গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা
0৯এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন,দেশ-বিদেশ যেখান থেকেই হোক, গুজব ছড়ালে অপরাধীদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা নেবে। তিনি আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীতে সচিবালয়ে তথ্য অধিদফতরের সংবাদকক্ষে তথ্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি সেবাদানকারী সংস্থাগুলোর প্রধান ও প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকশেষে এ কথা বলেন। তথ্যসচিব কামরুন নাহার, প্রধান তথ্য অফিসার সুরথ কুমার সরকার, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক এস এম হারুন-অর-রশীদ, অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রচার) মো. মিজান উল আলমসহ তথ্য মন্ত্রণালয় ও এর জরুরি সংস্থাসমূহের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমরা লক্ষ্য করেছি যে, দেশে যখনই কোনো বিশেষ পরিস্থিতি বা দুর্যোগময় পরিস্থিতি তৈরি হয়, তখন কিছু মানুষ গুজব সৃষ্টি করে। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে তারা জনগণের মধ্যে আতংক সৃষ্টি করে জনগণকে ভয়ার্ত করার অপচেষ্টা চালায় এবং একইসাথে একটি মহল এধরণের গুজব তৈরি করে সরকারকেও বেকায়দা ফেলার অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকে। সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়গুলো গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে এবং ইতোমধ্যেই অনেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, যারা এই কাজগুলো করবে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরকার বদ্ধপরিকর। একইসাথে আমাদের তথ্য অধিদফতর এই বিষয়গুলো নজরে রাখছে। আমাদের মন্ত্রণালয়ের যে গুজব প্রতিরোধ সেল রয়েছে সেই সেলের কর্মকর্তারাও আজকে এখানে আছেন। এবিষয়গুলো আজকে আমরা আলোচনা করেছি। দয়া করে কেউ গুজব তৈরির চেষ্টা করবেন না। বিদেশ থেকেও অনেক ধরণের গুজব তৈরি করা হচ্ছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান বলেন, বিদেশে যেসব বাংলাদেশী নানা কারণে অবস্থান করছেন তারা কিন্তু সবাই অত্যন্ত দেশপ্রেমিক। কিন্তু, তাদের মধ্যে কেউ কেউ যাদের দু’একজনকে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করা গুজব সৃষ্টির অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এদের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তারা হয়তো মনে করছেন তারা বিদেশে আছেন বিধায় তারা ধরাছোঁয়ার বাইরে। কিন্তু তারা বাংলাদেশের নাগরিক সুতরাং বাংলাদেশের নাগরিক যেখান থেকেই অপকর্ম করুন না কেন, সরকার আইনগতভাবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে এবং তা করবে। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ দেশের সকল গণমাধ্যমকর্মীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আজকে যখন দেশের সমস্ত মানুষ ঘরের মধ্যে অবস্থান করছে, তারা এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও মানুষের কাছে সংবাদ পরিবেশন করার জন্য দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন, তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। আমি সব সংবাদমাধ্যমের সম্মানিত কর্মকর্তা ও সাংবাদিক ভাইবোনদের অনুরোধ জানাবো যে, আমাদের লক্ষ্য হবে জনগণ যাতে সঠিক সংবাদ এবং সঠিক তথ্য পায়, সংবাদের কাটতির জন্য আমাদের কেউ যেন জনগণের মধ্যে আতঙ্ক বা বিভ্রান্তি তৈরি হয় এমন সংবাদ পরিবেশন না করে, বলেন তিনি। হাছান মাহমুদ এসময় দেশের ক্যাবল নেটওয়ার্ক পরিচালনাকারীদেরও ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, এখন মানুষ টেলিভিশন দেখছে, টেলিভিশনের মাধ্যমে তথ্য পাচ্ছে এবং আপনারা কেবল নেটওয়ার্ক সঠিকভাবে পরিচালনা করছেন এজন্য ধন্যবাদ জানাই। সেইসাথে আপনাদের অনুরোধ জানাই যাতে এই ক্যাবল নেটওয়ার্ক পরিচালনায় ব্যত্যয় না ঘটে। কোথাও ব্যত্যয় ঘটলে প্রশাসনের সহায়তা গ্রহণ করুন। সরকারের বেতার, টেলিভিশন, তথ্য অধিদফতর এবং গণযোগাযোগ অধিদফতর জরুরি সেবার অন্তর্ভূক্ত উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, সেজন্য অন্যান্য সরকারি এবং বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও আমাদের এই প্রতিষ্ঠানগুলো চালু আছে এবং এসকল প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা সমস্ত প্রতিকূলতার মধ্যেও কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এজন্য আমি তাদের সবাইকেও ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের পাশাপাশি গণযোগাযোগ অধিদফতর ও তথ্য অধিদফতরের আঞ্চলিক বা মাঠ পর্যায়ে যারা কর্মরত, এ দুর্যোগে জনগণকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহায়তা করতে তারা স্ব-স্ব অফিসে দায়িত্ব পালন করবেন বলে আজকের বৈঠকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।বাসস
দেশের বেসরকারি হাসপাতালগুলি ২৪ ঘন্টা সেবা দিতে প্রস্তুত
0৯এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:করোনা মোকাবেলায় সরকারি হাসপাতালগুলোর পাশাপাশি ২৪ ঘন্টা সেবা দিতে প্রস্তুত দেশের বেসরকারি হাসপাতালগুলি।বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান বেসরকারি মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ।এসময় ডা. এনামুর রহমান বলেন, সারাদেশের ৬৯টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ২৪ ঘণ্টাই সব ধরনের রোগীকে সেবা দেয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। এসব হাসপাতালের কয়েকটি করোনা রোগীদের সেবা দিতে নিবেদিত থাকবে। সব ধরনের রোগীদের সেবা দিতে প্রস্তুত রয়েছেন বেসরকারি ২০ হাজার ডাক্তার।
রাজধানীতে ইমামসহ শনাক্ত ৩, শাহী মসজিদ লক ডাউন
0৯এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:রাজধানীতে আরো দুইজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে নাজিমুদ্দিন রোডের আলী নেকীর দেউরি এলাকায় শাহী মসজিদ কমিটির এক সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে, মসজিদটি লকডাউন করেছে বংশাল থানা পুলিশ। এছাড়াও এলাকার আটটি ভবন লকডাউন করা হয়েছে। এর আগে গতরাতে রাজধানীর খিলগাঁওয়ে একটি মসজিদের ইমামের করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই এলাকার কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করে রাখা হয়েছে।ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন। পুলিশের রমনা জোনের ডিসি জানান, খিলগাঁওয়ের মসজিদের ইমাম করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তার মগবাজারের বাসাও লকডাউন করেছে প্রশাসন। এদিকে নানা উদ্যোগের পরও লকডাউন হওয়া এলাকাগুলোয় করোনা সতর্কতা মানছেন না অনেকে। এদিকে নানা উদ্যোগের পরও লকডাউন হওয়া এলাকাগুলোয় করোনা সতর্কতা মানছেন না অনেকে। বিভিন্ন অজুহাতে বাড়ির বাইরে এসে অকারণে গল্প-আড্ডা-হাঁটাহাঁটি করছেন তারা। উপেক্ষা করছেন সামাজিক দূরত্বের নির্দেশ। পুলিশ বলছে, প্রাথমিকভাবে ওই এলাকাগুলোর বাসিন্দাদের সচেতন করছেন তারা। তবে সাধারণ মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধি ছাড়া করোনা মোকাবিলা সম্ভব না বলেও মনে করছেন তারা। এছাড়া বুধবার সকাল থেকেই রাজধানীর কাঁচাবাজারে ক্রেতা-বিক্রেতার যথেষ্ট ভিড় দেখা গেছে। বেশিরভাগ মানুষই কাছাকাছি দাঁড়িয়ে কেনাবেচা করেছেন। মাঝেমধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সবাইকে সতর্ক করলে ভিড় কিছুটা কমে। তবে, তারা চলে যাওয়ার পর আবারো সবকিছু ভুলে কাছাকাছি চলে আসছেন সবাই। ৫০টিরও বেশি এলাকা লকডাউন করেছে পুলিশ। নানা অজুহাতে এলাকার বাইরে যাচ্ছেন অনেকে।
আজ পবিত্র শবে বরাত,ঘরে বসে ইবাদাত করার আহ্বান
0৯এপ্রিল,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ পবিত্র শবে বরাত। হিজরি বর্ষের শাবান মাসের ১৪ তারিখে দিবাগত রাতটিকে মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা সৌভাগ্যের রজনী হিসেবে পালন করে থাকেন । মহিমান্বিত এ রাতে মহান আল্লাহ তার বান্দাদের ভাগ্য নির্ধারণ করেন । মুসলমানরা এ রাতে মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ, কোরান তেলাওয়াত, জিকিরসহ বিভিন্ন ইবাদতের মাধ্যমে অতিবাহিত করেন। অবশ্য এবারের প্রেক্ষাপ একেবারেই ভিন্ন। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে আগেই মসজিদে সীমিত পরিসরে জামাতে নামাজ আদায়ের বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। গত ৬ই এপ্রিল ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা জরুরি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, শুধু মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, খাদেমরা মসজিদে নামাজ আদায় করবেন। এ নির্দেশনা অমান্য করলে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে এই বিশেষ আজ শবে বরাতের ইবাদাতও ঘরে বসে করার আহ্বান জানানো হয়। অন্যান্য বছর ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে মিলাদ ও জিকির-আসগারসহ অন্যান্য কর্মসূচি আয়োজন করলেও এবার কোনও আয়োজন করা হয়নি। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে পরিত্রাণ কামনা করে পবিত্র শবে বরাতে বিশেষ দোয়া করার আহ্বান জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। একই সঙ্গে কবরস্থান ও মাজারে জনসমাগম না করার আহ্বানও জানিয়েছে সংস্থাটি।
রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের,যেকোনো সময় ফাঁসি
0৮এপ্রিল,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেছেন বঙ্গবন্ধুর খুনি আব্দুল মাজেদ। বুধবার কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে এ আবেদন করেন তিনি। আবেদনের কপি বৃহস্পতিবার বঙ্গভবনে পৌঁছে দেবে কারা কর্তৃপক্ষ। এর আগে, বুধবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার আত্মস্বীকৃত খুনি মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আব্দুল মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। বর্তমানে তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের (কেরানীগঞ্জ) কনডেম সেলে রাখা হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বরখাস্ত হওয়া ক্যাপ্টেন আব্দুল মাজেদ গত ২৩ বছর ধরে কলকাতায় আত্মগোপনে ছিলেন। গত ১৬ মার্চ তিনি ঢাকায় আসেন। এরপর সোমবার (৬ এপ্রিল) দিবাগত রাতে মিরপুর সাড়ে ১১ থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর রোডে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নিয়েছিলেন মাজেদ। তখন তিনি ছিলেন সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন।
চট্টগ্রামে ৮৮ পরীক্ষায় একটিতেও করোনা শনাক্ত হয়নি
0৮এপ্রিল,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে অবস্থিত বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকসাস ডিজিজে (বিআইটিআইডি) ৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় একটিতেও করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়নি। বুধবার (৮ এপ্রিল) চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এ তথ্য জানান। এর আগে মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সব নমুনার ফলাফল না আসায় চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ৪৮ জনের ফলাফল জানিয়েছিলেন। ডা. শেখ ফজলে রাব্বি বলেন, মঙ্গলবার ৮৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। তম্মধ্যে নগরীর দামপাড়া থেকে পাওয়া প্রথম কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়া ব্যক্তি ব্যক্তিটির পুনরায় পজেটিভ এসেছে। আর উনার ছেলের নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) এটার ফলাফল জানা যাবে। তিনি বলেন, বিআইডিতে এ পর্যন্ত সর্বমোট ২৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা করা হয়েছে। তম্মধ্যে দুইজনের দেহে এ করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ওরা দুইজনই হচ্ছেন বাবা ও ছেলে। বাকি ২৪৮ জনের রিপোর্ট করোনা শনাক্ত হয়নি।
শবে বরাতের রাতে কবরস্থান ও মাজারে না যাওয়ার অনুরোধ
0৮এপ্রিল,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:পবিত্র শবে বরাতের রাতে মুসল্লিদের মাজার ও কবরস্থানে না যাওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বুধবার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা)। সেইসঙ্গে কবরস্থান ও মাজারের গেইট বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। শবে বরাতের এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যথাযােগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় বৃহস্পতিবার (১৪ শাবান, ৯ই এপ্রিল) দিবাগত রাতে সারাদেশে পবিত্র শবে বরাত উদযাপিত হবে। শাবান মাসের ১৪ তারিখে দিবাগত রাতটিকে মুসলমানরা সৌভাগ্যের রাত হিসেবে পালন করেন। অনেকের মতে, মহিমান্বিত এ রাতে মহান আল্লাহ তার বান্দাদের ভাগ্য নির্ধারণ করেন। মুসলমানরা এ রাতে মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ, কোরআন তিলাওয়াত, জিকিরসহ বিভিন্ন ইবাদত বন্দেগির মাধ্যমে অতিবাহিত করেন। বিশ্বে করােনা ভাইরাস পরিস্থিতি ক্রমশ ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করছে। বাংলাদেশেও এর প্রভাব দৃশ্যমান হচ্ছে। বিরাজমান এ পরিস্থিতিতে শবে বরাতের রাতে নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করে ইবাদত বন্দেগি করতে বলা হয়েছে। এ সময় ব্যক্তিগত দোয়া ও প্রার্থনা ছাড়াও করােনাভাইরাস মহামারির আক্রমণ থেকে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি, মুসলিম উম্মাহ ও বিশ্ববাসীকে নিরাপদ রাখার বিষয়ে আল্লাহর দরবারে বিশেষ দোয়ার জন্য দেশের সব ধর্মপ্রাণ মুসলমানের প্রতি আহ্বান জানানাে যাচ্ছে। দেশের আলেম-ওলামা, পীর-মাশায়েখ, খতিব, ঈমাম, মুয়াজ্জিন, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও শিক্ষকসহ সব ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে এই দোয়া ও প্রার্থনার জন্য সবিনয়ে অনুরােধ জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পবিত্র শবে বরাতে জিয়ারতের জন্য কবরস্থান ও মাজারে অনেক লােকের সমাগম হয়। এছাড়া কবরস্থান ও মাজারের ভেতরে-বাইরে অনেক ভিক্ষুক, অসহায়, অসচ্ছল, প্রতিবন্ধী ও রােগাক্রান্ত ব্যক্তি সাহায্যের জন্য সমবেত হয়। এ ধরনের জনসমাগমের কারণে করােনাভাইরাস ব্যাপক হারে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ অবস্থায় করােনার সংক্রমণ রােধকল্পে শবে বরাতে কবর জিয়ারতের উদ্দেশ্যে কবরস্থানে না গিয়ে নিজ নিজ বাসস্থানে থেকে মৃত আত্মীয়-স্বজনের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করার জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বিশেষভাবে আহ্বান জানানাে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে কবরস্থান ও মাজারের গেট বন্ধ রাখাসহ কবরস্থানের ভেতর ও বাইরে কোনাে ধরনের জনসমাগম না করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্তদের অনুরােধ জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, করােনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে বিভিন্ন গুজব ছড়ানাের অভিযােগ পাওয়া যাচ্ছে। এ বিষয়ে গুজব ছড়ানাে ও গুজবে বিশ্বাস করা থেকে বিরত থাকার জন্যও সবাইকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।
বাংলাদেশকে করোনা মোকাবিলায় সর্বাত্মক সহায়তার আশ্বাস চীনের
0৮এপ্রিল,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত দেশে বিদেশি নাগরিকদের বিশেষায়িত চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত রাজধানীর মহাখালিস্থ শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইন্সটিটিউট অ্যান্ড হাসপাতালে চীনের অভিজ্ঞ টেকনেশিয়ান টিম আনতে চায় সরকার। এ নিয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী উয়েং ই র সঙ্গে আলোচনা করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। একই সঙ্গে তিনি চীনের একটি অভিজ্ঞ মেডিকেল টিম চেয়েছেন, যা হবে চিকিৎসক, নার্স এবং টেকনিশিয়ানের সমন্বয়, এরা বাংলাদেশ করোনা রোগীদের চিকিৎসার পাশাপাশি এ দেশে মেডিকেল প্রফেশনালদের প্রশিক্ষণ দেবে। মন্ত্রী বাংলাদেশে করোনা চিকিৎসায় জরুরি ভেন্টিলেটর মেশিন চীন থেকে আমদানি বিশেষ করে চীনের ব্যবসায়ীরা যাতে ব্যাক টু ব্যাক এলসিতে এক বছর পর্যন্ত গ্রেস পিরিয়ড রাখে সেই সুবিধা নিশ্চিতে চীনের স্টেট কাউন্সেলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েং ই'র হস্তক্ষেপ চেয়েছেন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী উল্লিখিত বিষয়ে সহযোগিতা দেয়াসহ সামগ্রিকভাবে বাংলাদেশকে করোনা মোকাবিলায় সর্বাত্মক সহায়তার আশ্বাস দেন। কাল সন্ধ্যায় মন্ত্রী মোমেনকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ওয়েং ই ফোন করেন। প্রায় ৪৫ মিনিট স্থায়ী ওই টেলিফোন আলাপে করোনা মোকাবিলায় পারস্পরিক সমর্থন-সহায়তা বিশেষত টেস্টিং কিট, পিপিই, মাস্ক সহযোগিতায় একে অন্যের দুর্দিনে এগিয়ে আসার বিষয়টি উভয়ে কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন। মন্ত্রীদের আলোচনায় সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেইজিং সফরকালে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংয়ের সঙ্গে বৈঠক রোহিঙ্গাদের দ্রুত মিয়ানমারের প্রত্যাবাসনের যে অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়েছিল তা স্মরণ করেন। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্রুত প্রত্যাবাসনে চীনের পূর্ণ সমর্থনের কথা পূণর্ব্যক্ত করেন। দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পরস্পরের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে বাংলাদেশকে শুরু থেকেই সব ধরনের সহায়তা দিচ্ছে বন্ধুপ্রতীম চীন। সরকারীভাবে চীন এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৫০০ করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কিট, প্রথম সারির ডাক্তারদের জন্য ১০ হাজার পিপিই ও এক হাজার থার্মোমিটার, ৫ হাজার সার্জিকাল রেস্পিরেটর বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে দিয়েছে। বেসরকারি সংস্থা জ্যাক মা ফাউন্ডেশনও বড় সাপোর্ট দিয়েছে। আরও সহায়তা আসছে বলে জানা গেছে।