জলদস্যুদের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে করা খসড়া বিলের অনুমোদন
২৬নভেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সমুদ্রে ডাকাতি ও সহিংসতার সময়ে মানুষ হত্যার ঘটনায় জলদস্যুদের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে করা খসড়া বিলের অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার বাংলাদেশ মেরিটাইম অঞ্চল বিল ২০১৯ শীর্ষক এই খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। সচিব বলেন, আন্তর্জাতিক নিয়মের সাথে সামঞ্জস্য রেখে মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য বিলটি নিয়ে আসে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিলটি পাস হলে ২০০ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত একচ্ছত্র অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং ৩৫০ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত মহীসোপানে সমুদ্র সম্পদের ওপর বাংলাদেশের সার্বভৌম অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে, বলেন তিনি।
সচিবালয় এলাকায় বাজানো যাবে না হর্ন
২৬নভেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আগামী ১৭ ডিসেম্বর থেকে সচিবালয় এলাকাকে নিরব জোন বা শব্দ বিহীন এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। তিনি বলেছেন, সচিবালয়ের চারপাশ অর্থাৎ জিরো পয়েন্ট, পল্টন মোড়, কদম ফোয়ারা, শিক্ষাভবন মোড় হয়ে জিরো পয়েন্ট এলাকায় কোনো পরিবহনকে কোনো প্রকার হর্ন বাজাতে বা শব্দ সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না। ঢাকা শহরে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণের পাইলট কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এটা বাস্তবায়ন করা হবে। সোমবার (২৫ নভেম্বর) বিকালে সচিবালয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে তিনি এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে হাইড্রোলিক হর্ন পুরোপুরি বন্ধে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শহরে অনাকাঙ্ক্ষিত ও অপ্রয়োজনীয় শব্দের উৎস সন্ধান করে তা বন্ধ করা হবে। মন্ত্রী বলেন, পরিবেশ অধিদফতর বায়ু ও শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে স্বল্পমেয়াদি, মধ্যমেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করবে। তা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সংস্থা বাস্তবায়ন করবে। এ লক্ষ্যে পুনরায় আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আহবান করা হবে বলেও জানা তিনি। মন্ত্রী বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রয়াসের মাধ্যমেই আমরা ঢাকা শহরকে বায়ু ও শব্দ দূষণ মুক্ত করতে পারবো।- আলোকিত বাংলাদেশ
পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি: তদন্তে এনবিআরের কাস্টমস গোয়েন্দা
২৪নভেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সরকারের বহুমুখী উদ্যোগের পরও নিয়ন্ত্রণহীন পেঁয়াজের বাজার। প্রায় ১ সপ্তাহ ধরে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। রাজধানীর খুচরা বাজারে শনিবার দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১৮০-২০০ টাকা কেজি। গত ৫ দিন ধরেই (মঙ্গলবার থেকে) বাজারে এ দামে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। এ ৫ দিনে পণ্যটির দাম আর কমেনি। বরং উচ্চমূল্যেই স্থিতিশীল রয়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাজার তদারকি বাড়ালে পণ্যটির দাম আরও কমে আসবে। এদিকে পেঁয়াজের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধির কারণ খুঁজতে তদন্ত শুরু করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তর। ৪৬ আমদানিকারককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আগামীকাল তলব করেছে সংস্থাটি। কর্মকর্তারা জানান, অতি মুনাফা ও অর্থপাচারের প্রমাণ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। অতি মুনাফার অভিযোগে এ রকম মোট ৩৪১ আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের তালিকা করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। তারাও নজরদারিতে আছে। প্রয়োজনে এসব প্রতিষ্ঠানের মালিকদেরও ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান বি এইচ ট্রেডিং। গত সাড়ে তিন মাসে প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করেছে প্রায় পৌনে চার হাজার টন পেঁয়াজ। যার আমদানিমূল্য ১৪ কোটি ৭৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ কেজিপ্রতি কেনা দাম ৪০ টাকা। এসব পেঁয়াজ কী দামে বিক্রি হয়েছে এবং মজুদ আছে কীনা জানতে চেয়ে চিঠি দিয়েছে কাস্টমস গোয়েন্দা। সোমবার ঢাকায় কাস্টমস গোয়েন্দা কার্যালয়ে ডাকা হয়েছে ১৩ জন বড় আমদানিকারককে। পর্যায়ক্রমে ডাকা হবে আরও ৩৩ জনকে। গোয়েন্দারা জানান, গত সাড়ে তিন মাসে পেঁয়াজ আমদানি করেছে তিনশ ৪১ প্রতিষ্ঠান। প্রয়োজনে সব প্রতিষ্ঠানকে তলব করা হবে বলেও জানান তারা।-আলোকিত বাংলাদেশ
ফায়ার সার্ভিস-সিভিল ডিফেন্সকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান
২৪নভেম্বর,রবিবার,স্পেশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: অগ্নি দুর্ঘটনায় উদ্ধার কাজে ব্যবহারের জন্য ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরকে ৩টি ফায়ার সেইফটি জাম্বো কুশন বা বিশেষ আকৃতির অগ্নি নিরাপত্তা বালিশ হস্তান্তর করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সূত্র: সময় টিভি রোববার (২৪ নভেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব বিশেষ সরঞ্জাম হস্তান্তর করেন। জার্মানি থেকে আমদানি করা বিশেষ আকৃতির অগ্নিনিরাপত্তা বালিশ ৭ থেকে ৮ তলা ভবনে অগ্নিদুর্ঘটনায় উদ্ধারকাজে ব্যবহার করা যাবে। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালসহ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
গ্রামীণফোনকে ২ হাজার কোটি টাকা পরিশোধের নির্দেশ
২৪নভেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) দাবিকৃত প্রায় ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকার মধ্যে এখন ২ হাজার কোটি টাকা দিতে গ্রামীণফোনকে নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আগামী তিন মাসের মধ্যে এই টাকা পরিশোধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আজ রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে সাত বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এই আদেশ দেন। তবে এই টাকা না দেওয়া হলে দাবি আদায়ের ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকবে না বলেও আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। তখন গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে যে কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যাবে বলে বিটিআরসির আইনজীবী জানিয়েছেন। এর আগে গত ১৮ নভেম্বর প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে এ বিষয়ক আদেশের জন্য ২৪ নভেম্বর দিন ধার্য করেন। তবে এ সময়ের মধ্যে মধ্যস্থতার জন্য গ্রামীণফোন কোনো ফোরামে যেতে পারবে না বলে বলা হয়। আদালতে গ্রামীণফোনের পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী এএম আমিন উদ্দিন ও ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। তাদের সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার মেহেদী হাসান চৌধুরী। অন্যদিকে বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মাহবুবে আলম ও আইনজীবী ব্যারিস্টার খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। গত ১৭ অক্টোবর বিচারপতি একেএম আবদুল হাকিম ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের হাইকোর্ট বেঞ্চ গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির প্রায় ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা দাবি আদায়ের ওপর দুই মাসের অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দেন। পরে গ্রামীণফোনের কাছে ওই টাকা দাবি আদায়ের ওপর হাইকোর্টের দুমাসের অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা স্থগিত চেয়ে বিটিআরসি আপিল বিভাগে আবেদন করেন। এই বিষয়ে ১৭ অক্টোবর গ্রামীণফোনের আইনজীবী তানিম হোসেইন শাওন বলেন, চলতি বছরের ২ এপ্রিল বিভিন্ন খাতে ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা দাবি করে বিটিআরসি গ্রামীণফোনকে চিঠি দিয়েছিল। পরে গ্রামীণফোন ওই চিঠির বিষয়ে নিম্ন আদালতে টাইটেল স্যুট (মামলা) করে। সেই সঙ্গে ওই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করা হয়। পরে ২৮ আগস্ট নিম্ন আদালত গ্রামীণফোনের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন খারিজ করে দিলে ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে গ্রামীণফোন। পরবর্তীতে শুনানি শেষে ১৭ অক্টোবর আদালত আপিলটি শুনানির জন্য গ্রহণ করে টাকা আদায়ের ওপর দুই মাসের অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দেন।
মুনাফাখোর ও অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি
২৩নভেম্বর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ অসাধু ব্যবসায়ী, লুটেরা, মুনাফাখোর ও মজুতদারদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানিয়ে বলেছেন, এরা গুজব ছড়িয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের কৃত্রিম সংকট তৈরি করে। শনিবার রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদানকালে এ কথা বলেন। (বাসস) তিনি বলেন, পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধ রয়েছে। অসাধু ব্যবসায়ী, মুনাফাখোর, লুটেরা ও মজুতদারদের মধ্যেও ঐক্য রয়েছে। এখন এই সব দুষ্কৃতকারীদের বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সম্প্রতি পেঁয়াজ, লবন ও চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে তিনি এই পরিস্থিতির তীব্র নিন্দা করেন। তিনি বলেন, এতে সাধারণ জনগণকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। পেঁয়াজ, লবন ও চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মজুদের ব্যাপারে গুজব সম্পর্কে সতর্ক থাকার জন্যও দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। এসময় গণমাধ্যম কর্মীদের এর বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচারণা চালাতে হবে উল্লেখ করেন। রাষ্ট্রপতি বলেন, পবিত্র রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির ব্যাপারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে আব্দুল হামিদ বলেন, বিভিন্ন দেশে ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম হ্রাস পায়। এমনকি রমজান মাসে মধ্যপ্রাচ্যের মানুষও পণ্যের মূল্যহ্রাস করে। কিন্তু বাংলাদেশে আমরা ভিন্ন চিত্র দেখতে পাই। এদেশে রমজান মাস এলেই ইফতারি তৈরিতে ব্যবহৃত বেগুন, শশা ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে যায়। জনগণকে অবশ্যই এই দুষ্কর্মের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
স্বর্ণের বারসহ শাহজালালে বিমান জব্দ
২৩নভেম্বর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকা কাস্টম হাউসের প্রিভেনটিভ দল ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ৭৮৭ ড্রিমলাইনার গাঙচিল এর একটি সিটের পেছনের স্ক্র খুলে আনুমানিক ২ কোটি ৩২ লাখ টাকা মূল্যের ৪০টি সোনার বার উদ্ধার করে। এ সময় বিমানটিও জব্দ করা হয়েছে। শনিবার (২৩ নভেম্বর) ভোরে বারগুলো উদ্ধার করা হয়। ঢাকা কাস্টমস হাউজের সহকারী কমিশনার (প্রিভেনটিভ) সাজ্জাদ হোসে জানান, আগেই বিশেষ সূত্রে সংবাদ আসে, ড্রিমলাইনার গাঙচিলের এ ফ্লাইটে সোনা পাচার হবে। এ তথ্যে কাস্টমস কর্মকর্তারা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে অবস্থান নেয়। বিমান বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে সব যাত্রী চলে যান। তবে কোন সোনা পাওয়া যায়নি। পরে ৬ নম্বর বোর্ডিং ব্রিজে অবতরণ করা সন্দেহভাজন গাংচিলে তল্লাশি করা হয়। একপর্যায়ে উড়োজাহাজের ১৫-এফ নম্বর সিটের ভেতরে লুকানো ৪০টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়।
ফের বাড়ল স্বর্ণের দাম
২৩নভেম্বর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের বাজারে আবারও স্বর্ণের দাম বেড়েছে। ২২, ২১ ও ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণের ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা বাড়লেও অপরিবর্তিত রয়েছে সনাতন পদ্ধতিতে প্রতিভরির দাম। শনিবার বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির (বাজুস) প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে স্বর্ণের দাম বাড়ানোর খবর গণমাধ্যমে জানানো হয়েছে। রোববার (২৪ নভেম্বর) থেকে নতুন দামে বিক্রি হবে অলংকার তৈরির এ ধাতু। এর আগে স্বর্ণের দাম বেড়েছিল চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বর। বাজুস নির্ধারিত নতুন মূল্য তালিকায় দেখা গেছে, ২২ ক্যারেটের প্রতিভরির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৮ হাজার ২৮ টাকা। শনিবার পর্যন্ত এ মানের স্বর্ণের দাম রয়েছে ৫৬ হাজার ৮৬২ টাকা। ২১ ক্যারেটের প্রতিভরির দাম ধরা হয়েছে ৫৫ হাজার ৬৯৬ টাকা। বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৫৪ হাজার ৫২৯ টাকা। একইভাবে ১৮ ক্যারেটের প্রতিভরির দাম হবে ৫০ হাজার ৬৮০ টাকা। এখন রয়েছে ৪৯ হাজার ৫১৩ টাকা। সনাতন পদ্ধতিতে প্রতিভরির অপরিবর্তিত দাম রয়েছে ২৯ হাজার ১৬০ টাকা। এছাড়া ২১ ক্যারেট ক্যাডমিয়াম রূপার দাম প্রতিভরি ৯৩৩ টাকা। বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, আর্ন্তজাতিক বাজারের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়েছে।
দুর্নীতির টাকায় চাকচিক্য থাকলেও সম্মান পাওয়া যায় না: প্রধানমন্ত্রী
২৩নভেম্বর,শনিবার,স্পেশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, দুর্নীতির টাকায় চাকচিক্য থাকলেও সম্মান পাওয়া যায় না।তিনি আরও বলেন, এ টাকা দিয়ে হয়তো জৌলুস বাড়াতে পারে, চাকচিক্য বাড়াতে পারে; আন্তর্জাতিক বড় বড় ব্রান্ডের জিনিস পরাতে পারে। কিন্তু তাতে সম্মান পাওয়া যায় না। শনিবার ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের ৭ম কংগ্রেস উদ্বোধনের পর প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সকলকে এ কথাটাই মনে রাখতে হবে- ভোগে নয়, ত্যাগই মহত্ব। ভোগে নয়, ত্যাগেই সুখ। কতটুকু মানুষের জন্য করতে পারলাম, সেটাই হবে একজন রাজনীতিবিদের চিন্তা। তিনি বলেন, আমাদের যুব সমাজকে আমরা সেভাবেই গড়ে তুলতে চাই। মাদক সন্ত্রাস দুর্নীতি এগুলো থেকে দূরে থাকতে হবে। নিজে কি পেয়েছি কি পেলাম এই চিন্তা না করে, সাধারণ মানুষের জন্য কতোটুকু করতে পারলাম এই চিন্তা থেকে যারা রাজনীতি করে তারাই সফল হতে পারে।

জাতীয় পাতার আরো খবর