বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০
জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়ছে ইতালিতে
১১,জুলাই,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনাভাইরাসের বিস্তার বাড়তে থাকায় জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়াতে যাচ্ছে ইতালি। আগামী ৩১ জুলাই দেশটিতে জরুরি অবস্থার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শুক্রবার ইতালির প্রধানমন্ত্রী গিসেপে কন্তে জানিয়েছেন যে, তার দেশে জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়তে পারে। খবর রয়টার্সের। গত বছরের জানুয়ারিতে ছয় মাসের জরুরি অবস্থা জারি করে ইতালি। গত ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনার প্রকোপ ধরা পড়ে। এর কিছুদিন পর ইতালিতে দুই চীনা পর্যটকের দেহে করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়। সে কারণে জানুয়ারির শেষ দিক থেকেই দেশব্যাপী জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। তবে চলতি মাসে তা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও হচ্ছে না। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এখনই জরুরি অবস্থা তুলে না নিয়ে সময় বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে ইতালি সরকার। এদিকে, সম্প্রতি বাংলাদেশসহ ১৩ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ইতালি। গত সোমবার বাংলাদেশ থেকে ইতালি যাওয়া বিশেষ ফ্লাইটের ২১ যাত্রীর দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা গেছে। সে কারণে রোমের ফিউমিসিনো ও মিলানের মালপেনসা বিমানবন্দরে অবতরণ করা ১৮২ বাংলাদেশির মধ্যে ১৬৭ জনকে সেখানে নামতে না দিয়ে ফেরত পাঠিয়েছে ইতালি। বাংলাদেশের ফ্লাইটে করোনায় আক্রান্ত যাত্রী কীভাবে গেলো তা নিয়ে তুমুল সমালোচনা চলছে ইতালির সংবাদমাধ্যমে। বলা হচ্ছে, টাকার বিনিময়ে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ভুয়া সার্টিফিকেট নিয়ে ওই যাত্রীরা ইতালি গেছেন। গত দু’সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশ ভ্রমণকারী বিদেশি নাগরিকদের জন্যেও প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে ইতালি। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশসহ ১৩টি ঝুঁকিপূর্ণ দেশের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা জারি করে বিশেষ অর্ডিন্যান্সে স্বাক্ষর করেন ইতালীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবার্তো স্পেরাঞ্জা। ইতালির ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় পড়া দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, আর্মেনিয়া, বাহরাইন, ব্রাজিল, বসনিয়া হার্জেগোভিনা, চিলি, কুয়েত, উত্তর মেসিডোনিয়া, মলদোভা, ওমান, পানামা, পেরু এবং ডমিনিকান রিপাবলিক।
২০২১ সালের মধ্যে হাতে আসবে করোনা ভ্যাকসিন: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
১০জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অনেক টালবাহানার পর অবশেষে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানাল তাদের ভ্যাকসিন সহযোগী Gavi-র সঙ্গে মিলে ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে। তাদের এখন একমাত্র লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের অন্তত ২০০ কোটি ডোজ বাজারে ছাড়া। ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডা. হর্ষ বর্ধন সম্প্রতি এই Covax ফেসিলিটি সেশনে অংশ নিয়েছিলেন। এই উদ্যোগেরও প্রধান লক্ষ্য এই মুহূর্তে দ্রুত নভেল করোনাভাইরাসের টিকা বের করা। উল্লেখ্য চলতি বছরের জুন মাসে Gavi-র উদ্যোগে শুরু হয় Covax ফেসিলিটি। কোভিড টিকা তৈরি করার জন্যে এটি একটি অর্থনৈতিক প্ল্যাটফর্ম। এই ফেসিলিটি বিমা পলিসি হিসেবে কাজ করবে, যাতে কিছু গবেষণা সফল না হলেও ভ্যাকসিন তৈরির কাজে কোনও বাধা না আসে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং Covax-এর তরফে আশ্বস্ত করে বলা হয়েছে, শুরুতে বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে থাকা মানুষকে এই টিকা দেওয়া হবে বিশেষ করে গরিব এবং উন্নয়নশীল দেশের যাদের আর্থিক সংগতি ভালো নয়। পরবর্তী পর্যায়ে এই টিকা পৌঁছে যাবে প্রত্যেকের কাছেই। ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডা. হর্ষ বর্ধন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্বাহী বোর্ডের অন্যতম সদস্য। তিনি জানান, ভারত ৬০ শতাংশ ভ্যাকসিনের যোগান দিতে পারবে। একই সঙ্গে তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে অনুরোধ করেছেন যাতে ফাস্ট ট্র্যাকে ভ্যাকসিন ট্রায়াল করা যায় সে দিকে নজর দিতে, কারণ বিশ্বের প্রত্যেকটি দেশের নজর এখন করোনা টিকার দিকেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথন জানিয়েছেন, ‘ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থার সঙ্গে জোট বেঁধে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই কাজে গতি আনার চেষ্টা করছে। ক্লিনিকাল ট্রায়ালের জন্যে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপই করা হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, কিছু সংখ্যক মানুষের শরীরে ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়ে গিয়েছে। GAVI-র সিইও ডা. সেথ বার্কলে জানিয়েছেন, এই ভ্যাকসিন চুক্তির ফলে ২০২১ সালের মধ্যে ২০০ কোটি ডোজ তৈরি করা সম্ভব হবে। তবে এই সংখ্যক ডোজ বানাতে খরচ পড়বে অন্তত ১৮০০ কোটি মার্কিন ডলার। এখন পর্যন্ত উত্তর আমেরিকা, ইউরোপ এবং এশিয়া প্যাসিফিকে তিনটি ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে। এই ৯টি ভ্যাকসিনের মধ্যে ৬টি ভ্যাকসিনের ইতোমধ্যে ট্রায়াল শুরু হয়ে গিয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথন জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে প্রধান লক্ষ্যই হল প্রত্যেক দেশের অন্তত ২০ শতাংশ জনসংখ্যার কাছে দ্রুত করোনা ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া। তবে এক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে স্বাস্থ্যকর্মীদের। সূত্র: এইসময়।
এবার জঙ্গি নিয়োগ হচ্ছে অনলাইনে, অভিনব পথ খুঁজছে আইসিস
১০জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনার প্রকোপ কমবে তা সবারই অজানা। বিশ্বের সব দেশে কম-বেশি লকডাউন চলছে। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। করোনার কারণে কাজ হারিয়েছেন বহু মানুষ। দুবেলা খাবার জুটছে না অনেকের। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতে হাত গুটিয়ে বসে নেয় জঙ্গিরাও। মানুষের এই দুরবস্থার সুযোগ নিচ্ছে তারা। অনলাইন নিয়োগ করা হয়েছে জঙ্গি। এই পরিস্থিতিতেও মানুষকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে চলেছে তারা। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে বহু জঙ্গি সংগঠন নিয়োগ করতে পারছে না। তাই এবার জঙ্গি সংগঠন আইসিস নতুন পথ খুঁজে বের করেছে। মহামারির মধ্যেই অনলাইনে সদস্য জোগাড় করতে নেমেছে আইসিস। এই সময়ের সুযোগ নিয়ে আইসিস নিজের সংগঠন আরো শক্তিশালী করে নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা সূত্র। গোয়েন্দা সংস্থাগুলির নজর এড়ানোই তাদের আসল উদ্দেশ্য। অনলাইনে জঙ্গি নিয়োগ করতে পারলে গোয়েন্দা সংস্থাগুলির হাতে সঠিক তথ্য যাবে না। তাই এমন পন্থা নিয়েছে আইসিস। জানা গিয়েছে, অনলাইনে জঙ্গি নিয়োগ নিয়েও আইসিসে ট্রেনিং চলছে। ভারতের একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা বলছে, উপমহাদেশ থেকেও জঙ্গি নিয়োগের চেষ্টা চালাচ্ছে আইসিস। জিহাদের নামে কমবয়সীদের ব্রেনওয়াশ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।- কালের কণ্ঠ
দুমড়ে গেল গাড়ি, পরে বুকে গুলিতে খতম ভারতের কুখ্যাত ডন বিকাশ
১০জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের কানপুরওয়ালা বিকাশ দুবেকে নিয়ে নাটকের শেষ নেই। গ্যাংস্টার বিকাশ দুবেকে মধ্যপ্রদেশ থেকে ধরে নিয়ে যাওয়ার সময় নাটকীয় ঘটনা ঘটে গেল। পুলিশের দাবি, প্রথমে পুলিশের গাড়ি উল্টিয়ে পুলিশের কাছ থেকে পিস্তল ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে বিকাশ দুবে। পরে ক্রসফায়ারে বিকাশ দুবের মৃত্যু হয়। পুলিশের আরো দাবি, কানপুরের কাছে দুর্ঘটনা ঘটে বিকাশকে বহনকারী গাড়ির। কনভয়ে যে গাড়িতে বিকাশ ছিল, ওই গাড়ি উল্টে যায়। এসটিএফের কনভয়ের গাড়িটি উল্টে দুমড়ে মুচড়ে যায়। উল্টে যাওয়া গাড়ি থেকে পালাতে চেষ্টা করে বিকাশ। পুলিশের একজন সদস্যের কাছ থেকে পিস্তল ছিনিয়ে শুরু হয়ে যায় সংঘর্ষ। পুলিশ বলছে, উজ্জ্বয়িনী থেকে ধৌলি নিয়ে আসার পথে বিকাশের গাড়িটি উল্টে গেলে সেখানে জমায়েত হয় বিকাশের সঙ্গীরাও। পুলিশের পিস্তল ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে বিকাশ দুবে। সে সময় পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় তার। তার বুকে গুলি লেগেছে। সূত্র : জিনিউজ
যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৬৫ হাজারের বেশি আক্রান্ত, প্রাত্যহিক আক্রান্তের নতুন রেকর্ড
১০জুলাই,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহামারি করোনা ভাইরাসে নতুন করে আরো ৬৫ হাজার ৫৫১ জন আক্রান্ত হয়েছে। দেশটিতে ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যার এটি একটি নতুন রেকর্ড। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য জানা যায়। খবর এএফপির। এ মহামারি ভাইরাসে বিশ্বে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্রে এনিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ছাড়ালো এবং দেশটিতে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ ৩৩ হাজার ১৯৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এরআগে গত মঙ্গলবার প্রাত্যহিক আক্রান্তের নতুন রেকর্ড হয়েছিল। সেদিন ২৪ ঘণ্টার হিসাবে ৬০ হাজার ২শর বেশি মানুষ করোনায় হয়। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে, বিশেষকরে দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বেড়ে যেতে দেখা যাচ্ছে। এতে মৃত্যু হার খুব শিগগিরই আগের পথ অনুসরণ করতে পারে বলে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন। এদিকে, কোভিড-১৯ ভাইরাসে মৃতের ও আক্রান্তের সংখ্যা আবার অনেক বেড়ে যাওয়ার কারণে এ দুই অঞ্চলের রাজ্যগুলোতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফের খুলে দেয়ার প্রক্রিয়া থেমে গেছে। স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮ পর্যন্ত (গ্রিনিচ মান সময় শুক্রবার ০০৩০ টা) বাল্টিমোর ভিত্তিক ওই ইউনিভার্সিটির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ ভাইরাসে নতুন করে আরো ১ হাজার জন প্রাণ হারিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউচি বৃহস্পতিবার নিউজ আউলেট হিল আয়োজিত এক টেলিকনফারেন্স চলাকালে বলেন, আমরা অত্যান্ত জটিল পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি। ফাউচি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতির চাকা সচল করতে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফের খুলে দেয়ার পর দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ফাউচি এমন মন্তব্যের ব্যাপারে সরাসরি দ্বিমত পোষণ করে বলেছেন, করোনা ভাইরাস পরীক্ষা কর্মসূচি অনেক জোরদার করার কারণে আক্রান্তের এ সংখ্যা বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, তাই, এ বৃদ্ধি তেমন গুরুত্বপূর্ণ না। ট্রাম্প বলেন, আমরা ৪ কোটি মানুষের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করেছি। এক্ষেত্রে যদি আমরা ২ কোটি লোকের করোনা পরীক্ষা করতাম, তাহলে আক্রান্তের সংখ্যা অর্ধেক হতো।
জম্মু-কাশ্মীরে বিজেপি নেতাসহ ৩ জনকে গুলি করে হত্যা
০৯,জুলাই,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জম্মু-কাশ্মীরের কথিত জঙ্গিদের গুলিতে বিজেপি নেতাসহ একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। বুধবার (৮ জুলাই) দিবাগত রাতে বান্দিপোরা জেলার বিজেপি সভাপতি শেখ ওয়াসিম, তার বাবা এবং ভাইকে গুলি করে হত্যা করা হয়। খবর এনডিটিভির। স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, রাত ৯টা নাগাদ স্থানীয় থানার কাছে একটি দোকানের বাইরে ওই বিজেপি নেতা ও তার পরিবারের উপর হামলা চালানো হয়। জঙ্গিদের গুলিতে ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন তারা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে দ্রুত বান্দিপোরা জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। বুধবার গভীর রাতেই টেলিফোনে ওই সন্ত্রাসের বিষয়ে বিস্তারিত খবর নেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মৃতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ব্যক্ত করেন বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং। প্রতিবেদনে বলা হয়, জঙ্গিরা বান্দিপোরায় বিজেপি কর্মী ওয়াসিম বারির উপর গুলি চালায়। নির্বিচারে গুলি চালানোর সময় ওয়াসিম বারির পাশাপাশি সেই গুলি গিয়ে লাগে তার বাবা বশির আহমদ ও ভাই উমর বশিরের গায়েও। গুরুতর আহতাবস্থায় তাদের হাসপাতালে নেয়া হলে তিনজনই সেখানে মারা যান। তবে নিরাপত্তাজনিত গাফিলতির সুযোগ নিয়ে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। কারণ বিজেপি নেতার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৮ জন নিরাপত্তাকর্মীই সে সময় অনুপস্থিত ছিলেন। সূত্রের খবর, কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই জঙ্গি হামলায় শোরগোল পড়েছে বিজেপির অভ্যন্তরেও। নিহত নেতার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে টুইট করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির পক্ষ থেকেও টুইট করে বিজেপি নেতা ওয়াসিমের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়েছে এবং এই ঘটনার জন্য জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসনের ব্যর্থতাকে দায়ী করা হচ্ছে।
চীনে বাস উল্টে নিহত ২১
০৮,জুলাই,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের গুইঝো প্রদেশে শিক্ষার্থী বহনকারী একটি বাস হ্রদে উল্টে কমপক্ষে ২১ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আর অন্তত ১৫ জন। মঙ্গলবার গুইঝো প্রদেশের আনশুন শহরের কাছে হংশ্যান হ্রদে এ দুর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কলেজে ভর্তি পরীক্ষা দিতে যাওয়া শিক্ষার্থীদের বহনকারী একটি বাস গুইঝো প্রদেশের আনশুন শহরের কাছে হংশ্যান হ্রদে উল্টে যায়। বাসটি রাস্তার পাশের রেলিংয়ের সঙ্গে ধাক্কা খাওয়ার পর এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ওই শিক্ষার্থীরা হতাহত হন বলে স্থানীয় জরুরি ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। দুর্ঘটনায় আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম সিসিটিভি বলছে, শিক্ষার্থী ছাড়াও বাসটি অন্যান্য যাত্রী ছিলেন।এই দুর্ঘটনার কারণ জানতে তদন্ত স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদন্ত করা হচ্ছে। এদিকে এমন দুর্ঘটনায় চীনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের শোক প্রকাশ করতে দেখা গেছে। চীনের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম উইবোর এক ব্যবহারকারী লেখেন, আশা করছি মৃত্যু আর বাড়বে না। ২০২০ সাল সত্যিই একটি দুর্যোগের বছর। গুইঝো প্রদেশের জরুরি ব্যবস্থাপনার বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কমপক্ষে ২০০ জন বাসটি উদ্ধারে কাজ করছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চলছে।
৫৫০ কর্মী ছাঁটাই করবে ব্রিটিশ পত্রিকা- মোগল মিরর গ্রুপ
০৮,জুলাই,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা পরিস্থিতিতে বিক্রি কমে যাওয়া ও বিজ্ঞাপনে ভাটা পড়ায় ১২ শতাংশ কর্মী ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডেইলি মিরর, ডেইলি এক্সপ্রেসসহ যুক্তরাজ্যভিত্তিক ৪০টি পত্রিকার মালিক, মিডিয়া গ্রুপ রিচ (ট্রিনিটি মিরর)। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়। রিচ জানায়, করোনা পরিস্থিতিতে প্রতিষ্ঠানের আয় কমে যাওয়ায় তারা নিজেদের ৫৫০ কর্মীকে ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিবিসি জানায়, করোনার আগে থেকেই রিচের পত্রিকা বিক্রি কমে আসছিল। করোনায় সেটি আরও অনেক পড়তির দিকে চলে গেছে। সার্বিক পরিস্থিতিতে জুন মাসে তাদের আয় কমেছে ৩০ শতাংশ। রিচের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জিম মুলেন কর্মী ছাঁটাইয়ের পেছনে পত্রিকা বিক্রিতে ভাটা পড়া ও বিজ্ঞাপনের আয় কমে যাওয়াকে দায়ী করেছেন। তিনি বলেন, সার্বিক এই বাস্তবতা ও আগামীতে গ্রাহক সেবার মানে কৌশলগত পরিবর্তনের অংশ হিসেবে আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক কিছু বদল ঘটাতে হবে। এ জন্য দরকারি পদক্ষেপ নিতে আমরা তৈরি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এই রুপান্তরের জন্য আমাদের ১২ শতাংশ কর্মীকে ছাঁটাই করতে হবে। এ সহকর্মীদের যাতে আমরা সম্মানের সঙ্গে বিদায় জানাতে পারি অবশ্যই তা নিশ্চিত করা হবে।
সোলাইমানিকে হত্যা আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন: জাতিসংঘ
০৭জুলাই,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইরানের শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলাইমানির হত্যাকাণ্ডকে আন্তর্জাতিক আইন ও জাতিসংঘ ঘোষণার লঙ্ঘন বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষ প্রতিবেদক অ্যাগনেস ক্যালামার্ড। জেনারেল সোলাইমানি মার্কিন স্বার্থে আঘাত হানতে চেয়েছিলেন বলে তাকে হত্যা করার যে অজুহাত ওয়াশিংটন দাঁড় করিয়েছিল তার প্রমাণ করা যায়নি বলে ক্যালামার্ড তার তদন্ত প্রতিবেদনে বলেছেন। জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদে বৃহস্পতিবার (০৯ জুলাই) ক্যালামার্ডের প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হবে। এতে তিনি বলেছেন, সোলাইমানি আমেরিকার স্বার্থে আঘাত করতে চেয়েছিলেন, ওয়াশিংটন প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। ক্যালামার্ডের প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি প্রকাশ করে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেজর জেনারেল সোলায়মানি ইরাক ও সিরিয়ায় ইরানের সামরিক কৌশল ও পদক্ষেপের নীতি-নির্ধারণী ভূমিকা পালন করতেন। কিন্তু মার্কিন দাবির বিপরীতে তিনি (মানুষের) জীবনের জন্য অত্যাসন্ন কোনো হুমকি ছিলেন না। কাজেই যুক্তরাষ্ট্র তাকে হত্যা করে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষ প্রতিবেদক অ্যাগনেস ক্যালামার্ডের প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, আত্মরক্ষার অজুহাতে তৃতীয় কোনো দেশে আরেকটি দেশের সেনা কমান্ডারের ওপর এই প্রথম এ ধরনের পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে। তিনি বলেন, অথচ জাতিসংঘ ঘোষণার ঘোরতর লঙ্ঘন সত্ত্বেও জেনারেল সোলাইমানি এবং তার সঙ্গে থাকা একজন পদস্থ ইরাকি সেনা কমান্ডারকে হত্যার দায়ে কোনো আন্তর্জাতিক সংস্থা যুক্তরাষ্ট্রকে শাস্তি দেয়ার পদক্ষেপ নেয়নি। প্রতিবেদনে বিশ্বের সরকারগুলোর পক্ষ থেকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড চালানোর জন্য সামরিক ড্রোন ব্যবহারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে ড্রোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক আইন তৈরি ও তা কঠোরভাবে মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়। গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করার সময় কাসেম সোলাইমানিকে বহনকারী গাড়ির বহরে ড্রোন হামলা চালায় ইরাকে মোতায়েন মার্কিন সেনাবাহিনী। হামলায় জেনারেল সোলাইমানি ও ইরাকের জনপ্রিয় গণবাহিনী ‘হাশদ আশ-শাবি’র উপপ্রধান মাহদি আল মুহান্দিসসহ নয়জনের মৃত্যু হয়।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর