৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
০৬জুন২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ তৈরি হওয়ায় বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকার ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ আশঙ্কায় দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আবহাওয়া অধিদফতরের সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, গঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও সেই সংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাবে গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে জানানো হয়, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা বঙ্গোপসাগর ও সমুদ্রবন্দগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম, বক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। এদিকে বৃহস্পতিবারের আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে গাঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়, ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ময়মনসিংহ ও রংপুর বিভাগের দুই-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।
পাসপোর্ট না নিয়ে কাতার যেয়ে ক্যাপ্টেন মাহমুদ অপরাধ করেছেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
০৬জুন২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:পাসপোর্ট ছাড়া যাওয়ায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদকে কাতার ইমিগ্রেশন আটকের পর তার পাসপোর্ট ঢাকা থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় পাঠানোর চেষ্টা চলছে। বুধবার রাতে দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ তার পাসপোর্ট না পেয়ে তাকে আটক করেন। ঢাকায় ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ বলছে, সাধারণত বৈমানিকদের ক্ষেত্রে জেনারেল ডিক্লেয়ারেশনের আওতায় ভিসা প্রয়োজন না পড়লেও দেশ ছাড়ার সময় অবশ্যই পাসপোর্ট নিতে হয়। বা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে দেখাতে হয়। ইমিগ্রেশন কর্তপক্ষের দায়িত্ব ছিল তার পাসপোর্ট চেক করা। এখন বিমানের ওই বৈমানিক পাসপোর্ট ছাড়া কিভাবে ঢাকা ত্যাগ করলেন, তার পাসপোর্টের মেয়াদ আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বিদেশ সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে বিমানের বোয়িং ৭৮৭ উড়োজাহাজ নিয়ে যান ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদ। তিনি এখন দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনের হেফাজতে রয়েছেন। এ বিষয়টি নিয়ে এখন পর্যন্ত পুলিশের কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। আসলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে গুলশান থানা পুলিশ। এদিকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন সচিব মুহিবুল হক বাংলাট্রিবিউনকে বলেন, পাইলট ভুলে পাসপোর্ট ছাড়া গিয়েছেন। পাসপোর্ট ছাড়া তিনি কী করে ইমিগ্রেশন পার হলেন, এটা তদন্ত করে দেখা হবে। আর তার পাসপোর্ট কাতারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এদিকে ডিবিসি নিউজ বলছে কাতার এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ফজল মাহমুদের পাসপোর্ট দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পাঠানোর চেষ্টা করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। কিন্তু কাতার এয়ারলাইন্স পাসপোর্ট বহনে অস্বীকৃতি জানায়। কাতার এয়ারলাইন্স জানায়, স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ছাড়া কারো পাসপোট্র্ বহনের নিয়ম নেই। আইন অনুযায়ী, পাসপোর্ট ছাড়া কারো দেশত্যাগ কিংবা অন্য দেশে প্রবেশের সুযোগ নেই। ফজল মাহমুদ কাতার ইমিগ্রেশনকে জানান, তার পাসপোর্ট বিমানের ফ্লাইট অপারেশন রুমের লকারে। পরে বিমানের নিরাপত্তা মহাব্যবস্থাপকের কাছ থেকে চাবি নিয়ে ফজল মাহমুদের পাসপোর্ট উদ্ধার করেন বিমানের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ মহাব্যবস্থাপক। পরে, রিজেন্ট এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে করে ফজল মাহমুদের পাসপোর্ট কাতার পাঠানোর উদ্যোগ নেয়া হয়। তবে, রিজেন্ট এয়ারলাইন্সও ওই পাসপোর্ট বহনে অস্বীকৃতি জানায়। আইন অনুযায়ী পাসপোর্ট ছাড়া দেশত্যাগ ও অন্য দেশে প্রবেশের সুযোগ নেই। এ বিষয়ে বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় জানায়, বিষয়টি ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদের ব্যক্তিগত গাফিলতি। তিনি দেশে ফিরে আসার পর আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এনিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, পাসপোর্ট ছাড়া দেশের বাইরে গিয়ে ক্যাপ্টেন ফজল মাহামুদ ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। তদন্তের পর বলা যাবে তিনি এই কাজ কেন করেছেন। এর আগে পাসপোর্ট ছাড়া লন্ডন যাওয়ায় বিমানের একজন পাইলটকে বড় অংকের আর্থিক জরিমানা গুনতে হয়েছে। প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চার দেশে সরকারি সফরের অংশ হিসেবে বর্তমানে ফিনল্যান্ডে অবস্থান করছেন। ৮ই জুন দোহা বিমানবন্দর হয়ে তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। তাকে বহন করতে বোয়িং ৭৮৭ মডেলের ড্রিমলাইনার বর্তমানে কাতার অবস্থান করছে। পাইলটরা বিমান নিয়ে বিশ্বের নানা বিমানবন্দরে গেলেও অনেক সময় সেসব দেশের অভ্যন্তরে তাদের প্রবেশ করতে হয় না। আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশনের নিয়ম অনুসারে, পাইলটরা জেনারেল ডিক্লেয়ারেশনের কপি সঙ্গে নিয়ে ভ্রমণ করেন। জেনারেল ডিক্লেয়ারেশনের কপি ছাড়াও পাসপোর্ট সঙ্গে রাখতে হয় পাইলটদের।
বিএসএমএমইউতে বোমা সদৃশ বস্তু
০৬জুন২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন থেকে একটি বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ওই ভবনের তৃতীয় তলায় রেজিস্ট্রারের কক্ষের সামনে থেকে পেট্রোল ভরা একটি বোতল উদ্ধার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। তবে সেটি পেট্রোল বোমা বলেই প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। জানা যায়, রাজধানীর শাহবাগে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের তৃতীয় তলায় রেজিস্ট্রারের কক্ষের সামনে পেট্রোল ভরা বোতল দেখতে পাওয়া যায়। এরপর খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পেট্রোল বোমা সদৃশ ওই বোতলটি উদ্ধার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। এর দুইদিন আগে রেজিস্ট্রার আবদুল হান্নানের কক্ষের সামনে আগুন ধরানো হয়েছিল বলেও জানা যায়। এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ডিউটি অফিসার এসআই মহসীন জানান, উদ্ধারকৃত বোমা সদৃশ বস্তুটি নিয়ে তদন্ত এখনো চলছে। সেটি বোমা কিনা সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায় নি। তবে সেটি কিভাবে এলো এবং এর উদ্দেশ্য জানতেও তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ। উল্লেখ্য, গত ১ এপ্রিল (সোমবার) থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।
বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে ফিনল্যান্ডের ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান: প্রধানমন্ত্রী
০৬জুন২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে ফিনল্যান্ডের ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশটিতে ৫দিনের সফরের তৃতীয় দিনে প্রবাসী বাংলাদেশীদের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনিবলেন, বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে প্রবাসীরাও ভূমিকা রাখতে পারেন। হেলসিংকি থেকে প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কর্মসূচিতে আরো রয়েছে ফিনল্যান্ড আওয়ামী লীগ ও ইউরোপ আওয়ামী লীগের নেতাদের সাথে বৈঠক। মক্কায় ওআইসি সম্মেলন শেষে গত ৩ জুন ফিনল্যান্ডে গেছেন প্রধানমন্ত্রী। সৌদী যাওয়ার আগে জাপানে একটি সম্মেলনে অংশ নেন তিনি, ঢাকা থেকে টোকিওর উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছিলেন ২৮ মে। শেখ হাসিনা ৪ জুন ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সাউলি নিনিস্তোর সঙ্গে বৈঠক করেন। দুই নেতা জলবায়ু ইস্যুতে একযোগে কাজ করার ঘোষণা দেন। ৭ জুন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী ঢাকার উদ্দেশ্যে ফিনল্যান্ড ত্যাগ করবেন। পরের দিন তিনি ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা
৫জুন২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুসলিম জাহানের প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসী ও বিশ্বের সকল মুসলমানকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে তিনি এ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ঈদ শান্তি, সহমর্মিতা ও ভ্রাতৃত্ববোধের অনুপম শিক্ষা দেয়। হিংসা ও হানাহানি ভুলে মানুষ সাম্য, মৈত্রী ও সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ হয়। ঈদ ধনী-গরীব নির্বিশেষে সকলের জীবনে আনন্দের বার্তা বয়ে নিয়ে আসে। তিনি বলেন, ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনে মুসলমানদের আত্মশুদ্ধি, সংযম, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির মেলবন্ধন পরিব্যাপ্তি লাভ করুক- এটাই হোক ঈদ উৎসবের ঐকান্তিক কামনা। হাসি-খুশি ও ঈদের অনাবিল আনন্দে প্রতিটি মানুষের জীবন পূর্ণতায় ভরে উঠুক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, বিশ্বের সকল মানুষের সুখ-শান্তি, কল্যাণ ও উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি হোক-আজকের দিনে আমি মহান আল্লাহর কাছে এই প্রার্থনা করি। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নিকট প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ ও মুসলিম উম্মাহর উত্তরোত্তর উন্নতি, সমৃদ্ধি ও অব্যাহত শান্তি কামনা করছি।
বৃষ্টিবিঘ্নিত ঈদের জামাত, দেশবাসীর সমৃদ্ধি কামনা
৫জুন২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: সারা দেশে উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে মুসলিমদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে আজ বুধবার। তবে সকাল থেকে বৃষ্টির কারণে মুসল্লিদের ঈদের জামাতে অংশ নিতে ভোগান্তির শিকার হতে হয়। বৃষ্টি মাথায় নিয়ে মুসল্লিরা রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহে জড়ো হন। জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এখানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধান বিচারপতিসহ দেশের বিশিষ্ট নাগরিকরা ঈদের নামাজ আদায় করেন। ঈদের নামাজে মুসলিম উম্মাহ ও দেশবাসীর সুখ-সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া করা হয়। এ সময় মুসল্লিরা দুহাত তুলে আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করেন। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার তথ্য সংশোধন করে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি আজকের ঈদের কথা জানায়। সংবাদ সম্মেলনে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ জানান, বেশ কয়েকজনের চাঁদ দেখার সাক্ষ্য নিয়ে চাঁদ দেখা কমিটির নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বুধবার সারা দেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হবে। আজ সকাল ৭টায় বায়তুল মুকাররমে প্রথম ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এখানে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদ জামাত হবে। জাতীয় ঈদগাহ ও জাতীয় মসজিদে পুরুষদের পাশাপাশি নারীদের নামাজে অংশ নেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া এবং দিনাজপুরের গোর-এ শহীদ বড় ময়দানে দুটি বৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেই সঙ্গে দেশব্যাপী বিভিন্ন ঈদগাহ, মসজিদ ও খোলা মাঠে ঈদের নামাজ পড়ছেন মুসল্লিরা। ঈদ উপলক্ষে সরকারি ও বেসরকারি অফিস ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে শহরের প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপগুলো জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ঈদ মোবারক লেখা পতাকায় সাজানো হয়েছে। টেলিভিশন চ্যালেন ও রেডিও স্টেশনগুলো বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার করছে। ঈদ উপলক্ষে কারাগার, হাসপাতাল, সরকারি শিশু কেন্দ্র, ছোটমনি নিবাস ও আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এদিকে, জাতীয় ঈদগাহে নির্বিঘ্নে ঈদের জামাত আয়োজনে ঢাকা মহানগর পুলিশ কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।
বুধবারই ঈদ
৪জুন২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় আগামীকাল বুধবার (৪ জুন) বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। মঙ্গলবার রাতে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির ফের বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে ওই বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে সন্ধ্যায় বৈঠকে বসেছিল কমিটি। তখন দেশের কোথায় চাঁদ দেখার খবর পাওয়া যায়নি বলে জানায় কমিটি। এই সংবাদ ও আবাহাওয়া অফিসের তথ্য বিশ্লেষণ করে তখন কমিটি জানায়, চলতি বছর দেশে ৩০টি রোজা পালিত হবে এবং ঈদ উদযাপিত হবে বৃহস্পতিবার। তবে এর কিছুক্ষণ পর আবারও বৈঠকে বসে কমিটি।
রাজধানীতে ঈদের জামাত কখন কোথায়
৪জুন২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে বুধবার পালিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। রাজধানীসহ সারা দেশের বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহ এরই মধ্যে ঈদের জামাতের জন্য পূর্ণ প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। রাজধানী ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে এবার সাড়ে ৫ শতাধিক স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ৫৪টি ওয়ার্ডে মোট ২৭০টি স্থানে ঈদ জামাতের জন্য প্যান্ডেলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৫৭টি ওয়ার্ডে ২৮৫টি স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এর বাইরে মসজিদ, মাদ্রাসায়ও ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, রাজধানীতে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত জাতীয় ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। এখানে রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিসভার সদস্য, কূটনৈতিকসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা নামাজ আদায় করবেন। এখানে ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিকল্প ইমাম হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মিরপুর জামেয়া আরাবিয়ার শায়খুল হাদিস মাওলানা সৈয়দ ওয়াহীদুযযামান। আর আবহাওয়া অনুকূলে না থাকলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে সকাল ৯টায় প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ডিএসসিসি এরই মধ্যে জাতীয় ঈদগাহে লাখো মুসল্লির জন্য ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। ঈদগাহের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন শেষে সোমবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানান, জাতীয় ঈদগাহে নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিরা জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া কোনো কিছু সঙ্গে আনতে পারবেন না। জাতীয় ঈদগাহে প্রবেশ করার আগে প্রত্যেক মুসল্লিকে তিন ধাপে তল্লাশি করা হবে। বায়তুল মোকাররমে পাঁচ জামাত বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টায়, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টায়, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টায় এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত বেলা পৌনে ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম ও দ্বিতীয় জামাতে ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী ও হাফেজ মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম। তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম তথা শেষ জামাতে ইমামতি করবেন যথাক্রমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মাওলানা মুশতাক আহমাদ, মুহাদ্দিস মুফতি মাওলানা ওয়ালীয়ূর রহমান খান এবং সহকারী পরিচালক মাওলানা জুবাইর আহাম্মদ আল আযহারী। সংসদ ভবনের জামাত সকাল ৮টায় বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। এতে মন্ত্রিসভার সদস্য, জাতীয় সংসদের হুইপ, সংসদ সদস্য ও সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ এলাকার মুসল্লিরা অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। ঢাবি কেন্দ্রীয় মসজিদে দুটি জামাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় মসজিদে ঈদুল ফিতরের দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টায় প্রথম জামাত ও সকাল ৯টায় দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের প্রধান গেটসংলগ্ন মাঠ এবং শহীদুল্লাহ হলের প্রধান গেটসংলগ্ন মাঠে সকাল ৮টায়, বাংলাদেশ জমঈয়তে আহলে হাদীসের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ৭টায় ঢাবি খেলার মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বুয়েট খেলার মাঠে জামাত পৌনে ৮টায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত সকাল পৌনে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া অনুকূলে না থাকলে ওই জামাত বুয়েট কেন্দ্রীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। মসজিদ মিশনের কেন্দ্রীয় মসজিদ কাঁটাবনে ঈদুল ফিতরের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টায়, দ্বিতীয়টি পৌনে ৮টায় এবং তৃতীয়টি হবে সকাল সাড়ে ৮টায়। এছাড়া সায়েদাবাদ চিশতিয়া সাইদিয়া দরবার শরিফ জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, নয়াপল্টন জামে মসজিদে (২৬ নয়া পল্টন) সকাল ৮টায়, ইসলামবাগ ঈদগাহ ময়দান (প্রথম জামাত) ও হাজারীবাগ পার্ক মাঠে সকাল ৭টায়। সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদ জামাত হবে- সায়েদাবাদ আরজুশাহ দরবার শরীফ বড় মসজিদ (প্রথম জামাত), শনিরআখড়া পলাশপুর বায়তুর রহমত জামে মসজিদ (প্রথম জামাত), মানিকনগর পুকুরপাড় জামে মসজিদ, দক্ষিণ মুগদা ব্যাংক কলোনি রসূলবাগ জামে মসজিদ, মিরপুর-১১ নম্বর সেকশনের মসজিদে বায়তুল ফালাহ, মিরপুর-১২ নম্বর সেকশনের হারুন মোল্লা ঈদগাহ পার্ক ও খেলার মাঠ এবং কামরাঙ্গীরচর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে। উত্তর-পূর্ব মুগদা মদিনাবাগ কেন্দ্রীয় শাহী জামে মসজিদ, হাজারীবাগ ভাগলপুর শাহমস্তান জামে মসজিদে ঈদ জামাত হবে সকাল পৌনে ৮টায়। সকাল ৮টায় ঈদ জামাত হবে গুলশান সেন্ট্রাল মসজিদ ও ঈদগাহ ময়দান (প্রথম জামাত), বনশ্রী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ (প্রথম জামাত), লালবাগ শাহী মসজিদ, ধূপখোলার ইস্ট অ্যান্ড ক্লাব ময়দান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ, ধানমন্ডি ঈদগাহ জামে মসজিদ, দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী মসজিদে নূর ও খানকায়ে মোহাম্মদীয়া (প্রথম জামাত), ইসলামবাগ ঈদগাহ ময়দান (দ্বিতীয় জামাত), নয়াপল্টন জামে মসজিদ, টিকাটুলির ব্রাদার্স ইউনিয়ন খেলার মাঠ, মিরপুর ৯নং ওয়ার্ড শহীদ বুদ্ধিজীবী ঈদগাহ মাঠ, মোহাম্মদপুর বায়তুল ফালাহ জামে মসজিদ, খিলগাঁও সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠ (প্রথম জামাত), হাজারীবাগ পার্ক মাঠ (দ্বিতীয় জামাত), খিলক্ষেত কুর্মিটোলা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠ, মগবাজার টিঅ্যান্ডটি কলোনি জামে মসজিদ, উত্তরা ৫নং সেক্টর সংলগ্ন ইসলামিক এডুকেশন সোসাইটি মসজিদে। সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদ জামাত হবে নারিন্দা মুশুরীখোলা শাহ সাহেববাড়ী জামে মসজিদ, ফার্মগেটের বায়তুশ শরফ জামে মসজিদ, বনানী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, নীলক্ষেত বাবুপুরা শাহ সাহেব বাড়ি মরিয়ম বিবি শাহী মসজিদ (প্রথম জামাত), দক্ষিণ মুগদা ব্যাংক কলোনি রসূলবাগ জামে মসজিদ (দ্বিতীয় জামাত), খিলক্ষেত কুর্মিটোলা হাইস্কুল ঈদগাহ (দ্বিতীয় জামাত), মিরপুর বায়তুল ফালাহ মসজিদ (দ্বিতীয় জামাত), মিরপুরের দারুস সালাম ফুরফুরা দরবার শরীফের মারকাজে ইশা’আতে ইসলাম জামে মসজিদ, রূপনগর আরামবাগ ঈদগাহ ময়দান, মিরপুর বঙ্গবন্ধু শিশু উদ্যান, মোহাম্মদপুর শেখেরটেক ৩নং রোডস্থ মসজিদ আত তাকওয়া, বছিলা রোডস্থ হাজী লাট মিয়া ঘাট জামে মসজিদ, কামরাঙ্গীচর কেন্দ্রীয় ঈদগাহে দ্বিতীয় জামাত, বসুগাও মীর বাড়ি ঈদগাহ ময়দানে ঈদের দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। রাজধানীতে ঈদুল ফিতরের সর্বশেষ জামাত অনুষ্ঠিত হবে বেলা ১১টা ৩৫ মিনিটে চ্যানেল আই জামে মসজিদে।
ঈদ আনন্দ,নিরাপত্তা দিতে ব্যস্ত পুলিশ
৪ জুন২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: শুরু হয়ে গেছে ঈদ আনন্দ। ঈদের ছুটিতে প্রিয় মানুষকে কাছে পেয়ে আনন্দে মাতোয়ারা সবাই। এমন আনন্দ এখন ঘরে ঘরে হলেও কিছু মানুষের নেই কোনো ফুরসত। মেলে না ছুটি। উৎসব আনন্দে শামিল হতে পারেন না তারা। পেশাগত দায়িত্ব পালনেই তৎপর থাকতে হয়।ঘরমুখো মানুষের যাতায়াতে, রাস্তাঘাটে, ঈদগাহে, ঘরবাড়ি, ব্যাংক-বীমা আর বিনোদন কেন্দ্রে নিরাপত্তা দিতে বরাবরের মতো এবারো ঈদ-উল-ফিতরে ব্যস্ত রয়েছেন পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা। দায়িত্ব পালনে ব্যস্ত থাকা এসব মানুষ বলছেন, পরিবার-পরিজনের জন্য সবারই মন কাঁদে। আমাদেরও কাঁদে। তবে এই ভেবে ভালো লাগে যে, বৃহত্তর মানব গোষ্ঠী ও দেশের জন্য কাজ করতে গিয়ে আনন্দ ত্যাগ করতে পেরেছি।ঈদের সরকারি ছুটিতে অফিস আদালত যখন বন্ধ, তখন পুরোপুরিই খোলা রয়েছে থানা-ফাঁড়ি, তদন্ত কেন্দ্র, সচল রয়েছে পুলিশের সব অফিস। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট, ময়মনসিংহ ও খুলনার মতো বড় শহরে মানুষের ফাঁকা ঘর-বাড়ির নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জও মোকাবিলা করতে হচ্ছে তাদের। হঠাৎ নিরাপত্তা সমস্যা যাতে না হয় সেজন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হচ্ছে পুলিশকে। ব্যারাক এবং অস্থায়ী আবাসে ঈদ কাটছে বলে কোনো দুঃখ নেই তাদের। বাবা-মা, ভাই-বোন, স্ত্রী, ছেলে-মেয়ে রয়েছে অনেক দূরে। মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য তারা কাজ করে যাচ্ছেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর