আকবরশাহ এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ওসমান গ্রেফতার
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নগরীর কোতোয়ালী থানায় দায়ের হওয়া একটি ছিনতাই মামলার আসামি ধরতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ল ১০ মামলার আসামী এক শীর্ষ সন্ত্রাসী মো. ওসমান মিয়া (২৯)। একইসঙ্গে গ্রেফতার করা হয়েছে তার এক সহযোগীকে। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকালে সংবাদ সম্মেলনে শীর্ষ সন্ত্রাসীকে তার এক সহযোগীসহ গ্রেফতারের বিষয়টি জানান চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পু্লিশের (সিএমপি) উপ-কমিশনার (দক্ষিণ)এসএম মেহেদী হাসান। গ্রেফতারকৃত দুইজন হলো-কুমিল্লার বাংগরা থানাধীন পূর্বধইর এলাকার মো. আবদুল খলিল মিয়া প্রকাশ খলিলুর রহমানের ছেলে মো. ওসমান মিয়া ওরফে ওসমান (২৯) এবং ফেনী জেলার দাগনভুঁইয়া থানাধীন দক্ষিণ করিমপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন -কাজলের ছেলে মো. আরিফ (১৯)। উভয়েই নগরীর আকবরশাহ এলাকায় থাকে। বুধবার ভোরে আকবরশাহ এলাকা থেকে তাদের দুইজনকে গ্রেফতার করে সিএমপির সহকারী কমিশনার (কোতোয়ালী জোন) নোবেল চাকমার নেতৃত্বে একটি টিম। উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান জানান, আটককৃত মো. ওসমান মিয়া আকবরশাহ এলাকার ত্রাস। তার বিরুদ্ধে থানায় ১০টির অধিক মামলা রয়েছে। আকবরশাহ এলাকায় ছিনতাই, জমি দখলসহ নানা অপরাধের সঙ্গে জড়িত ওসমান। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ছিনতাইয়ের সঙ্গেও জড়িত ওসমান ও তার সহযোগীরা। ওসমানের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, এক রাউন্ড গুলি, একটি ককটেল ও ১১টি রামদা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান এসএম মেহেদী হাসান। সংবাদ সম্মেলনে সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ)শাহ মোহাম্মদ আবদুর রউফ, সহকারী কমিশনার (কোতোয়ালী জোন) নোবেল চাকমা, কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন উপস্থিত ছিলেন।
সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই, সীমানা নেই: ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ
৩০সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাবেক মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেছেন, সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই, সীমানা নেই। সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সব রাষ্ট্রকে একযোগে কাজ করতে হবে। শেখ হাসিনার পিতা বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার মা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব, তিন ভাই এবং অন্য নিকটাত্মীয়দের ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ৩২ নম্বরের ধানমন্ডীর বাড়ীতে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। শেখ হাসিনা অনেকবার সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছে। আমি বঙ্গবন্ধুর সাথে রাজনীতি করেছি, তার কন্যা শেখ হাসিনার সাথে রাজনীতি করছি। বঙ্গবন্ধু এদেশের জন্য অনেক স্বপ্ন দেখেছেন এবং অনেক বাস্তবায়ন করেছেন। তিনি বিশ্বাস করতেন না কোন বাঙ্গালী তাকে হত্যা করবে। জার্মানীতে থাকার কারণে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা প্রাণে বেঁচে গেছেন। ১৯৮০-৮১ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সর্বসম্মতিক্রমে সভাপতি নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা। তখন লক্ষ জনতা তাকে অভ্যর্ত্থনা জানিয়েছন। তিনি খুজে পেয়েছেন বাঙ্গালী জাতির মধ্যে তার মা ও বাবাকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যাদুকরী নেতৃত্ব এবং একের পর এক সাহসী পদক্ষেপ কার্যত দেশকে এই অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির পথে নিয়ে গেছে। গতকাল প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত তৃণমূল এনডিএমের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গণতন্ত্রের মানস কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৭৪তম শুভ জন্মদিন উপলক্ষ্যে উন্নয়নের বাংলাদেশ এবং একজন শেখ হাসিনা শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, করোনা ভাইরাসকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা তা প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছি। বিভিন্ন উন্নত রাষ্ট্রগুলোর মৃত্যুর হারের চেয়ে আমাদের মৃত্যুর হার অনেক কম। আজ দেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। শেখ হাসিনার জন্মদিন আমাদের মাঝে আসবে। শেখ হাসিনা যাতে শত বছর বেঁচে থাকে তার জন্য দোয়া করছি। সভাপতির বক্তব্যে তৃণমূল জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (তৃণমূল এনডিএম) এর চেয়ারম্যান জননেতা খোকন চৌধুরী চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান দুই বারের সফল মন্ত্রীকে আবারো মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই উল্লেখ করে বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব যখন দেশে ক্রমে বেড়েই চলেছে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা। ঠিক এর শুরু থেকেই এ যুদ্ধের জন্য দেশবাসীকে প্রস্তুত করেছেন সরকার প্রধান শেখ হাসিনা। সংক্রমণ রোধে অর্থনৈতিক স্থবিরতা নেমে আসবে জেনেও, দীর্ঘ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে মানুষকে নিরাপদ করার প্রয়াসে নির্দেশ দেন ঘরে থাকার। অর্থনীতি থেকে শুরু করে পরিবর্তিত সামাজিক বাস্তবতায় সবকিছু থমকে দেয়ার বৈশ্বিক এই দুর্যোগেও বিরতিহীন যিনি শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন তিনি স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। অচেনা এই দুর্যোগের ধাক্কা সামাল দিতে সমাজের সব শ্রেণির জন্য রাষ্ট্রের তরফ থেকে প্রতিনিয়তই কিছু না কিছু বন্দোবস্ত করে চলেছেন তিনি। তৃণমূল এনডিএম চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা প্রবীণ সাংবাদিক কামরুল হুদা বলেন, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়ার অঙ্গীকার নিয়ে ক্ষমতায় এসে শেখ হাসিনা অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে গভীর সমুদ্রের তলদেশে অপটিক্যাল ফাইবার, মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, মোবাইল ব্যাংকিং, উপজেলা শহরে ব্যাংকের এটিএম বুথ, সহজলভ্য ইন্টারনেট সেবা ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন। তার ঘরে ফেরা কর্মসূচি ও নাগরিকদের আইডি কার্ড দেয়ার কর্মসূচি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। ইউনিয়ন তথ্যসেবা কেন্দ্র বাস্তবে রূপ দিয়েছেন। প্রধান বক্তার বক্তব্যে তৃণমূল জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (তৃণমূল এনডিএম) এর মহাসচিব মাওলানা আবদুল হান্নান বলেন, শেখ হাসিনার ডায়নামিক লিডারশিপ দেশকে অন্যন্য উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে। নারীর ক্ষমতায়নসহ অনেক বিষয়ে বিশ্বের বহু দেশের কাছে বাংলাদেশ এখন উদাহরণ। প্রাকৃতিক বিপর্যয়, ঝড়-বন্যা-খরা সামাল দেয়ার ক্ষেত্রেও তাই। দেশের উন্নয়ন, বেসরকারি খাতকে সহায়তা, অভ্যন্তরীণ রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ এবং বিরোধপূর্ণ বিশ্ব রাজনৈতিক পরিমন্ডলে বিদেশনীতিতে সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব এমন ক্যারিশম্যাটিক নেতৃত্ব খুব কম নেতাই দেখাতে পেরেছেন। বিশ্বের অধিকাংশ দেশেরই প্রতিবেশীর সঙ্গে বিরোধ ওপেন সিক্রেট। সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে রাশিয়া আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল ওয়াহাব লিটন বলেন, অর্থনৈতিক অগ্রগতি, অবকাঠামো নির্মাণ, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমন, ধর্মনিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা, বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসার কারণে বর্তমান সরকারের প্রতি মানুষের সমর্থন বেড়েছে। এ পর্যন্ত কোনো হামলা-হুমকি ও বাধা তাঁকে লক্ষ্যচ্যুত করতে পারেনি। অকুতোভয় সাহসী জননন্দিত শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ আজ সারাবিশ্বে উন্নয়নের মডেল। নাছির উদ্দিন আহমদ ও পারমিতা ঘোষের যৌথ পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থায়ী কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, মো. সোলায়মান, সাইফুল ইসলাম রায়হান, দিলীপ দাশ, ফরিদ আহমদ অমৃত, এডভোকেট আবদুল্লাহ বাগমার, রাখাল চন্দ্র দে। বক্তব্য রাখেন ভাইস চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, প্রণব চৌধুরী. মো. ফরিদুল আলম, যুগ্মমহাসচিব খোরশেদ আলম, প্রণব চক্রবর্তী, মোহাম্মদ আবু জাফর বাবু, মোখলেছিন আকতার, মেজবাহ উদ্দিন হিরণ, মাওলানা নাছির উদ্দিন শেখ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ফরিদা ইয়াসমিন, রুনা খানম, সুলতানা বেগম রুপা, শিল্পী আকতার, সাহিদুল আলম ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মো. ফয়সল আহমদ মজুমদার। এ সময় তৃণমূল এনডিএমের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে উপস্থিত ছিলেন, ফরিদ আহমদ, সদস্যসচিব নজরুল হক নুরু, বিভাগীয় সমন্বয়ক জসিম উদ্দিন, মোজাহারুল হক মুকুল, সদস্যসচিব রেজাউল করিম, জসিম উদ্দিন, নাছির উদ্দিন, শাহজালাল রাজন, দেলোয়ার হোসেন, কেন্দ্রীয় শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন কামাল, বরিশাল জেলার আহবায়ক মিলন হোসেন, ঢাকা মহানগর যুগ্ম-আহবায়ক গিয়াস উদ্দিন, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, মো. মশিউর রহমান, জয় দাশ, এ এইচ মোস্তফা কামাল, এ. জেড মোস্তফা কামাল, রাকিব হোসেন, মো. আবদুল জলিল, প্রমুখ। উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রীর ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে তৃণমূল এনডিএম চেয়ারম্যান খোকন চৌধুরীর পক্ষ থেকে দেশব্যাপি ২৭ হাজার ১০ টি বৃক্ষ বিতরণের জন্য ১০ টি বৃক্ষ বিতরণ করে বৃক্ষরোপন কর্মসূচির উদ্বোধন করেন সাবেক মন্ত্রী মোশাররফ হোসেন এমপি ও তৃণমূল এনডিএম চেয়ারম্যান খোকন চৌধুরী। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী শেষে পথশিশুদের ১০০ টি খাবার প্যাকেট বিতরণ করা হয়।
কাপ্তাই রাস্তার মাথায় টোকেনের নামে চাঁদাবাজি, আটক ২
২৯সেপ্টেম্বর,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে নগরীর চান্দগাঁও থানার কাপ্তাই রাস্তার মাথায় সিএনজি স্ট্যান্ড করে টোকেনের নামে চাঁদাবাজি করছিল একদল পরিবহন শ্রমিক নামধারী চাঁদাবাজ গ্রুপ। স্থানীয় থানা পুলিশ ও কতিপয় সরকার দলীয় রাজনৈতিক নেতাদের মাসোয়ারা দিয়েই অবৈধ স্ট্যান্ডে দৈনিক লাখ লাখ টাকার চাঁদাবাজি চলছিল। তবে এবার সেখানে থাবা দিয়েছে Rab। হাতে নাতে চাঁদাবাজ গ্রুপের দুইজনকে আটক করেছে। তবে মূলহোতা ইন্ধনদাতারা এখনও ধরা ছোঁয়ার বাইরে। Rab-7 এর মুখপাত্র সহকারি পরিচালক মাহমুদুল হাসান নিউজ একাত্তরকে জানান, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে Rab-7, চট্টগ্রাম জানতে পারে, কতিপয় চাঁদাবাজ চট্টগ্রাম মহানগরীর চান্দগাঁও থানার মোহরা কাপ্তাই রাস্তার মাথায় রেল গেইটের সামনে পাকা রাস্তার উপর সিএনজি, বাস, মালবাহী ট্রাকসহ অন্যান্য যানবাহন থেকে জোর পূর্বক গতিরোধ করে এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বলপূর্বক চাঁদা আদায় করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার বিকেলে Rab-7 এর একটি আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে। এসময় Rabর উপস্থিতি টের পেয়ে দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টকালে Rab সদস্যরা ধাওয়া করে রাঙ্গুনিয়ার শিলক মিনাগাজীর টিলার মুরাদ হোসেন (২৬) ও একই এলাকার কুমার পাড়ার মো. সুমনকে (২৭) আটক করে। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সামনে আটক দুজনই দীর্ঘদিন ধরে কাপ্তাই রাস্তার মাথা থেকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের কথা স্বীকার করেছে। পরে তাদের চান্দগাঁও থানায় হস্তান্তর করা হয়।
গণমানুষের মুখে হাসি ফুটানো সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা
২৮সেপ্টেম্বর,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেছেন, মহাকালের মহানায়ক স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা বিনির্মাণের যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলেন তার সুযোগ্য কন্যা দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমানুষের মুখে হাসি ফুটানো এক সফল রাষ্ট্রনায়ক। তার সৃষ্টিশীল চিন্তা ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের শিক্ষা, চিকিৎসা, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিল্পায়ন, অর্থনীতি, তথ্য-প্রযুক্তির আধুনিকায়ন, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন ইত্যাদি ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। ফলে বাংলাদেশ এখন বিশ্ববাসীর কাছে উন্নয়নের রোল মডেল। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। চবি উপাচার্য দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সবাইকে সাথে নিয়ে কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন অনুষ্ঠানের সূচনা করেন। জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল এবং প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য, দীর্ঘায়ু এবং দেশ-জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এ সময় চবি সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্য, অনুষদসমূহের ডিন, শিক্ষক সমিতির নেতা, রেজিস্ট্রার, কলেজ পরিদর্শক, হলের প্রভোস্ট, বিভাগীয় সভাপতি, ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক, শিক্ষক, প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টর, ছাত্র-ছাত্রী নির্দেশনা ও পরামর্শ কেন্দ্রের পরিচালক, অফিস প্রধান, অফিসার সমিতি, কর্মচারী সমিতি ও কর্মচারী ইউনিয়নের নেতারা অংশ নেন।
কক্সবাজার সৈকতে বর্জ্য পরিষ্কারে চট্টগ্রামের করোনা যোদ্ধারা
২৮সেপ্টেম্বর,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে গতকাল কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অংশ নেন করোনা আইসোলেশন সেন্টার চট্টগ্রামের শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক। করোনা আইসোলেশন সেন্টার চট্টগ্রামের চিকিৎসক, নার্স এবং করোনা সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নেওয়া স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ঝাঁক স্বেচ্ছাসেবক আনন্দ ভ্রমণে গিয়ে এ কাজে অংশ নেন। সৈকতে ভেসে আসা বোতল, প্লাস্টিকসহ বিপুল পরিমাণ অপচনশীল পদার্থ পরিষ্কার করে স্বেচ্ছাসেবকরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন নুরুল আজিম রনি, ডা. হাসিবুল ইসলাম, ডা. সাদ্দাম হোসেন, ডা. রাসেল, নার্স সায়মা আক্তার, মিজানুর রহমান মিজান, ঐশিক পাল জিতু, শিহাব আলি চৌধুরী, অমিত চক্রবর্ত্তী, মোহাম্মদ আরিফ উদ্দীন, রায়হান উদ্দীন, যুবরাজ দাস, নাহিদুল আলম, জামশেদুল ইসলাম, মোহাম্মদ রাকিব, শাহাদাত হোসাইন, মায়মুন উদ্দীন মামুন প্রমুখ।
চট্টগ্রামের সাবেক এমপি চেমন আরা তৈয়বের দুই মাসের মধ্যে পদোন্নতি
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান পদে চট্টগ্রাম থেকে এই প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন নারী নেত্রী চেমন আরা তৈয়ব। মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে ও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জাতীয় মহিলা সংস্থার নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ পেয়েছেন সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সংসদ সদস্য চেমন আরা তৈয়ব। তাকে দুই বছরের জন্য এই নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি জাতীয় মহিলা সংস্থার চট্টগ্রামের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। চেয়ারম্যান চেমন আরা তৈয়বের স্বামী ডা. মোহাম্মদ আবু তৈয়ব চট্টগ্রামের সাবেক সিভিল সার্জন। জাতীয় মহিলা সংস্থা আইন, ১৯৯১ অনুসারে তাকে এই নিয়োগ দিয়ে মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম গত ১৬ মে মারা যান। নিয়োগ অবৈতনিক উল্লেখ করে আদেশে বলা হয়, মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে সরকার ইচ্ছা করলে যেকোনো সময়ে এ মনোনয়ন বাতিল করতে পারবে। তিনিও নিজে পদত্যাগ করতে পারবে বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। চেমন আরা তৈয়ব ২০০৮ সালে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন।
বদর পুকুর সংস্কার কাজ দ্রুত শেষ করার তাগিদ দিলেন চসিক প্রশাসক
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,রাজিব দাশ,চট্টগ্রাম,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহান অলীদের স্মৃতিধন্য বদর পুকুর। এটি একটি প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহাসিক স্থান। এটিকে রক্ষা করা সকলেরই দায়িত্ব। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এ প্রকল্পের কাজ এখন শেষ পর্যায়ে। অবশিষ্ট কাজ সম্পন্ন হলে বদর পুকুর শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও একটি আধ্যাত্মিক পর্যটন স্থান হিসেবে সার্বজনীনতা পাবে। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর ) বিকেল ৩টায় আন্দরকিল্লাস্থ পুরাতন নগর ভবনের আবদুস সাত্তার মিলনায়তনে এক সভায় চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন এসব কথা বলেন। এসময় পুকুরের একাংশে ভূমি নিয়ে রিরোধ মিটিয়ে শেষ করার বিষয়ে একাত্মতা প্রকাশ করেন সবাই। এসময় তিনি এলাকাবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে বাকী কাজটুকু শেষ করার তাগিদ দেন। সভায় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মফিদুল ইসলাম, ইঞ্জিনিয়ার ফরহাদুল আলম, ভূমি কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম, প্রশাসক মহোদয়ের একান্ত সচিব আবুল হাশেম। বদরপাতি এলাকাবাসীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সহ সভাপতি হারুন জামান, ৩২নং আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ও চট্টগ্রাম সিটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস সাবেক ছাত্রনেতা মুহাম্মদ নোমান লিটন, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগনেতা মহিউদ্দিন শাহ্, বদর পুকুর পাড়স্থ যুবকণ্ঠের সভাপতি নুরুল হুদা, বদর আউলিয়া মাজার শরীফের মোতোয়ালি সৈয়দ আবুল হাশেম, আখতার আজিম খান, দিদার আজিম খান, মাহমুদ উল্যাহ্, হাবিব উল্যাহ্, জসিমউদ্দিন, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবুল বশর, নগর স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা জানে আলম, যুবকণ্ঠের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস জ্যাকী, সুমন, মোরশেদ প্রমুখ। সভায় উপস্থিত এলাকাবাসী বদর পুকুর সংস্কার প্রকল্পের অবশিষ্ট কাজ দ্রুত শেষ করার বিষয়ে একাত্মতা প্রকাশ করে সিটি কর্পোরেশনকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এসময় বক্তারা চলমান প্রকল্পে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে এজন্য ক্ষমাপ্রার্থনা করেন এবং প্রকল্পের কাজে অনিয়মের ব্যাপারে তদন্তের আশ্বাস দেন। তিনি এসময় আবারো প্রকল্পের অসমাপ্ত কাজ সকলের সহযোগিতা নিয়ে দ্রুত শেষ করার ব্যাপারে দৃঢ সংকল্প ব্যক্ত করেন। উল্লেখ্য,২০১৮ সালে বদর শাহ পুকুর সংস্কার ও আধুনিকায়নের উদ্যোগ নিয়েছিলেন তৎকালীন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। ২ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। যা ২০১৮ সালের ১৫ জুলাই থেকে এ পুকুরের সংস্কার ও আধুনিকায়নের কাজ শুরু হয় ।
শিকলবাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ইয়াবাসহ দুই জনকে আটক করেছে- Rab
২৩সেপ্টেম্বর,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ৬৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে Rapid Action Battalion (Rab)। এ সময় ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) Rabর পক্ষ থেকে ইয়াবাসহ দুইজনকে আটকের বিষয়টি জানানো হয়। আটক দুইজন হলো- মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং থানাধীন বালিগাঁও এলাকার আকরাম আলী খানের ছেলে মো. হাবিবুর রহমান (৬৩) ও কক্সবাজার জেলার রামু থানাধীন করলিয়ামুরা এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে আরিফ উল্লাহ (১৯)। Rab-7 এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন নিউজ একাত্তরকে বলেন, কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৮ হাজার ৬৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। আটক দুইজনকে কর্ণফুলী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। Rab-7 এর সহকারী পুলিশ সুপার মো. মাশকুর রহমান নিউজ একাত্তরকে বলেন, কক্সবাজার থেকে ট্রাকে করে ইয়াবা নিয়ে মুন্সিগঞ্জ যাচ্ছিল তারা। দীর্ঘদিন ধরে তারা ইয়াবার ব্যবসা করে আসছে। আটক হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের একটি মাদক মামলা রয়েছে।