বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০
কেরালার পর পাঞ্জাব বিধানসভায় সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাস
১৮জানুয়ারী,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের পাঞ্জাব বিধানসভায় সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাস হয়েছে। বিধানসভার বিশেষ অধিবেশনে গতকাল শুক্রবার ওই প্রস্তাব পাস হয়। পাঞ্জাবের মন্ত্রী ব্রহ্ম মহিন্দ্র বিধানসভায় প্রস্তাবটি পেশ করেন। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার যে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন তৈরি করেছে তার বিরুদ্ধে এ নিয়ে দুটি রাজ্য বিধানসভা প্রস্তাব পাস করলো। এর আগে সিপিএম নেতৃত্বাধীন কেরালার এলডিএফ সরকার বিধানসভায় সিএএ প্রত্যাহারের দাবিতে প্রস্তাব পাস করেছিল। এবার পাঞ্জাবের কংগ্রেস সরকারও একই পথে হাঁটলো। কংগ্রেসশাসিত পাঞ্জাব সরকারের মন্ত্রী ব্রম্ম মহিন্দ্রা বিধানসভায় সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পেশ করতে গিয়ে বলেন, নতুন নাগরিকত্ব আইন ঘিরে দেশজুড়ে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। দেশের সর্বত্র বিক্ষোভ চলছে। পাঞ্জাবেও সিএএ বিরোধী বিক্ষোভ হয়েছে, তবে তা হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবে। এবং এতে সমাজের সব অংশের মানুষ অংশগ্রহণ করেছে। পাঞ্জাব বিধানসভায় পেশ করা প্রস্তাবে বলা হয়, সিএএ দেশের সংবিধান এবং এর মূল চেতনার পরিপন্থী। এটি দেশের নির্দিষ্ট ধর্মের মানুষদের পরিচিতি নষ্ট করার প্রয়াস। এই আইনের মাধ্যমে অভিবাসী মানুষকে বিভক্ত করার চিন্তাভাবনা রয়েছে এবং এটি সাম্যের অধিকার বিরোধী। প্রস্তাবটিতে আরও বলা হয়েছে, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি বা এনআরসি এবং জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন বা এনপিআর সম্পর্কে লোকদের সন্দেহ ও দ্বিধাদ্বন্দ্ব রয়েছে, এগুলো দূর করে একে পাস করা উচিত। সিএএ তেও পরিবর্তন করা উচিত বলেও প্রস্তাবে বলা হয়। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং সম্প্রতি বলেছিলেন, তার সরকার এই বিভাজনমূলক আইন কার্যকর করতে দেবে না। তিনি বলেন, এই আইনটি এনআরসি এবং এনপিআরের পাশাপাশি ভারতীয় সংবিধান লঙ্ঘন করে। অমরিন্দর সিং বলেন, তিনি সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেয়ার বিরোধী নন, কিন্তু তিনি সিএএ তে মুসলিমসহ কিছু ধর্মীয় সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে বৈষম্যের বিরোধী। মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সম্পর্কে সাফ জানান, ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ অবকাঠামো সবসময়ই শক্তিশালী ছিল। কিন্তু কেউ যদি এটিকে বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা করেন তবে কংগ্রেসের পাশাপাশি এদেশের মানুষও এর বিরোধিতা করবে। বিজেপি এবং তার মিত্ররা এর পরিণতির কথা চিন্তা না করেই এই বুনিয়াদকে ধ্বংস করতে ব্যস্ত বলেও মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং মন্তব্য করেন।
বিল গেটসের প্রশংসায় ভাসলেন বাংলাদেশি বাবা-মেয়ে
১৭জানুয়ারী,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস বাংলাদেশের শিশুমৃত্যু হ্রাস করার জন্য বাংলাদেশের বাবা-কন্যা মাইক্রোবায়োলজিস্টের দুজনের কাজের প্রশংসা করেছেন। বাবা মাইক্রোবায়োলজির অধ্যাপক ডা. সমির সাহার সঙ্গে বর্তমানে শিশু স্বাস্থ্য গবেষণা ফাউন্ডেশন (সিএইচআরএফ)-এ কাজ করছেন ডা. সেঁজুতি সাহা। গত মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) বিল গেটস তার ব্যক্তিগত ব্লগ গেটসনোটসে লিখেছেন, একসঙ্গে, বাবা-মেয়ের এই টিম বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্যের একটি গতিশীল জুটি। ইতিবাচক কাজে সমাজের রূপ বদলে দেয়ার স্বপ্ন নিয়ে যারা কাজ করেন তাদের নিয়ে নিয়মিত বিল গেটস হিরোস ইন দ্য ফিল্ড শিরোনামে ব্লগ লেখেন মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা। মঙ্গলবার বিল গেটস বাংলাদেশি এই বাবা-মেয়েকে বেছে নিয়েছেন তার এবারের নায়ক হিসেবে। তিনি লিখেন, নিম্ন আয়ের দেশগুলোর সঙ্গে সম্পদশালী দেশের স্বাস্থ্যসেবার পার্থক্য, যেখানে শিশু মৃত্যুর হার বেশি রয়েছে; সেসব কমিয়ে আনতে কাজ করছেন তারা। এক্ষেত্রে তারা উপাত্ত, রোগ নির্ণয়ের সর্বাধুনিক পদ্ধতি এবং সংক্রামক ব্যাধির বিরুদ্ধে টিকাদানকে কাজে লাগাচ্ছেন। তাদের এই গবেষণা শুধু বাংলাদেশেই নয় বরং একই ধরনের সমস্যার সম্মুখীন দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশেও তাদের কাজ ব্যবহৃত হচ্ছে, লিখেন গেটস। বাংলাদেশ এবং অন্যান্য দেশে শিশু মৃত্যুর হার হ্রাস করতে সিএইচআরএফ প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করেন ডা. সামির। গেটস বলেন, সিএইচআরএফ-র কাজ এবং শিশুদের জন্য সরকারের গৃহীত টিকাদান কর্মসূচি এবং স্বাস্থ্যসেবায় জোরালো সহায়তার কারণে বাংলাদেশে পাঁচ বছর বয়সের নিচের শিশু মৃত্যুহার কমেছে এবং সার্বিক স্বাস্থ্যসেবারও উন্নয়ন ঘটেছে। বাংলাদেশে এখন প্রায় ৯৮ শতাংশ টিকাদান কর্মসূচির আওতায় এসেছে বলেও জানান তিনি। ডা. সমিরের গেটস লিখেন, তিনি ঢাকা শিশু হাসপাতালের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রধান। শিশুমৃত্যুর বড় দুই ঘাতক ব্যাধি মেনিনজাইটিস ও নিউমোনিয়া রোগের টিকা ব্যবহারে বাংলাদেশকে সহায়তায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন তিনি। মাইক্রোসফটের এই সহ-প্রতিষ্ঠাতা আরও লিখেন, স্বাস্থ্যখাতের উন্নতি ঘটলেও বাংলাদেশের এখনও অনেক পথ পাড়ি দেয়ার রয়েছে। চলতি বছরে গোলকিপারস ইভেন্টে অংশ নিয়ে ডা. সেঁজুতি সাহা বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতে এখনও যে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে সেসব গল্প তুলে ধরেছেন। শিশুদের চিকিৎসার জন্য বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ চিকিৎসা কেন্দ্র ঢাকা শিশু হাসপাতালে প্রত্যেক বছর ৬ হাজারের বেশি শিশু ভর্তি না হতে পেরে ফিরে যায়। কারণ হাসপাতালটি ৬৬৫ শয্যার। আর এসব আসন সবসময় পূর্ণ থাকে। ডা. সমির ও ডা. সেঁজুতির কাজের প্রশংসা করে নিজের ব্লগের ইতি টেনেছেন গেটস। তিনি লিখেন, এই বাবা-মেয়ের কাজের কল্যাণে বাংলাদেশ এমন এক ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, যেখানে সংক্রামক ব্যাধি খুব কম থাকবে এবং হাসপাতালের শয্যাগুলো ফাঁকা থাকবে।
যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষর
১৬জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অবশেষে বাণিজ্যযুদ্ধ অবসানে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বিশ্বের দুই পরাশক্তি চীন ও যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার ওয়াশিংটনে দুই দেশের মধ্যে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়। একে বলা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র-চীন প্রথম ধাপের বাণিজ্য চুক্তি। চুক্তি স্বাক্ষরের পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বিষয়টিকে মার্কিন অর্থনীতির জন্য রূপান্তরকারী হিসেবে উল্লেখ করেন। অন্যদিকে চীন এ চুক্তিকে উভয় দেশের জন্য উইন-উইন বলে অভিহিত করেছে। চুক্তির আওতায় মার্কিন পণ্যসামগ্রী আমদানির পরিমাণ বাড়াবে চীন। এরই মধ্যে আগামী দুই বছরে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাড়তি ২শ বিলিয়ন ডলারের পণ্য ও সেবা কেনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বেইজিং। এর বিপরীতে চীনের ওপর আরোপিত কিছু শুল্ক স্থগিত রাখবে ওয়াশিংটন। এই চুক্তির মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যকার অর্থনৈতিক সম্পর্ক কিছুটা স্বাভাবিক হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ইউনিসেফ নির্বাহী বোর্ডের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলো বাংলাদেশ
১৫জানুয়ারী,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা সর্বসম্মতিক্রমে ইউনিসেফের নির্বাহী বোর্ডের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার জাতিসংঘ সদরদপ্তরে ইউনিসেফের নির্বাহী বোর্ড ব্যুরোর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ভাইস-প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছে জাতিসংঘে নিযুক্ত মরক্কো ও লিথুয়ানিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি এবং ব্রাজিল ও সুইজারল্যান্ডের উপ-স্থায়ী প্রতিনিধি। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার ফলে এখন থেকে বাংলাদেশ শিশুদের জন্য বিশেষভাবে নিয়োজিত জাতিসংঘ সংস্থা ইউনিসেফের কর্মকাণ্ডে কৌশলগত দিক-নির্দেশনা প্রদান করতে পারবে। উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে ২০১৯-২০২১ মেয়াদে বাংলাদেশ এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে নির্বাহী বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হয়। রাষ্ট্রদূত ফাতিমা সম্প্রতি জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দিয়েছেন। তার পূর্বসূরী রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন ২০১৯ সালে ইউনিসেফের নির্বাহী বোর্ডে ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন। বিশ্বব্যাপী শিশুরা যে সকল ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে তা মোকাবিলাসহ ২০২০ সালকে ইউনিসেফের জন্য একটি অর্থবহ ও কার্যকর বছরে পরিণত করতে বোর্ড সদস্যগণ সর্বসম্মতিক্রমে তাকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করে বাংলাদেশের নেতৃত্বের প্রতি যে আস্থা রেখেছেন সেজন্য ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রদূত ফাতিমা। শিশুদের কল্যাণ সাধন, উন্নয়ন ও অধিকার সুরক্ষার জন্য এই নির্বাহী বোর্ড নতুন নতুন ধারণা ও কৌশল সৃজনে নিবেদিতভাবে কাজ করবে মর্মে প্রতিশ্রুতির কথা জানান বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি। শিশুদের কল্যাণ ও উন্নয়নে ইউনিসেফ গৃহীত বিভিন্নমুখী পদক্ষেপসমূহের ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। অন্যান্য কাজের পাশাপাশি সেবা গ্রহণকারী দেশসমূহের প্রাধিকার ও প্রয়োজনভিত্তিক কর্মকাণ্ডে ইউনিসেফের সেবা আরও নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করবে মর্মে জানান স্থায়ী প্রতিনিধি। ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েট্টা ফোর নতুন প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, তার সুদীর্ঘ অভিজ্ঞতা ও প্রজ্ঞার আলোকে ইউনিসেফ আলোকিত হবে। নতুন প্রেসিডেন্টের নেতৃত্বে নির্বাহী বোর্ডের দিক-নির্দেশনা ইউনিসেফের কাজকে আরও গতিশীল করবে মর্মে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ফোর।
সিএএ অসাংবিধানিক ঘোষণা করতে কেরালা সরকারের মামলা
১৪জানুয়ারী,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে (সিএএ) অসাংবিধানিক ঘোষণা করার আর্জি জানিয়ে আজ মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছে কেরালা সরকার। এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে বিধানসভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিএএ বাতিলের প্রস্তাব পাস করিয়ে নিয়েছিল পিনারাই বিজয়নের সরকার। বিজয়ন বলেন, স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই আমাদের রাজ্যে কোনও ডিটেনশন ক্যাম্প করতে দেবো না। ধর্মনিরপেক্ষতার একটা নিদর্শন এই রাজ্য। শুরু থেকেই এ রাজ্যে গ্রিক, রোমান, আরবীয়, খ্রিস্টান, মুসলিম সব সম্প্রদায়ের মানুষ একসঙ্গে বাস করছেন। এটা আমাদের ঐতিহ্য। এই ঐতিহ্যকে কখনওই নষ্ট হতে দেবো না। সিএএ প্রয়োগ করে নাগরিকদের মৌলিক অধিকার খর্ব করার চেষ্টা হচ্ছে বলেও অভিযোগ তুলেছেন বিজয়ন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সংসদের দুই কক্ষে সিএএ পাস হওয়ার পর থেকেই দেশের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে একটা আশঙ্কার পরিবেশ তৈরি হয়েছে। বিভিন্ন রাজ্যে এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলছে। কেরালায়ও এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলছে। সিএএ নিয়ে দেশজুড়ে প্রতিবাদ, আন্দোলন চলছে বেশ কয়েক দিন ধরেই। এই আইন বাতিলের দাবিতে হাজার হাজার মানুষ পথে নেমেছেন। সিএএ-কে অসাংবিধানিক এবং ধর্মীয় বিভাজনের আইন হিসেবে চিহ্নিত করেছে বিরোধী দলগুলো। সংসদে সিএএ পাস হওয়ার পরেই তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে কেরালার মুখ্যমন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, এই আইন অসাংবিধানিক। কোনোভাবেই এই আইনের প্রয়োগ হতে দেবো না কেরালায়। অভিযোগ তোলেন, আরএসএস-এর নীতি মেনে এই আইন পাস করিয়ে ধর্মীয় বিভাজনের চেষ্টা করছে বিজেপি। এরপরই বিধানসভায় সিএএ বাতিলের প্রস্তাবও পাস করিয়ে নেন বিজয়ন। কেরালার রাজ্যপাল সরকারের এই প্রসঙ্গে বলেছিলেন, রাজ্য সরকারের এ ধরনের পদক্ষেপের কোনও আইনি বৈধতা নেই। কারণ এই আইন সম্পূর্ণ কেন্দ্রের বিষয়।
আফগানিস্তানে তীব্র শৈত্যপ্রবাহে ১৭ জনের মৃত্যু
১৩জানুয়ারী,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আফগানিস্তানজুড়ে চলছে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ। দেশটির কয়েকটি স্থানে ব্যাপক তুষারপাত ও প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে। চরম বৈরি এ আবহাওয়ার মধ্যে গত শনিবার কমপক্ষে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। আফগানিস্তানের সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়। দেশটির আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, তীব্র শীত আফগানিস্তানের জন্য পুরোনো ঘটনা হলেও এ বছর আবহাওয়া আরও চরম আকার ধারণ করেছে। তুষারপাত ও শীতজনিত কারণে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তারা। আফগানিস্তানের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা টিমের মুখপাত্র তামিম আজিমি বলেন, এই দেশে এ রকম চরম শৈত্যপ্রবাহ আশা করিনি আমরা। ভারি তুষারপাতে হতাহতের ঘটনা ঘটছে বলে খবর পাচ্ছি। নির্দিষ্টভাবে মোট কতজন হতাহত হয়েছে এই মুহূর্তে সে তথ্য আমাদের কাছে নেই।’ আবহাওয়া বিভাগের পূর্বাভাস শাখার প্রধান মোহাম্মদ নাসিম মুরাদি বলেন, দেশটির কোনো কোনো অংশে তাপমাত্রা মাইনাস ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত নেমে গেছে। আগামী সপ্তাহগুলোতে আরও কয়েকটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।
ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য অবস্থানরত বিমানঘাঁটিতে রকেট হামলা
১৩জানুয়ারী,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় সালাদিন প্রদেশের আল বালাদ বিমানঘাঁটিতে রোববার রকেট হামলা চালানো হয়েছে। এতে কমপক্ষে চার ইরাকি সৈন্য আহত হয়েছেন। এই ঘাঁটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যরা অবস্থান করছিলেন কিন্তু কোনও আমেরিকান সৈন্য আহত হননি বলে জানা গেছে। খবর কাতারের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম আল জাজিরার। সরকারি কর্মকর্তারা জানান, কমপক্ষে ছয়টি রকেট আঘাত হানে এই ঘাঁটিতে। এছাড়া বেশকিছু প্রজেক্টাইল ছোড়া হয় এই ঘাঁটির ভেতরের একটি রেস্টুরেন্টে। ইরাকের রাজধানী বাগদাদ থেকে ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল) দূরে অবস্থিত এই ঘাঁটিতে একাধিক আমেরিকান প্রশিক্ষক ও উপদেষ্টা ছিলেন বলে জানা গেছে। দেশটিতে অবস্থিত দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ইরান ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার কয়েক দিন পর রোববারের রকেট হামলার বিষয়টি সামনে এলো। এখনও কোনও ব্যক্তি বা গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। আল বালাদ বিমানঘাঁটিতে থাকা বেশির ভাগ আমেরিকান সৈন্য ইতোমধ্যে অন্য জায়গায় চলে গেছেন বলে একাধিক সামরিক সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে ফ্রান্সের সংবাদ সংস্থা শীর্ষস্থানীয় এএফপি। সালাদিন প্রদেশের কর্নেল মোহাম্মদ খালিল জানান, কিছু শেল এই বিমানঘাঁটির রানওয়েতে আঘাত হানে। অন্যান্য শেল গেটে আঘাত হানে। আহতদের তিনজন এই গেটে পাহারা দিচ্ছিলেন। এই বিমানঘাঁটিতে আমেরিকান প্রশিক্ষক ও উপদেষ্টাদের অবস্থান করার বিষয়টি এক অজ্ঞাত প্রতিরক্ষা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)।
যুক্তরাষ্ট্রে ঝড়ের আঘাতে ৮ জনের মৃত্যু
১২জানুয়ারী,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলে ঝড়ে প্রাণ গেছে আট জনের। ঝড়ে বাতাস ও ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত আছে। প্রাণহানি হয়েছে আলাবামা, লুইজিয়ানা ও টেক্সাস রাজ্যে। ঝড়ে এ পর্যন্ত বিদ্যুতহীন আছে লাখো মানুষ। ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি সড়ক তলিয়ে গেছে বন্যার পানিতে। শনিবার বেশ কয়েকটি টর্নেডো সতর্কতা রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছে আলাবামা রাজ্যটি। এদিকে, শিকাগোর দুটি প্রধান বিমানবন্দরে শতাধিক ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া মিসৌরি, ওকলাহোমা ও আরকানসাসে ঘরবাড়ির ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে। যদিও আগেই নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে বলা হয়েছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। ঝড়ে দেশটির মধ্য পশ্চিমাঞ্চলে বরফ ও তুষারের উপস্থিতি থাকবে বলে আবহাওয়া সতর্কতায় জানানো হয়েছে।
এরদোগান ২০১৯ সালের সেরা মুসলিম ব্যক্তিত্ব
১১জানুয়ারী,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তুরস্কের প্রেসিডন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানকে ‘বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্ব ২০১৯ ঘোষণা করেছে নাইজেরিয়ার একটি ইসলামপন্থী পত্রিকা। বিশ্বজুড়ে মুসলমানদের অধিকারের পক্ষে দাঁড়ানোয় তাকে এই খেতাব দেয়া হয়েছে বলে ওই পত্রিকাটির দাবি। মুসলিম নিউজ নাইজিরিয়ার প্রকাশক রাশেদ আবু বকর বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও মুসলিম বিশ্বে তিনি যে ক্ষমতা ও প্রভাবের অধিকারী হয়েছেন, তাতে এরদোগানকে এই খেতাবের জন্য পছন্দ করার মধ্যে কোনো বিতর্ক নেই। এর আগে ২০১৮ সালেও তাকে বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্ব ঘোষণা করেছিল পত্রিকাটি। প্রকাশক আবু বকর বলেন, বিশ্বজুড়ে তার প্রভাবের কারণেই এবারেও তাকে এই খেতাবে ভূষিত করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট সবসময় ভুক্তভোগী লোকজনের পক্ষ দাঁড়ান। সিরিয়া, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিপীড়ন, কাশ্মীর ও ফিলিস্তিন ইস্যুতে এরদোগানকে সবসময় সরব দেখা গেছে। এছাড়া মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করতে কুয়ালালামপুর সম্মেলনেরও আয়োজন করেছেন এরদোগান। বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্বের তালিকায় আরও রয়েছেন, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ, সোমালি বংশোদ্ভূত মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য ইলহান ওমর, গাম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আদামা ব্যারো ও তুর্কি বংশোদ্ভূত জার্মান ফুটবল তারকা মেসুত ওজিল।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর