরকার তাকে গ্রেফতারও করেছ। সেই ডাক্তার শেষ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তিনি বলেন, ইউরোপের দেশগুলোতে মৃত্যুর মিছিল হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মানুষকে সুরক্ষা দিয়েছেন। শুরু থেকে ত্রাণ তৎপরতা চালু করেছেন। ত্রাণ অব্যাহত আছে। এখনও কোনো মানুষ না খেয়ে মারা যায়নি। ইমাম-মোয়াজ্জিন থেকে শুরু করে সবার কাছে সাহায্যের টাকা পৌঁছে গেছে। ৭ কোটি মানুষকে ত্রাণ দিয়েছে সরকার। সরকারের মন্ত্রী-এমপি সাধারণ মানুষকে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সার্বিকভাবে সরকার করোনায় মানুষের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি সহনীয় পর্যায়ে রাখতে সক্ষম হয়েছে দাবি করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশে মৃত্যুর হার ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে কম। তাই অন্ধের মত সমালোচনা না করে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। অনুষ্ঠানে ১৩৬ জন সাংবাদিককে করোনাকালীন সহায়তার চেক তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। এর বাইরেও এ সময় চট্টগ্রামের ২৫ জন সাংবাদিককে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের নিয়মিত সহায়তার চেক তুলে দেওয়া হয়েছে। করোনাকালীন সহায়তার চেকে প্রতিজনকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। আর বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট্রের চেকে চট্টগ্রামের ২৫ জন সাংবাদিক ৫০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা পর্যন্ত পেয়েছেন।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর