নির্বাচনে ফল চুরি করা হয়েছে
অনলাইন ডেস্ক :নির্বাচনে ফল চুরি করা হয়েছে। বিকৃত করা হয়েছে এবং এ ফল সন্দেহজনক। আদিয়ালা জেলে বন্দি পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএলএন) প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এমনই মন্তব্য করেছেন। বুধবার পাকিস্তানে জাতীয় ও প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন হয়। এতে সরকার গঠন করার পথে সাবেক ক্রিকেটার ও পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান। সব দলকে ছাড়িয়ে তিনি এখন সরকার গঠনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কিন্তু ওই নির্বাচনের ফলকে চুরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করলেন নওয়াজ শরীফ। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডন। এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে যান কয়েকজনন ব্যক্তি। এ সময় তিনি বলেছেন, বিকৃত ও সন্দেহজনক এই নির্বাচনী ফল দেশের রাজনীতির ওপর একটি খারাপ প্রভাব ফেলবে। তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে গিয়েছিলেন পিএমএলএনের সভাপতি শাহবাজ শরীফ, খাইবার পখতুনখাওয়ার গভর্নর ইকবাল জাফর ঝাগরা, মরিয়ম নওয়াজের ছেলে জুনায়েদ সফদার, মেয়ে মাহনুর সফদার ও মেহরুন, মরিয়মের জামাতা রাহিল মুনির, কেন্দ্রীয় সাবেক মন্ত্রী মরিয়াম আওরঙ্গজেব, সিনেটর মুসাদিক মালিক ও পিএমএলএনের মিডিয়া সমন্বয়ক মুহাম্মদ মেহদি।
সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পথে
অনলাইন ডেস্ক :পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের সূত্র উদ্ধৃত করে ইংরেজি দৈনিক ডন জানাচ্ছে, মোট ২৭২টি আসনের মধ্যে ১১৯টি আসনের আংশিক ফলাফলে স্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে আছেন ইমরানের পিটিআই। এখন পর্যন্ত ৪৯% অর্থাৎ অর্ধেকেরও কম আসনের ফলাফলে ইমরান খানের দলের অগ্রযাত্রা দেখে পর্যবেক্ষকরা নিচ্ছেন তিনি পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন। তবে নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ১৩৭টি আসন পিটিআই প্রার্থীরা জিততে পারবে কিনা, তা নিয়ে এখনও প্রবল সন্দেহ রয়েছে। সন্দেহ সত্যি প্রমাণিত হলে, ইমরান খানকে কোয়ালিশন সরকার গড়তে সহযোগী খুঁজতে হবে। ইমরান খানের সমর্থকেরা ইতিমধ্যেই রাস্তায় নেমে উল্লাস করছেন। এখন পর্যন্ত ফলাফলে দেখা যাচ্ছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএলএন) পেয়েছে ৬৪ টি আসনে এগিয়ে, বিলওয়াল ভুট্টোর দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)’র এগিয়ে ৪৩টি আসনে। পাকিস্তানের ইতিহাসে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বেসামরিক দলের মধ্যে গণতান্ত্রিক উপায়ে ক্ষমতা হস্তান্তর হতে যাচ্ছে। এর কারণে এবারের নির্বাচনকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে বিশ্ব গণমাধ্যম। এবার ১০ কোটি ৬০ লাখ নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে ৫০%-৫৫% শতাংশ ভোট পড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। নতুন প্রধানমন্ত্রীর প্রধান চ্যালেঞ্জ নির্বাচনের আগে ইমরান কান বিবিসিকে বলেন, জিতলে তার নজরের কেন্দ্রে থাকবে পাকিস্তানের অর্থনীতি। পাকিস্তানের মুদ্রা রুপির মূল্যমান সম্প্রতি ২০ শতাংশ পড়ে গেছে। জিনিসপত্রের দাম ঊর্ধ্বমুখী এবং রপ্তানি আয়ের চেয়ে আমদানি ব্যয় বেড়েই চলেছে। চীন থেকে আসা সস্তা কাপড়চোপড় আসায় পাকিস্তানের বস্ত্র খাত সঙ্কটে পড়েছে। অর্থনীতিবিদরা সাবধান করছেন, ২০১৩ সালের পর পরিস্থিতি সামাল দিতে পাকিস্তানকে হয়তো আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কাছে যেতে হবে। বিবিসির সেকেন্দার কেরমানি বলছেন, সরকারি ব্যয় সঙ্কোচন সহ কঠোর কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হবে পরবর্তী সরকারকে। নির্বাচনের স্বচ্ছতা প্রশ্নবিদ্ধ এদিকে, তার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলওয়াল ভুট্টো নির্বাচনে অব্যবস্থাপনা সেইসঙ্গে বড় ধরণের ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলেছেন।ভোটের ফলাফল খুব ধীরে ধীরে প্রকাশ করায় তারা এমন অভিযোগ তোলেন। নির্বাচনে ভোট গ্রহণ এবং ভোট গণনা নিয়ে শুরু থেকেই এমন নানা বিতর্ক দেখা দিয়েছে। নির্বাচনের আগে থেকেই নওয়াজ শরীফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ নওয়াজ- পিএমএল-এন অভিযোগ করেছে যে পিটিআইকে বিজয়ী করতে আদালতের সহায়তা নিয়ে সেনাবাহিনী কয়েকটি স্থানে তাদের বিরুদ্ধে ধরপাকড় অভিযান চালিয়েছে। এদিকে স্বাধীন গণমাধ্যম বলছে, পিটিআই এর বাইরে অন্য দলগুলোকে দমন করার প্রচেষ্টাও চালিয়েছে সেনাবাহিনী। যদিও সেনারা এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে। অন্যদিকে মানবাধিকার কমিশনও নির্বাচনের বৈধতা ও স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিরা অভিযোগ করেছেন যে, ভোট গণনার সময় তাদের পোলিং এজেন্টদের ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। এমনকি নির্বাচনী শৃঙ্খলা ভেঙ্গে ফলাফলের সার্টিফাইড কপি দিতেও অস্বীকৃতি জানিয়েছে বলে তারা অভিযোগ করে। বেশ কয়েকটি নির্বাচনী এলাকা বিশেষ করে পিএমএল-এন এর শক্তিশালী কেন্দ্র পাঞ্জাব প্রদেশে বেসরকারি ফলাফল ঘোষণায় অস্বাভাবিক বিলম্ব হওয়ায় ফলাফলের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিশ্লেষকরা। তবে নির্বাচন কর্মকর্তারা ভোট কারচুপির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে তাদের দেরি হচ্ছে। এছাড়া পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ইমরান খানকে জেতানোর চেষ্টা করছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, সেটাও অস্বীকার করেছে দলের নেতৃবৃন্দ। কে এই ইমরান খান? একসময়কার এই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা ১৯৯২ সালে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে দেশের জন্য বিশ্বকাপ জয় করেছিলেন। ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা করেছেন তিনি। প্লেবয় জীবনধারা এবং তিনটি বিবাহের কারণে গণমাধ্যমের মনোযোগ আকর্ষণ করেছিলেন তিনি। ১৯৯৬ সালে পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দলটি চালু করেন কিন্তু দীর্ঘদিন তিনি নেতা হিসেবে পেছনের সারিতে ছিলেন। পাকিস্তানের দুর্নীতি এবং বংশীয় রাজনীতির বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি। অভিযোগ উঠেছে যে তার দল সামরিক মধ্যস্থতার সুবিধা নিয়েছে। যদিও ইমরান খান এই অভিযোগ অস্বীকার করেন। নির্বাচন কেন্দ্রে হামলার পর ভোট পরিস্থিতি: পাকিস্তানের এই নির্বাচনকে ঘিরে অনেক রক্তপাত দেখতে হয়েছে দেশটির সাধারণ মানুষকে। এমনকি ভোটের দিনও একটি ভোটকেন্দ্রে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে বহু মানুষ হতাহত হন। তবে স্থানীয় সাংবাদিক মনির আহমেদ জানান, “হামলার পর পর জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল ঠিকই, তবে খানিকক্ষন পরেই ভোটাররা আবারও ভোট দিতে এসেছেন। সবাই ভেবেছিল ভোট দেয়া হয়তো বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তবে এমন কিছুই হয়নি। ভোটারদের মধ্যে এরপরও নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের ব্যাপারে বেশ উতসাহ উদ্দীপনা দেখা যায়।” কোন পথে হাঁটবে নওয়াজ শরীফের দল? প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল- পিএমএলএন সেইসঙ্গে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ছোট দলগুলো ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে ফলাফল প্রত্যাখ্যানের দিকে ঝুঁকছে। দলীয় নেতা এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের ভাই শাহবাজ শরীফ তার টুইট বার্তায় অভিযোগ করেন, ” যেভাবে জনগণের সিদ্ধান্তকে অসম্মানিত করা হয়েছে, তা মেনে নেয়া যায়না।” পানামা পেপারস কেলেঙ্কারির ঘটনায় দুর্নীতির অভিযোগে বর্তমানে জেল খাটছেন নওয়াজ শরীফ। পিটিআই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করতে না পারলে নওয়াজ শরীফ ও বিলওয়াল ভুট্টো জোট গঠন করতে পারে বলে ধারণা করছেন কেউ কেউ। এদিকে, ভোট গণনায় মতো যদি সরকার গঠনের ক্ষেত্রেও দেরী হয় তাহলে সেটি পাকিস্তানের জনগণের বড় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। কেননা পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাস সেইসঙ্গে অর্থনৈতিক সংকট নিয়ে তারা আগে থেকেই বেশ উদ্বিগ্ন। নারী ভোটারের উপস্থিতি: তবে এবারের নির্বাচনে নারী ভোটারের উপস্থিতি আগের চাইতে ভালো ছিল বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের ডেইলি নিউজ পত্রিকার সাংবাদিক মনির আহমেদ। গতবছর দেশটির নির্বাচন কমিশন নারী ও পুরুষ ভোটারের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে প্রতিটি এলাকায় অন্তত ১০ শতাংশ নারী ভোটারের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করেছিল। নির্বাচন কমিশনের এমন নিয়মের ব্যাপারে মনির আহমেদ বলেন, “আফগানিস্তানের সীমান্ত সংলগ্ন ভোটকেন্দ্রগুলোয় নারী ভোটারদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে এই নিয়ম বা নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এর কারণে বেলুচিস্তানে এবারের নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। এছাড়া পাকিস্তানের শহর কেন্দ্রীক যে ভোটকেন্দ্রগুলো রয়েছে যেমন, করাচি, লাহোর বা ইসলামাবাদ। সেখানে নারী ভোটারদের উপস্থিতি বরাবরই ভাল থাকে।” গতকাল ভোট গ্রহণের সময়সীমা একঘণ্টা বাড়াতে দলগুলো, নির্বাচনের কমিশনের কাছে অনুরোধ জানালেও কেন্দ্রগুলো নির্ধারিত সময়েই বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে সেই এক ঘণ্টা বাড়ানো হলেও ফলাফলে কোন পরিবর্তন আসতো না বলে জানান মি. আহমেদ।
পাকিস্তান নির্বাচন নিয়ে কিছু তথ্য
অনলাইন ডেস্ক :পাকিস্তানে ১১তম সাধারণ নির্বাচনে সকাল ৮টা থেকে সারাদেশে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবারের নির্বাচনে ১০ কোটি ৫ লাখ লোক দেশটির পরবর্তী সরকার গঠনের জন্য ভোট দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। এই নির্বাচনে নওয়াজ শরীফের দল পিএমএল-এন’র সঙ্গে ইমরান খানের দল পিটিআই’র ও বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলওয়াল ভুট্টো জারদারির দল পিপিপি’র হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। তবে এই নির্বাচনে অনেকগুলো দিক রয়েছে যা অবাক করার মতো। নিচে এমন পাঁচটি তথ্য তুলে ধরা হলো: এক. এ পর্যন্ত কোনো পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীই তাদের মেয়াদ পুরো করতে পারেনি। একটি সরকার মেয়াদ পুরো করে পরবর্তী সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে, পাকিস্তানে এমনটা দ্বিতীয়বারে মতো ঘটতে যাচ্ছে। এর আগে সরকারগুলো অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছে। কখনো বা নেতারা আদালতের আদেশে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছেন। দুই. পাকিস্তানে রাজনীতির একজন বড় নেতৃত্ব ক্ষমতাচ্যুত হয়েছেন। তিনবার প্রধানমন্ত্রী হওয়া নওয়াজ শরীফ ২০১৭ সালে অপসারিত হন। তাঁর নির্বাচনে দাঁড়ানো নিষিদ্ধ করা হয় এবং জুলাই মাসে তাকে দুর্নীতির দায়ে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ ঘটনার জন্য তিনি সামরিক বাহিনীকে দায়ী করেন। তিন. এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন রেকর্ড সংখ্যক নারী প্রার্থী। মোট ২৭২টি পার্লামেন্টারি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৭১ জন নারী। পুরুষ আধিপত্য রয়েছে এমন উপজাতীয় এলাকায় প্রথম নারী প্রার্থী হয়েছেন আলি বেগম। চার. এবার উগ্রপন্থী গোষ্ঠীগুলোও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এই নির্বাচনে নিষিদ্ধ গোষ্ঠীগুলোও অংশ নিয়েছে। কিছু সংবাদ মাধ্যম উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যে এভাবে উগ্রপন্থী সংগঠনগুরো রাজনীতিতে প্রবেশ করছে। পাঁচ. তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থীরাও এবার নির্বাচন করছেন। এমন অন্তত চার জন প্রার্থী ভোটে দাঁড়িয়েছেন, যারা লিঙ্গ পরিবর্তন করেছেন। তাদের প্রথমবারের মতো নির্বাচনে লড়ার অনুমতি দেওয়া হয় ২০১৩ সালে।
কানাডায় গুলিতে নিহত ২-আহত ১৩
অনলাইন ডেস্ক: কানাডার টরন্টোতে গুলিতে দুইজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে একজন বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত হয়েছেন। এছাড়া পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন হামলাকারীও। আহত হয়েছেন শিশুসহ অন্তত ১৩জন। খবর বিবিসির। রবিবার রাতে টরেন্টোর ড্যানফরথ এবং লোগান এভিয়েজ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। গোলাগুলির সময় ২৫টি গুলির শব্দ শোনা গেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। আহতদের অনেককে ঘটনাস্থলেই চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এছাড়া গুরুতর আহতদের নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এখন পর্যন্ত হামলার কোনো কারণ জানতে পারেনি পুলিশ। ইতোমধ্যে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। প্রত্যক্ষদর্শী জন অ্যারাল্ডাসন জানান, রাতের ওই সময় এলাকাটি জমজমাট ছিল। সবগুলো রেস্টুরেন্টই ছিল মানুষে পরিপূর্ণ। রাস্তাটির পাশে একটি ফোয়ারা থাকায় ওই এলাকায় মানুষ হাঁটাচলা করছিল। এ সময় হঠাৎ গুলিবর্ষণ শুরু হলে তারা সবাই ছোটাছুটি শুরু করেন। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে আহতদের প্রতি সহানুভূতি জানিয়ে অন্টারিওর মুখ্যমন্ত্রী ডাগ ফোর্ড ভুক্তভোগীদের সহায়তায় যারা এগিয়ে এসেছেন তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
জাপানে তাপদাহে ৩০ জনের মৃত্যু, সতর্কতা জারি
অনলাইন ডেস্ক: জাপানজুড়ে তীব্র তাপদাহের ফলে দু’সপ্তাহে দেশটিতে অন্তত ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাপদাহজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন হাজারো নাগরিক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আশঙ্কায় দেশজুড়ে সতর্কবার্তা জারি করেছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। স্থানীয় আবহাওয়া অধিদফতরের বরাত দিয়ে রবিবার (২২ জুলাই) আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানায়, এই সপ্তাহে জাপানের মধ্যাঞ্চলে তাপমাত্রা উঠে গেছে ৪০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত, যা গত পাঁচ বছরে দেশটিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। আর সাবেক রাজধানী কিয়োটো শহরে গত সাত দিনে টানা তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। একনাগাড়ে এমন তীব্র তাপমাত্রা এর আগে ১৯ শতকের শুরুর দিকে দেখা গিয়েছিল জাপানে। দেশটির কর্মকর্তারা সাধারণ লোকজনকে হিটস্ট্রোক এড়ানোর জন্য পর্যাপ্ত পানি এবং শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এলাকায় থাকার উপদেশ দিচ্ছেন। এদিকে ২০২০ সালে টোকিওতে অলিম্পিক গেমস অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তখনও এই রকম গরম অনুভূত হবে। এই রকম তাপমাত্রার পরিপ্রেক্ষিতে অলিম্পিক খেলা নিয়ে ভাবছেন দেশটির কর্মকর্তারা। অলিম্পিক পরিদর্শক দলের প্রধান জন কোটস গত সপ্তাহ টোকিওতে ছিলেন। তিনি বলেন, এই তাপমাত্রা হবে অলিম্পকিস সংগঠকদের জন্য একটা বড় রকমের চ্যালেঞ্জ। ওয়ান নিউজ বিডি
মিসৌরির নৌকাডুবিতে নিহতদের ৯ জনই এক পরিবারের
অনলাইন ডেস্ক: ঝড়ের কবলে পড়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি অঙ্গরাজ্যে পর্যটকবাহী ছোট নৌকাডুবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭ জন হয়েছে। এর মধ্যে একই পরিবারের শিশুসহ নয়জন বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) মিসৌরির একটি হ্রদে ধারণক্ষমতার বেশি ৩১ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। পরে ডুবুরি দল গিয়ে অভিযান চালিয়ে নিখোঁজদের উদ্ধার করে। মিসৌরি রাজ্য সরকার প্রধান মাইকেল পারসন বলেছেন, হ্রদে নৌকা ডুবে এ পর্যন্ত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ওই নৌকার এক নারীর সঙ্গে কথা বলে তিনি জানতে পেরেছেন, নিহতদের মধ্যে নয়জনই তার (নারীর) পরিবারের সদস্য। তবে সৌভাগ্যক্রমে দুইজন বেচেঁ যান। এদিকে, নৌকায় কারও জন্য কোনো লাইফ জ্যাকেট ছিল না বলে সরকার প্রধানের কাছে অভিযোগ করেছেন ওই নারী। নারী বলেন, নৌকা যখন ডুবে যাচ্ছে তখন চালক লাইফ জ্যাকেট দিতে পারবে না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন। এছাড়া নৌকাটিতে তার ধারণ ক্ষমতা থেকে বেশি যাত্রী ওঠানো হয়েছিল। মিসৌরি হাইওয়ে চৌকি বলছে, দুর্ঘটনায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের বয়স এক থেকে ৭০ এর মধ্যে। এছাড়া যারা বেঁচে আছেন তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। নৌকা চালকও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পর্যটন হ্রদে 'ডাক বোট' বা ছোট নৌকায় ওঠার শখ বেশি থাকে ভ্রমণপ্রিয়দের। আর তাতে মাঝে মাঝে ওভারলোড হয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে।
ফ্লোরিডায় দুটি প্রশিক্ষণ বিমান মুখোমুখি সংঘর্ষে বিধ্বস্ত
অনলাইন ডেস্ক :যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের জলাভূমি এভারগ্লেইডসের মাঝ আকাশে দুটি প্রশিক্ষণ বিমান মুখোমুখি সংঘর্ষে বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে একজন ভারতীয়সহ চারজন মারা গেছেন বলে জানা গেছে। সেখানকার স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুর একটার দিকে বিধ্বস্তের ঘটনাটি ঘটে বলে জানা যায়। খবর সিএনএন। মায়ামি দেইদ পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বিস্ফোরণের ঘটনা দেখে প্রত্যক্ষদর্শীরা জরুরি সেবা ৯১১ এ ফোন দেয়। সিএনএন অধিভূক্ত টিভি স্টেশন ডাব্লিউএসভিএন এক প্রতিবেদনে জানায়, বিধ্বস্ত হওয়া একটি বিমান থেকে দুইজন নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়। তৃতীয় লাশটি পাওয়া যায় দ্বিতীয় আরেকটি বিমান থেকে। দুর্ঘটনাটি মায়ামি এক্সিকিউটিভ এয়ারপোর্ট থেকে নয় মাইল পশ্চিমে ঘটে থাকে বলে এফএএ সূত্রে জানা যায়। বিমান দুইটি পাইপার পিএ-৩৪ এবং সেসনা ১৭২ এয়ারক্রাফট মডেলের ছিল। মায়ামি দেইদের পুলিশ ডিটেকটিভ আলভারো জাবালেটা বলেন, মঙ্গলবার গভীর রাত পর্যন্ত খোঁজাখুজি চলছিল। গতকাল বুধবার নিখোঁজ আরও একজনের খোঁজে নতুন করে তল্লাশি শুরু হয়। তল্লাশি কাজ চলার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই চতুর্থ লাশটিকে উদ্ধার করা হয়। নিহত চারজন মায়ামি এক্সিকিউটিভ এয়ারপোর্ট ভিত্তিক একটি ফ্লাইট স্কুলের শিক্ষার্থী ও প্রশিক্ষক। নিহতরা হলেন কার্লোস আলফ্রেডো জানেত্তি স্কারপাতি (২২), হোর্হে সানচেজ(২২), র‌্যালফ নাইট এবং নিশা সেজওয়াল(১৯)। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ফেডারেল এভিয়েশন এডমিনিস্ট্রেশন এবং ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্টেশন সেফটি বোর্ডের এজেন্টরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছিলেন। তবে বিধ্বস্তের ঘটনাটির সঠিক কারণ এখনও জানা যায়নি। চারজন নিহতের মধ্যে একজন লাইসেন্স প্রাপ্ত পাইলট ছিলেন না বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে কর্তৃপক্ষ মনে করছে, বিমান দুইটি সম্ভবত একটি প্রশিক্ষণ অনুশীলন পরিচালনা করছিল। প্রতিটি বিমানে একজন করে ছাত্র ও প্রশিক্ষক ছিলেন।
বাংলাদেশে নতুন মার্কিন রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন মিলার
অনলাইন ডেস্ক :বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী রাষ্ট্রদূত হিসেবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মনোনয়ন পেতে যাচ্ছেন আর্ল রবার্ট মিলার। সাড়ে তিন বছর ধরে বাংলাদেশে মার্কিন দূতাবাসের দায়িত্ব সামলে আসছিলেন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট। এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউজ বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মঙ্গলবার আর্ল রবার্ট মিলারকে ওই পদের জন্য মনোনীত করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আনুষ্ঠানিক মনোনয়ন দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস অনুমোদন করলে শিগগিরই বার্নিকাটের জায়গায় দেখা যাবে মিলারকে। মার্কিন মেরিন কোরের সাবেক কর্মকর্তা মিলার পররাষ্ট্র দপ্তরের হয়ে কাজ করে আসছেন ১৯৮৭ সাল থেকে। আর ২০১৪ সাল থেকে তিনি আফ্রিকার দেশ বতসোয়ানায় রাষ্ট্রদূতের পালন করে আসছেন। মিলার ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে যুক্তরাষ্ট্রের কনসাল জেনারেলের দায়িত্ব পালন করেন। নয়াদিল্লি, বাগদাদ ও জাকার্তায় মার্কিন দূতাবাসে আঞ্চলিক নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসেবেও তিনি কাজ করেছেন। মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করার পর মিলার যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন কোরে। ১৯৮১ থেকে ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত তিনি মেরিন কোরে এবং ১৯৮৫ থেকে ১৯৯২ পর্যন্ত মেরিন কোর রিজার্ভে অফিসার পদে ছিলেন।
আমিরাতি প্রিন্সের কাতার পলায়ন
অনলাইন ডেস্ক: জীবননাশের হুমকির মুখে কাতারে পালিয়ে গেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের এক প্রিন্স। শেখ রশিদ বিন হামাদ আল-শার্কি নামের ওই প্রিন্স দোহার কাছে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন বলেও খবর বেরিয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাতটি মনার্কির (রাজ্য) ফুজারিয়াহ আমিরের দ্বিতীয় সন্তান ৩১ বছর বয়সী শেখ রশিদ। গত ১৬ মে তিনি দোহা পৌঁছেছেন বলে খবরে বলা হয়েছে। জীবন হুমকির মুখে থাকায় তিনি দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই প্রিন্স। মার্কিন গণমাধ্যম দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস রোববার এক প্রতিবেদনে এমন খবর দিয়েছে বলে জানিয়েছে পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন। প্রসঙ্গত, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাতটি মনার্কি বা রাজ্যের মধ্যে আবুধাবি দেশটির রাজধানী এবং সবচেয়ে ধনী অঞ্চল। নিউ ইয়র্ক টাইমসকে শেখ রশিদ আমিরাতি শাসকদের ব্লাকমেইল ও অর্থপাচারের ব্যাপারে বলেছেন। তবে এ ব্যাপারে তিনি কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি। এ ছাড়া ইয়েমেন যুদ্ধ নিয়ে দেশটির এলিটদের মধ্যে যে উত্তেজনা বিরাজ করছে তাও ফাঁস করে দেন শেখ রশিদ। তিনি বলেন, ইয়েমেন যুদ্ধে প্রকাশ্যে ১০০ আমিরাতি সেনা নিহতের কথা বলা হলেও বাস্তবে আরো বেশি নিহত হয়েছে এবং অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় ফুজারিয়াহ মনার্কির সেনা বেশি নিহত হয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপির পক্ষ থেকে এক আমিরাতি কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেননি। তবে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ বলেছেন, এর কোনো ভিত্তি নেই, এগুলো রাজপরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। উল্লেখ্য, কাতার সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন করছে এবং গাল্ফ অঞ্চলের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করছে এমন অভিযোগ এনে ২০১৭ সালের জুন মাসে দেশটির সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক চ্ছিন্ন করে সৌদি আরব, মিসর, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। বিশ্বে তরল প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানিতে প্রথম কাতার সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের ওই অভিযোগ শুরু থেকেই প্রত্যাখ্যান করে আসছে। নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৪৭ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম রাজপরিবারের কোনো সদস্য শাসকদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খুলল।