শুক্রবার, এপ্রিল ৩, ২০২০
ইসরায়েলকে শত্রু বিবেচনা করে জর্ডানের যুদ্ধ মহড়া
৩০নভেম্বর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জর্ডানের সামরিক বাহিনী ইসরায়েলকে শত্রু কল্পনা করে সামরিক মহড়া চালিয়েছে। মহড়ায় জর্ডানের বাদশাহ দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন। ইসরায়েলের সঙ্গে সম্ভাব্য যুদ্ধ মোকাবিলার কৌশল অনুশীলন করা হয় এ মহড়ায়। মহড়ায় বাদশাহ আব্দুল্লাহর পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী ওমর রাজ্জাকসহ আরও বেশ কয়েকজন শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। এবারের মহড়ার নাম দেয়া হয় কারামার তলোয়ার। ১৯৬৮ সালে ইসরায়েল ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন ফাতাহর বিরুদ্ধে যে অভিযান পরিচালনা করেছিল দৃশ্যত তার স্মরণে এ নাম দেয়া হয়েছে। কারামা গ্রামের কাছাকাছি সে যুদ্ধে ফাতাহ আন্দোলনের পাশাপাশি জর্ডানও লড়াই করেছিল। জর্ডানের একটি গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, সম্প্রতি দখলদার ইসরায়েলের সঙ্গে জর্ডানের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে এবং পাল্টাপাল্টি কড়া বিবৃতি চলছে। এ অবস্থায় অদূর ভবিষ্যতে ইসরায়েলের সঙ্গে ঠাণ্ডা লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। চলতি মাসের শুরুর দিকে বাদশাহ দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ ঘোষণা করেন যে, ইসরায়েলের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় ২৫ বছর আগে জর্ডানের যে দুটি ভূখণ্ড লিজ দেয়া হয়েছিল তার মেয়াদ শেষ হয়েছে এবং জর্ডান এখন ওই ভূমি ইসরায়েলের কাছে লিজ দেবে না। তবে ইসরায়েল জর্ডানের এ বক্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে। ইসরায়েলের সঙ্গে জর্ডানের কূটনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে কিন্তু জর্ডানের সাধারণ মানুষ তেল আবিবের সঙ্গে সম্পর্ক রাখাকে ভালো চোখে দেখে না।
ইরানি দূতাবাসে আগুন দিল বিক্ষোভকারীরা
২৮নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের দেয়া আগুনে পুড়ছে ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নাজাফে অবস্থিত ইরানি দূতাবাসে। এ ঘটনায় পুলিশের গুলিতে এক বিক্ষোভকারী নিহত এবং আহত হয়েছেন অন্তত ৩৫ জন। হামলার সময় দূতাবাসের কর্মীরা পিছন দরজা দিয়ে নিরাপদে বেরিয়ে যায়। আল জাজিরা প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বুধবার এ ঘটনার পর স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ওই এলাকায় কারফিউ জারি করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে এই ঘটনা ইরাকি বিক্ষোভকারীদের ইরানবিরোধী মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ। কর্মসংস্থানের অভাব, নিম্নমানের সরকারি পরিষেবা এবং দুর্নীতির অভিযোগ তুলে গত ১ সেপ্টেম্বর বাগদাদের রাজপথে নামে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী। ইরাকের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে ইরানসহ আঞ্চলিক কয়েকটি দেশের প্রভাব নিয়েও ক্ষোভ রয়েছে তাদের। নির্দিষ্ট কোনও রাজনৈতিক দলের অনুসারী না হয়েও অনিয়মের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধের আওয়াজ নিয়ে রাজপথে নামে বিক্ষোভকারীরা। নিরাপত্তা বাহিনী টিয়ার গ্যাস ও গুলি চালিয়ে তাদের ওপর চড়াও হলে এ বিক্ষোভ আরও জোরালো হয়ে ওঠে। তা ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন শহরে। বিশেষ করে শিয়া অধ্যুষিত দক্ষিণাঞ্চলীয় বেশ কয়েকটি শহরে বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। এখন পর্যন্ত এই বিক্ষোভে প্রায় সাড়ে তিনশ মানুষ নিহত হয়েছে।
ফেসবুকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে লাখ টাকার গয়না লুট
২৭নভেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফেসবুকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে নগদ টাকা ও গয়না লুট করেছিলেন এক যুবক। ভারতের লেকটাউনের ওই ঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহবধূর কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর গ্রেফতার করা হয়েছে দুইজনকে। সূত্রের খবর, ফেসবুকে লেকটাউনের বাসিন্দা ওই গৃহবধূর সঙ্গে পরিচয় হয় সন্দেশখালির সৌমিত্র মণ্ডলের। সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করে। এরপরই ওই গৃহবধূকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ের প্রস্তাব দেয় সৌমিত্র। কথা মতো সমস্ত গয়না, টাকা-পয়সা নিয়ে আনন্দপুরে চলে আসেন গৃহবধূ। এরপরই ব্যাগটি নিজের কাছে নেয় ওই যুবক। ঘুরে আসার নাম করে কার্যত চম্পট দেন তিনি। ঘটনার পরই লেকটাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই গৃহবধূ। অভিযোগের ভিত্ততে তদন্তে নামে পুলিশ। সোমবার বাঁশদ্রোণী এলাকা থেকে মূল অভিযুক্ত সৌমিত্রকে গ্রেফতার করে পুলিশ, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুলাল নামে আরও এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। দুলালকে জেরা করে তার কাছ থেকে সমস্ত সোনা-গয়না উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পুরো বিশ্বের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি যুক্তরাষ্ট্র: ইরান
২৬নভেম্বর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ইরান বলেছে, বিশ্বের একমাত্র রাসায়নিক অস্ত্রধর দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র পুরো বিশ্বের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে রয়েছে। হেগে রাসায়নিক অস্ত্র বিষয়ক আন্তর্জাতিক কনভেনশনের ২৪তম বার্ষিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে গতকাল সোমবার এ আশঙ্কার কথা জানান ইরানের আইন বিষয়ক উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম-হোসেইন দেহকান। তিনি অবিলম্বে যুক্তরাষ্ট্রের সব রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংস করে ফেলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা- ওপিসিডব্লিউকে যুক্তরাষ্ট্রের রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংসের প্রক্রিয়া তদারকি করতে হবে। ইরানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার দেশের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের একতরফা নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়ে বলেন, নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের ওপর ইরাকের মাধ্যমে চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্রে আহত ইরানি নাগরিকদের চিকিৎসা ব্যাহত হচ্ছে। তিনি বলেন, এই যুক্তরাষ্ট্র ইরাকের তৎকালীন সাদ্দাম সরকারের হাতে যে রাসায়নিক অস্ত্র তুলে দিয়েছিল তার নির্বিচার প্রয়োগে ইরানের হাজার হাজার মানুষ হতাহত হয় এবং ওই অস্ত্রে আহত বহু মানুষ এখনও তীব্র যন্ত্রণা ভোগ করছে। দেহকানি বলেন, কিন্তু দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের নির্দয় নিষেধাজ্ঞার কারণে সেই মানুষগুলোর চিকিৎসা ঠিকমতো হচ্ছে না। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংসের পাশাপাশি ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার জন্য ওয়াশিংটনের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে আন্তর্জতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।
২৫ বাংলাদেশিসহ অন্তত ১৭০ জনকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিতাড়ন
২৪নভেম্বর,রবিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাষ্ট্র কাগজপত্রবিহীন ২৫ বাংলাদেশিকে ডিপোর্ট (বিতাড়ন) করেছে। গত বুধবার (২০ নভেম্বর) রাত ৩টায় ওইসব বাংলাদেশিকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা থেকে একটি বিশেষ ফ্লাইট ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। একই বিমানে কাগজপত্রবিহীন ১৪৫ ভারতীয় ও কয়েকজন শ্রীলঙ্কানকেও ডিপোর্ট করা হয়। পরে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে বাংলাদেশিদের নামিয়ে দিয়ে বিমানটি দিল্লির উদ্দেশে রওয়ানা করে। ঢাকার বিমানবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশ বিষয়টি নিশ্চিত করে। ওয়েজ আর্নারস ওয়েলফেয়ার বোর্ডের সহকারী পরিচালক তানভীর হোসেন পরে সাংবাদিকদের জানান, ঢাকায় অবতরণের পর ২৫ বাংলাদেশিকে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কে নিয়ে যাওয়া হয়। ডিপোর্টেড ২৫ বাংলাদেশি হলেন- মো. রাজু, রাজু আহমেদ, রেজাউল হক, মোহাম্মদ ইয়াসিন, মোহাম্মদ ইসলাম, মোহাম্মদ আল আমিন, আব্দুল আউয়াল, মো. ওমর ফারুক, মোহাম্মদ দেওয়ান, আকরাম হোসেন, নাহিদুল হাসান, আরিফুল রহমান, মো. সাইফুল ইসলাম, মোহাম্মদ ইসলাম, আব্দুল করিম, মেহরাব হোসেন, শহিদুল ইসলাম, জাহির উদ্দিন, মোহাম্মদ আব্দুল আলী, আরিফ রহমান, শাকিল আহমেদ, আমিনুল শাকিব, আবদুল ওয়াহেদ, মেহেদী হাসান এবং জাহিদুল ইসলাম নাইম। তাদের প্রত্যেকের বয়স ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে হবে বলে জানা গেছে। ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রধান শরিফুল ইসলাম জানান, এই ডিপোর্টেশন প্রমাণ করে, কাজের জন্য কাগজপত্র ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস এখন আর নিরাপদ নয়। তারা প্রত্যেকে দালালদের হাতে ৩৫ লাখ করে টাকা তুলে দিয়ে অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করে জেল খেটেছে এবং এখন তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হলো। অবৈধ পথে যারা যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দিতে চায় বিপুলসংখ্যক মানুষের এই ডিপোর্টেশন তাদের জন্য একটা বড় শিক্ষা এবং উদাহরণ বলেও তিনি উল্লেখ করেন। ইউরোপ এবং আমেরিকা অবৈধ অভিবাসীদের এখন থেকে এভাবেই ফেরত পাঠাবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য, গত জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে অবৈধ উপায়ে যুক্তরাষ্ট্র সীমান্ত পাড়ি দিতে গিয়ে ধরা পড়ে জেল খাটছেন শতাধিক বাংলাদেশি।
৮০ ভাগ মুসলিম সন্ত্রাসবাদের শিকার: ফরাসি গ্রুপ
২৩নভেম্বর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফরাসি এক গ্রুপের প্রধান বলেছেন, সন্ত্রাসের শিকার বেশির ভাগ মানুষই মুসলিম এবং এটা ইউরোপকে স্মরণ করিয়ে দেয়া জরুরি। ফ্রেঞ্চ টেরর ভিকটিমস অ্যাসোসিয়েশন (এএফভিটি)-র প্রধান দেনিওক্স দে সেন্ট-মার্ক এ কথা বলেছেন। তিনি বলেন, কোনও সন্ত্রাসী হামলার পর প্রথম ভুক্তভোগী হচ্ছে মুসলিমরা। গত বৃহস্পতিবার থেকে ফ্রান্সের নিস শহরে সন্ত্রাসবাদের শিকার ব্যক্তিদের আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু হয়েছে। ওই সম্মেলন শুরুর আগে তুরস্কের বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে দেনিওক্স এ কথা বলেন। দেনিওক্স বলেন, ইউরোপকে এটা স্মরণ করিয়ে দেয়া জরুরি কারণ ধারণা করা হয় যারা সন্ত্রাসী হামলা চালায় তারা মুসলিম এবং ভুক্তভোগীরা অমুসলিম। কিন্তু এটা সত্য নয়। তিনি বলেন, বিশ্বজুড়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার ব্যক্তিদের শতকরা ৮০ ভাগই মুসলিম। তাই চরমপন্থা প্রতিরোধ করা খুবই জরুরি। এএফভিটি প্রধান আরও বলেন, সন্ত্রাসী হামলার শিকার বহু মুসলিম ভুক্তভোগীকে আন্তর্জাতিক এই সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তার ভাষায় সন্ত্রাসীদের ধ্বংস করে দেয়া ব্রিজ পুনর্নির্মাণ করতে চান তিনি। উল্লেখ্য, এএফভিটি ও নিস পৌরসভার যৌথ উদ্যোগে তিনদিনের এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন আজ শনিবার শেষ হবে। এই সম্মেলনে ৮০টি দেশের প্রায় ৪৫০ জন সন্ত্রাসী হামলার ভুক্তভোগী অংশ নিচ্ছেন।-আরটিভি অনলাইন
বড় ভাইকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট
২১নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: শ্রীলঙ্কায় সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন গোতাবায়া রাজপাকসে। এবার নিজের বড় ভাই মাহিন্দা রাজাপাকসেকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করলেন তিনি। তবে এর আগে পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়েও প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন রনিল বিক্রমাসিংহে। এরপরেই ভাইয়ের নাম ঘোষণা করেন গোতাবায়া রাজপাকসে। শনিবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই ইস্তফা দেওয়ার জন্য বিজয়ী শিবিরের চাপ আসছিল প্রধানমন্ত্রী রনিলের উপরে। এদিকে মাহিন্দা রাজপাকসের বিরুদ্ধে কয়েক দশক আগে নির্মম হাতে তামিল টাইগারদের বিদ্রোহ দমন করার অভিজ্ঞতা এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের বহু অভিযোগ রয়েছে। মাঝে ২০১৮-র ২৬ অক্টোবর তাকে প্রধানমন্ত্রী পদে বসিয়েছিলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মৈত্রিপাল সিরিসেনা। মাহিন্দার পরে প্রেসিডেন্ট হন তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী সিরিসেনা। তিনি মাহিন্দাকে প্রধানমন্ত্রী করেও টিকিয়ে রাখতে পারেননি। একাধিক বারের চেষ্টাতেও সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দিতে পারেননি মাহিন্দা। আবার পদ ছাড়তেও রাজি হননি। শ্রীলঙ্কার রাজনীতিতে দীর্ঘ অচলাবস্থা ও সাংবিধানিক সঙ্কট তৈরি হয় এতে। প্রধানমন্ত্রী বাসভবন নিয়েও চলে দড়ি টানাটানি। রনিলের অনুগামীরা আদালতের দ্বারস্থ হন। সুপ্রিম কোর্ট দুবার স্পষ্ট জানায়, মাহিন্দার প্রধানমন্ত্রিত্ব অবৈধ। সিরিসেনার পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্তও অবৈধ। অবশেষে গত বছর ১৫ ডিসেম্বর ধানমন্ত্রী পদে ইস্তফা দেন মাহিন্দা। সেই মাহিন্দা আবার প্রধানমন্ত্রীর পদে বসলেন ভাইয়ের সৌজন্যে।
টমেটোর গয়না পরে বিয়ের সাজে পাকিস্তানি যুবতী!
২০নভেম্বর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাকিস্তানের টমেটোর দাম আবার আকাশ ছোঁয়া। ফলে এতদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় এ নিয়ে প্রতিবাদ চলছিল। এবার এক নারী এই আকাশছোঁয়া দামের প্রতিবাদে টমেটোর গয়না পরেই বসলেন বিয়ের পিঁড়িতে। পাকিস্তানের এক নারী সাংবাদিক এমনই একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় আরও বেড়ে গেছে টমেটো চর্চা।সাংবাদিক নায়লা ইনায়তের শেয়ার করা ভিডিওতে দেখা যায়, এক সাংবাদিক বুম নিয়ে পৌঁছে গেছেন বিয়ে বাড়িতে। সেখানে বিয়ের কনে সোনা-হিরের বদলে পরেছেন টমেটোর গয়না। গলায়, হাতে, কানে, মাথায় পরা সব গয়ানাই টমেটোর তৈরি। তিনি জানিয়েছেন, টমেটো এখন দুর্মূল্য, তাই তিনি সোনার বদলে টমেটোর গয়নাই পরেছেন।নায়লার পোস্ট করা এই ভিডিওটি ইতোমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে। দশ ঘণ্টার মধ্যেই ভিডিওটি প্রায় ১৪ হাজার বার দেখা হয়েছে। সেই সঙ্গে সমানে চলছে লাইক, শেয়ার কমেন্ট। গত কয়েকদিন ধরেই পাকিস্তানের বিভিন্ন বাজারে টমেটোর দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। পাকিস্তানি সংবাদপত্র দ্য ডনের সূত্রে জানা গেছে, করাচির বিভিন্ন মার্কেটে গত সপ্তাহেই টমেটোর দাম কেজি প্রতি ৩০০ রুপি ছাড়িয়েছে। ইরান থেকে টমেটো আসার আগেই এই দাম হঠাৎ করে বেড়ে যায় বলে জানা গেছে।তবে পাইকারি বাজারে তুলনায় দাম কিছুটা কম। পাইকারি ব্যবসায়ীরাও এই দামবৃদ্ধি নিয়ে কিছুটা অবাক। কারণ তাদের দাবি, পাইকারি বাজারে টমেটো ২০০ থেকে ২৪০ রুপি প্রতি কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। সেখানে খুচরা বাজারে এতটা দাম বাড়া অস্বাভাবিক। কারণ যাই হোক, পাকিস্তানের সাধারণ মানুষ ব্যাপক সমস্যায় পড়েছেন টমেটোর দাম বাড়ায়। পাকিস্তানের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সাধারণ মানুষ এখন আর কেজিতে টমেটো কিনছেন না। পকেট বাঁচাতে এখন একটি-দুটি বা ১০০-২০০ গ্রাম টমেটো কিনছেন। সেক্ষেত্রে খুচরা বাজারে ২৫০ গ্রাম টমেটো কিনতে গুনতে হচ্ছে ৮০ রুপি।
কাশ্মীরের সিয়াচেন হিমবাহে বরফ ধসে সৈন্যসহ ৬ জনের মৃত্যু
১৯নভেম্বর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারত-নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের সিয়াচেন হিমবাহে বরফ ধসের ঘটনায় চার সৈন্য ও দুই মালবাহকের মৃত্যু হয়েছে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। ভারতীয় সেনাবাহিনীর আট জনের একটি দল হিমালয় পর্বতের ১৯ হাজার ফুট উঁচুতে (পাঁচ হাজার ৮০০ মিটার) টহল দেওয়ার সময় বরফ ধসের ওই ঘটনা ঘটে, জানিয়েছে বিবিসি। সোমবার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে। উদ্ধারকারী দলগুলো বরফের নিচে চাপা পড়া সবাইকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। তাদের মধ্যে সাত জনকে সঙ্কটজনক অবস্থায় হেলিকপ্টারে করে নিকটবর্তী সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে হাইপোথার্মিয়ায় তাদের মধ্যে ছয় জনের মৃত্যু হয়। আলোচনা সত্ত্বেও ভারত ও পাকিস্তান সিয়াচেন হিমবাহ থেকে সামরিক বাহিনী প্রত্যাহারে ব্যর্থ হয়েছে। এই হিমবাহটি বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু যুদ্ধক্ষেত্র হিসেবে পরিচিত। ভারত ১৯৮৪ সালে হিমবাহটি নিয়ন্ত্রণ ছিনিয়ে নেয়। তারপর থেকে এখানে যুদ্ধের চেয়েও চরম পরিস্থিতিজনিত কারণে বেশি সৈন্য মারা গেছে। ২০১৬-র ফেব্রুয়ারিতে বরফ ধস ওই অঞ্চলের একটি সামরিক ঘাঁটিতে আঘাত হানার পর ১০ ভারতীয় সৈন্যের মৃত্যু হয়েছিল। শীতকালে হিমালয়ের ওই অঞ্চলটির তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে ৬০ সেলসিয়াস পর্যন্ত নেমে যেতে পারে। ওই সময় প্রায়ই বরফ ধস ও ভূমিধসের মতো ঘটনা ঘটে থাকে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর