বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৯
অর্থাভাবে জাতিসংঘের এসি, এসক্যালেটর বন্ধ
১৪অক্টোবর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অর্থ সংকটের কারণে এবার বিদ্যুৎ খরচ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতিসংঘ। এরই অংশ হিসেবে এসক্যালেটর, এয়ারকুলার ও ওয়াটার কুলার বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থাটি। জাতিসংঘের ব্যবস্থাপনা বিভাগের মুখপাত্র ক্যাথরিন পোলার্ড এ তথ্য জানিয়েছে। তিনি বলেন, বিভিন্ন খাতে খরচ কমিয়ে সংস্থাটির ৩৭ হাজার কর্মীর নিয়মিত বেতন পরিশোধের জন্যই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর আগে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন, সদস্য রাষ্ট্রগুলো ঠিকমত দেনা পরিশোধ না করলে নভেম্বর মাস থেকে জাতিসংঘের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন দেয়া সম্ভব হবে না। গুতেরেস বলেন, চলতি মাসে (অক্টোবর) আমরা চরম অর্থ সংকটে পড়বো। তহবিলে যে পরিমাণ অর্থ রয়েছে তা দিয়ে নভেম্বরে বেতন দেয়া যাবে না। তিনি আরও বলেন, বিগত এক দশকেও জাতিসংঘকে এমন অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়তে হয়নি। ৬০টি দেশের থেকে সংস্থাটির প্রাপ্য অর্থ মেলেনি। তাই চলতি অর্থ বছরে ১৪০ কোটি ডলারের ঘাটতির মুখে পড়তে হয়েছে। এদিকে বিদ্যুৎ খরচ কমানোর পাশাপাশি কূটনীতিকদের জন্য নির্ধারিত পানশালাটিও বিকেল ৫টার মধ্যে বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের বিমান ভ্রমণেও কড়াকড়ি আরোপ করা হচ্ছে।
মমতার পদত্যাগ চাইছে পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি
১২অক্টোবর,শনিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির পদত্যাগ দাবি করেছে বিজেপি। রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির অভিযোগে ওই দাবি জানানো হয়েছে। দলটির পক্ষ থেকে আগামী ১৫ অক্টোবর প্রেসিডেন্টের কাছে সাক্ষাতের সময় চাওয়া হয়েছে। গতকাল শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, গত চারদিনে আটজন নিহত হয়েছে। এরা সবাই বিজেপি কর্মী। তৃণমূল আশ্রিত দুর্বৃত্তরা টার্গেট করে ওই ঘটনা ঘটাচ্ছে। আমরা সাহসের সঙ্গে এর মোকাবিলা করবো। তিনি বলেন, আমাদের নেতা-কর্মীরা শনিবার কলকাতায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করবে। এসব বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে সময় চাওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপতির কাছেও সময় চাওয়া হয়েছে। বাংলার পরিস্থিতি তাদেরকে অবগত করানো হবে। আমরা দাবি করছি মমতাজীকে ইস্তফা দেয়া উচিত। এমন সরকারের ক্ষমতায় থাকার কোনও অধিকার নেই। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কার্যকরি সভাপতি আলোক কুমার বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিবেচনা করেই কেন্দ্রীয় সরকারের উচিত রাষ্ট্রপতি শাসন জারির কথা ভাবা। গত মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জে নিহত হন- বন্ধুগোপাল পাল (৪০) নামে এক শিক্ষক, তার গর্ভবতী স্ত্রী বিউটি পাল (৩০) ও অঙ্গন পাল (৫) নামে তাদের শিশু সন্তান। বাড়ি থেকে তিনজনের দেহ উদ্ধার হলে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। আরএসএসের দাবি, নিহত শিক্ষক তাদের কর্মী ছিলেন। তার জেরেই তাকে সপরিবারে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ সুপার মুকেশ অবশ্য বলেন, এটি একটি পারিবারিক ঘটনা, এরসঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। ইতোমধ্যেই তদন্তকারীদের বিশেষ দল ওই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। পরিবারের সদস্যসহ স্থানীয়দেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এদিকে চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজভবন থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, রাজ্যপালের মতে, এই ঘটনার তীব্রতা এমনই যে, তাতে বিবেক কেঁপে উঠেছে! এই ঘটনা অসহিষ্ণুতা এবং ভয়ঙ্কর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির প্রতিফলন। রাজ্যপালের বিবৃতির পাল্টা জবাবে রাজ্যের মন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, সাংবিধানিক পদে থেকে রাজনৈতিক মন্তব্য করে রাজ্যপাল নিজের এখতিয়ার লঙ্ঘন করেছেন।
সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে পারবেন সৌদি নারীরা
১০অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সৌদি আরবের নারীরা দেশটির সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে পারবেন। গতকাল বুধবার নারীদের সেনাবাহিনীতে যোগ দেয়ার অনুমতি দেয়া প্রসঙ্গে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক টুইট বার্তায় লিখেছে- ক্ষমতায়নের আরও এক ধাপ। সৌদি আরবের নারীরা প্রথম শ্রেণি, কর্পোরাল বা সার্জেন্টের মতো পদগুলোতে যোগ দিতে পারবেন বলে ওই টুইটে উল্লেখ করা হয়। গত বছর নারীদের দেশের নিরাপত্তা বাহিনীগুলোতে যোগ দেয়ার অনুমতি দেয় সৌদি আরব। দেশটির যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান নারীর ক্ষমতায়নে যেসব পদক্ষেপ নিয়েছেন, এর মধ্যে রয়েছে নারীদের ড্রাইভিং লাইসেন্স দেয়া, পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই তাদের বিদেশে ভ্রমণের অনুমতি, আবাসিক হোটেলে রুম ভাড়া নিতে পারার অনুমতি। নারীর ক্ষমতায়নে এসব সিদ্ধান্ত নেয়ার মধ্যে লজেন আল-হাতলোলসহ বেশ কয়েকজন নারী অধিকারকর্মীকে গ্রেফতার করতেও দেখা গেছে সৌদি কর্তৃপক্ষকে। বিশ্বের অন্যতম তেলসমৃদ্ধ দেশ সৌদি আরব বেশ কয়েক বছর ধরে তাদের ভাবমূর্তি বিশ্ব দরবারে উজ্জ্বলের নানা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে অর্থনীতিতে তেল নির্ভরতা কমাতে পর্যটনশিল্প উন্নয়নেও অনেক পদক্ষেপ নিচ্ছে তারা।
কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে থাকবে চীন
১০অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে সব ধরনের সহযোগিতা দেয়ার অঙ্গীকার করেছেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। দু দিনের চীন সফরে বুধবার শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে থাকার ঘোষণা দেন চীনা প্রেসিডেন্ট। ভারত-পাকিস্তান আলোচনার তাগিদ দেন তিনি। তার মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছে ভারত। কাশ্মীরকে অভ্যন্তরীণ ইস্যু উল্লেখ করে তৃতীয় পক্ষের নাক গলানোর অধিকার নেই বলে জানায় নয়াদিল্লি। এদিকে ভারতে শুক্র ও শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করবেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।
তুর্কী অর্থনীতি ধ্বংস করে দেয়ার হুমকি দিলেন ট্রাম্প
০৮অক্টোবর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সীমা ছাড়িয়ে গেলে আবারো তুরস্ককে দেখে নেয়া হবে, টুইটারে এই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। উত্তর-পশ্চিম সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের অবাক করা ঘোষণা দেয়ার পর একের পর এক টুইট বা্র্তায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।যদিও সেনা প্রত্যাহারের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ট্রাম্পের রিপাবলিকান সহযোগীরা।বিবিসি সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটকে ঠেকাতে কুর্দি বাহিনী যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান সহযোগী।দেশটি এক হাজারের মতো মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে। স্টেট ডিপার্টমেন্টের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সীমান্ত এলাকা থেকে এরই মধ্যে ডজন দুয়েক সৈন্য প্রত্যাহার করা হয়েছে। ধারাবাহিক টুইটে ট্রাম্প বলেন, মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সুযোগে তুরস্ক যদি সীমান্ত পার হয়ে কুর্দি যোদ্ধাদের ওপর হামলার চিন্তা করে, তাহলে ভুল করবে। এদিকে, কুর্দিনিয়ন্ত্রিত যোদ্ধাদের প্রধান গ্রুপটি মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে ভালোভাবে নিতে পারেনি। তারা একে পিঠে ছুরি মারার সঙ্গে তুলনা করেছে। সেনা প্রত্যাহারের ফলে সিরিয়ায় আইএস-এর উৎপাত বাড়বে বলেই সমালোচকরা মনে করছেন। তবে ট্রাম্প বলেছেন, এমন কিছু করলে তুরস্ক ভুল করবে। আগেও তুরস্কের অর্থনীতিতে বেশ বড়ো রকম ধাক্কা দিয়েছে ট্রাম্প।তার আগে বেশ কিছু ইস্যুতে দুই দেশের সম্পর্কে অবনতি ঘটতে থাকে।তারই ধারাবাহিকতায় গত বছর তুরস্কের বেশ কিছু পণ্যের ওপর শুল্কবৃদ্ধি করে যুক্তরাষ্ট্র। পাশাপাশি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তুরস্কের শীর্ষ কর্মকর্তাদের ওপর।
ভারতের হাতে নতুন ইসরায়েলি অস্ত্র- কিলার
০৭অক্টোবর,সোমবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নতুন অস্ত্র নিয়ে নিজের ভাণ্ডার সমৃদ্ধ করছে ভারত। এবার দেশটির অস্ত্রভাণ্ডারে যোগ হয়েছে এক শক্তিশালী অস্ত্র। জানা গেছে, এই অস্ত্রের সাহায্যে শত্রুরুক্ষের অত্যাধুনিক ট্যাংক এবার ধ্বংস হবে চোখের নিমেষে। ট্যাংক আক্রমণ মোকাবিলা করার জন্য এবার সীমিত সংখ্যক ইসরায়েলি স্পাইক অ্যান্টি-ট্যাংক গাইডেড মিসাইল পেল ভারতীয় সেনাবাহিনী। তবে ভারতীয় সেনা এই অস্ত্র ব্যবহার করবে সীমিত সময়ের জন্য। দেশীয় প্রযুক্তির মানবচালিত পোর্টেবল ট্যাংক কিলার তৈরি না হওয়া পর্যন্ত ইসরায়েলি ট্যাংক কিলার ব্যবহার করা হবে। জানা গেছে, প্রথম ধাপে ২১০ স্পাইক মিসাইল ও এক ডজন লঞ্চার এসে পৌঁছেছে।২০২০ সালে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে মানব-পোর্টেবল এটিজিএম দেওয়ার ব্যাপারে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ডিআরডিও। গত মাসেই তিনটি সফল ট্রায়াল হয়েছে। তবে সেই অস্ত্র হাতে পাওয়ার আগে ইসরায়েলি ট্যাঙ্ক কিলারে আস্থা রাখছে ভারতীয় সেনা।
গ্লোবাল মেন্টাল হেলথ-এ শীর্ষ ৪০তম ইনোভেটিভ নেত্রী সায়মা ওয়াজেদ হোসেন
০৩অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গ্লোবাল মেন্টাল হেলথ-এ শীর্ষ ১০০ ইনোভেটিভ নেত্রীদের তালিকায় ৪০তম অবস্থানে আছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যাডভাইজরি কমিটি ফর অটিজম অ্যান্ড নিউরোডেভেলপমেন্টাল ডিসঅর্ডারের চেয়ারপারসন সায়মা। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটির গ্লোবাল মেন্টাল হেলথ প্রোগ্রামসের ফাইভ অন ফ্রাইডে গত ২০ সেপ্টেম্বর তালিকাটি প্রকাশ করে। সায়মার সম্পর্কে তালিকাটিতে বলা হয়, তিনি ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউএইচও) এক্সপার্ট অ্যাডভাইজরি প্যানেল অন মেন্টাল হেলথের একজন সদস্য। এতে বলা হয়, সায়মা সম্প্রতি ডব্লিউএইচও এর দক্ষিণপূর্ব এশিয়া অঞ্চলের গুডউইল অ্যাম্বাসেডর ফর অটিজম হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। এতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশে অটিজমে আক্রান্ত মানুষের মুখপাত্র হিসেবে তার ইনোভেটিভ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পদে নির্বাচিত হন তিনি। মানসিক রোগীদের প্রতি সংবেদনশীল মানুষ এবং তাদের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করা আইনজীবী, নেতা, শিল্পী, বিজ্ঞানী, শিক্ষাবিদ ও চিকিৎসকরা তালিকাটিতে ঠাঁই পেয়েছেন।
ভারতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার বাংলাদেশি যুবতী
০২অক্টোবর,বুধবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশের এক যুবতী কাজের সন্ধানে চোরাইপথে ভারতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম আজকালের। সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশ থেকে কাজের সন্ধানে চোরাইপথে পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁয় যান এই বাংলাদেশি যুবতী। সেখান থেকে তিনি চলে যান গুজরাটের সুরাটে। সুরাটে কাজের পরিস্থিতি সুবিধাজনক না হওয়ায় দেশে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এই কারণে বনগাঁয় ফিরে আসেন বাংলাদেশের যুবতী। কিন্তু বৈধ কাগজপত্র ছিল না তার কাছে। তাই সীমান্ত পার করানোর জন্য বনগাঁর নরহরিপুরের দুই দালালের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তিনি। এই দুই দালাল দুদিন পর তাকে চোরাইপথে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেবেন বলে জানান। তারা এই সময়ে তাকে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করে পালিয়ে যান। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এই বাংলাদেশি যুবতী পরে পেট্রাপোল থানায় গিয়ে ধর্ষণের কথা জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। আরও জানা যায়, ধর্ষণের শিকার এই বাংলাদেশি যুবতীকে আটকে রেখে পেট্রাপোল থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করে। অভিযুক্তরা এখনও গ্রেপ্তার হননি।
সৌদিকে এরদোয়ানের চ্যালেঞ্জ
০১অক্টোবর,মঙ্গলবার,আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সাংবাদিক জামাল খাশোগির খুনিদের সৌদি আরব দায় মুক্তি দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) দ্য ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এক নিবন্ধে এরদোগান এমন অভিযোগ করেন। এরদোগান বলেন, ‘ইস্তানবুলের সৌদি কনস্যুলেটে সংঘটিত নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যের ঘটনা বের করে আনতে তুরস্ক তার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে। তুরস্ক এখনও এটা জানতে চায় খাশোগির মরদেহ কোথায় রাখা হয়েছে? কার নির্দেশে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে?’ সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় এজেন্টরাই এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে ইঙ্গিত দেন এরদোগান। ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর তুরস্কের সৌদি কনস্যুলেটে গিয়ে গুপ্তহত্যার শিকার হন জামাল খাশোগি। এর আগে মার্কিন গণমাধ্যম সিবিএসের ৬০ মিনিট নামে একটি সাক্ষাৎকারধর্মী অনুষ্ঠানে সম্প্রতি সোদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বলেছেন, সৌদি আরবের শাসক হিসেবে খাশোগি হত্যার পুরো দায় আমার। কিন্তু পরে আবার সুর পাল্টে ফেলেছেন। যুবরাজ এখন বলছেন, খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ তিনি দেননি। বিশ্ব বিখ্যাত ওই সাংবাদিককে হত্যাকাণ্ড নিয়ে এর আগে প্রকাশ্যে কথা বলেননি সৌদি আরবের কার্যত নেতা মোহাম্মদ বিন সালমান। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ ও পশ্চিমা সরকারগুলো আলোচিত ওই হত্যাকাণ্ডের জন্য তাকেই দায়ী করে আসছিল। কিন্তু সৌদি কর্মকর্তারা দাবি করেন, এতে তার কোনো হাত ছিল না। সম্প্রতি মার্কিন গণমাধ্যম সিবিএস নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দেশটির রাজপরিবারের কঠোর সমালোচক হিসেবে পরিচিত জামাল খাশোগির হত্যাকাণ্ডে নিজের জড়িত থাকার কথা পরোক্ষভাবে স্বীকার করেছিলেন। সৌদি কনস্যুলেটে এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিশ্বব্যাপী আলোড়ন ওঠে। এতে বিশ্বজুড়ে যুবরাজের ভাবমর্যাদা যেমন প্রশ্নের মুখে পড়েছে, তেমনি সবচেয়ে বড় তেল সরবরাহকারী সৌদি অর্থনীতিকে বৈচিত্র্যময় করতে তার উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনাও বাধার মুখে রয়েছে।

আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর