বৃহস্পতিবার, জুলাই ৯, ২০২০
কূটনীতিকদের পররাষ্ট্র মন্ত্রী, বাংলাদেশে মিডিয়া সম্পূর্ণ স্বাধীন
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশে মিডিয়া পুরোপুরি স্বাধীনতা ভোগ করছে এবং দেশের মানুষ মুক্তভাবে তাদের মতামত প্রকাশ করতে পারছে বলে দাবি করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপের ১০ দূতের সঙ্গে বুধবার এক ভিডিও কনফারেন্সে মন্ত্রী মোমেন এ দাবি করেন। বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে ইইউ দূতরা গণমাধ্যমের স্বাধীনতার প্রসঙ্গটি উত্থাপন করেন এবং এ নিয়ে আলোচনা করেন। মন্ত্রী মুক্তভাবে মানুষের মত প্রকাশের অধিকার এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা যে গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রদূতদের এমন বক্তব্যের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন। তবে তিনি এটাও বলেন, বাংলাদেশে ৩৩টি প্রাইভেট টেলিভিশন নেটওয়ার্ক রয়েছে, শত শত দৈনিক পত্রিকা বের হচ্ছে। পাশাপাশি অনলাইন সার্ভিসগুলো তথ্য প্রবাহ নয়, রীতিমত তথ্যের বন্যা বয়ে দিচ্ছে। এমনটি দুনিয়ার বহু দেশ তো নয়ই, এমনকি ইউরোপেও নেই। মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার সঙ্গে অবশ্যই দায়িত্ববোধ থাকতে হবে। তা না হলে সমাজে অরাজকতা তৈরি হবে। উদাহরণ দিয়ে ইউরোপের দূতদের তিনি বলেন, মুক্ত ইচ্ছার নামে প্রকাশ্যে অস্ত্র উচিয়ে শপিং মলে কিংবা স্কুলে ঢুকে কাউকে হত্যা করতে দেয়া যেমন গ্রহণযোগ্য নয়, তেমনি মিথ্যা বা বানোয়াট খবর পরিবেশন করে মানুষকে উত্তেজিত করতেও দেয়া যায় না। মন্ত্রী আরো বলেন, গণতান্ত্রিক সমাজে সুশাসন নিশ্চিতে মুক্ত সংবাদ মাধ্যমকে একটি গুরুত্বপূর্ণ টুলস হিসাবে সরকার বিবেচনা করে সব সময়। ভার্চুয়াল ওই বৈঠকে ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ড, নরওয়ে, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ডেলিগেশন প্রধান অংশ নেন। ইইউ'র ফান্ড ব্যবহারে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা চায় ঢাকা এদিকে ওই বৈঠকে মন্ত্রী ড. মোমেন করোনা পরিস্থিতি ছাড়াও রোহিঙ্গা ইস্যু, বাক স্বাধীনতাসহ গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ে রাষ্ট্রদূতের জিজ্ঞাসার জবাব দেন। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৩ হাজার ১০০ কোটি টাকা প্রদানের ঘোষণায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতৃত্বের প্রতি কৃতজ্ঞা প্রকাশ করেন তিনি। একই সঙ্গে ওই ফাণ্ডসহ উন্নয়ন অংশীদারদের ব্যবহৃত সমুদয় এইড বা ত্রাণ কার্যক্রমের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার তাগিদ দেন। বলেন, এ জন্য কোথায় কত টাকা ব্যয় হচ্ছে তা প্রকাশ করা উচিত। এতে দাতা দেশগুলোর কর দাতারাও জানতে পারবে তাদের দেয়া অর্থ কোথায় কীভাবে খরচ করা হচ্ছে। রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ, ওদিকে সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মন্ত্রী ও দূতদের মধ্যে ভিডিও কনফারেন্সের আলোচনায় কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জন্য ফোর-জি নেটওয়ার্ক চালুর প্রসঙ্গ আসে। এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, এটি বন্ধ করা হয়েছে নিরাপত্তার জন্য। যাতে করে মাদক চোরাচালান, নারী ও শিশু পাচারসহ অন্যান্য অপকর্ম রোধ করা যায়। ওই ক্যাম্পে টু-জি নেটওয়ার্ক আছে যার মাধ্যমে রোহিঙ্গারা কথা বলতে পারে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনার ব্যাপক বিস্তার রোধে সরকার সচেষ্ট রয়েছে জানিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রী বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের ১১ লাখ নাগরিকদের অস্থায়ী আশ্রয়ের ৩ বছরে একজনকেও ফেরানো সম্ভব না হওয়ায় চরম হতাশা ব্যক্ত করেন। একই সঙ্গে তিনি ঝুলে যাওয়া প্রত্যাবাসনে প্রক্রিয়ায় গতি আনতে ইউরোপের সক্রিয় সহায়তা কামনা করেন।
লকডাউনে বাইরে যাওয়ার প্রয়োজনে লাগবে,মুভমেন্ট পাস
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা পরিস্থিতিতে কার্যত লকডাউন চলছে সারাদেশে। আর এই লকডাউনে জরুরি প্রয়োজনে মানুষের চলাফেরায় বাধা ও হয়রানি বন্ধে মুভমেন্ট পাস চালুর উদ্যেগ নিয়েছে পুলিশ। পুলিশের আইসিটি বিভাগের তত্ত্বাবধানে এই পাস দেওয়ার কার্যক্রম দ্রুত সময়ের মধ্যে চালু হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। লকডাউনে যাদের একান্তই বাইরে যাওয়া প্রয়োজন ও জরুরি পণ্য পরিবহন, সেবাদানে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি, ব্যবসায়ী ও চাকরিজীবীদের যাচাই-বাছাই করে দেয়া হবে এই পাস। এই পাসধারী ব্যক্তি নির্বিঘ্নে সড়কে চলাচল করতে পারবেন। কোথাও পুলিশি বাধার সন্মুখিন বা অন্যকোনো হয়রানির শিকার হলে এই পাস দেখালে পুলিশ ছেড়ে দিবে। পুলিশ সদরদপ্তরসূত্রে জানা গেছে, মুভমেন্ট পাস সেবাটি এখনও চালু হয়নি। শুধুমাত্র movementpass.police.gov.bd নামে একটি ওয়েবসাইট চালু হয়েছে। এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ওষুধ, চিকিৎসা, কৃষি পণ্য পরিবহন, চাকরিসহ ১৪টি ক্যাটাগরিতে এই পাস দেওয়া হবে। প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদানের পর শর্ত সাপেক্ষে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য অনুমতি দেওয়া হবে। প্রতিবার যাতায়াতের জন্য পাস নিতে হবে। একটি পাস একবার ব্যবহারযোগ্য। যাওয়া এবং আসার জন্য দুটি আলাদা পাসের আবেদন করতে হবে। মুভমেন্ট পাসের জন্য আবেদন করতে হলে নাম, মোবাইল নম্বর, যাত্রা শুরুর স্থান, গন্তব্য, জাতীয় পরিচয় পত্র, জন্মনিবন্ধন, স্টুডেন্ট আইডি বা ড্রাইভিং লাইসেন্স, যাত্রার কারণ ইত্যাদি তথ্য পূরণ করার পর পুলিশ অনলাইনে একটি পাস ইস্যু করবে। অনলাইনে ইস্যু করা পাসটিতে যাতায়াতের যাবতীয় তথ্য থাকবে। একইসঙ্গে একটি কিউআর কোড স্ক্যানার থাকবে, যা স্ক্যান করে বিভিন্ন চেকপোস্টে দায়িত্ব পালনকারী পুলিশ সদস্যরা সহজেই অনুমতিপ্রাপ্ত ব্যক্তির যাতায়াত নিশ্চিত করতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে মুদি দোকানে কেনাকাটা, কাঁচা বাজার, ঔষধপত্র, চিকিৎসা, চাকরি, কৃষিকাজ, পণ্য পরিবহন ও সরবরাহ, ত্রাণ বিতরণ, পাইকারি/খুচরা ক্রয় পর্যটন, মৃতদেহ দাফন বা সৎকার, ব্যবসা ও অন্যান্য ক্যাটাগরিতে এই পাস দেয়া হবে। যাদের বাইরে চলাফেরা প্রয়োজন কিন্তু তারা কোনো ক্যাটাগরিতেই পড়েন না, তাদের অন্যান্য ক্যাটাগরিতে পাস দেয়ার বিষয়ে বিবেচনা করা হবে। পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, লকডাউন পরিস্থিতিতে যারা জরুরি প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হবেন তারা যেন কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হন, সেজন্যই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তবে সেবাটি এখনও চালু হয়নি প্রক্রিয়াধীন আছে। শুধুমাত্র পুলিশের ইউনিট প্রধানরা সেবাটি নিয়ে পরীক্ষামূলক কাজ করছেন। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে এটা চালু করা হবে।
চট্টগ্রামে করোনায় প্রাণ গেল আরও এক পুলিশ সদস্যের
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা আক্রান্ত হয়ে জীবন দিলেন আরও এক পুলিশ সদস্য। করোনা প্রতিরোধের এ সম্মুখযোদ্ধা হলেন কনস্টেবল মোঃ মোখলেছুর রহমান। তিনি চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অধীন সদর কোর্টে কর্মরত ছিলেন। তার বাড়ি চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি থানার টামটা গ্রামে। তিনি স্ত্রী, তিন কন্যা ও এক পুত্রসহ বহু আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। মোখলেছুর রহমানের মৃত্যুতে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তার মরদেহ জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, এ নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশের ১০ জন সদস্য করোনা যুদ্ধে মৃত্যুবরণ করেন।
অসাবধানতায় করোনায় মৃত্যুর হার বেড়ে চলছে: সেতুমন্ত্রী
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: অসাবধানতা ও অসচেতনতার জন্য কিছুদিন ধরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে চলছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার আবারও বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা, বেড়িবাঁধ মেরামতসহ সার্বিক পুনর্বাসনে ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষ করোনার পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতির শিকার। এ ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় দুটো চ্যালেঞ্জ অতিক্রমে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আহবান জানানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, কিছুদিন ধরে অসাবধানতা, সচেতনতার জন্য করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে চলছে। অহেতুক যেখানে সেখানে জনসমাগম করে জেনেশুনেই সংক্রমণ ও মৃত্যুকে ডেকে আনা হচ্ছে। সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ঝড়ের আগে বিভিন্ন জেলা প্রশাসন, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এবং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা প্রায় ২৪ লাখ মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে নিরাপদে নিয়ে এসেছে।
পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২৫ কোটি টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের পৌরসভার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধের জন্য ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার ( ২১ মে) প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে এটা বরাদ্দ দেয়া হয়। দেশের ৩২৮টি পৌরসভার ১২ হাজার ৫শত ১৯ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে নিয়োগকৃত আরও ২০ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী এ সুবিধার আওতায় আসবেন। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় গত ২৬ মার্চ থেকে দেশে সরকারি/বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সাধারণ ছুটি চলছে। নানা প্রতিকূলতার মধ্যে ৩২৮টি পৌরসভা তাদের সীমিত সম্পদ নিয়ে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় নানা চ্যালেঞ্জ নিয়ে পৌর এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন পানি সরবরাহ, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, বিদেশ প্রত্যাগতদের কোয়ারেন্টাইন ও জনসাধারণের সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ, জীবাণুনাশক স্প্রেকরণ, মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন, কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণে পৌর কর্মচারীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়া করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের পাশাপাশি বর্তমানে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে এডিস মশা দমনে তারা সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। জানা গেছে, বর্তমানে পৌরসভার রাজস্ব আদায় সন্তোষজনক পর্যায়ে না থাকায় অধিকাংশ পৌরসভার বেতনভাতা বকেয়া ছিল। করোনা পরিস্থিতির কারণে পৌরসভার নিয়মিত রাজস্ব আদায়ের খাত হোল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স, হাট-বাজারের ইজারা প্রদান দোকানভাড়াসহ যাবতীয় রাজস্ব আয় প্রায় দুইমাস যাবত বন্ধ রয়েছে। এছাড়াও জরুরি সেবা প্রদানের জন্য ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে এতে প্রায় সব পৌরসভার কর্মকর্তা/কর্মচারীদের বেতন ভাতা প্রদান দুরূহ হয়ে পড়েছে। বেতন না পেয়ে দুই মাস পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মানবেতর জীবন যাপন করেছেন। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি গোচর হলে তিনি ২৫ কোটি অনুদান প্রদান করেন।
বাংলাদেশে করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ ১৭৭৩ জন শনাক্ত, মৃত ২২
২১মে,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৭৭৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২৮৫১১ জনে। এছাড়া একদিনে (গত ২৪ ঘণ্টায়) আরো ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪০৮ জনে। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৯৫ জন। মোট সুস্থ ৫৬০২ জন। বৃহস্পতিবার (২১ মে) দুপুরে করোনা ভাইরাস নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয় সব সরকারি-বেসরকারি অফিস। কয়েক দফা বাড়ানো হয় সেই ছুটি, যা এখনও অব্যাহত আছে। এদিকে, করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকাল পর্যন্ত প্রাণঘাতী নোভেল করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫১ লাখ ৯১২ জন। এই ভাইরাসে মারা গেছে ৩ লাখ ২৯ হাজার ৮৯৬ জন।
করোনায় মারা যাওয়া ৩ সাংবাদিকের পরিবারের পাশে আইজিপি
২০মে,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া তিন সাংবাদিকের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন পুলিশ মহাপরির্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের তিনি দিয়েছেন আর্থিক অনুদান ও ঈদ উপহার। বুধবার দুপুরে পুলিশ সর প্তরে আইজিপির পক্ষ থেকে লাখ টাকার চেক ও উপহার তুলে দেন অতিরিক্ত আইজিপি (চলতি দায়িত্ব) এস এম রুহুল আমিন। গত ২৮ এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান দৈনিক সময়ের আলোর নগর সম্পাদক হুমায়ুন কবির খোকন। পরে ৬ মে একই পত্রিকার সেন্ট্রাল ডেস্কের জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক মাহমুদুল হাকিম অপু ও ৭ মে ভোরের কাগজের অপরাধ বিষয়ক প্রতিবেদক আসলাম রহমান করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তাদের পরিবারকে বুধবার দেওয়া হয় এই সহায়তা। এ সময় ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি আবুল খায়ের, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকু, পুলিশ সদর প্তরের সহকারী মহাপরির্শক (গণমাধ্যম) সোহেল রানা, জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা এ কে এম কামরুল আহসানসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।সমকাল। অনুষ্ঠানে সাংবাদিক আসলাম রহমানের স্ত্রী আইজিপির পক্ষ থেকে দেওয়া চেক গ্রহণ করেন। আর হুমায়ুন কবির খোকন ও মাহমুদুল হাসান অপুর পরিবারের সদস্যরা অসুস্থ থাকায় তাদের পক্ষে চেক নেন ক্র্যাব সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। পুলিশ সদর প্তর জানিয়েছে, সাংবাদিকদের যে কোনো সংকটে পাশে থেকেছে পুলিশ সদর দপ্তর। এরই ধারাবাহিকতায় করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গে মারা যাওয়া তিন সাংবাদিকের পাশে দাঁড়িয়েছেন আইজিপি।
ঘূর্ণিঝড় আম্পান,বাংলাদেশে ৫ জনের মৃত্যু
২০মে,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম:বাংলাদেশ অতিক্রম করছে ঘূর্ণিঝড় আম্পান। এতে এরই মধ্যে ৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মৃতদের মধ্যে দুজন পটুয়াখালীর, দুজন ভোলার এবং একজন সন্দীপের। এদিকে সাতক্ষীরা, মোংলা, হাতিয়ার চরাঞ্চলে দেখা দিয়েছে ৮ থেকে ১০ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস। বাগেরহাটের শরণখোলায় দুই কিলোমিটার বাঁধ ভেঙে গেছে। আম্পানের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি হচ্ছে। সাতক্ষীরায় প্রচণ্ড দমকা হাওয়ার সঙ্গে অশান্ত নদীগুলো। স্বাভাবিকের চেয়ে ৬ থেকে ৭ ফুট বেড়েছে নদীর পানি। সেইসঙ্গে বাধ ভেঙ্গে যাওয়ার উৎকণ্ঠা। এমন পরিস্থিতিতে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের উপকূলীয় অঞ্চলের বাসিন্দারা বালুর বস্তা ফেলে বেড়িবাঁধ রক্ষার চেষ্টা চালান। হুহু করে পানি বাড়ায় সাথে সাথে প্লাবিত হতে থাকে পটুয়াখালীর নিম্নাঞ্চল। মুহূর্তেই জেলার ১৭টি গ্রাম পানিতে তলিয়ে যায়। কলাপাড়া উপজেলার ধানখালি এলাকায় সাইক্লোন শেল্টারে লোকজনকে নিয়ে আসার সময় নৌকা ডুবিতে মারা গেছেন সিপিপির টিম লিডার শাহ আলম। এছাড়া আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার সময় গাছ পড়ে এক শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এদিকে ভোলায় ট্রলারডুবে একজন এবং গাছ পড়ে একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। খুলনা উপকূলে দিনভর ভারী বৃষ্টি সেইসঙ্গে ঝড়ো হাওয়া বইছে। ঘূর্ণিঝড় আম্পান উপকূলের কাছাকাছি আসার সাথে সাথে বাড়তে থাকে তাণ্ডব। কোথাও কোথাও ৭ থেকে ৮ ফুট উঁচুতে জলোচ্ছ্বাস হয়। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ভোলায় টানা ধমকা হাওয়া বইছে। বড় বড় ঢেউ আছরে পড়ে নদীর তীরে। জোয়ারের পানি বেড়ে ২০টি চর প্লাবিত হওয়ায় ২৫ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাগেরহাটের শরণখোলায় বেড়িবাঁধ উপচে পানি প্রবেশ করে লোকালয়ে। নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয় স্থানীয়দের। সন্ধ্যার পরে বরিশালে ঘণ্টায় ৮৩ কিলোমিটার বেগে বইতে থাকে বাতাস। ঘূর্ণিঝড় থেকে বাচতে নিরাপদ আশ্রয় নেন এলাকাবাসী। এসময় বিদ্যুৎ চলে যায় অনেক এলাকায়।
প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করলেন চীনের প্রেসিডেন্ট
২০মে,বুধবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বাংলাদেশে একটি অভিজ্ঞ দল পাঠানোর ইচ্ছা পোষণ করেছে বেইজিং। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বুধবার (২০ মে) বিকেলে টেলিফোনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানিয়েছেন, প্রয়োজনে করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে চীন থেকে অভিজ্ঞ দল পাঠাতে প্রস্তুত চীন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, বুধবার বিকেল ৫টার পর শি জিনপিং ও শেখ হাসিনা টেলিফোনে কথা বলেন। এ সময় দুই শীর্ষ নেতা প্রায় ২৫ মিনিট ধরে নিজেদের মধ্যে কথা বলেন। করোনা ভাইরাসের প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশকে সহায়তার পাশাপাশি অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল করতেও চীন প্রস্তুত রয়েছে বলে শেখ হাসিনাকে জানান শি-জিনপিং৷ মহামারির এই পরিস্থিতিতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামেও চীন বাংলাদেশের জন্য সমর্থন দিয়ে সহায়তা করবে বলেও আশ্বস্ত দেয়া হয় প্রধানমন্ত্রীকে। টেলিফোন সংলাপে দুই নেতা করোনা সামাল দিতে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসের উপর গুরুত্বারোপ করেন। কথোপকথনে শেখ হাসিনা, বিভিন্ন সময়ে করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সুরক্ষা সরঞ্জামসহ চিকিৎসা উপকরণ সরবরাহের জন্য ধন্যবাদ জানান শি জিনপিংকে। এছাড়া বাংলাদেশের সঙ্গে কৌশলগত কূটনৈতিক সম্পর্কের আওতায় আরও কাজ করার বিষয়েও ঐক্যমত্য প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা ও শি-জিনপিং৷

জাতীয় পাতার আরো খবর