বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৯
বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সম্মিলিত আবৃত্তি জোটের অনুষ্ঠান শুরু
২০আগস্ট,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: শিল্পকলায় শুরু হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিবেদন করে শোক সন্তাপের হে পিতা শিরোনামে দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠান। সম্মিলিত আবৃত্তি জোট চট্টগ্রামের এ আয়োজন গতকাল সোমবার বিকেল ৫টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়। এরপর কবি আলী প্রয়াসের রচনায় এবং আবৃত্তিশিল্পী প্রণব চৌধুরীর নির্দেশনায় জোটভুক্ত সংগঠনগুলোর শতাধিক শিল্পীর অংশগ্রহণে পরিবেশিত হয় মুজিব মানে বাংলাদেশ শিরোনামে বৃন্দ আবৃত্তি। অনুষ্ঠানের কথামালা পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। জোটের সভাপতি অঞ্চল চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. মুজাহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জোটের সহ-সভাপতি এবং অনুষ্ঠান উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক সাইফ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চসিক প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, রাজনীতিবিদ সালাহ উদ্দীন আহমেদ সিআইপি, চসিক কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দীন এবং জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁর অসমাপ্ত আত্মজীবনী থেকে পাঠ করেন চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনেরা। অ্যাড. কামরুন নাহারের সভাপতিত্বে এবং সংগঠক মাসুদ বকুলের পরিচালনায় এ পর্বে অংশগ্রহণ করেন বরেণ্য শিক্ষাবিদ ড. মাহবুবুল হক, শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক ড. মোহিত উল আলম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সা. সম্পাদক মফিজুর রহমান, সাংসদ ওয়াসিকা আয়েশা খান, ডা. একিউএম সিরাজুল ইসলাম, সাফিয়া গাজী রহমান, হাসান ফেরদৌস, খালেদ হেলাল এবং চৌধুরী ফরিদ। আজ অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনের আয়োজনে থাকছে কথামালা, বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার বরেণ্য শিল্পীদের একক আবৃত্তি, কবি কণ্ঠে কবিতা, বৃন্দ আবৃত্তি। দুইদিনের এ অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছে জোটভুক্ত সংগঠন উচ্চারক আবৃত্তি কুঞ্জ, শৈশব বাচিক চর্চা কেন্দ্র, চট্টগ্রাম আবৃত্তি একাডেমি, বোধন আবৃত্তি পরিষদ, দৃষ্টি চট্টগ্রাম, প্রমিতি সাংস্কৃতিক একাডেমি, স্বপ্নযাত্রী আবৃত্তি সংগঠন, তারুণ্যের উচ্ছ্বাস, বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি মঞ্চ, অঙ্গণ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, একুশ আবৃত্তি ও মানবিকতা চর্চা কেন্দ্র, উদীড়ন আবৃত্তি নীড় এবং পাণ্ডুলিপি আবৃত্তি দল। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
কাট্টলীতে উপকূলীয় জলদাস ফেডারেশনের মতবিনিময়
২০আগস্ট,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: কোন প্রকার হীনমন্যতা নিয়ে নয়, মানুষ হিসেবে মেরুদন্ড সোজা করে নিজেদের স্বার্থ ও অধিকার রক্ষার ন্যায়সংগত সংগ্রামকে এগিয়ে নেয়ার জন্যে জলদাস সম্প্রদায়ের প্রতি উদাত্ত আহব্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রানা দাশগুপ্ত। গত ১৪ আগস্ট বুধবার দক্ষিণ কাট্টলীর জেলেপাড়ায় উত্তর চট্টলা উপকূলীয় জলদাস ফেডারেশনের আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি প্রধান অতিথির ভাষণ দিচ্ছিলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন ফেডারেশনের সভাপতি লিটন দাস। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিতাই প্রসাদ ঘোষ, সংগঠনের সহ-সম্পাদক বিশ্বজিৎ পালিত, পাহাড়তলী থানা শাখার সভাপতি সুকান্ত দত্ত, মহিলা ঐক্য পরিষদের সহ সভানেত্রী মিনু রানী দেবী। ফেডারেশনের পক্ষে বক্তব্য রাখেন পরিমল দাশ, সমীরণ দাশ, বাসেল দাশ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। এডভোকেট দাশগুপ্ত শিক্ষার উপর জোর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, এতে সমাজে সচেতনতা আনবে। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী ক্রমশ:ই সামনের কাতারে এগিয়ে আসবে। তিনি সমাজের ঐক্যবদ্ধতার উপর জোর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, শক্তিশালী জনগোষ্ঠী-ই সকল প্রকার লোভ-লালসার উর্দ্ধে থেকে ভয়-ভীতি-প্রলোভনকে উপেক্ষা করে নিজ স্বার্থ ও অধিকার রক্ষায় এগিয়ে যেতে পারে এবং এতে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে পারে। এড. দাশগুপ্ত নিজ সম্প্রদায়ের স্বার্থ রক্ষার পাশাপাশি ঐক্য পরিষদের নেতৃত্বে পরিচালিত ধর্মীয় বৈষম্যবিরোধী মানবাধিকার আন্দোলনকেও এগিয়ে নেয়ার জন্যে জলদাস সম্প্রদায়ের প্রতি আহব্বান জানান। তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধিরা জনগনের সেবক। কিন্তু দুর্ভাগ্যপীড়িত জনগণ তা উলবদ্ধি করতে না পারলে এর খেসারত জনপ্রতিনিধিদেরকেই দিতে হবে। এর জন্যে জনগণ দায়ী থাকবে না। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
রোটারি ডিস্টিক্ট মেম্বারশীপ সেমিনার ৩১ আগস্ট
২০আগস্ট,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: ডিস্ট্রিক মেম্বারশীপ সেমিনারের প্রস্তুতিসভা গত ১৭ আগস্ট শনিবার সন্ধ্যায় পাঁচলাইশ আবাসিকের একটি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। প্রোগ্রাম চেয়ারম্যান রোটারিয়ান রুহেলা খান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আগামী ৩১ আগস্ট চট্টগ্রাম ক্লাবে অনুষ্ঠিতব্য সেমিনার সফলভাবে সম্পন্ন করার বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় এবং বিভিন্ন উপ-কমিটি গঠন করা হয়। একইসাথে রেজিস্ট্রেশনের সময়সীমা ২২ আগস্ট পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। সভাপতির বক্তব্যে রুহেলা খান চৌধুরী বলেন, ডিস্ট্রিক মেম্বারশীপ সেমিনার রোটারিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট। নতুন-পুরনো সকল সদস্যদের জন্য শিক্ষণীয় এ ইভেন্ট। তাই অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ সংখ্যক রোটারিয়ানের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে সকলকে কাজ করতে হবে। এ বিষয়ে তিনি প্রত্যেক ক্লাবের সভাপতি এবং ডিস্টিক্ট ও জোনাল নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা কামনা করেন। সভায় বক্তব্য দেন এডিশনাল লে. গভর্নর মোহাম্মদ শাহজাহান, এডিশনাল লে. গভর্নর মোহাম্মদ আসরার, জোনাল সেক্রেটারি সানিউল ইসলাম, এসিস্ট্যান্ট গভর্নর আশীষ দত্ত, এসিস্ট্যান্ট গভর্নর এমদাদুল আজিজ চৌধুরী, ডেপুটি গভর্নর নজরুল ইসলাম নান্টু, আইপিপি ফখরুল আলম পাটোয়ারী বিপু, আইপিপি মোহাম্মদ ফোরকান উদ্দিন, প্রেসিডেন্ট সুদীপ কুমার চন্দ, প্রেসিডেন্ট দেবদুলাল ভৌমিক, প্রেসিডেন্ট ক্যাপ্টেন ফয়সাল আজিম, প্রেসিডেন্ট মোরশেদ আলম বাবু, প্রেসিডেন্ট মর্তুজা বেগম ও ক্লাব সচিব কাজী আশেক ই এলাহী।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
চিটাগাং ক্লাবে ঈদ পুনর্মিলনী উৎসব
২০আগস্ট,মঙ্গলবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: গত ১৭ আগস্ট শনিবার রাতে চিটাগাং ক্লাব লিমিটেডে উদযাপিত হলো ঈদ পুনর্মিলনী উৎসব। সভায় পরিবার-পরিজন নিয়ে চিটাগাং ক্লাবের সদস্যরা অংশগ্রহণ করে। তারা পরস্পর ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এসময় তাদের শুভেচ্ছা জানান চিটাগাং ক্লাব লিমিটেডের চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন চৌধুরী এবং ক্লাব নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আল সাদাত দোভাস সাগর এবং নির্বাহী কমিটি মেম্বার যথাক্রমে এস এম শফিউল আজম, সালাউদ্দিন আহমেদ, মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ (আপু) সুলতানুল আবেদীন চৌধুরী, আবু আহমেদ হাসনাত, ডাঃ অলক নন্দি, জাহিদ সুলতান টিপু উপস্থিত ছিলেন। পরে এক মনোজ্ঞ সংগীতানুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
লিও জেলা নেতৃবৃন্দের সাথে প্রাক্তন জেলা সভাপতিদের মতবিনিময়
১৯আগস্ট,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: লিও জেলা ৩১৫-বি৪ এর ২০১৯-২০২০ সেবা বর্ষের কেবিনেট নেতৃবৃন্দের সাথে প্রাক্তন জেলা সভাপতিদের সৌজন্য সাক্ষাৎ ও মতবিনিময় সভা গত ১৭ আগস্ট নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ৩১৫-বি৪ জেলার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি লায়ন মনজুর আলম মনজু, প্রাক্তন সভাপতি ও লিও ক্লাবস চেয়ারম্যান লায়ন ডাঃ মেসবাহ উদ্দিন তুহিন, লায়ন নাজমুল কবির খোকন, লায়ন মোঃ বদিউর রহমান, লায়ন এস এম কামরুল ইসলাম পারভেজ, লায়ন মোঃ হেলাল উদ্দিন, লায়ন আবু নাসের রনি, লায়ন মোঃ রেজাউল আবেদীন, লায়ন গাজী মুহাম্মাদ শহিদুল্লাহ, লিও ইয়ুথ একচেঞ্জ লায়ন নুর মোঃ বাবু, লায়ন মোঃ আবুল খায়ের, লায়ন মোঃ আনিসুল হক চৌধুরী, লায়ন মোঃ ওবাইদুর রহমান, লায়ন মোঃ সাইফুল করিম আরিফ ও ২০১৯-২০২০ সেবা বর্ষের সভাপতি লিও শাহরিয়ার ইকবালসহ জেলা কেবিনেট নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় লিওদের মধ্যে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ এবং যুগোপযোগী শিক্ষার মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি, ওরিয়েন্টেশন, নতুন প্রোগ্রাম ও প্রজেক্ট হাতে নিয়ে লিও জেলাকে এগিয়ে নেওয়া এবং আসন্ন লিও ইয়ুথ ক্যাম্প নিয়ে আলোচনা করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
কিডনি ফাউন্ডেশনে ৫ লাখ টাকার অনুদান
১৯আগস্ট,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: রোটারী ক্লাব চিটাগং খুলশীর সাবেক সভাপতি ও শাহিদী ট্রেডিং কর্পোরেশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রিজওয়ান শাহিদী সম্প্রতি চট্টগ্রাম কিডনি ফাউন্ডেশনে পাঁচ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও রোটারী ইন্টারন্যাশনাল ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ৩২৮২ মোহাম্মদ আতাউর রহমান পীরের মাধ্যমে ফাউন্ডেশনের সভাপতি ডা. মঈনুল ইসলাম মাহমুদের হাতে এ অনুদান তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে ডা. মঈনুল ইসলাম মাহমুদ ফাউন্ডেশনের চলমান কার্যক্রমের বিবরণ তুলে ধরেন এবং সবাইকে চট্টগ্রাম কিডনি সেন্টারের নতুন ভবন নির্মাণে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। এ সময় ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি প্রফেসর ডা. ইমরান বিন ইউনুস, সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. এম এ কাসেম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল আজিজ চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহান, নির্বাহী সদস্য আমীর হুমায়ুন মাহমুদ চৌধুরী, সৈয়দ মোহাম্মদ মোরশেদ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক পদক্ষেপ কখনোই ভুল প্রমাণিত হয়নি
১৯আগস্ট,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন বহুগুণের অধিকারী। তাঁর ধ্যান ধারণা আবর্তিত ছিল মানবিক, জনগণ ও দেশকে নিয়ে। অদম্য সাহসের অধিকারী বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক পদক্ষেপ কখনোই ভুল প্রমাণিত হয়নি। আপোষহীন মহানায়ক বঙ্গবন্ধু সাধারণ মানুষের হৃদয়ে অম্লান হয়ে থাকবে। তাঁকে হত্যা করে খুনীরা দেশ ও জনগণকে কিছুই দিতে পারেনি। বরঞ্চ সর্বক্ষেত্রেই ভারসাম্য নষ্ট করে দেশকে অস্থিতিশীল ও লুটেরাদের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করে। গতকাল রবিবার সকালে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। মোছলেম উদ্দিন আরো বলেন, দেশকে অর্থনৈতিক মুক্তিদানের গৃহীত কর্মসূচি ঘোষণা করে তার বাস্তবায়নের ঊষালগ্নে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। সাম্রাজ্যবাদের ইন্ধন ও প্রশয়ে তাঁকে হত্যা করার মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে বঙ্গবন্ধু সঠিক পথেই ছিলেন। বহু ত্যাগ তীতিক্ষার মধ্য দিয়ে আমরা সেই পথ থেকে সরে এসে উন্নয়নের পথে, আশা ও স্বপ্ন দেখার পথে এগিয়ে যাচ্ছি। আজ তাঁর যোগ্য কন্যার সফল নেতৃত্বের ফলশ্রুতিতে শিক্ষা, শিল্প, প্রযুক্তি, সামাজিক, যোগাযোগ ক্ষেত্রে আশানুরূপ উন্নতিতে দেশ বিশ্বমাঝে মর্যাদা পাচ্ছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, ছাত্রলীগ একটি গৌরবের নাম। বঙ্গবন্ধুর আশীর্বাদপুষ্ট ইতিহাস সৃষ্টিকারী একটি সংগঠন। এই আদর্শিক প্রতিষ্ঠানটির সদস্য হওয়া গৌরবের। নিজেদের গৌরাবাম্বিত করতে হলে এই সংগঠনটির গৌরবজনক পরিচিতিকে লালন করতে হবে। শুধু ছবির মুজিব নয়, আদর্শের মুজিবকে চিন্তায়, কর্মে, বিশ্বাসে, আচরণে ধারণ করতে হবে। ছাত্রলীগ নেতৃত্ব সৃষ্টির পাঠশালা। মেধার অপচয় না করে মানবিক কর্মে নিজেদের একাত্ম করে এগিয়ে যাওয়া। অবক্ষয়, মাদক, অনিয়ম, অপচয়, জঙ্গিবাদ বিরোধী সামাজিক জাগরণ সৃষ্টি করে জনগণের প্রত্যাশার সাথে একাত্ম হয়ে জনগণের মন জয় করা ব্যতীত কোন আদর্শিক লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব নয়। দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এস এম বোরহান উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো: আবু তাহেরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, আবদুল্লাহ আল মামুন, আনিসুল হক চৌধুরী, তারেকুর রহমান তারেক, মুজিবুল হক টিটু, ফরহাদুল ইসলাম, শওকতুল ইসলাম, মোঃ হোসাইন, মিজবাহ উদ্দীন সিকদার সুমন, মো সোহেল উদ্দীন, মো সালাহউদ্দীন, কাজী ওয়াসিম, শাহাদাত হোসেন মানিক, সাইফুদ্দিন মানিক, আবু তৈয়ুব সোহেল, আবু বকর জীবন, দিদারুল আলম, সাহাব উদ্দিন, মো মাহফুজ, মোঃ ইদ্রিছ, যুগ্ম আহ্বায়ক মো এমরান, মোঃ সাখাওয়াত, জাহাঙ্গীর রেজা, ইমতিয়ার ফারুক ইমু প্রমুখ। সভাশেষে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে শতাধিক ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
১৫ আগস্টের মাস্টারমাইন্ডদের চিহ্নিত করে শাস্তি দিতে হবে
১৯আগস্ট,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের কাউন্সিল কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। তিনি বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িতদের বিচার করা হচ্ছে। কিন্তু নেপথ্যে যারা পরিকল্পনাকারী ও মাস্টারমাইন্ড হিসেবে কাজ করেছে তাদের চিহ্নিত করতে হবে। এসব প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠীর কারণে দেশ আজ এতবছর পিছিয়ে ছিল। যেই নেতা আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন আমরা তাঁকেই হত্যা করেছি। জাতি হিসেবে তাই আমরা অকৃতজ্ঞ। চুয়েট ভিসি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা পিতার অসমাপ্ত স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আমাদের প্রত্যেকের উচিত নিজ-নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখার চেষ্টা করা। আগামী বছর দেশব্যাপী মুজিব বর্ষ পালন করা হবে। চুয়েট প্রশাসনও এ উপলক্ষে নানা কার্যক্রম গ্রহণ করবে। চুয়েটের জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি এবং স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. রনজিৎ কুমার সূত্রধর, পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহমান ভূঁইয়া, রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক। নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এটিএম শাহাজাহানের সঞ্চলনায় এতে বক্তব্য রাখেন প্রভোস্টগণের পক্ষে শেখ রাসেল হলের প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ কামরুল হাছান, স্টাফ ওয়েলফেয়ারের সভাপতি অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহম্মদ, শিক্ষক সমিতির পক্ষে কোষাধ্যক্ষ ও উপ-ছাত্রকল্যাণ পরিচালক হুমায়ুন কবির, কর্মকর্তা সমিতির পক্ষে সভাপতি প্রকৌশলী সৈয়দ মোহাম্মদ ইকরাম ও কর্মচারী সমিতির সভাপতি মো. জামাল উদ্দিন। অনুষ্ঠানের শুরুতে ১৫ আগস্টের নারকীয় হত্যাকাণ্ডের উপর একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এরপরই বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের জন্য বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
পোর্ট সিটি ভার্সিটিতে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা
১৯আগস্ট,সোমবার,প্রেস বিজ্ঞপ্তি,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে পোর্ট সিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার ভার্সিটির সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সভায় বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা ও তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। সভায় উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. নূরল আনোয়ার বলেন, আমরা যে মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি, এই যুদ্ধের নায়ক বঙ্গবন্ধু। তিনি না থাকলে দেশ স্বাধীন করা অসম্ভব হত। কিন্তু দুর্ভাগ্য যে ঘাতকেরা এই মহানায়ককে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে অভিভাবক শূন্য করে দিয়েছে। কিন্তু তারা জানে না বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. ওবায়দুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ইঞ্জি. মফজল আহমদ, ব্যবসা প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. ফসিউল আলম, সমাজ বিজ্ঞান, কলা ও আইন অনুষদের ডিন মোহাম্মদ ইউনূস, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. সেলিম হোসেন, টেঙটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি শেখ শাহ আলম, প্রক্টর সৈয়দ এনায়েত করিম, আইন বিভাগের সভাপতি আফরোজা পারভীন, ন্যাচারাল সাইয়েন্স বিভাগের শিক্ষক আতাউস সামাদ রাজু প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নিউজ চট্টগ্রাম পাতার আরো খবর