এখনই আলোচনার জন্য প্রস্তুত নয় ভারত
১মার্চ,শুক্রবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানের সঙ্গে এখনই আলোচনায় প্রস্তুত নয় বলে জানিয়েছে ভারত। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে দ্রুত গ্রহণযোগ্য ব্যবস্থা নিলেই কেবল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরানের খানের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লির শীর্ষ কর্মকর্তারা এ তথ্য জানান। এর আগে, পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী রাজি থাকলে তাকে শান্তি আলোচনার প্রস্তাব দিতে প্রস্তুত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। জবাবে ভারত আরো জানায়, তাদের পাইলটকে মুক্তি দেয়া হলেও, শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠকের পূর্বশর্ত; পাকিস্তান থেকে যেসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড হচ্ছে দেশটির প্রধানমন্ত্রীকে তার তদন্ত করতে হবে। এদিকে, ভারতীয় পাইলটের মুক্তির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে জাতিসংঘ। নয়াদিল্লিকে দেয়া ইসলামাবাদের শান্তি আলোচনার প্রস্তাবকে ইতিবাচক বলছে তুরস্ক। আর মোদি-ইমরান বৈঠকের ওপর গুরুত্বারোপ করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।
পাকিস্তানের আকাশসীমা বন্ধে বিপাকে ভারতীয় বিমান চলাচল
২৮ফেব্রুয়ারী,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারত-পাকিস্তান হামলা পাল্টা হামলার জেরে ইসলামাবাদ আকাশসীমা বন্ধ ঘোষণা করায় বিপাকে পড়েছে ভারতের বেসামরিক বিমান চলাচল। বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ইসলামাবাদের এ ঘোষণার পরপর নয়া দিল্লি থেকে ৪৭টি ফ্লাইট বিঘ্নিত হয়। মুম্বাই থেকে ১৬টি ফ্লাইট সময় মতো ছেড়ে যেতে পারেনি। পাকিস্তানের ওপর দিয়ে যেতে পারছে না ভারতের কোনো বিমানও। এতে বিপাকে পড়েছেন নিয়মিত যাত্রীরা। ভারতে এয়ার কানাডা বাতিল করেছে তাদের সেবা। থাই এয়ারওয়েজ ভারত থেকে ইউরোপে চালানো ফ্লাইটগুলো বন্ধ রেখেছে। এছাড়া বন্ধ রয়েছে, কাশ্মীরের লেহ, জম্মু, শ্রীনগর, পাঠানকোট, পাঞ্জাবের অমৃতসর, দেরাদুনসহ বেশ কয়েকটি বিমানবন্দর। অন্যদিকে লাহোর এয়ারপোর্টের ম্যানেজার জানান, লাহোর, মুলতান, ফয়সালাবাদ, শিয়ালকোট এবং ইসলামাবাদের সব ফ্লাইট বাতিল করেছেন তারা। এমনকি চীনের গুয়াংজু থেকে আসা একটি ফ্লাইটকে ফেরত পাঠানো হয়েছে।
ভারতের ২ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত, বৈমানিক আটক: দাবি পাকিস্তানের
২৭ফেব্রুয়ারী,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর মুখপাত্র দাবি করেছেন, ভারত তাদের দেশের সীমান্ত অতিক্রম করার পর তাদের দুটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে পাকিস্তানের বিমান বাহিনী। একই সঙ্গে ভারতীয় এক বৈমানিককে আটক করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার পারমাণবিক শক্তিধর দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতি আরও বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে। অবশ্য ভারতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বলেছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে বর্তমান উত্তেজনাকর পরিস্থিতির আর অবনতি দেখতে চায় না তার দেশ। বুধবার পাকিস্তানের মেজর জেনারেল আসিফ ঘাফু জানান, অমীমাংসিত কাশ্মীর অঞ্চলে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত অংশে একটি বিমান এবং ভারত নিয়ন্ত্রিত অংশে আরেকটি বিমান বিধ্বস্ত করতে সক্ষম হয়েছে পাকিস্তানের বিমান বাহিনী। সেই সঙ্গে ভারতীয় এক বৈমানিককে আটক করেছেন পাকিস্তানের সেনারা। এদিকে এ বিষয়ে নয়াদিল্লিতে ভারতের বিমান বাহিনীর মুখপাত্র অনুপম ব্যানার্জি বলেন, পাকিস্তানের এই বিবৃতির বিষয়ে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। এর আগে ভারতের সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা মুনির আহমেদ খান জানান, কাশ্মীরে ভারত নিয়ন্ত্রিত অংশে একটি ভারতীয় বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। দেশটির আরেক পুলিশ কর্মকর্তা এস.পি. পানি জানান, বুদগম এলাকায় যেখানে যুদ্ধবিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে সেখানে অগ্নি নির্বাপক কর্মীরা কাজ করছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুর্ঘটনাস্থল থেকে বাসিন্দাদের দূরে রাখার জন্য সেনার ফাঁকা গুলি ছুড়ছেন। ভারত জানিয়েছে, পাকিস্তানের সঙ্গে বর্তমান উত্তেজনাকর পরিস্থিতির আর অবনতি দেখতে চায় না তারা। দায়িত্ব ও সংযমের সঙ্গে দুদেশের কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে চায় ভারত। পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে ভারতের মর্টার শেলের আঘাতে ছয়জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে বলে পাকিস্তানের পুলিশ জানানোর পরপরই ভারতের পক্ষ থেকে এ ধরনের বক্তব্য দেয়া হয়। বুধবার ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বলেছেন, জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ভারতে আবার হামলার প্রতিরোধের জন্য দৃঢ় পদক্ষেপ হিসেবে মঙ্গলবার পাকিস্তানের অভ্যন্তরে সীমিত আকারে আক্রমণ চালানো হয়েছে। চীনের হুয়েনে রাশিয়া, ভারত ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে ১৬তম বৈঠকে সুষমা এ কথা বলেন। এর আগে বুধবার পাকিস্তানের স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলতাফ জানান, কাশ্মীরে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কোতলি গ্রামে ভারতের হামলায় শিশুসহ অন্তত ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। পাকিস্তান ও ভারত উভয়ই এলাকাটিকে নিজেদের অংশ হিসেবে দাবি করেছে। ভারতীয় বিমান আকাশসীমা লঙ্ঘন করে পাকিস্তানে প্রবেশ করে বোমা হামলা চালিয়েছে বলে মঙ্গলবার পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র টু্ইট করেন। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলেও দাবি করেন ওই মুখপাত্র। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় এক আত্মঘাতী হামলায় ভারতের আধা সামরিক বাহিনীর ৪০ জনের বেশি সদস্য নিহত হন। পাকিস্তান-ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ হামলার দায় স্বীকার করে। এরপর প্রতিবেশী দুদেশের সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে। ভারত এই হামলার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করে প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি দিতে থাকে। তবে পুলওয়ামা হামলায় পাকিস্তানের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ভারত তাদের ওপর হামলা করলে পাকিস্তানও পাল্টা জবাব দেবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। প্রসঙ্গত, ১৯৪৭ সালে বৃটিশ শাসনমুক্ত হওয়ার পর থেকেই অমীমাংসিত কাশ্মীর রাজ্য নিয়ে পারমাণবিক ক্ষমতাধর ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। পাকিস্তানের অধীনে স্বাধীন রাজ্য হিসেবে কাশ্মীরকে চায় এক গোষ্ঠী। অন্যদিকে ভারতের অধীনে কাশ্মীরকে চায় আরেক গোষ্ঠী।-ইউএনবি
ইন্দোনেশিয়ায় সোনার খনিতে চাপা পড়েছেন ৬০ জন
২৭ফেব্রুয়ারী,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইন্দোনেশিয়ার উত্তর সুলাওয়েসি দ্বীপে একটি অবৈধ সোনার খনিতে ভূমিধসে অন্তত ৬০ জন চাপা পড়েছেন বলে আশঙ্কা করছেন কর্তৃপক্ষ। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুলাওয়েসি দ্বীপের বোলাং মোনগোনডৌ এলাকার ওই অবৈধ সোনার খনিতে বিপুল সংখ্যক গর্ত সৃষ্টি হয়ে মাটি ভঙ্গুর হয়ে যাওয়ার কারণে ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত অর্ধ-শতাধিক মানুষে মাটির নিচে চাপা পড়ে। বুধবার দেশটির জাতীয় দুর্যোগ সংস্থা বিবৃতি দিয়ে স্থানীয় দুর্যোগ কর্মকর্তা আব্দুল মুইন পাপুতুঙ্গান জানান,ধারণা করা হচ্ছে মাটি ও পাথরের নিচে প্রায় ৬০ জনের মতো চাপা পড়ে আছেন। ইন্দোনেশিয়ায় প্রায়ই অবৈধভাবে বিভিন্ন খনিতে কার্যক্রম চলে, যাতে হাজার হাজার শ্রমিক জীবিকার তাগিদে গুরুতর আহত বা নিহত হওয়ার ঝুঁকিতে কাজ করেন। পুলিশ ও উদ্ধার সংস্থার কর্মী, সামরিক ও ইন্দোনেশিয়ার রেড ক্রস কর্মীরা উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। তবে দূরবর্তী প্রত্যন্ত এলাকায় উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা তাদের জন্য কষ্টকর হয়ে পড়েছে।-এপি/ইউএনবি
ভারত-পাকিস্তানের পাল্টাপাল্টি হামলা
২৭ফেব্রুয়ারী,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিমান হামলার জবাবে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে পাল্টা হামলা চালিয়েছে পাকিস্তান। মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকেলে পাকিস্তান জম্মু-কাশ্মীরের অন্তত ৫০টি স্থানে মর্টার ও গুলি চালায় বলে জানায় ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়। এর জবাবে ভারত আবারও হামলা চালায়। এতে পাকিস্তানের আজাদ কাশ্মীরে চার বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৭ জন। এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের হামলার পাল্টা জবাব দিতে মঙ্গলবার ভারতের জম্মু-কাশ্মীরের ৫০টিরও বেশি এলাকায় মর্টার হামলা ও গুলি চালায় পাকিস্তান। এতে বেশ কয়েকজন ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য আহত হয়। তবে পাকিস্তানের মর্টার হামলার তাৎক্ষণিক জবাব দেয় ভারতীয় সেনারাও। উভয়পক্ষের সংঘাতে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরের বেশ কয়েকজন বেসামরিক নাগরিক হতাহত হয়েছেন বলে খবর প্রকাশ করেছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন। এমন অবস্থায় পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি জানান, জঙ্গি নির্মূলে তার দেশের সেনাবাহিনীর যথেষ্ট সক্ষমতা রয়েছে। তবে সন্ত্রাস দমনের নামে কেউ পাকিস্তানের অভ্যন্তরে হামলা চালালে, জবাব দেবে ইসলামাবাদ। আরিফ আলভি বলেন, আমাদের সেনারা জানে কিভাবে সন্ত্রাস ও জঙ্গিদের মোকাবিলা করতে হয়। তবে সন্ত্রাস দমনের নামে পাকিস্তানের অভ্যন্তরে কেউ হামলা চালাতে পারে না। যদি এমনটা হয়, তবে দেশ ও দেশের জনগণের স্বার্থে যে কোনো পদক্ষেপ নিতে সশস্ত্র বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। দুই দেশের চরম উত্তেজনাকে কেন্দ্র করে উদ্বেগ জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মহল। পাকিস্তান ও ভারত দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম দেশ উল্লেখ করে তাদের সংঘাত পরিহারের আহ্বান জানিয়েছে চীন। এর আগে, ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভারতের সেন্ট্রাল রির্জাভ ফোর্সের গাড়িবহরে চালানো আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় অন্তত ৪০ সদস্য নিহত হয়। এরপর থেকে দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এমন সংঘাতময় পরিস্থিতি নিরসনে দ্রুত কোনো পদক্ষেপ বা আলোচনায় না বসলে যেকোনো সময় যুদ্ধ বেঁধে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।
পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে ভারতের বোমাবর্ষণ
২৬ফেব্রুয়ারী,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কাশ্মীর সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত অংশে সন্দেহভাজন বিচ্ছিন্নতাবাদীদের ঘাঁটি লক্ষ্য করে বোমাবর্ষণ করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার জবাবে এ হামলা চালিয়েছে সংস্থাটি। সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৩টার দিকে ১২টি জঙ্গি মিরাজ জেট ফাইটার জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে ১০০০ কেজি বোমাবর্ষণ করে বলে দেশটির বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের বরাত দিয়ে জানিয়েছে একাধিক সংবাদমাধ্যম। এই আক্রমণে ভারতীয় বিমানবাহিনীর লক্ষ্যবস্তু সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়েছে বলেও জানিয়েছেন সংস্থাটির কর্মকর্তারা। তবে ভারতের বিরুদ্ধে আকাশসীমা লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে পাকিস্তান বলছে, এই হামলায় কোনো ক্ষয়ক্ষতি কিংবা হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।
আসাম রাজ্যে আবারো বিষাক্ত মদপানে অর্ধশত চা-শ্রমিক নিহত
২৩ফেব্রুয়ারী,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আসাম রাজ্যে আবারো বিষাক্ত মদপানে অর্ধশত ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। এর মধ্যে ১১ জনই নারী। আজ শনিবার সকালের এসব প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, আশঙ্কাজনক অবস্থায় আরো অনেককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই চা-বাগানের দরিদ্র শ্রমিক। এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে রাজ্য পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। তবে বিভিন্ন গণমাধ্যমের নিহতের সংখ্যা ৩২, ৪১ থেকে ৬৬ পর্যন্ত দেখানো হয়েছে। রাজ্য বিধানসভার স্থানীয় বিধায়ক মৃণাল শইকিয়া সংবাদসংস্থা থমসন রয়টার্সকে বলেন, প্রায় ১০০ জন শ্রমিক ওই বিষমদ পান করেছিলেন। খাওয়ার পরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তাঁরা। পরে তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রয়টার্সের প্রতিবেদনে নিহতের সংখ্যা ৪১ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। রাজ্য পুলিশের ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট পার্থ প্রতিম সাইকিয়ার বরাত দিয়ে দিল্লিভিত্তিক অনলাইন পোর্টাল নিউজএইটটিন এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে আসাম রাজ্যের গুয়াহাটি থেকে ৩১০ কিলোমিটার দূরে গোলাঘাটের শালমিরা চা বাগানে মদ পান করে অসুস্থ হয়ে পড়েন শ্রমিকরা। পরে তাঁদের হাসপাতালে নেওয়া হলে একে একে নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। এই প্রতিবেদনে নিহতের সংখ্যা ৬৬ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। শালমিরা চা-বাগানের কাছেই জুগিবাড়ি এলাকায় অবৈধভাবে তৈরি দেশীয় মদ কারখানার মালিকসহ দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন পুলিশের কর্মকর্তা পার্থ প্রতিম। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহভাজন অন্য ব্যক্তিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই এলাকায় গ্লাসপ্রতি ১০ থেকে ২০ টাকায় অবৈধ দেশীয় মদ পাওয়া যায়। এতে নিহতের সংখ্যা ৩২ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এর আগেও বিষাক্ত মদ খেয়ে উত্তরপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডে নিহত হয়েছিলেন ১০০ জনেরও বেশি মানুষ। তার দুই সপ্তাহ যেতে না যেতেই আবারো আসাম রাজ্যে ঘটলো এ ঘটনা।
রাজধানীর চকবাজারের অগ্নিকাণ্ড আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে
২১ফেব্রুয়ারী,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশের রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের খবর স্থানীয় সব গণমাধ্যমের মতো আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোও বেশ গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ করেছে। ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে সরকারি কর্মকর্তা ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বলা হয়, বাংলাদেশের রাজধানীর পুরান ঢাকার একটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ৭০ জন এবং প্রায় ৫০ জন আহত হয়েছেন। দমকলকর্মীরা নয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। পাকিস্তানের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম ডন ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে জানায়, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার পুরোনো অংশের একটি ভবনে আগুন লেগে কমপক্ষে ৬৯ জন নিহত হয়েছেন। ভবনটিতে রাসায়নিক পদার্থের গুদাম ছিল বলেও এই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। কাতার-ভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরার অনলাইন ভার্সনে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনটিকে প্রধান খবর হিসেবে রাখা হয়েছে। দমকল কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এতে বলা হয়, বাংলাদেশের রাজধানীর পুরান ঢাকার একটি ভবনের কয়েকটি অ্যাপার্টমেন্টে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ৭০ জন মারা গেছেন। আগুন নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এএফপি জানায়, ঢাকার একটি ঐতিহাসিক এলাকায় একাধিক অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কমপক্ষে ৭০ জন নিহত হয়েছেন। ফায়ার সার্ভিসের বরাত দিয়ে আরও জানায়, রাসায়নিক দ্রব্যের গুদাম হিসেবে ব্যবহৃত একটি ভবন থেকে আগুনের সূত্রপাত। যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সর পরিচালক জুলফিকার রহমানের বরাত দিয়ে জানায়, বাংলাদেশের রাজধানীর পুরান ঢাকায় কয়েকটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৭০ জনের মতো মানুষ মারা গেছেন। এই সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও বার্তা সংস্থাটিকে জানান এই বাংলাদেশি সরকারি কর্মকর্তা। যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক গণমাধ্যম সিএনএন এই অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ৭০ জন নিহত এবং ৪০ জন আহত হয়েছেন বলে জানায়। ঢাকা পুলিশের ডেপুটি কমিশনার ইবরাহিম খানের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানায়, একটি গাড়ির জ্বালানি সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয় বলে মনে করা হচ্ছে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ-ভিত্তিক গণমাধ্যম আনন্দবাজারে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনে দমকল বাহিনী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বলা হয়, ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঢাকার একটি বহুতলে। বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে এবং বিষাক্ত ধোঁয়ায় শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৭০ জনের। দুর্ঘটনাটি ঘটে বুধবার রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ ঢাকার চকবাজার এলাকায়।