সৌদি আরবে ঈদ মঙ্গলবার
৩জুন২০১৯,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সৌদি আরবে পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে সোমবার (৩ জুন)। ফলে আগামীকাল মঙ্গলবার (৪ জুন) দেশটিতে ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। সৌদি আরবের সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে এই ঘোষণা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদপত্র আরব নিউজ। এদিকে বেশ কয়েকটি দেশ এর আগেই ঘোষণা করেছে যে মঙ্গলবার রমজানের শেষদিন। এসব দেশে বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্র খালিজ টাইমস। আল মোওয়াতেন নামের একটি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে সংবাদপত্রটি জানায়, ইন্দোনেশিয়া ঘোষণা করেছে যে রমজানের শেষদিন মঙ্গলবার এবং দেশটিতে বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। জাপান ও মালয়েশিয়ার চাঁদ দেখা কমিটিও ঘোষণা করেছে যে বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে ইউএইএ’র দূতাবাসের একটি বিবৃতির বরাত দিয়ে খালিজ টাইমস জানায়, দেশটিতে মঙ্গলবার হবে রমজানের শেষদিন এবং বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। পাকিস্তানে বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে দেশটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। তিনি জানান, তার মন্ত্রণালয়ের তৈরি চন্দ্রপঞ্জিকা অনুসারে বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। অস্ট্রেলিয়াতেও ঈদের দিন ঘোষণা করা হয়েছে। দি অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইমামস কাউন্সিল গত সপ্তাহেই ঘোষণা করেছে যে দেশটিতে আগামী বুধবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে।
আল আকসা মসজিদ রণক্ষেত্রে পরিণত
৩জুন২০১৯,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইসরায়েলি পুলিশ ও ফিলিস্তিনি মুসল্লীদের মধ্যে সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে আল আকসা মসজিদ। এর আওতার একটি অংশকে নিজেদের পবিত্র স্থান টেম্পল মাউন্ট হিসেবে দাবি করে থাকে ইহুদিরা। বিবিসি, এএফপি। জানা গেছে, ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে শত শত ইহুদি রোববার আল-আকসা মসজিদে ঢুকে পড়ে। ফলে আল-আকসা মুসল্লিদের মধ্যে উত্তেজনা ও আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। এ সময় ইসরায়েলি পুলিশও মুসলিমদের ওপর হামলা চালায়। ফিলিস্তিনি মুসল্লিদের লক্ষ্য করে টিয়ার গ্যাস শেল নিক্ষেপ করে ইসরায়েলি বাহিনী। এ ছাড়া বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনিকে আটক করে। এর আগে গত সোমবার সশস্ত্র বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ইহুদিরা আল-আকসায় প্রবেশ করেছিল। সেদিন তারা জেরুজালেম দিবসকে সামনে রেখে ২ জুন আবার মসজিদে ফিরে আসার ঘোষণা দেয়। গেল ৩০ বছরের মধ্যে এই প্রথম পবিত্র রমজান মাসে ইহুদিদের পবিত্র আল-আকসা মসজিদে প্রবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়। জেরুজালেমের পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মসজিদের ভেতর বিক্ষোভকারীরা নিজেদের অবরোধ করে রাখে এবং ইসরায়েলি বাহিনীকে লক্ষ্য করে চেয়ার ও পাথর ছুড়তে থাকে। মুসলিম ওয়াকফ সংগঠন জানায়, ফিলিস্তিনিদের ওপর পুলিশ রাবার বুলেট ও মরিচ স্প্রে ব্যবহার করেছে। এ ছাড়া দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উল্লেখ্য, ২ জুন জেরুজালেম দিবস নামে পরিচিত। ১৯৬৭ সালের এই দিনে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধ শেষ হয়। ওই যুদ্ধে জয়ী হয় ইসরায়েল। তাই প্রতি বছর ইসরায়েল দিনটি জেরুজালেম দিবস হিসেবে উদযাপন করে থাকে।
ভার্জিনিয়ায় সরকারি ভবনে এলোপাতাড়ি গুলি, নিহত ১২
১জুন,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের একটি সরকারি ভবনে বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি গুলিতে ১২ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন। গতকাল শুক্রবার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টার দিকে বিচ মিউনিসিপ্যাল সেন্টারে এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশের গুলিতে ওই বন্দুকধারীও নিহত হন। তবে তার পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় শুক্রবার (বাংলাদেশ সময় শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে) ওই সরকারি কর্মচারী তাকে অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুত করার প্রতিবাদে সহকর্মীদের ওপর নির্বিচারে গুলিবর্ষণ শুরু করেন। এ ঘটনায় এক পুলিশ অফিসারও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ এসে ওই অফিসটি ঘিরে ফেলে এবং ভবন থেকে লোকজনকে বের হয়ে আসতে সাহায্য করে। এক পর্যায়ে তারা বন্দুকধারীকে গুলি করে হত্যা করে। ভার্জিনিয়ার পুলিশ প্রধান জেমস কারভেরা জানিয়েছেন, বন্দুকধারী পুলিশ কর্মকর্তাদের দিকে ফিরে গুলি শুরু করলে পুলিশের গুলিতেই ওই ব্যক্তি নিহত হন। আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এই ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ। এদিকে হোয়াইট হাউসের এক মুখপাত্র জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে এই গুলির ঘটনা সম্পর্কে জানানো হয়েছে। এফবিআই তদন্তকারীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে তদন্তে সহায়তা করছেন বলে জানিয়েছে বিভিন্ন মার্কিন সংবাদমাধ্যম। উল্লেখ্য, মার্কিন নজরদারি ওয়েবসাইট গান ভায়োলেন্স আর্কাইভের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরে যুক্তরাষ্ট্রে এটা ছিল ১৫০তম নির্বিচার গুলির ঘটনা। ভার্জিনিয়া বিচ শহরটি ওই অঙ্গরাজ্যের সবচেয়ে জনবহুল শহর। এর বাসিন্দা প্রায় চার লাখ ৪০ হাজার।
পাকিস্তানকে রুখতে নতুন ক্ষেপণাস্ত্র আনছে ভারত
২৯মে,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাক-ভারত মধ্যকার উত্তেজনাকর পরিস্থিতিকে এবার আরও একধাপ উস্কে দিতে চলেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। পাকিস্তানের অতি অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমানগুলোকে প্রতিহত করতে নিজেদের যুদ্ধবিমানে নতুন ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সংযোজন করতে চলেছে ভারত। যার জন্য তারা ইসরায়েলের কাছ থেকে নতুন ডারবি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কিনতে পারে বলে দাবি বিশ্লেষকদের। ধারণা করা হচ্ছে, ইসরায়েলের নির্মিত ডারবি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাকে নিজেদের সুখোই যুদ্ধবিমানগুলোতে সংযোজন করতে চায় ভারত। ভারতীয় বিমান বাহিনীর দেওয়া তথ্যের বরাতে এনডিটিভি জানায়, আগামী দুই বছরের মধ্যে ইসরায়েলের কাছ থেকে কেনা অত্যাধুনিক ডারবি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাকে নিজেদের যুদ্ধবিমানের সঙ্গে যুক্ত করতে পারে ভারত। এসব ক্ষেপণাস্ত্র আকাশ থেকে আকাশে ব্যবহার করা সম্ভব। যে কারণে ভারত নিজেদের বিমান বহরে থাকা সুখোই-৩০ যুদ্ধবিমানে এসব ক্ষেপণাস্ত্রগুলো যুক্ত করতে পারে। বায়ু সেনাদের একটি সূত্র এনডিটিভিকে জানায়, ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য স্পাইডার সিস্টেমের আওতাধীন ডারবি ক্ষেপণাস্ত্রের বেশ কিছু চালান এরই মধ্যে ভারত নিজেদের হাতে পেয়েছে। তাদের পরবর্তী পদক্ষেপ হলো সুখোই যুদ্ধবিমানে সেগুলো প্রতিস্থাপন করা। এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি জঙ্গি দমনের অংশ হিসেবে পাকিস্তানের অভ্যন্তরে বালাকোটে বিমান হামলা পরিচালনা করেছিল ভারত। সম্প্রতি পুলওয়ামায় ভারতীয় সেনাদের ওপর চালানো জঙ্গি হামলার বদলা হিসেবে এই মিশন বলে দাবি কর্তৃপক্ষের। যদিও এসবের প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে ভারতের একটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করে তাদের একজন বৈমানিককে আটক করেছিল পাকিস্তান। বিশ্লেষকদের দাবি, সে বার পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের সঙ্গে টক্কর দিতে পারেনি ভারতের পুরনো মডেলের সুখোই। এ কারণেই নতুন ক্ষেপণাস্ত্রের সঙ্গে নিজেদের যুদ্ধবিমানগুলোকে সাজাতে চাইছে ভারত। প্রতিবেদনে বলা হয়, এই ডারবি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সংগ্রহের আরও একটি কারণ হলো- পাকিস্তান বর্তমানে মার্কিন এআইএম-১২০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করছে। যা বালাকোটে হামলার পরপরই খুব ভালোভাবে টের পেয়েছে ভারত। যে কারণে মার্কিন অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্টা জবাব দিতেই ভারত ইসরায়েলের তৈরি এই ডারবি ব্যবহার করতে চলেছে। যদিও কেবল এই ডারবিতেই আটকে থাকতে চায় না ভারত। এসবের পাশাপাশি নতুন এএসআরএএএম’ নামে আরও একটি ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয়ের পরিকল্পনাও করছে দেশটির সরকার। আকাশ থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য এই ক্ষেপণাস্ত্রও পরবর্তীতে সুখোই যুদ্ধবিমানের সঙ্গে সংযোজন করা হবে। এসবের পাশাপাশি ভারত নিজেরাও দীর্ঘদিন যাবত ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির পরিকল্পনা করছে। এরই মধ্যে যার নাম রাখা হয়েছে ‘অস্ত্র’। ভারতীয় বায়ু সেনাদের একটি সূত্র বলছে, এখন এই ‘অস্ত্র’ তৈরির কাজ পুরো দমে চলছে। এরই মধ্যে মোট ৫০টি ক্ষেপণাস্ত্রের কার্যাদেশ পাওয়া গেছে।
ব্রাজিলের কারাগারে সহিংসতায় নিহত অন্তত ৪০
২৮মে,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ব্রাজিলের উত্তরাঞ্চলের অ্যামাজোনাস রাজ্যের বেশ কয়েকটি কারাগার থেকে গতকাল সোমবার অন্তত ৪০ বন্দির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মাত্র একদিন আগেই নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে ১৫ কয়েদি নিহত হয়। গতকাল সোমবার অ্যামাজোনাস রাজ্যের রাজধানী মানাউসের বেশ কয়েকটি কারাগারে থেকে বন্দিদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এদের সবাইকে শ্বাসরোধে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে বলে জানায় কারাগার কর্তৃপক্ষ। নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে কারাগার পরিদর্শনে গিয়ে এসব মরদেহের খোঁজ পাওয়া যায় বলে জানান কর্মকর্তারা। বিবিসি জানায়, মরদেহের বেশিরভাগই মানাউসের নিকটবর্তী আন্তোনিও ত্রিনিদাদ ইনস্টিটিউট কারাগার থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া পুরাকুয়েকুয়ারা ও প্রভিশনাল ডিটেনশন সেন্টার কারাগার থেকেও মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ পরিস্থিতিকে ‘সংকটজনক’ বলছেন স্থানীয় গভর্নর উইলসন লিমা। গত রোববার কয়েদিদের দাঙ্গার ঘটনায় শুরু করা তদন্তের আওতায় গতকালকের ঘটনারও তদন্ত করা হবে বলে জানান তিনি। ব্রাজিলভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গ্লোবোনিউজ ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, কারাগারে এ ধরনের সংঘর্ষ নিরসনে একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে। এর আগে রোববার ১৫ কয়েদি নিহতের ঘটনায় আরো অনেকেই আহত হন বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়। রোববার একই অঞ্চলের আনিজিও জোবিম পেনিতেনসারি কমপ্লেক্স কারাগারে দর্শনার্থীদের জন্য নির্ধারিত সময়ে শুরু হওয়া সহিংসতায় ১৫ কয়েদি নিহত হন। এর আগে ২০১৭ সালেও এ কারাগারে দাঙ্গার ঘটনায় ৫৬ জন নিহত হয়েছিলেন। ব্রাজিলের কারাগারগুলোতে কয়েদির সংখ্যা ধারণক্ষমতার চেয়ে অনেক বেশি। সাত লাখ ১২ হাজার ৩০৫ জন বন্দি আছে দেশটির কারাগারে, যা সংখ্যায় বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম।
বেলজিয়ামে ইয়োলো ভেস্ট আন্দোলনে সহিংসতা, আটক ৩৫০
২৭মে,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বেলজিয়ামের ব্রাসেলসে ইয়োলো ভেস্ট (হলুদ জ্যাকেট) আন্দোলনে কালো হুডি পরে যোগ দেওয়া বিক্ষোভকারীদের আন্দোলন একপর্যায়ে সহিংসতায় রূপ নিলে তিন শতাধিক বিক্ষোভকারীকে আটক করেছে পুলিশ। বার্তা সংস্থা এপি জানায়, ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনের দিন ইয়োলো ভেস্ট বিক্ষোভকারীরা সামাজিক অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করে। কিছু বিক্ষোভকারী বিভিন্ন ভবনে হামলা ও পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে সামনে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সহিংসতার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। এদিকে ব্রাসেলস পুলিশের মুখপাত্র ইলস ভ্যান ডি কিরি বলেন, প্রায় ৩৫০ জনকে আটক করা হলেও পরে গতকাল রোববারই তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। গত অক্টোবর থেকে এ আন্দোলন শুরু হয়। সাপ্তাহিক ছুটির দিনে আয়োজিত এসব প্রতিবাদ-বিক্ষোভে ট্যাক্সিচালকদের ব্যবহৃত হলুদ জ্যাকেট পরে প্রতিবাদকারীরা অংশ নেওয়ায় এ আন্দোলনের নাম দেওয়া হয় ইয়োলো ভেস্ট আন্দোলন। এ আন্দোলনের নির্দিষ্ট কোনো নেতৃত্ব নেই।
দিল্লির মসনদে ফের মোদি
২৩মে,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের ১৭ তম লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। আর এর মধ্য দিয়ে আগামী পাঁচ বছরের জন্য আবারও দিল্লির মসনদে বসবেন নরেন্দ্র মোদি। ফল গণনার দুই ঘণ্টা না হতেই মোদির দল ক্ষমতায় থাকছে বলে খবর প্রকাশিত হয়েছে। ভারতে কেন্দ্রীয় সরকার গঠন করতে হলে ৫৪৩টি আসনের মধ্যে কমপক্ষে ২৭২টি আসন পেতে হবে কোন রাজনৈতিক দল কিংবা জোটকে। সেই ম্যাজিক নাম্বার বিজেপি খুব দ্রুতই অতিক্রম করে গেল। এনডিটিভির সরাসরি প্রচারিত তথ্যানুযায়ী, ৫৪৩ আসনের মধ্যে ৫১০টির ভোট গণনা সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে বিজেপি ৩১০ আসন পেয়েছে বিজেপি। বিপরীতে ১০৯ আসন পেয়েছে কংগ্রেস। স্বাধীন প্রার্থী কিংবা জোট পেয়েছে ৯২ টি আসন। ফল ঘোষণা বাকী ৪২টি আসনে। এর আগে বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়েছে ভোট গণনা। বিকেলের দিকে সম্পূর্ণ ফলাফল জানা যাবে বলে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো নিশ্চিত করেছে।
ভারতের লোকসভা ভোটের ফল আগামীকাল
২২মে,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতে লোকসভা ভোটের ফল জানা যাবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। তার আগে বুথফেরত জরিপ যে আভাস দিয়েছে, তাতে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ একটু স্বস্তি পেতেই পারে। জোটের নেতারা যে সেই জরিপের পূর্বাভাস ধরে আগামী দিনের কর্মপরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছেন, তা-ও আভাস মিলছে। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর আমন্ত্রণে গতকাল রাতে দিল্লির একটি পাঁচতারা হোটেলে বিশেষ ডিনারে হাজির হয়েছিলেন বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোটের নেতারা। ডিনারের আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের সঙ্গে একান্ত কথা বলেন। গত পাঁচ বছরে কাজের জন্য সব মন্ত্রীকে ধন্যবাদ দেওয়া হয়। এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের টিম মোদি সরকার বলে ধন্যবাদ দিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তিনি নিজের টুইটারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে নতুন ভারত ফের গঠন হবে বলেও জানান। গত রোববার শেষ পর্বের ভোটের দিন সন্ধ্যায় ভারতের বিভিন্ন সংস্থা তাদের বুথফেরত সমীক্ষায় বিজেপি তথা এনডিএকে এগিয়ে রাখলেও এদিনের ডিনার ছিল মূলত এনডিএর পরবর্তী স্ট্র্যাটেজি ঠিক করার জন্য। এদিন এনডিএ নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পাঞ্জাবে বিজেপির সহযোগী অকালি নেতা প্রকাশ সিং বাদল, তাঁর ছেলে সুখবীর বাদল, শিবসেনা নেতা উদ্ধব ঠাকরে, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার, রামবিলাস পাসোয়ান, তাঁর ছেলে চিরাগ পাসোয়ান, এআইএডিএমকের ই পালানিস্বামী ও পনিরসিলভম, আপনা দলের নেতা অনুপ্রিয়া প্যাটেল, রামদাস আটওয়ালে প্রমুখ। নির্বাচনী ফল প্রকাশের আগে এই নৈশভোজ ও বৈঠকে গত এনডিএ সরকারের বিভিন্ন কাজ এবং আগামী দিনের বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা হয় বলে জানা গেছে। আলোচনায় উঠে আসে তৃণমূল কংগ্রেসশাসিত পশ্চিমবঙ্গ এবং বামশাসিত কেরালা রাজ্যের কথাও। বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক হিংসার কড়া নিন্দা করা হয় বলে জানা গেছে। নৈশভোজে এনডিএর অটুট শক্তির কথা তুলে ধরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, এনডিএ ভারতের স্তম্ভ। তিনি বলেন, এনডিএ ভারতকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। ভারতের নিরাপত্তায় বদ্ধপরিকর এনডিএ। শাসক জোট প্রতিশ্রুতি রাখতে পেরেছে বলেই মানুষ এই জোটের প্রতি ভরসা রেখেছেন। এনডিএ জোট আবার ক্ষমতায় আসছে ধরে নিয়েই রাজনাথ সিং আরো বলেন, আগামী বছরগুলোতে আমাদের আরো দ্রুততার সঙ্গে কাজ করতে হবে। এদিন সন্ত্রাস দমনে এই সরকারের সফলতার কথাও আলোচনা হয় বলে সূত্রের খবর। সে ক্ষেত্রে আগামী দিনে আরো কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন রাজনাথ সিং। গত রোববার ভারতের লোকসভা নির্বাচনের শেষ পর্ব সমাপ্ত হওয়ার পর যে বিভিন্ন বুথফেরত সমীক্ষা আসতে থাকে, তাতে গড় ফল এনডিএ পেতে পারে ৩০২টির মতো আসন। ইউপিএ পেতে পারে ১২২টির মতো আসন। ভারতের ৫৪৩টি লোকসভা আসনের মধ্যে এবার নির্বাচন হয়েছে ৫৪২টি আসনে। কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসতে গেলে দরকার ২৭১টি আসন।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর