টেস্ট না করেই রিপোর্ট দেয় হাসপাতাল, ৪২ লাখ টাকা জরিমানা
৩০জুলাই২০১৯,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর তিনটি হাসপাতালকে ৪২ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন Rabর ভ্রাম্যমাণ আদালত। টেস্ট না করেই রিপোর্ট দেওয়া, মেয়াদোত্তীর্ণ রিএজেন্ট ব্যবহার, বেশি দামে ওষুধ বিক্রিসহ নানা অভিযোগে তাদের জরিমানা করা হয়। সোমবার (২৯ জুলাই) দুপুর দেড়টা থেকে রাত ১০টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদফতর ও ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের সহযোগিতায় এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে Rab সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম এ তথ্য জানিয়ে বলেন, হাসপাতাল গুলোর নামে অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উত্তরার ক্রিসেন্ট হাসপাতালকে ১৭ লাখ, লুবনা হাসপাতালকে ২০ লাখ ও উত্তরার আরএমসি হাসপাতালকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। হাসপাতাল গুলো টেস্ট না করেই রিপোর্ট দিয়ে আসছে জানিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ক্রিসেন্ট হাসপাতাল কোনও ধরনের পরীক্ষা না করেই মাইক্রোবায়োলজিক্যাল বা কালচারের রিপোর্ট দিতো। ল্যাবে ব্যবহার করতো মেয়াদোত্তীর্ণ রিএজেন্ট। এছাড়া ভারতীয় সরকারি সার্জিক্যাল সামগ্রী ও অনুমোদহীন ওষুধ বিক্রি করতো। তাদরে জরিমানা করা হয়েছে ১৭ লাখ টাকা। লুবনা হাসপাতাল ঠিকভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করে প্যাথলজিক্যাল টেস্ট রিপোর্ট দিতো। মেয়াদোত্তীর্ণ রিএজেন্ট ব্যবহার, অপারেশন থিয়েটারে মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিক্যাল সামগ্রী ব্যবহার, একজন প্যাথলজিস্টের স্বাক্ষর জাল করে প্যাথলজি রিপোর্ট তৈরি, অনুমোদন ছাড়া রক্ত সঞ্চালন, রক্ত সঞ্চালনের আগে এইডস ও হেপাটাইটিস পরীক্ষা না করা, ৩৪.৫০ টাকার প্যাথেড্রিন ৩৫০ টাকায় বিক্রির প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাদের ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আরএমসি হাসপাতালে অনুমোদন ছাড়া রক্ত পরিসঞ্চালনা, এইডস এবং ম্যালেরিয়ার টেস্ট না করে রক্ত পরিসঞ্চালন, অপারেশন থিয়েটারে মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিক্যাল সামগ্রী ব্যবহার, নিজেরা টেস্ট না করে বাইরে থেকে টেস্ট করিয়ে এনে রোগীদের কাছ থেকে বেশি টাকা আদায়, সরকার নির্ধারিত মূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত ফির বেশি টাকা আদায়, অনুমোদনহীন ওষুধ বিক্রি ও নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় ওষুধ না রাখার প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাদের জরিমানা করা হয়েছে ৫ লাখ টাকা।- আলোকিত বাংলাদেশ
৮০ লাখ টাকাসহ গ্রেফতার ডিআইজি প্রিজন পার্থ কারাগারে
২৯জুলাই২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঘুষের ৮০ লাখ টাকাসহ গ্রেফতার সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের ডিআইজি প্রিজন পার্থ গোপাল বণিকের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। সোমবার (২৯ জুলাই) ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন। এর আগে তার বিরুদ্ধে ঢাকা জেলা সমন্বিত কার্যালয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধ আয় ও মানি লন্ডারিং আইনে মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আসামি পক্ষে আইনজীবী ঢাকা বারের সভাপতি গাজী শাহ আলম, সেক্রেটারি আসাদুজ্জামান খান রচি, আব্দুর রহমান হাওলাদার জামিনের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোশারফ হোসেন কাজল জামিনের বিরোধিতা করেন। এর আগে দুদকের পরিচালক মুহাম্মদ ইউসুফ ও সহকারী পরিচালক মো. সালাহউদ্দিনের নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের একটি টিম রোববার বিকালে পার্থ গোপাল বণিকের গ্রিন রোড সংলগ্ন ভূতের গলির বাসায় তল্লাশি চালিয়ে ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করে। এর আগে সকালে চট্টগ্রাম কারাগারের দুর্নীতি, ঘুষ ও অবৈধ সম্পদ অর্জন সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়ে পার্থ দুদক টিমের কাছে বক্তব্য দিতে সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে হাজির হন। অবৈধ সম্পদ, ঘুষের টাকা, মাদক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নেয়া অর্থ সংক্রান্ত অভিযোগ নিয়ে তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। একপর্যায়ে গত বছর অক্টোবরে ঘুষের ৪৭ লাখ টাকাসহ হাতেনাতে গ্রেফতার চট্টগ্রামের জেলার সোহেল রানার দেয়া কিছু তথ্য সম্পর্কে তার কাছে জানতে চায় দুদক টিম। সোহেল রানা গ্রেফতারের পর বলেছিলেন, তিনি পার্থ গোপাল বণিককেও ঘুষের বেশ কয়েক লাখ টাকা দিয়েছেন। সেই সূত্র ধরে পার্থর কাছে দুদকের কর্মকর্তারা জানতে চান, আপনি ঘুষের এত টাকা কী করেছেন? দুদক কর্মকর্তারা সোহেল রানার দেয়া তথ্য ছাড়াও আরও কিছু প্রমাণ সামনে তুলে ধরে তার কাছে জবাব চান। এ সময় পার্থ নিজেকে আড়াল করে বক্তব্য দেয়ার চেষ্টা করেন। জেরার একপর্যায়ে তিনি স্বীকার করেন, রাজধানীর গ্রিন রোড সংলগ্ন তার নিজের ফ্ল্যাটে ৫০ লাখ টাকা রেখেছেন। বাসায় এত টাকা কেন রেখেছেন- এমন প্রশ্নে তিনি অনেকক্ষণ চুপ থেকে বলেন, এফডিআর করার জন্য রেখেছি। দুদক কর্মকর্তারা জানতে চান- এ টাকার উৎস কী? এ প্রশ্নের কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি পার্থ বণিক। তার দেয়া তথ্যানুযায়ী দুদকের ওই অনুসন্ধান টিম তাকে নিয়ে রাজধানীর ২৭/২৮/১, নর্থ গ্রিন রোড (ভূতের গলি) তার ফ্ল্যাটে যায়। যাওয়ার পর তার ঘরের আলমিরা, তোশক, ওয়ারড্রোবসহ বিভিন্ন কক্ষে তল্লাশি করে লুকানো অবস্থায় ৮০ লাখ টাকা পায়। এই টাকা খুঁজে বের করতে কর্মকর্তাদের এক ঘণ্টা সময় ব্যয় করতে হয়েছে। টাকা উদ্ধারের পর তা গুনতে লেগেছে আরও এক ঘণ্টা। কিছু টাকা তিনি বালিশের কভারের ভেতরও রেখেছিলেন। জানা গেছে, দুদক টিম যখন পার্থ বণিককে নিয়ে তার নর্থ রোডের বাসায় যায় তখন তার স্ত্রী রতন মনি সাহা তাদের বাসায় ঢুকতে বাধা দেন। প্রায় দুই ঘণ্টা তিনি দরজা আটকে রাখেন। পরে তারা দরজা ভেঙে ঢুকার কথা জানালে দরজা খুলে দেয়া হয়। এরই মধ্যে পার্থর স্ত্রী বেশ কিছু টাকা বাজারের ব্যাগে ভরে পাশের বিল্ডিংয়ের ছাদে ফেলে দেন। পরে দুদকের টিমের সদস্যরা ওই ছাদ থেকে টাকার ব্যাগটি উদ্ধার করেন। বিকাল ৪টায় শুরু হয় এ অভিযান। তবে রাত সাড়ে ১২টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত টিমের সদস্যরা ওই বাসায় অবস্থান করছিলেন। কারণ উদ্ধার হওয়া ৮০ লাখ টাকা জব্দ করার পর প্রতিটি নোটের নম্বর রেজিস্টারে লিখে নেন দুদকের সদস্যরা। এ কারণে রাতে মামলাটি করতে সময় নিতে হয় বলে জানান টিমের একজন সদস্য। মামলায় পার্থ বণিকের সঙ্গে তার স্ত্রী রতন মনি সাহাকেও আসামি করা হতে পারে। কারণ তিনি ওই অবৈধ টাকা লেনদেনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তিনি টাকাগুলো এখানে-ওখানে লুকিয়ে রেখে দুদকের কাজে অসহযোগিতা করেছেন। তার বাড়িতে কালো রঙের একটি দামি গাড়ি পাওয়া গেছে। দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে পার্থ বণিক জানিয়েছেন, গাড়িটি তার এক বন্ধুর কাছ থেকে উপহার পেয়েছেন। তিনি ডমইনোর ৭ তলায় ২০০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাটে থাকেন। যার বাজারমূল্য প্রায় ৩ কোটি টাকা। তিনি এই গাড়ি এবং ফ্ল্যাটের তথ্য তার আয়কর নথিতে উল্লেখ করেননি।-আলোকিত বাংলাদেশ
রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে কিশোর গ্যাংয়ের ২২ সদস্যকে আটক
২৯জুলাই২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে কিশোর গ্যাংয়ের ২২ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। আটকদের বিরুদ্ধে মাদক বিক্রি ও ছিনতাইসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এদের মধ্যে আটজনকে দুর্ধর্ষ হিসেবে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। এই আটজন লারা দে ও লেভেল হাই গ্যাংয়ের সদস্য। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) আনিসুর রহমান জানান। রোববার (২৮ জুলাই) রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আট কিশোর গ্যাং সদস্যরা হলো জিসান, হৃদয়, শাকিল, অভিক, ডি কে সানি নাঈম, মানিক ও মীম। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) আনিসুর রহমান জানান, অভিযান চালিয়ে মোহাম্মদপুর থেকে কিশোর গ্যাংয়ের ২২ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।
নুসরাত হত্যা: ৫৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন
২৯জুলাই২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ফেনীর মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত হত্যা মামলায় আরও ৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। এ নিয়ে ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৫৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। রোববার (২৮ জুলাই) সকালে জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে এ সাক্ষ্যগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে, কড়া নিরাপত্তায় মামলার ১৬ আসামিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে ফেনীর জেল সুপার মোহাম্মদ রফিকুল কাদের ও ২ কারারক্ষীসহ একে একে ৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন আদালত। আজ আরও ৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণের কথা রয়েছে। গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজীতে মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির গায়ে আগুন দেয়া হয়। পরে ১০ এপ্রিল চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।
আজ বিশ্ব বাঘ দিবস
২৯জুলাই২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ সোমবার বিশ্ব বাঘ দিবস (২৯ জুলাই)। সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও পালন করা হচ্ছে দিবসটি। এ অবস্থায় সুন্দরবনে হুমকিতে রয়েছে রয়েল বেঙ্গল টাইগার। তবে আশার কথা গত তিন বছরে সুন্দরবনে বেড়েছে আটটি বাঘ। বসবাসের ঝুঁকি কমাতে পারলে আরো বাড়বে সুন্দরবনের বাঘের সংখ্যা; এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ড লাইফ ফান্ডের তথ্যমতে, একশ বছর আগে সারাবিশ্বে বাঘ বিচরণ করতো এক লাখেরও বেশি। আর এখন পৃথিবীতে শতকরা ৯৫ শতাংশ কমে ৩ হাজার ৯০০টি বাঘ অবশিষ্ট আছে। বাংলাদেশে বাঘের একমাত্র আবাস সুন্দরবনেও কমেছে বাঘের সংখ্যা। তবে আশার কথা হচ্ছে, গত তিন বছরে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ১০৬টি থেকে বেড়ে এখন ১১৪টি হয়েছে। সুন্দরবনে এক সময় প্রায় সাড়ে ৫শ রয়েল বেঙ্গল টাইগার বিচরণ করত।কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগ, পরিবেশ দূষণ আর চোরা শিকারিদের দৌরাত্ম্যে কমছে বাঘের সংখ্যা; এমনটাই মনে করছেন পরিবেশবিদরা।
মিন্নিকে নিয়ে পুলিশের বেশি উৎসাহিত হওয়া ঠিক নয়
২৮জুলাই২০১৯,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরগুনার আলোচিত রিফাত হত্যা মামলায় মূল আসামিকে বাদ দিয়ে মিন্নিকে নিয়ে পুলিশের বেশি উৎসাহিত হওয়া উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, পুলিশ তদন্তে রিফাত হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ততার অভিযোগ পেলে অবশ্যই প্রধান সাক্ষী মিন্নি আসামি হতে পারে। তবে মূল আসামি বাদ দিয়ে মিন্নিকে নিয়ে বেশি উৎসাহিত হওয়া উচিত হবে না। রোববার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন। একই সঙ্গে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বা সিআইডির তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দেন আদালত। আদালত রিটকারী আইনজীবীকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, পুলিশের তদন্তে অসন্তুষ্ট হলে মিন্নির পরিবারের কেউ আদালতে আসতে পারে। স্বাধীন দেশে এটা সবার অধিকার। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনালে ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার এর আগে গত ২৫ জুলাই বরগুনার আলোচিত রিফাত হত্যা মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বা সিআইডির তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ এ রিট দায়ের করেন।
৪র্থ বর্ষে পা দিল 'নিউজ টোয়েন্টিফোর
২৮জুলাই২০১৯,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের অন্যতম প্রধান সংবাদধর্মী টিভি চ্যানেল নিউজ টোয়েন্টিফোর প্রতিষ্ঠার চার বছর পূর্তি হলো আজ। এ উপলক্ষে বিভিন্ন আয়োজন করেছে সংবাদভিত্তিক বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশনটি। নিউজ টোয়েন্টিফোরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, চতুর্থ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় বর্ষপূর্তি উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। ২০১৬ সালের ২৮ জুলাই চ্যানেলটির যাত্রা শুরু হয়। তবে এর আগে ২৬ মার্চ ২০১৬ তারিখে পরীক্ষামূলকভাবে চ্যানেলটি সম্প্রচার শুরু করে। চতুর্থ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে দর্শক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীসহ সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে চ্যানেলটি।
ছারপোকা অ্যাপের যাত্রা শুরু
২৮জুলাই২০১৯,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রক্তদান প্রক্রিয়াকে আরো সহজভাবে মানুষের কাছে পৌঁছাতে চালু হয়েছে ছারপোকা ব্লাড ব্যাংক অ্যাপ। ফেসবুকে ২০১৬ সালে ছারপোকা ব্লাড ব্যাংক নামক একটি পেজের যাত্রা শুরু হয়। ছারপোকার পরিচালক কাজী নিপুনের মতে, ছারপোকা ব্লাড ব্যাংক দেশের সব ডোনারকে এক প্লাটফর্মে এনে দাঁড় করানোর ব্যবস্থা করেছে। তিনি বলেন, এই অ্যাপটি বাংলাদেশের সবচেয়ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত অ্যাপ। এতে রয়েছে এমন কিছু ফিচার, যা বাংলাদেশের ব্লাড ব্যাংক অ্যাপসগুলোয় আগে কখনো ব্যবহৃত হয়নি। জানা গেছে, জরুরি ভিত্তিতে রক্তের প্রয়োজনে এই অ্যাপটির মাধ্যমে খুব সহজেই রোগীর নিকটবর্তী এলাকার রক্তদাতাকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব। সঙ্গে পাওয়া যাবে ডোনারের মোবাইল নম্বর। খুব সহজেই যে কেউ ব্যবহার করতে পারবেন এই অ্যাপটি, কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই।-somoynews
ডেঙ্গু আক্রান্তদের রাজধানী না ছাড়ার পরামর্শ
২৮জুলাই২০১৯,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর পর দেশের বিভিন্ন স্থানে ডেঙ্গু রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। আক্রান্তদের বেশিরভাগ সম্প্রতি ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে গেছেন বলে জানিয়েছেন রোগীর স্বজন ও চিকিৎসকরা। তবে আতঙ্কিত না হয়ে ডেঙ্গু ঠেকাতে সচেতনতার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। আক্রান্তদের রাজধানী থেকে বাইরে না যাওয়ারও পরামর্শ দেন তারা। রাজধানীতে গত ২ সপ্তাহ ধরে আশংকাজনকভাবে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। তবে এখন আস্তে আস্তে ছড়িয়ে পড়ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে। শনিবার পর্যন্ত বন্দরনগরী চট্টগ্রামে ডেঙ্গু আক্রান্ত ৫৪ জন রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া বগুড়ায় ৪৫ জন, বরিশালে ২৭, ফেনীতে ২৬, চাঁদপুরে ২২, রংপুরে ২১, কিশোরগঞ্জে ৬০ এবং মানিকগঞ্জে ১৫ জন আক্রান্ত হয়েছে। ঝিনাইদহে ১২, গোপালগঞ্জে ৪, লক্ষ্মীপুরে ৮, নওগাঁয় ২, যশোরে ১৯ ও বরগুনায় ১০ জনসহ আরো শতাধিক মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে বেশিরভাগ রোগী রাজধানী ঢাকা থেকে আক্রান্ত হয়ে নিজ জেলায় এসেছেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর