বিএনপি নেতাদের নুসরাতের বাড়ি যাওয়া -আলগা সোহাগ
১৬এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, যারা রাজনীতির নামে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে, দেশে মানুষ মারার রাজনীতি চালু করেছে, তাদের মুখে নুসরাত নিয়ে কথা বলা শোভা পায় না। বিএনপি নেতাদের নুসরাতের বাড়ি যাওয়া মূলত আলগা সোহাগ। সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মঙ্গলবার দুপুরে ফেনীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ড নিয়ে তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি সবকিছুতে রাজনীতি টেনে নিয়ে আসে। এটা ঠিক নয়। নুসরাত হত্যা দুঃখজনক ও মর্মান্তিক। এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা পুরো দেশকে নাড়া দিয়েছে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, এ ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জড়িতদের বিচারের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন। প্রশাসনের কেউ থাকলে তাদেরও বিচার হবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। কারণ যারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছেন তারা সবাই দুর্বৃত্ত। সংসদে বিএনপি যোগ দিচ্ছে কিনা জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, পত্রিকায় দেখলাম বিএনপি সংসদে যাওয়ার বিষয়ে বৈঠক করেছে। যদি তারা সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়, তাহলে তা হবে ইতিবাচক। তাদের সংসদে যোগদানকে দেশবাসী স্বাগত জানাবে। আমরাও স্বাগত জানাই। গণতন্ত্রের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে, তাদের সংসদে যোগ দেওয়া উচিত। বিএনপি এখন যেমন সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলছে, তেমনি সংসদেও কথা বলতে পারবে।-আরটিভি
সব সম্পত্তি ট্রাস্টিতে দান করে দিলেন এরশাদ
৮এপ্রিল,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তি ট্রাস্টিভুক্ত করলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সহায় সম্পত্তি পরিচালনার জন্য এরশাদসহ পাঁচ জনকে ট্রাস্টির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তবে ট্রাস্টের নাম জানা যায়নি। রোববার (৭ এপ্রিল) রাজধানীর বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্ক এরশাদের বাসায় গুলশান রেজিস্ট্রি অফিসের লোকজনকে কমিশন করে তার সব সহায় সম্পত্তি ট্রস্টিভুক্তির মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন কাজ সম্পাদন করেন। ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যরা হলেন- হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, তার ছেলে এরিক এরশাদ, ব্যক্তিগত সহকারী মেজর (অব.) খালেদ আখতার, চাচাতো ভাই রংপুরের মুকুল ও এরশাদের পারসোনাল স্টাফ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর। এরশাদের স্থাবর অস্থাবর সহায় সম্পতির মধ্যে রয়েছে রংপুরের বাড়ি, রংপুরের কোল্ড স্টোরেজ, প্রেসিডেন্ট পার্কের ফ্ল্যাট, গুলশানের দুটি ফ্ল্যাট, প্রায় দশ কোটি টাকার ব্যাংক এফডিআরসহ প্রায় ৬০ কোটি টাকার সম্পত্তি। এরশাদের সম্পত্তির এই ট্রাস্টিতে রাখা হয়নি স্ত্রী রওশন এরশাদ, ছোট ভাই জি এম কাদের, ছেলে সাদ এরশাদসহ ঘনিষ্ট আত্মীয়-স্বজনদের। শারীরিক অসুস্থতার কারণে গত ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এক দিনের জন্যও দলীয় প্রচারণায় অংশ নেননি এরশাদ। নতুন পার্লামেন্টের প্রথম অধিবেশনের ২৬ দিনের মধ্যে মাত্র একদিন সংসদে উপস্থিত ছিলেন এরশাদ।
কুমিল্লার মামলায় আপিলে খালেদা জিয়ার জামিন বহাল
৭এপ্রিল,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বাসে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ আজ রোববার (৭ এপ্রিল) রাষ্ট্রপক্ষের আপিল খারিজ করে এ আদেশ দেন। আদালতে খালেদার পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ। এর আগে গত ৩১ মার্চ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানায় দায়ের করা হত্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন আগামী ৭ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করে শুনানির জন্য আপিল বিভাগে পাঠিয়ে দেয়া হয়। চেম্বার বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের আদালত এই আদেশ দেন। গত ১৯ মার্চ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানায় দায়ের করা হত্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেওয়া হাইকোর্টের জামিন স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন রাষ্টপক্ষ। গত ৬ মার্চ হাইকোর্ট রুল দিয়ে খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি রাতে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে উপজেলার জগমোহনপুর এলাকায় কক্সবাজার থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী একটি বাসে পেট্রলবোমা হামলা হয়। এতে আটজন যাত্রী অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান ও ২৭ জন আহত হন। ঘটনার পরদিন ৫৬ বিএনপি ও জামায়াতের নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১৫ থেকে ২০ জনের বিরুদ্ধে চৌদ্দগ্রাম থানায় মামলা করে পুলিশ। পরে এ মামলায় খালেদা জিয়াকে আসামি দেখানো হয়।
উন্নতির দিকে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা
৪এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে। তার ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. একে মাহবুবুল হক। বৃহস্পতিবার দুপুরে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার সবশেষ অবস্থা সম্পর্কে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এ তথ্য জানান। ডা. একে মাহবুবুল হক জানান, মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়াকে দেখেছেন। তারা জানিয়েছেন, বিএসএমএমইউতে ভর্তির পর যে ওষুধগুলো তাকে দেয়া হয়েছে, সেগুলো তিনি নিয়মিত খাচ্ছেন। তার ডায়াবেটিস ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আছে। এর আগে সোমবার দুপুরে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিএসএমএমইউয়ে আনা হয় খালেদা জিয়াকে। মঙ্গলবার বিএসএমএমইউ পরিচালক জানিয়েছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অবস্থা গতকালের চেয়ে আজকে ভালো। বিএসএমএমইউর চিকিৎসাসেবায় খালেদা জিয়া সন্তুষ্ট বলেও তিনি দাবি করেছিলেন। উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১০ বছর এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৭ বছর দণ্ড নিয়ে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন কারাগারে আছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।
উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে কিছুই বললেন না নুর
৩এপ্রিল,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামানের সঙ্গে আলোচনা শেষে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর কিছুই বললেন না। তবে জানিয়েছেন, পূর্ব নির্ধারিত বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিস্তারিত কথা বলবেন। বুধবার (৩ এপ্রিল) সকালে ভিসির সঙ্গে নুরসহ অন্য ছাত্রনেতারা কথা বলতে যান। সেখানে তারা স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলে হামলার বিষয়ে বিস্তারিত অভিযোগ করেন এবং দোষীদের বিচার দাবি করেন। ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে নুর বলেন, আমি এখানে কিছু বলবো না। রাজু ভাস্কর্যের সামনে আমাদের পূর্ব নির্ধারিত বিক্ষোভ কর্মসূচি আছে। সেখানেই সাধারণ শিক্ষার্থীদের সামনে কথা বলবো। এসময় ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আক্তার হোসেন, শামসুন্নাহার হলের ভিপি শেখ তাসনীম আফরোজ ইমি এবং ডাকসুর ভিপি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী অরণি সেমন্তি খান ও জিএস পদের প্রার্থী রাশেদ খান, এজিএস প্রার্থী ফারুক হোসেন উপস্থিত ছিলেন। এর আগে, মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) বিকেলে ঢাবির উর্দু বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ফরিদ হাসানকে মারধরের ঘটনার অভিযোগপত্র দিতে স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলে যান ছাত্রনেতারা। সেখানে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দেয় ও অবরুদ্ধ করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরপরই ভিসির বাসভবনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন আন্দোলনকারীরা।
সকালেও অবস্থান কর্মসূচিতে নুর
৩এপ্রিল,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের ঘটনায় প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন ভিপি নুরুল হক নুরসহ প্রতিবাদী শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাত পৌনে ৮টা থেকে শুরু হওয়া এ কর্মসূচি রাত পেরিয়ে সকালেও (বুধবার) চলছে। সকালে ভিসি চত্বরে গিয়ে দেখা যায়, ভিপি নুরসহ শিক্ষার্থীরা শুয়ে আছেন। এর আগে রাত পৌনে ৮টা থেকে সেখানে অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদ শুরু করেন তারা। ‘সন্ত্রাসী হামলা’র বিচার না হওয়া পর্যন্ত তারা সেখানে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে যাবেন বলে জানান। ডাকসুর পরাজিত এজিএস পদপ্রার্থী ফারুক হোসেন বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাব। সন্ত্রাসীদের সঙ্গে কোনও আপোষ নয়। তাদের বহিষ্কার করতে হবে। এর আগে রাত পৌনে ১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিয়ে ভিপি নুরুল হক নুরসহ প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করার অনুরোধ জানান প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী। কিন্তু শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের আশ্বাসে ভরসা রাখেননি। তারা ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানকে ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলার দাবি জানান। অনুরোধ না রাখায় এক পর্যায়ে রাত ২টার দিকে প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী চলে যান। এদিকে শিক্ষার্থীকে মারধর ও ভিপি নুরুল হক নুরসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনা তদন্তে মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সলিমুল্লাহ মুসলিম হল প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। শামসুন্নাহার হল সংসদের ভিপি শেখ তাসনিম আফরোজ ইমি বলেন, ছাত্রলীগ আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। মেয়েদেরও ছাড় দেয়নি। আমরা এর বিচার না হওয়া পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাব।
আজ যে কোনও সময় খালেদা জিয়াকে নেয়া হতে পারে বিএসএমএমইউয়ে
১ এপ্রিল ,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আজ সোমবার (১ এপ্রিল) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) নেয়া হতে পারে। এজন্য খালেদা জিয়া মৌখিকভাবে সম্মতি জানিয়েছেন বলে জানা গেছে। খালেদা জিয়ার জন্য হাসপাতালের ৬২১-৬২২ নম্বর কেবিন বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে বিএসএমএমইউ সূত্রে জানা গেছে। অপরদিকে খালেদাকে কারাগার থেকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএসএমএমইউর পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম মাহবুবুল হক বলেন, খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়ার বিষয়ে কারাকর্তৃপক্ষ আমাদের জানিয়েছে। আজ আনার সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছি। আজ যে কোনও সময় তাকে কারাগার থেকে হাসপাতালে নেয়া হতে পারে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম। এদিকে আজ সোমবার নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আদালতে হাজিরা দেওয়ার কথা রয়েছে। এদিন পুরান কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শেখ হাফিজুর রহমানের এজলাসে খালেদা জিয়ার পক্ষে অভিযোগ গঠন শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। তবে কোন সময় খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া হবে, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এরশাদকে হুমকি
২৮মার্চ,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: অস্থিরতা কমছে না সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টিতে (জাপা)। দলের অভ্যন্তরীণ বিবাদ ছড়িয়ে পড়েছে কেন্দ্র থেকে তৃণমূলে। হঠাৎ পার্টির কো-চেয়ারম্যানের পদ থেকে ভাই জিএম কাদেরকে অব্যাহতি দেয়া, এর ১৮ ঘণ্টার মাথায় বিরোধী দলের উপনেতা পদ থেকেও তাকে সরিয়ে দেয়া এবং স্ত্রী রওশন এরশাদকে সংসদের উপনেতা করা, এসব কিছুকে কেন্দ্র করে আবারো গৃহবিবাদ সৃষ্টি হয়েছে দলটিতে। আর সেই গৃহবিবাদ এখন তুঙ্গে। এ নিয়ে অনেকটা অসহায় দলটির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলের নেতা এইচএম এরশাদ। একটি সুবিধাভোগী চক্রের কাছে জিম্মি তার পরিবার ও পার্টি এমনটাই মনে করছেন দলের তৃনমূলের নেতারা। দলটির মূল রাজনীতি রংপুরকে কেন্দ্র করে আর সেই রংপুরের নেতারা জিএম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদে পুনর্বহালের দাবি জানিয়ে এরই মধ্যে আলটিমেটাম দিয়েছেন। অন্যথায় সাংগঠনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতিসহ রংপুর বিভাগে পার্টির সব কার্যক্রম প্রতিহতের হুমকি দিয়েছেন। সব মিলিয়ে আবারো সংকটের পড়েছে সাবেক এ রাষ্ট্রপতির দলটি। এদিকে ৫ এপ্রিলের মধ্যে জিএম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদে পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির রংপুর বিভাগের নেতারা। বুধবার দুপুরে রংপুর মহানগরীর দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষণা দিয়েছেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। লিখিত বক্তব্যে রসিক মেয়র মোস্তফা বলেন, জিএম কাদের দেশে ও বিদেশে পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে পরিচিত। তাকে গুরুত্বপূর্ণ পদ-পদবি থেকে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্ত পার্টির জন্য আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। দলের সুসময়ে চক্রান্তকারী মহল পার্টির চেয়ারম্যানকে ভুল বুঝিয়ে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণে উৎসাহিত করেছেন। মেয়র অভিযোগ করে বলেন, জাতীয় পার্টিকে ধ্বংসের গভীর এবং পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র চলছে। কুচক্রী মহলের প্ররোচনায় জিএম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদ থেকে সরানো হয়েছে। জাতীয় পার্টির মূল ধারার কোনো স্তরের নেতাকর্মীর পক্ষেই কাদেরের অব্যাহতি মেনে নেয়া সম্ভব নয়। মোস্তফা আরো বলেন, আমরা রংপুর বিভাগের আট জেলার মহানগর, পৌরসভা, ও উপজেলার নেতারা পার্টির চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নই। জাতীয় পার্টিকে বাঁচাতে দলীয় প্রধানের ভুল সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর মহানগরের সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির, জেলার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাজী আবদুর রাজ্জাক, সহ-সভাপতি ও সাবেক কাকসু ভিপি আলাউদ্দিন মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম সিদ্দিকী, মহানগরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, রংপুর সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন। বার বার দলটিতে কেন এমন অস্থিরতা হয়, কেন গৃহবিবাদ হয়, এমন প্রশ্ন একজন শীর্ষনেতার কাছে করলে তিনি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, আসলে জাতীয় পার্টি (স্যারের) এরশাদের একক সিদ্ধান্ত থাকলেও একটি সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করে দলটিকে। এ সিন্ডকেট অনেক প্রভাবশালী তারা দলের চেয়ারম্যানকে যেমন নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন, তেমনি তার স্ত্রী রওশনকেও প্রয়োজনে ভাইকেও ব্যবহার করেন। তাদের সুবিধায় গড়মিল হলেই অস্থিরতা বিবাদ লেগে যায়। -আলোকিত বাংলাদেশ
কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হবে খালেদা জিয়াকে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
২৭মার্চ,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: যথাসম্ভব দ্রুত সময়ের মধ্যেই নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারর্সন বেগম খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে নির্মিত অত্যাধুনিক কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হবে। সরকারের নীতিগত এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বুধবার বিকেলে সাভারের আশুলিয়ার বঙ্গবন্ধু রোড এলাকায় বোধি জ্ঞান ভাবনা কেন্দ্রে (বৌদ্ধ বিহারে) সদ্ধর্মদেশনাসহ বিদর্শন ভাবনা অনুশীলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি একথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ সময় আরও বলেন, এমনিতেই নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগারটি অনেক পুরনো এবং ঝুঁকিপূর্ণ। এটিকে আমরা জাদুঘর হিসেবে রূপান্তরের কাজ হাতে নিয়েছি, খুব শীঘ্রই জাদুঘরের কাজ শুরু করা হবে। যে কারণে কারাবন্দি হিসেবে বেগম খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে স্থানান্তরের কোনো বিকল্প নেই। কবে নাগাদ বেগম খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে স্থানান্তর করা হবে এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আমরা প্রক্রিয়া শুরু করেছি, শিগগিরি এই সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন করা হবে। এছাড়া শর্তসাপেক্ষে বেগম খালেদা জিয়াকে প্যারোলে মুক্তি দিয়ে বিদেশ পাঠানো হচ্ছে এমন গুঞ্জনের ভিত্তি সম্পর্কে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএনপির তরফ থেকে এখন পর্যন্ত এ ধরণের কোনো প্রস্তাব সরকারের কাছে আসেনি। তাছাড়া বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে কারাগারে রয়েছেন। তাকে প্যারোলে মুক্তি পেতে হলেও আদালতের মাধ্যমেই আসতে হবে বলে সাফ জানিয়ে দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। একই সঙ্গে বিএনপি রাজনীতির নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কায়েম করেছিল বলেই জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে বলেও জানান তিনি। অনুষ্ঠানে মন্ত্রীর সাথে এ সময় উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন মাদবরসহ আরো অনেকে।